Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

মার্তিনেজকে নিয়ে যা বললেন আর্জেন্টাইন কোচ

প্রকাশিত:শনিবার ২১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৪২জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক : কাতার বিশ্বকাপ ও বিশ্বকাপ পরবর্তী নানা বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। ফাইনালের পর সেরা গোলরক্ষকের ট্রফি নিয়ে বিতর্কিত ভঙ্গি ও আর্জেন্টিনায় ফিরে ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পেকে কটাক্ষ করে সমালোনায় পড়েছেন তিনি। এবার তার সেসব আচরণ নিয়ে মুখ খুললেন আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি।

দীর্ঘ ৩৬ বছরের অবসান ঘটিয়ে আর্জেন্টিনাকে তৃতীয় বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করার পেছনে মার্তিনেজ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। তার পারফরম্যান্সের প্রশংসা করেছেন অনেকেই। একই সঙ্গে আলোচনা হয়েছে মার্তিনেসের আচরণ নিয়েও। যদিও স্কালোনি তার সেই আচরণকে ‘শিশুসুলভ’ বলে মন্তব্য করেছেন।

দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসির প্রিয় দিবুর (মার্তিনেজের ডাক নাম) পাশেই অবশ্য স্কালোনি দাঁড়ালেন। তিনি বলেন, ‘মার্তিনেসের আচরণে হয়তো অনেকেই খুশি হবেন না। সে কিন্তু দুর্দান্ত ছেলে। সে অনেকটা বাচ্চাদের মতো। কতটা ভালো ছেলে, সেটা জানলে অবিশ্বাস্য মনে হতে পারে। তাকে ভালো করে চেনা দরকার।’

একটি সাক্ষাৎকারে মেসিদের বস আরও বলেন, ‘মার্তিনেজ এমন একটা আবিষ্কার, যেটা আমাদের প্রচুর আনন্দ দিয়েছে। তার আলাদা ব্যক্তিত্ব রয়েছে। সেই ব্যক্তিত্বও আমাদের অনেক কিছু দিয়েছে। যদিও তার দৃষ্টিভঙ্গি একদম বাচ্চাদের মতো।’

মার্তিনেসের বিতর্কিত আচরণের জন্যই বিশ্বকাপ ফাইনালের পর মূলত আর্জেন্টিনাকে ফিফার তদন্তের সামনে পড়তে হয়েছে। আপত্তিকর আচরণ ও ফেয়ার প্লে বিঘ্নিত করার চেষ্টা ছাড়াও খেলোয়াড়, কর্তাদের খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে বিশ্বকাপ জয়ীদের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ প্রমাণ হলে আর্জেন্টিনাকে কড়া শাস্তি দিতে পারে ফিফা। যার জন্য অনেকটাই দায়ী থাকবেন মার্তিনেজ। তবু দলের এক নম্বর গোলরক্ষকের পাশেই দাঁড়াচ্ছেন স্কালোনি।

এদিকে শুধু ফাইনালে নয়। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষেও কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচের পরেও মেসি, মার্তিনেজদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। এই সব কিছুই রয়েছে ফিফার নজরে। কোয়ার্টার ফাইনাল ও ফাইনালে জয়ের আনন্দে আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি।

ফ্রান্সের ফুটবল সংস্থার সভাপতি সরাসরি চিঠি লিখে অভিযোগ জানিয়েছিলেন আর্জেন্টিনার ফুটবল সংস্থার সভাপতিকেও। মার্তিনেজ অবশ্য কখনই নিজের আচরণের জন্য দুঃখপ্রকাশ করেননি। উল্লেখ্য, মার্তিনেসের পাশে দাঁড়িয়েছে তার ক্লাব অ্যাস্টন ভিলাও।


আরও খবর

আইপিএল শুরুর তারিখ প্রকাশ হলো

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সুন্দরগঞ্জে সরকারি বই বিক্রির সময় বস্তাসহ ভ্যান আটক

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪৪জন দেখেছেন

Image
সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর এফ হক উচ বিদ্যালয়ের স্টাের রুম থেকে সরকারি বিনামুল্যের বিতারণের বই বিক্রিকালে ভ্যানসহ কয়েক বস্তা বই আটক করেছেন স্হানীয় লোকজন।জানা গেছে, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ও অফিস সহকারি মিলে গোপনে   বিভিন শ্রণির কয়েক বস্তা বিনামূল্যের বই বিক্রি করে। বই গুলাে ভ্যান যােগ পাচারের সময় স্হানীয়দের নজরে পরে ও বিষয়টি তাদের সন্দেহ হলে ভ্যানসহ বইগুলা আটক কর পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে কঞ্চিবাড়ী ়ফাঁড়ির দায়িত্বরত পুলিশ অফিসার বই গুলো  আটক করে। তবে এ রিপোট লেখা পযন্ত মামলা দায়ের হয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আঃমোমিন মণ্ডল বলেন, বইগুলো পুলিশ কাষ্টরিতে রয়েছে।তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।

