Logo
আজঃ রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কর্মীদের দক্ষ করে বিদেশে পাঠাতে হবে : প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশকে কত বিলিয়ন অনুদান-ঋণ দেবে চীন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী নাসিরনগরে খুনের মামলার বাদীর এখন দিন কাটছে আতংকে মধুপুরে ক্লিনিং স্যাটারডে কার্যক্রম অনুষ্ঠিত এবার কোটা আন্দোলনের পক্ষে কথা বললেন আয়মান সাদিক ভারতে পাচার হওয়া ৫ বাংলাদেশি সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে শিক্ষার্থীরাই হবে আগামী বাংলাদেশের কর্ণধার: ধর্মমন্ত্রী দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ সামন্ত লাল সেন

মার্কিন ভিসা নীতি নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৯৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে যে ভিসানীতি ঘোষণা করেছে, তা অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাওয়াকে আরও জোরালো করেছে। এর ফলে জ্বালাও পোড়াও দলরা আরও সচেতন হবে। এ ভিসা নীতি নিয়ে আমাদের কোনো দুশ্চিন্তা নেই।

কাতার থেকে দেশে ফিরে আজ বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তারা (যুক্তরাষ্ট্র)যে বক্তব্য দিয়েছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীও যেটা চাচ্ছেন। আমাদের অঙ্গীকার সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন করা। এটাকেই তারা সমর্থন দিয়েছে। সুতরাং চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই।

আওয়ামী লীগ সরকার সব সময়ই এ দেশের গণতন্ত্রের ধারক ও বাহক মন্তব্য করে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘এ দেশে গেল ১৪ বছরে আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই একটি গণতন্ত্রের প্রক্রিয়া চলছে। হাজার হাজার নির্বাচন হচ্ছে এবং নির্বাচনের মাধ্যমেই সরকার এসেছে। কিন্তু ২০০৮ সালের আগে যদি দেখেন, যারা ভোটারবিহীন নির্বাচনে জয়লাভ করেছে, তাদের কিন্তু এদেশের মানুষ গদিতে রাখেনি, কয়েকদিন পর ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ সবসময়ই জনগণের ওপর বিশ্বাস রাখে, জনগণের ভোটের মাধ্যমেই তারা ক্ষমতায় আসতে চায়।’

আব্দুল মোমেন আরও বলেন, ‘আমরা একটি স্বচ্ছ নির্বাচন চাই। বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বদ্ধপরিকর। এ জন্য যত ধরনের প্রক্রিয়া দরকার, তা করা হচ্ছে। যাতে কারচুপির ভোট না হয়, সে জন্য ছবিসহ জাতীয় পরিচয়পত্র করা হয়েছে। কেউ কেউ রাতের অন্ধকারে ভোটের কথা বলছে, সে কারণে আমরা স্বচ্ছ ব্যালটবক্স করেছি। আমরা একটি শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন করেছি।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের ওপর বিশ্বাস রাখে এবং জনগণের ভোটের মাধ্যমে সরকারে আসতে চায়। আমরা গণতান্ত্রিক সরকার চাই। আমরা স্বচ্ছ নির্বাচন করে যাব। জ্বালাও-পোড়াও চাই না। আমেরিকা যে নীতি করেছে এতে করে জ্বালাও-পোড়াও দলরা একটু সচেতন হবে। জ্বালাও-পোড়াও ও রাস্তা দখল করে আন্দোলন, এটা কমবে।

তিনি বলেন, ‘দুষ্টু লোকরা দেখেন না জ্বালাও-পোড়াও করে। সম্প্রতি পুলিশকে পিটিয়েছে, বাস জ্বালিয়েছে, এখন তারা একটু সাবধান হবে। আমেরিকা বলেছে, তাদের যে নীতি সরকারি দল বা অন্যদের জন্য যেমন তেমনি অপজিশনের জন্যও। তাদের ওপরও বর্তাবে। তারা ইনশাআল্লাহ সাবধান হবে।


