Logo
আজঃ Tuesday ২৬ October ২০২১
শিরোনাম
মনের স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে শরীরও অসুস্থ হয়ে পড়ে

মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে এই ১০ টি কাজ করুন

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ১৫৭জন দেখেছেন
Image


লাইফস্টাইল ডেস্ক:

 

মনের স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে শরীরও অসুস্থ হয়ে পড়ে। সাধারণত আমরা শরীরের অসুখ টের পেলেও নিজের কিংবা অন্যের মনের অসুখ টের পাই না। এ কারণে অনেকেই মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত, নেশাগ্রস্ত কিংবা আত্মহননকারী হয়ে ওঠেন। যা কারও কাম্য নয়।

 

এজন্য ফিট ও সুস্থ থাকতে অবশ্যই মানসিক স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া জরুরি। তবে কর্মব্যস্ত জীবনে অনেকেরই দু’দণ্ড বসে কাটানোর ফুরসত নেই। এ কারণেই মানুষের মধ্যে চাপ ও উদ্বেগ বাড়ছে। দীর্ঘদিন এভাবে থাকতে থাকতে মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটছে।

সম্প্রতি ব্রিটিশ জার্নাল অব সাইকেয়েট্রিতে প্রকাশিত ‘কান্ট্রি পেপার অন মেন্টাল হেলথ-বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদন অনুসারে, দেশের মোট জনসংখ্যার প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ১৮.৭ শতাংশ মানুষ বিভিন্ন ধরনের মানসিক রোগে আক্রান্ত।

প্রতিবেদন অনুসারে, মহামারি করোনার কারণে মানসিক রোগের ব্যাপকতা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন এক পরিস্থিতির মধ্য দিয়েই রোববার (১০ অক্টোবর) বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত হচ্ছে। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য ‘অসম বিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য’।

নিজেকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখার দায়িত্ব কিন্তু আপনারই। তাই মানসিক রোগ যেন বাসা না বাঁধে সেদিকে সময় থাকতে সচেতন হতে হবে। পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখার ১০ উপায় মেনে চলুন-

পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে

ঘুম শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঘুম মস্তিষ্কের রাসায়নিক পদার্থগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। এই রাসায়নিকগুলো আমাদের মেজাজ ও আবেগ পরিচালনা করে।

যদি আমরা পর্যাপ্ত না ঘুমায়, তাহলে মস্তিষ্কে বিভিন্ন অংশ ঠিকমতো কাজ করতে পারে না। ফলে হতাশ ও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়া স্বাভাবিক। তাই পর্যাপ্ত ঘুমের বিকল্প নেই।

পুষ্টিকর খাবার

পুষ্টিকর খাবার শুধু শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়, বরং মনের জন্যও উপকারী। কিছু খনিজ যেমন- আয়রন ও ভিটামিন বি ১২ এর ঘাটতি মেজাজ পরিবর্তনের জন্য দায়ী। তাই সুষম খাবার খাওয়া জরুরি। আপনি যদি খিটখিটে মেজাজ, হতাশা বা উদ্বিগ্নতায় ভোগেন তাহলে কফি খাওয়া কমিয়ে আনুন।

অ্যালকোহল, ধূমপান ও মাদক পরিহার

অনেকেই হতাশ হয়ে ধূমপান ও মাদকের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েন। তবে জানেন কি, এগুলো হতাশা কাটায় না বরং শরীর ও মনে বিরূপ প্রভাব ফেলে। দীর্ঘ সময় ধরে অতিরিক্ত মদ্যপানে শরীরে থায়ামিনের ঘাটতি হতে পারে। থায়ামিন মস্তিষ্কের কার্যকারিতার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এর ঘাটতি দেখা দিলে স্মৃতি বিভ্রাট, মনোযোগের অভাব, বিভ্রান্তি ও চোখের সমস্যা হতে পারে। আবার যদি আপনি ধূমপান করেন, এতে থাকা নিকোটিন শরীর ও মস্তিষ্ক উভয়েরই ক্ষতি করে। পরবর্তীতে ধূমপান বন্ধ করলে আপনি আরও বিরক্ত ও উদ্বিগ্ন হয়ে উঠতে পারেন। তাই মাদকমুক্ত জীবন গড়ুন।