আরও খবর



রাজনীতি থেকে পুরোদমে সরে দাড়াচ্ছেন মিমি চক্রবর্তী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিনিধি:অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিতেও বেশ সরব ওপার বাংলার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে সংসদ সদস্যও হয়েছেন এই অভিনেত্রী। তবে এবার রাজনীতি থেকে পুরোদমে সরে দাড়াচ্ছেন এই নায়িকা। ইতিমধ্যে সংসদ সদস্য (এমপি) পদে থাকতে না চেয়ে পদত্যাগপত্রও জমা দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে পদত্যাগপত্র তুলে দেন মিমি। এ ছাড়া তিনি আর রাজনীতি করতে চান না বলেও জানিয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিধানসভায় মমতা বক্তব্য দেওয়ার সময় তার কক্ষে ঢোকেন মিমি। কিছুক্ষণ পর ওই কক্ষে ঢোকেন তৃণমূলের দুই তারকা বিধায়ক সোহম চক্রবর্তী ও জুন মালিয়া। বক্তব্য শেষ হলে নিজের কক্ষে যান মমতা। তারপর তিনি মিমি এবং বাকিদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

বৈঠক থেকে বের হয়ে মিমি জানান, তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতার কাছে এমপি পদ থেকে পদত্যাগপত্র দিয়েছেন। তবে মমতা এখনও সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেননি। পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী পদত্যাগপত্র গ্রহণ করলে তিনি ভারতীয় লোকসভার স্পিকারের কাছে গিয়ে পদত্যাগপত্র দিয়ে আসবেন।

সম্প্রতি সংসদের দুটি স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যপদ থেকে পদত্যাগ করেছে মিমি। সংসদের শিল্পবিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ছিলেন তিনি। ছিলেন কেন্দ্রীয় শক্তি মন্ত্রণালয় এবং নবীন ও পুনর্নবীকরণযোগ্য বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের যৌথ কমিটির সদস্যও। এই দুটি পদ থেকেই তিনি পদত্যাগ করেন।

এরপর জানা যায়, যাদবপুর লোকসভার অধীন নলমুড়ি এবং জিরানগাছা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপারসন পদও ছেড়ে দিয়েছেন মিমি। তারপর থেকেই তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ ঘিরে জল্পনা শুরু হয়।

প্রশ্ন উঠেছে, ২০২৪ সালে যাদবপুর থেকে আবারও কি প্রার্থী হবেন মিমি? নিজের ধারাবাহিক পদত্যাগ প্রসঙ্গে অবশ্য এর আগে তিনি মুখ খোলেননি।

মিমি বলেন, ‘আমার যা বলার ছিল, দিদিকে (মমতা) বলেছি। অনেকে বলছিলেন, আমি পরবর্তী টিকিট পাকা করার জন্য এটা করছি। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, রাজনীতি আমার জন্য নয়।’

এর ব্যাখ্যা দিয়ে অভিনেত্রী বলেন, ‘রাজনীতি করলে আমার মতো মানুষকে গালাগালি দেওয়ার লাইসেন্স পেয়ে যায় লোকে। মিমি চক্রবর্তী যদি খারাপ কিছু করত, সবার আগে শিরোনামে উঠে আসত। আমি জেনে জীবনে কারও কোনো ক্ষতি করিনি। আমি রাজনীতিক নই। কখনও রাজনীতিক হব না। সবসময় আমি মানুষের জন্য কর্মী হিসাবে কাজ করতে চেয়েছি। আমি অন্য দলের কারও বিরুদ্ধেও কখনো খারাপ কথা বলিনি।’

কিছুদিন আগে প্রায় একইভাবে রাজনীতি থেকে কিছুটা ‘দূরত্ব বৃদ্ধি’ করেছিলেন তৃণমূলের আরেক তারকা দেব। তিনিও একের পর এক প্রশাসনিক পদ থেকে পদত্যাগ করছিলেন। নিজের লোকসভা এলাকা ঘাটালের তিনটি প্রশাসনিক পদ— ঘাটাল কলেজ, ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি ও বীরসিংহ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন দেব। যা দেখে জল্পনা শুরু হয়, দেব হয়ত রাজনীতি ছেড়ে দিচ্ছেন।