আরও খবর



মধুপুর পৌরসভার উদ্যোগে সাড়ে চার হাজার ডাস্টবিন বিতরণ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৫২জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইলঃ'যত্রতত্র ময়লা না ফেলি, পরিস্কার পরিছন্ন মুক্ত পৌর শহর গড়ি'এ শ্লোগানকে সামনে রেখে টাঙ্গাইলের মধুপুরে পৌরপিতা মো. সিদ্দিক হোসেন খান এর উদ্যোগে এবং পৌর সভার আয়োজনে মধুপুর পৌর শহরকে পরিস্কার পরিছন্ন রাখার লক্ষে শহরের বিভিন্ন স্হানে সাড়ে চার হাজার ডাস্টবিন বিতরণের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।সোমবার (৮ জুলাই) সকালে নগর পরিচালনা অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প আইইউজিআইপি, এলজিইউডি প্রকল্পের আওতায় এবং বাংলাদেশ সরকার।

এডিবি ও এএফডিবিএল এর অর্থায়নে সাড়ে চার হাজার ডাস্টবিন সরবরাহ করা হয়।জনবহুল এলাকার জন্য ১২০ লিটারের ৪০০টি,  বাসাবাড়ির সামনে স্হাপনের জন্য ২০ লিটারের ৪ হাজার টি ডাস্টবিন সরবরাহ করা হয়। পৌরপিতা মো. সিদ্দিক হোসেন খান উক্ত ডাস্টবিন গুলো শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্হানে স্হাপনের লক্ষে বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। ডাস্টবিন বিতরণ কালে তিনি বলেন, বাসাবাড়ির ময়লা আবর্জনা যত্রতত্র না ফেলে বিতরণকৃত ডাস্টবিনে ফেলার পরামর্শ দেন।

পৌরপিতা মধুপুর পৌরশহরকে  আধুনিক ও যুগোপযোগী মডেল পৌর শহর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।তিনি আরও জানান,  প্রতিদিন আমি ফজরের নামাজ শেষ করে শহরের বিভিন্ন সমস্যা দেখার জন্য পায়ে হেটে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করি, তখন যদি কোন স্হানে ময়লা আবর্জনা যত্রতত্র পড়ে থাকতে দেখি তাৎক্ষনিক আমার পরিছন্ন কর্মীদের ফোন দেই এবং ডেকে এনে সেসকল ময়লা আবর্জনা সাথে সাথে অপসারণ করি।যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলায় পরিবেশ দুষণ ও র্দুগন্ধ মুক্ত করার জন্য আমি শহরের বিভিন্ন স্হানে ও বাসাবাড়িতে ডাস্টবিন স্হাপনের সিদ্ধান্ত নেই।

আমাদের সাবেক কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপির সার্বিক সহযোগিতায় তা আজ বাস্তবে পরিনত হয়েছে।  এজন্য তিনি  মধুপুর পৌর বাসীর পক্ষ থেকে ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপিকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র-১ ও ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. জাকিরুল ইসলাম হক ফারুক, প্যানেল  মেয়র -৩ ও সংরক্ষিত আসন ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোছা. মালেকা বেগম, ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারুন অর রশিদ।

নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুজ্জামান তালুকদার, সহকারী প্রকৌশলী প্রদীপ কুমার দেবনাথ, সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা সোনিয়া ইয়াসমিন, পৌর নির্বাহী কর্মকর্তার প্রধান সহকারী মো. শাহীন মিয়া, বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, মধুপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আঃ হামিদ, সাধারণ সম্পাদক বাবুল রানা সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিকস্ মিডিয়ার সাংবাদিক গন এবং পৌরসভার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী ও সুবিধাভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংলাপের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ও ভারত উভয়ের অর্থনৈতিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের পথে যে চ্যালেঞ্জগুলো প্রত্যক্ষ করছে তা দূর করতে। তিনি বলেন, আমরা আমাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে আমরা যে চ্যালেঞ্জগুলো অনুভব করছি সেগুলো আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে পারি।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর শুক্রবার (২১ জুন) সফররত প্রধানমন্ত্রীর নয়াদিল্লির আবাসস্থলে তার সঙ্গে সাক্ষাৎকালে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, দুই দেশে নতুন সরকার গঠনের পর দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে অংশীদারত্বকে এগিয়ে নিতে উভয়ে আলোচনা করেছেন।