সূর্যের আলো গায়ে মাখুন

সূর্যালোক ভিটামিন ডি এর একটি বড় উৎস। ভিটামিন ডি শরীর ও মস্তিষ্কের খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি মস্তিষ্কের ক্ষতিকর পদার্থ দূর করে। ফলে মেজাজ আরও উন্নত হয়। কারণ অ্যান্ডোরফিন ও সেরোটোনিন এর উৎপাদন বেড়ে যায়। তবে রোদে গেলে ত্বক ও চোখকে নিরাপদ রাখুন।

প্রতিদিন অন্তত আধা ঘণ্টা থেকে ২ ঘণ্টা গায়ে সূর্যের আলো মাখুন। শীতের সময় অনেকেই হতাশ হয়ে পড়েন। কারণ তখন সূর্যের দেখা কম পাওয়া যায়। এটি সিজনাল অ্যাফেকটিভ ডিসঅর্ডার (এসএডি) নামে পরিচিত। তাই পর্যাপ্ত সূর্যের আলো গায়ে মাখুন, এতে মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটবে।

দুশ্চিন্তা দূরে রাখুন

 

সবার জীবনেই কাজের চাপ আছে। তাই বলে এ নিয়ে বেশি দুশ্চিন্তা করা উচিত নয়। এ সমস্যা সমাধানে আপনাকে জানতে হবে কীভাবে আপনি চাপ সামলাবেন। যদি না পারেন তাহলে মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়বেন।

এজন্য দৈনন্দিন জীবনের কোনো না কোনো সমস্যার তালিকা তৈরি করুন। এরপর তা সমাধানের উপায় খুঁজুন। অযথা অলীক কল্পনায় ডুবে থাকবেন না। যখন দেখবেন আপনার ঘুমাতে সমস্যা হচ্ছে, তার অর্থ হলো আপনি বেশি দুশ্চিন্তা করছেন!

 

শরীরচর্চা আবশ্যক

 

মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে অবশ্যই আপনাকে নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে। কারণ যত বেশি সক্রিয় থাকবেন, মস্তিষ্কের রাসায়নিক পদার্থগুলোও বেড়ে যায়। যা মেজাজ ভালো রাখতে সহায়তা করে। অন্যদিকে শরীরচর্চার অভাবে মেজাজ খারাপ হতে পারে।

পাশাপাশি উদ্বেগ, চাপ, ক্লান্তি ও অলসতা বোধ করতে পারেন। তাই শরীর ও মন দু’টোই ভালো রাখতে নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। ম্যারাথন দৌড় বা ফুটবল খেলার প্রয়োজন নেই, আপনি নিয়মিত হাঁটাহাঁটি ও কায়িক পরিশ্রম করেও সুস্থ থাকতে পারবেন।

যা ভালো লাগে, তা-ই করুন

আপনার যা ভালো লাগবে বা করতে ইচ্ছে করবে তা-ই করুন। আপনার যদি ঘুরতে যেতে, শপিং করতে কিংবা ছবি আঁকতে ভালো লাগে তাহলে তা-ই করুন। আপনি যা উপভোগ করেন সেই কাজগুলো যখন করবেন তখন মনও ভালো থাকবে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, যারা অন্যের বাধ্যগত হয়ে নিজের খুশিকে দমিয়ে রাখেন, তাদের মধ্যে খিটখিটে মেজাজ ও অসুখী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি দেখা যায়। তাই নিজের ভালো লাগাকে প্রাধান্য দিন।

মিশুক হওয়ার চেষ্টা করুন

অন্যদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার চেষ্টা করুন। যখনই সুযোগ পাবেন মানুষের সঙ্গে কথা বলুন। গবেষণায় দেখা গেছে, অন্যদের সঙ্গে মাত্র ১০ মিনিট কথা বলা স্মৃতিশক্তি ও পরীক্ষার স্কোর উন্নত করতে পারে! তাই মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ান ও মিশুক হওয়ার চেষ্টা করুন।