তবে মমতা এবং তার ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর মত বদলেছেন দেব।


আরও খবর



ইবিতে ফের বিবস্ত্র করে রাতভর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬১জন দেখেছেন

Image
ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ফুলপরী খাতুন নামে এক নারী শিক্ষার্থীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের পর ফের এক নবীন শিক্ষার্থীকে বিবস্ত্র করে রাতভর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও রডদিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের দুই শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। গত বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন শাহ হলের ১৩৬ নং রুমে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগী। 

অভিযুক্তরা হলেন, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের মোহাম্মদ সাগর ও শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের মুদাসসির খান কাফি। তারা সবাই শাখা ছাত্রলীগের কর্মী ও শাখা। 

জানা যায়, গত বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন শাহ হলের ১৩৬ নং কক্ষে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা নবীন শিক্ষার্থীদের পরিচয় নিতে এসে এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীকে বিবস্ত্র হতে বলে। এসময় ওই ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী উলঙ্গ হতে অস্বীকৃত জানালে তার উপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

ভুক্তভোগীর সূত্র মতে নির্যাতনের একপর্যায়ে তাঁকে রড় দিয়ে আঘাত করতে থাকেন অভিযুক্তরা। পরে তাকে জোরপূর্বক বিবস্ত্র করে হাত উপরে উঠিযে টেবিলের উপর দাঁড় করে রাখা হয় ও এভাবে রাত ৪টা পর্যন্ত তাকে নির্যাতন করা হয় বলে সূত্রটি জানান। পরে নাকে খত ও তার বিছানা সামগ্রী কক্ষের বাইরে ফেলে দেওয়ার অভিযোগও তোলেন ওই ভুক্তভোগী।

ঘটনার পরেরদিন দুপুরে জিয়া মোড়ে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী ভুক্তভোগীর কাছে মাফ চাই  অভিযুক্তরা। এসময় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা অভিযুক্তদের চড় থাপ্পড়ও মেরে বিষয়টার মধ্যস্থতা করেন। 

এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর  নবীন শিক্ষার্থী বলেন, 'গত বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটার পরে বৃহস্পতিবার হলের সিনিয়র ভাইয়েরা মিমাংসা করে দেন। তারপর থেকে অভিযুক্তদের হলে আনাগোনা দেখিনি।' 

এদিকে বিষয়টি অস্বীকার করেন অভিযুক্ত মোহাম্মদ সাগর। তিনি বলেন, 'বিবস্ত্র করে নির্যাতনের মতো কোন ঘটনায় ঘটেনি। আমি বুধবার হলের বাহিরে ছিলাম।'এছাড়া মুদাসসির খান কাফি ও উজ্জল হোসেনের সাথে যোগাযোগ সম্ভব হয়নি। 

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহমেদ জয় বলেন, 'লালন শাহ হলে এরকম কোন ঘটনা ঘটেছে বলে আমার জানা নেই।  প্রক্টর বরাবর কেউ অভিযোগ করেছে কিনা জানিনা। ছাত্রলীগের কেউ এর সাথে জড়িত না বলে জানান তিনি। যদি এমনটাই ঘটে তাহলে বিষয়টা ব্যক্তিগত। '

লালন শাহ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড.  আকতার হোসেন বলেন, 'আমি খোঁজখবর নেওয়ার চেষ্টা করছি। অপরাধীরা যদি অভিযোগ দেয় তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদত হোসেন আজাদ বলেন, 'এ বিষয়ে এখনো কোন লিখিত অভিযোগ আসেনি। কিন্তু যদি এমনটা ঘটে থাকে, তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে কঠোর থেকে কঠোরতম শাস্তি পাবে অভিযুক্তরা।'

এ বিষয়ে ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. শেলীনা নাসরিন বলেন, 'বিষয় শুনেছি। র-্যাগিং বিষয়ে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা আছে। অভিযোগ প্রমানিত হলে ছাত্রত্ব চলে যেতে পারে অভিযুক্তদের।'

প্রসঙ্গত, গত বছরের জুন মাসে একই হলের (লালন শাহ হল) একই কক্ষে এক শিক্ষার্থীকে বিবস্ত্র করে র‍্যাগিংয়ের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বিচার চেয়ে প্রক্টরের কাছে লিখিত অভিযোগ দিলেও পরে ভয়ভীতি দেখিয়ে ভুক্তভোগীকে লিখিত অভিযোগটি উঠিয়ে নিতে বাধ্য করা হলে লিখিত অভিযোগ উঠিয়ে নেন তিনি।