মুখ্য সচিব বলেন, দুটি নতুন সরকার (ভারত ও বাংলাদেশে) ক্ষমতায় এসেছে ম্যান্ডেট নিয়ে (জনগণের)। সুতরাং, দুই দেশের নতুন দৃষ্টিভঙ্গি থাকবে।

ড. জয়শঙ্কর বলেন, গত ১০ বছরে বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক এমন উচ্চতায় পৌঁছেছে, এই সম্পর্ককে এখন নতুন অধ্যায়ে নেওয়া যেতে পারে এবং এটি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, ভারত বাংলাদেশের সঙ্গে লজিস্টিক, জ্বালানি ও কানেকটিভিটি খাতে গভীরভাবে কাজ করতে চায়।

আগামী ২৩ জুন আওয়ামী লীগের হীরক জয়ন্তী উদযাপনের জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিমসটেকের (বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি-সেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন) জন্য একটি নতুন ভূমিকা নেওয়ার আহ্বান জানান ড. এস. জয়শঙ্কর। তিনি আশা প্রকাশ করেন, প্রধানমন্ত্রী সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ডে বিমসটেকের পরবর্তী বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উভয় একমত হন, বিমসটেক শক্তিশালী হলে তা অর্থনৈতিক, বাণিজ্য, কানেকটিভিটি এবং ডিজিটালাইজেশনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের জন্য লাভজনক হবে।

মুখ্য সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ এশিয়ার বাইরেও যাওয়ার কথা বলেছেন। তার মানে আমাদের একই সঙ্গে কাজ করার জন্য দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দিকেও তাকাতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে কর ও রাজস্ব সংগ্রহ এবং জনগণকে সেবা প্রদান উন্নয়ন করাসহ ডিজিটাল কর্মসূচির উন্নয়নে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুই প্রতিবেশি দেশের প্রকল্প দ্রুত ও সহজে শেষ করার ওপর জোর দেন এবং এ বিষয়ে উভয়েই একমত হন।

রোহিঙ্গা ইস্যু প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, মিয়ানমার সরকার ও বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে চলমান সংঘাতের কারণে বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব মো. নাঈমুল ইসলাম খান বলেন, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর বলেছেন, প্রয়োজনে বিমসটেকে মিয়ানমারকে বাদ দিয়ে অন্যান্য সদস্যদেশগুলো পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে এগিয়ে যাবে। কারণ মিয়ানমারের কারণে ভারতও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান, বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



এসআই সুমন বলছি, বাঁচতে চাইলে ২০ হাজার টাকা নিয়ে থানায় আয়'

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image
সুন্দরগঞ্জ,(গাইবান্ধা:)প্রতিনিধিঃগাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তির কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে সুমন মিয়া (২৭) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় উপজেলার বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী আশেক আলী।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এমএ আজিজ অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগকারী আশেক আলী উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের পশ্চিম বৈদ্যনাথ গ্রামের গাণ্ডারপাড়ার বাদশা মিয়া ছেলে। পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) পরিচয় দানকারী সুমন মিয়া একই উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের রামভদ্র খানাবাড়ি গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাত ১১ টার দিকে আশেক আলীর বাড়িতে ২ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি আসেন। এসময় আশেক আলীর পিতা বাদশা মিয়া তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা পরিচয় না দিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় তারা একটি মুঠোফোন আশেক আলীর বাড়িতে রেখে যায়।

ঘটনার দুইদিন পর গত শনিবার (২২ জুন) বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) পরিচয়ে আশেক আলীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল করেন সুমন মিয়া। এসময় তাকে নগদ ২০ হাজার টাকা ও ফেলে আসা মোবাইল ফোনটি নিয়ে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সামনে ডাকেন সুমন মিয়া। এমনকি দ্রুত সময়ে দাবীকৃত টাকা ও মোবাইল ফোন না দিলে গ্রেফতার করার হুমকি দেওয়া হয়।