অন্যের জন্য কিছু করুন

কাউকে সাহায্য করলে নিজের মধ্যেও অন্যরকম ভালো লাগার অনুভূতি কাজ করে। তাই অন্যের জন্য কিছু করার চেষ্টা করুন। কোনো দরিদ্রকে খাবার বা পোশাক কিনে দিন কিংবা সামান্য অর্থ দিয়ে সাহায্য করুন। দেখবেন আপনার মন ভালো হয়ে যাবে।

তখন নির্দিষ্ট কোনো বিষয় নিয়ে হতাশ না হয়ে বরং বিশ্ব সম্পর্কে ধারণা তৈরি হবে। নিজেকে অসহায় ভাবার আগে না খেয়ে থাকা মুখগুলোর ছবি ভাসবে মনে। ফলে অন্যের জন্য কিছু করার স্পৃহা জন্মাবে। এর মাধ্যমে জীবনে এগিয়ে যাওয়ার উৎসাহ পাবেন।

সাহায্য নিন

আপনি যদি মানসিকভাবে অসুস্থ বোধ করেন তাহলে অন্যের সাহায্য নিন। মুখ বুজে থাকবেন না। নিজের অসুবিধার কথা সবার সঙ্গে শেয়ার করুন। কারণ অত্যাধিক মানসিক চাপে আপনি বিকারগ্রস্তও হয়ে পড়তে পারেন। অনেকেই মনে করেন, মন ভালো নেই এ বিষয়ে কাউকে জানালে সে পাগল বলবে!

এ ধারণা থেকে সরে আসুন। মানুষের শরীর যেমন সবদিন ভালো যায় না, ঠিক তেমনই মনও সব সময় ভালো থাকে না। তাই মানসিকভাবে চাপ অনুভব করলে কাউন্সিলিং করুন বা মনোবিদের সাহায্য নিন। তার আগে পরিবারের সঙ্গে শেয়ার করুন।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



হাজীগঞ্জে শিশু ধর্ষণ-মৃত্যুর ঘটনাটি গুজব

হাজীগঞ্জে শিশু ধর্ষণ-মৃত্যুর ঘটনাটি গুজব বলে জানিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ

প্রকাশিত:Saturday ১৬ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ১২৮জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


  

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সনাতন সম্প্রদায়ের ১০ বছরের এক শিশুকে নিয়ে ছড়ানো খবরটি ‘অসত্য ও গুজব’ বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, কুচক্রী মহল একটি সাম্প্রদায়িক ইস্যু বানিয়ে গুজব রটাচ্ছে।

 

শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল থেকে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে এ মর্মে খবর ছড়ানো হয় যে, ‘ধর্ষণের শিকার সনাতন সম্প্রদায়ের ১০ বছরের ওই শিশু মারা গেছে’। এমনকি শিশুটির সঙ্গে তার ‘মাসি (খালা) ও বোনও ধর্ষণের শিকার হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে’ বলে কোনো কোনো পোস্টে দাবি করা হয়।

 

এ খবরকে নাকচ করে দিয়ে হাজীগঞ্জ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বণিক এক ভিডিওবার্তায় বলেন, ‘কতিপয় কুচক্রী মহল হাজীগঞ্জে নারী ও শিশুর শ্লীলতাহানি ঘটেছে বলে এক ধরনের গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছে। তবে এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ, জাতীয় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বা বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের কোনো নেতৃবৃন্দ অবগত নয়। অতএব সংশ্লিষ্ট সবাইকে এ ধরনের গুজব পরিহার করার জন্য অনুরোধ করছি।

 

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হারুনুর রশিদ বলেন, ‘এ বিষয়ে থানায় এখনো কোনো অভিযোগ আসেনি। যতটুকু জেনেছি এ ধরনের কোনো ঘটনা হাজীগঞ্জ ঘটেনি। বিষয়টি গুজব।

 

চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, ‘বিষয়টি সম্পূর্ণ গুজব। ইতোমধ্যে উপজেলার সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং নেতারা নিশ্চিত করেছেন।যারা এই ধরনের গুজব ছড়ানোর অপচেষ্টা করছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে হুঁশিয়ারি দিয়ে জেলা প্রশাসক জনসাধারণের উদ্দেশে বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি শান্তিপ্রিয় দেশ। এখানে কেউ বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করবেন না এবং একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে দেশের শৃঙ্খলা রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। কেউই গুজবে কান দেবেন না। কোনো কিছু শুনলে আগে তার সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করুন।