এর আগে ১২ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলের গণরুমে ফুলপরি খাতুন নামে এক নবীন ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠে শাখা ছাত্রলীগ নেত্রী ও পরিসংখ্যান বিভাগের সানজিদা চৌধুরী অন্তরা, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের তাবাসসুম ইসলাম, মোয়াবিয়া জাহান, আইন বিভাগের ইসরাত জাহান মীম ও ফাইন আর্টস বিভাগের হালিমা খাতুন উর্মীর বিরুদ্ধে। পরে অভিযোগ প্রমানিত হলে অভিযুক্ত পাঁচজনকে স্থায়ী বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে কয়েল জ্বালানো আগুনে পুড়ে দগ্ধ একই পরিবারের ৬ জন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:-

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে একটি বাড়িতে কয়েল জ্বালাতে গিয়ে আগুনে পুড়ে দগ্ধ হয়েছেন একই পরিবারের ৬ জন।তাদেরকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।বুধবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলার বার্মাশীল বাগপাড়া এলাকার একটি টিনশেড বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।


দগ্ধরা হলেন—সুখী আক্তার (৩২), তার মেয়ে সাদিয়া আক্তার (১০), বোন জান্নাতি আক্তার (১৮), ভাই আরিফ হাওলাদার (২১), ফুপাতো বোন রহিমা আক্তার (৩২) ও রহিমার মেয়ে ঋতু আক্তার (১৩)।স্বজনদের ধারণা—গ্যাস লিকেজ হয়ে ঘর ভর্তি হয়ে ছিল। সেখান থেকে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে।দগ্ধ রহিমা আক্তারের স্বামী জাহাঙ্গির হাওলাদার জানান, বাগপাড়া এলাকার বাসাটির পাশাপাশি সুখীর পরিবার ও তার পরিবার ভাড়া থাকেন। সুখীর স্বামী নূর মোহাম্মদ চাকরি করেন।


১৬-১৭ দিন আগে সুখীর একটি সন্তান হয়। সেই সন্তানকে দেখতে রহিমা ও তার মেয়ে সুখীর বাসায় গিয়েছিলেন। রাতে বাসায় কয়েল ধরাতে গেলে হঠাৎ বিস্ফোরণ হয়ে আগ্নিকাণ্ড ঘটে। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. তরিকুল ইসলাম জানান, তারা ১০ থেকে ৪৫ শতাংশ পর্যন্ত দগ্ধ হয়েছে। একজনকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। বাকিদের বিভিন্ন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



চার লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেলো ডাকাতরা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬১জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি;দিনাজপুরের হিলিতে ইউনাইটেড রাইস মিলের ম্যানেজারসহ তিন জনের হাত পাঁ বেঁধে রেখে লকার ভেঙ্গে চার লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেলো ডাকাতের একটি দল।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে হিলি চুরিপট্টি-বাজার সড়কের মধ্যবাসুদেবপুর এলাকায় এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। দিনাজপুর জেলার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) একটি দল ও হাকিমপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ওই ইউনাইটেড রাইস মিলের সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায় ডাকাতের একটি দল দরজা ভেঙ্গে ঘুরে প্রবেশ করে। এরপর ম্যানেজারে হাত পা বেধে রেখে লকার ভেঙ্গে চার লাখ টাকা লুট করার দৃশ্য। ইতিমধ্যে সিসিটিভির ভিডি ফুটেজটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

রাইস মিলের ম্যানেজার শুকুমার কুমার জানান,আমি মিলের অফিস কক্ষে শুয়ে ছিলাম। ভোর আনুমানিক ৩ টার দিকে কিছু লোক এসে দরজা খুলতে বলে।আমি দরজা না খোলায় ডাকাতের দলটি দরজা ভেঙ্গে অফিসের ভেতরে ঢুকে পড়ে। এরপর আমাকে লকারের চাবি দিতে বলে।আমি চাবি না দেওয়ায় তারা আমাকে মারধর করে।পরে আমার হাত-পা বেঁধে রেখে লকার ভেঙ্গে নগদ ৪ লাখ টাকা,সিসিটিভির হার্ডডিস্ক নিয়ে যায়।হাকিমপুর থানার ওসি দুলাল হোসেন জানান,ডাকাতির ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্ত কাজ চলছে। এখন পর্যন্ত থানায় কোন মামলা দায়ের হয়নি।


আরও খবর