আশেক আলী নিরুপায় হয়ে নগদ ২০ হাজার টাকাসহ মোবাইল ফোনটি নিয়ে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে যায়। এসময় আশেক আলী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দায়িত্বপালনরত উপ-পরিদর্শক (এসআই) জুলিহাসকে পুরো ঘটনাটি অবগত করেন। সেইসাথে অভিযুক্ত সুমনের মোবাইল নম্বরটি তাকে দেন। তিনি তাৎক্ষণিক তদন্ত করে জানতে পারেন সুমন নামের কোনো পুলিশ সদস্য পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে কর্মরত নেই। পরে আশেক আলী ভুয়া পুলিশ পরিচয় দানকারী সুমন মিয়ার বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এমএ আজিজ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে খুব শীঘ্রই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও খবর



মাগুরার মহম্মদপুরে জোড়া খুনের পলাতক দুই আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১৮১জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরার মহম্মদপুরের পানিঘাটা গ্রামে জোড়া ঘুনের দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গত ১৫ জুন তাদের ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী  থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।  মাগুরার মোহাম্মদপুর উপজেলার পানিঘাটা মধ্যপাড়া ঢোক চান্দেরমাঠে পূর্ববিরোধের জের ধরে পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক ৩০ ডিসেম্বর রাত ৯ টার সময় আসামীরা দুই সহদর  সবুজমোল্লা (৩০) ও  হৃদয় মোল্লা (১৭) উভয় পিতা মো: মন্জু মোল্লা সাং- পানিঘাটা মধ্যপাড়া, থানা- মোহাম্মদপুর, জেলা-মাগুরা দ্বয়কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। প্রাথমিক তদন্তে জানাযায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে আসামীরা পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক  সবুজমোল্লা (৩০) ও  হৃদয়মোল্লা (১৭) কে ডাব খাওয়ার কথা বলে ৩০ ডিসেম্বর  রাত্র আনুমানিক ৯ ঘটিকার সময় ঢোকচান্দের মাঠে নিয়েযায়। ভিকটিমদ্বয় তাদের কাংখিত স্থানে পৌছালে আসামীরা অতর্কিতভাবে   আক্রমণ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাইকরে হত্যা করে। 

মামলাটি চাঞ্চল্যকর হওয়ায় মাগুরার পুলিশ সুপার  মো: মশিউদ্দেৌলা রেজা, পিপিএম (বার) পলাতক আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। আসামীরা গ্রেপ্তার এড়ানোর জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করলেও পুলিশ সুপার মহোদয়ের সুনির্দষ্ট নির্দেশনা মোতাবেক জেলা গোয়েন্দা শাখা এবং সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল, মাগুরা গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে মামলার অন্যতম দুইজন পলাতক আসামী  আব্বাস (৩৫),পিতা-মৃত জয়দার মোল্যা,  রজব আলী (৩০), পিতা-নুরুল হক উভয়ের গ্রাম-পানিঘাটা, থানা-মহম্মদপুর, জেলা-মাগুরাদের গত ১৫ জুন রাত ২ টায় ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হবে। উল্লেখ্য যে, ইতোপূর্বে এই মামলার এজাহার নামীয় ৪ জন আসামী গ্রেপ্তার পূর্বক বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে এবং তাদের মধ্যে আসামী আশিক আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছে। সহযোগী অন্যন্য পলাতক আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে জানায় পুলিশ।

আরও খবর



বরগুনায় সেতু ধসে ১০ বরযাত্রী নিহত, আহত অনেক

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১১৩জন দেখেছেন

Image

বরগুনা প্রতিনিধি:সেতু ধসে ১০ বরযাত্রী নিহত হয়েছেন বরগুনার আমতলীতে। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

শনিবার (২২ জুন) দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, দুপুরে হলদিয়া ইউনিয়নের ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ দিয়ে একটি মাইক্রোবাস ও অটোরিকশা পার হওয়ার সময় ব্রিজ ভেঙে খালে পড়ে যায়। এ সময় অটোরিকশার যাত্রীরা বের হয়ে এলেও মাইক্রোবাসের যাত্রীরা বের হতে পারেনি। স্থানীয় লোকজন ও পরবর্তীতে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করে আমতলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছেন।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাখাওয়াত হোসেন তপু জানান, হলদিয়া এলাকায় বৌভাতে যাওয়ার সময় একটি ব্রিজ ভেঙে মাইক্রোবাস খালে পড়ে যায়। এ সময় স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। এখন পর্যন্ত ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এখন পর্যন্ত নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।


আরও খবর