 

খবর প্রতিদিন / সি.বা


আরও খবর



মাগুরা সদরে ‘আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে চারজন নিহত

মাগুরায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

প্রকাশিত:Friday ১৫ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ৩২৭জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


ডেস্ক এডিটর : 

মাগুরা সদরে ‘আধিপত্য বিস্তার নিয়ে  দুই পক্ষের সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে অন্তত ৫০ জন।  জগদল ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়ায় শুক্রবার বেলা ৩টার দিকে সংঘর্ষ শুরু হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

 

তিনি জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত চারজনের মরদেহ মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। হাসপাতালের নিরাপত্তায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। কোনো রোগীর স্বজনকে এখন হাসপাতালে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

 

নিহতরা হলেন রহমান মোল্লা, মো. কবির, মো. অসিয়াত ও মো. ইমরান। তাদের সবার বাড়ি জগদলের দক্ষিণ পাড়ায়।

 

স্থানীয় লোকজন জানান, ১১ নভেম্বর জগদল ইউনিয়ন পরিষদকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। এই ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সবুর ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. নজরুলের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। তাদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



মধ্যরাত থেকেই ইলিশ শিকারে জেলেদের যাত্রা

আজ রাতে উঠছে নিষেধাজ্ঞা , ইলিশ ধরতে প্রস্তুত জেলেরা

প্রকাশিত:Monday ২৫ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে আজ সোমবার মধ্যরাত থেকে ইলিশ শিকার শুরু করবেন জেলেরা। নদীতে নামার জন্য প্রস্তুতি এরই মধ্যেই সেরে ফেলেছেন জেলেরা। মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে জেলা পাড়ার বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

 

সোমবার ইলিশ অধ্যুষিত জেলাগুলোয় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিভিন্ন জেলেপল্লীতে গিয়ে দেখা গেছে, বিভিন্ন ঘাট থেকে জেলেরা মাছ শিকারের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করার জন্য বাজারসহ আনুসাঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন। মধ্যরাত থেকেই ইলিশ শিকারে জেলেরা যাত্রা শুরু করবে।

 

ইলিশ সম্পদ সংরক্ষণে ‘প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ অ্যাক্ট, ১৯৫০’ এর অধীন প্রণীত ‘প্রটেকশন অ্যান্ড কনজারভেশন অব ফিশ রুলস, ১৯৮৫’ অনুযায়ী চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর মধ্যরাত পর্যন্ত মোট ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ করে গত ২৬ সেপ্টেম্বর প্রজ্ঞাপন জারি করে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

 

চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ১১ হাজার ১১৮ দশমিক ৮৮ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়।

 

২০২১-২২ অর্থবছরে সরকারের মানবিক খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ৩৭ জেলার ১৫১টি উপজেলায় মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৪টি জেলে পরিবারের জন্য এ বরাদ্দ দেওয়া হয়। গত বছরের চেয়ে বেশি ২৭ হাজার ৬০২টি জেলে পরিবারকে এবার বরাদ্দের আওতায় আনা হয়েছে। এর আওতায় প্রতিটি জেলে পরিবার ২০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে। ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শুরুর আগেই এ বছর ভিজিএফের চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়।

 

খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



ছেলের বাবা যশের জন্মদিনে নুসরাতের বিশেষ ভালোবাসা

যশের জন্মদিনে নুসরাতের বিশেষ ভালোবাসা

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
বিনোদন ডেস্ক

Image


বিনোদন ডেস্ক :


টালিউডের অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত। ৩৬ বছর পূর্ণ করলেন তিনি। শুভেচ্ছায় ভাসছেন সোশ্যাল মিডিয়া। ভক্তরা তাকে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিচ্ছেন নানা মিষ্টি বারতায়।তবে নায়কের বিশেষ দিনে প্রেমিকা বলে খ্যাত নায়িকা নুসরাত জাহানের কি আয়োজন? সেদিকে নজর ছিল প্রায় সকলের। রাত ১২টা বাজামাত্রই অপেক্ষার অবসান হলো। প্রকাশ হলো, যশের জন্মদিনে নুসরাতের ভালবাসা।

 

যশের জন্মদিন পালনের ক্ষেত্রে যদিও কোনো আড়ম্বরের বন্দোবস্ত করেননি নুসরাত। অন্তত সোশ্যাল মিডিয়ায় তেমন কোনো আভাস পাওয়া যায়নি। যশের জন্মদিনের কথা যে তিনি ভুলেননি শুধু সেটাই জানিয়ে দিলেন ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে।ইনস্টা স্টোরিতে যশের ছবি পোস্ট করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তার পাশেই লাল হৃদয়ের ইমোজি। যার পোশাকি নাম হার্ট ইমোজি।

 

প্রসঙ্গত, গেল বছর থেকেই টালিগঞ্জে আলোচিত জুটি যশ-নুসরাত। পর্দায় তেমন সাফল্য না পেলেও বাস্তব জীবনে সেই রসায়ন জমে ক্ষীর। তবে প্রকাশ্যে সম্পর্কের কথা স্বীকার করেননি তাদের দু’জনের কেউই। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের শেয়ার করা ছবি দেখে নুসরাত এবং যশের ঘনিষ্ঠতার প্রমাণ পেয়েছেন নেটিজেনরা। একসঙ্গে লাঞ্চ ডেটেও দেখা গিয়েছে তাদের।

 

এই পরিস্থিতিতে জানা যায় নুসরাত সন্তানসম্ভবা। নানা বাঁকা কথার মাঝেও অবিচল থেকেছেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ।

 

এরপর গত ২৬ আগস্ট পুত্রসন্তানের জন্ম দেন। পার্ক স্ট্রিটের বেসরকারি হাসপাতালে সেই সময় প্রায় সারাক্ষণই নুসরতের সঙ্গী ছিলেন যশ। সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়ে কাটাছেঁড়া হয়েছে যথেষ্ট। যদিও কলকাতা পুরসভার জন্ম শংসাপত্রের নথি অনুযায়ী নুসরাতের ছেলের বাবার নাম দেবাশিস দাশগুপ্ত। যা অভিনেতা যশ দাশগুপ্তেরই আরেক নাম।

খবর প্রতিদিন / সি.বা


আরও খবর



কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্রকে গ্রেফতার

কৃষক হত্যা মামলায় ভারতীয়মন্ত্রীপুত্র গ্রেফতার

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৬ October ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image



আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

ভারতের উত্তর প্রদেশের লখিমপুর খেরিতে কৃষক হত্যার ঘটনার মামলায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্রকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। শনিবার রাত ১১টার দিকে গ্রেফতার করা হয় আশিসকে। খবর এনডিটিভির।

 

উত্তর প্রদেশের লখিমপুর-কাণ্ডের পাঁচ দিন পর গ্রেফতার করা হলো আশিস মিশ্রকে। যদিও প্রথম থেকেই বিরোধী দলগুলো আশিসকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে আসছিলেন।দেশটির পুলিশ বলছে, তিনি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযোগ এড়ানোর চেষ্টা করেছেন এবং সহযোগিতাপূর্ণ মনোভাব দেখাননি।

 

বিতর্কিত আইন বাতিলের দাবিতে কৃষকদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে ভারতে। এর মাঝে কৃষককে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ ওঠে মন্ত্রীপুত্র আশিস মিশ্রের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় উচ্চ আদালত উত্তর প্রদেশ সরকারকে নির্দেশ দেন, কৃষক নিহত হওয়ার ঘটনায় যেই জড়িত থাকুক তাকে গ্রেফতার করার। এর পরপরই গ্রেফতার হন আশিস।

 

ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত রোববার বিকালে লখিমপুর খেরিতে কৃষকরা বিক্ষোভ করার সময় একটি গাড়ি তাদের ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে দুই কৃষক প্রাণ হারান। অভিযোগ, সেই গাড়িতে ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অজয় মিশ্রর ছেলে। এ খবর ছড়িয়ে পড়তেই সংঘর্ষ বেঁধে যায় পুলিশ-বিক্ষোভকারীদের মধ্যে। এতে চার কৃষকসহ আটজনের মৃত্যু হয়।

 

খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর