Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

মাগুরার শ্রীপুরে ফেন্সিডিলসহ এক মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৯২জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাদকের বিরুদ্ধে মাগুরার  পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদৌলা রেজার জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মাগুরার শ্রীপুর থানার নাকোল পুলিশ ক্যাম্পের এসআই মোঃ লালটু রহমান নেতৃত্বে একটি টিম  মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার  দুপুর  সাড়ে ১২ টার সময়   ওয়াপদা বাজারে চেকপোস্ট করে ১৬ বোতল ফেন্সিডিল সহ মো: ইয়াসিন আরাফাত (৩০) পিং-অলিয়ার রহমান সাং-বলাবাড়িয়া থানা- কোটচাঁদপুর জেলা- ঝিনাইদহকে গ্রেফতার করে। 

এ ব্যাপারে  শ্রীপুর থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮-এ মামলা করা হয়েছে।

আরও খবর



মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১০০লিটার চোলাইমদ সহ গ্রেফতার দুই

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭২জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে  দেশীয় তৈরী চোলাইমদ সহ মো. আলম  (৩২) ও সুমন চাকমা (৪৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ একটি সিএনজি জব্দ

বৃহস্পতিবার (৩০ মে)  রাত দেড়টার দিকে  মানিকছড়ি থানার একটি চৌকস দল মানিকছড়ি থানা এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মানিকছড়ি থানাধীন  যোগ্যাছোলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের গরমছড়ি এলাকায়  খাগড়াছড়ি হইতে চট্টগ্রামগামী আঞ্চলিক মহাসড়কের উপর চেকপোস্ট বসিয়ে একটি সিএনজি তল্লাসী চালিয়ে ১০০ লিটার অবৈধ  দেশীয় তৈরী চোলাইমদ সহ আসামী মো. আলম  (৩২) সুমন চাকমা (৪৮)কে গ্রেফতার ও চোলাইমদ বহন কারি একটি সিএনজি জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন-মো. আলম  (৩২) পিতা-মৃত মোজাম্মেল হক,সুমন চাকমা (৪৮)পিতা- মৃত রবীন্দ্র উভয় লক্ষীছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়ন এর বাসিন্দা। 

আসামীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে বিধি মোতাবেক যথাসময়ে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হবে।

আরও খবর



রূপগঞ্জে রাসেল ভাইপারসহ ডেঙ্গু মশার আবাসস্থল ধ্বংস কার্যক্রম উদ্বোধন

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৪জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃস্বেচ্ছাসেবী 'দেশবাংলা' সংগঠন এর উদ্যেগে রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের বিরাব গ্রামে বিষাক্ত সাপ রাসেল ভাইপারসহ ডেঙ্গু মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও মশার আবাসস্থল ধ্বংস কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।গতকাল ২৩ জুন রবিবার দেশবাংলা সংগঠনের সভাপতি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও দৈনিক আজকালের খবর পত্রিকার রূপগঞ্জ প্রতিনিধি মোঃ আবু কাউসার এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দেশবাংলা সংগঠনের সহ সভাপতি মোঃ  দুলাল, সহ-সাধারণ সম্পাদক নূর উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ লিয়াকত প্রধান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিঠু, প্রচার সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক মোঃ বাদশা মিয়া, দপ্তর সম্পাদক মোঃ রেজাউল করিম, সহ-দপ্তর সম্পাদক মোঃ উজ্জল, ক্যাশিয়ার মোঃ দেলোয়ার হোসেন, সহ- ক্যাশিয়ার মাশকুর, সদস্য সুলতান মিয়া, মমিনুল ইসলাম, তোফাজ্জল প্রধান, মোঃ কাজন মিয়া, আালামিন প্রদান, রোমান মিয়া, মোস্তফা মিয়া, আজিজুল ইসলাম।

শরিফ মিয়া,  আয়নাল হোসেন, শিমুল মিয়া, নাজমুল ইসলাম, বিল্লাল হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন, মাছুম মিয়া, রাব্বি প্রধান প্রমুখ।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মোঃ আবু কাউসার বলেন, আমাদের সংগঠন একটি অ-রাজনৈতিক সংগঠন,  আমাদের সংগঠনে প্রায় ৮২ জন সক্রিয় সদস্য আছে। এ বছর আরো নতুন ১০/১৫ জন সদস্য যুক্ত হবে বলে সাংগঠনিক ভাবে আলোচনা হয়েছে। আমাদের মৎস প্রজেক্ট থেকে সদস্যদের মাছের চাহিদা পূরনকরে অতিরিক্ত অংশ বাজারজাত করা হয়। লভ্যাংশের টাকা দিয়ে সমাজের অসহায়।

দরিদ্রও সুবিধা বঞ্চিতদের সহযোগিতা করা হয়।  যারা স্বেচ্ছায় শ্রম দিতে আগ্রহী এরকম যুবকদের নিয়ে প্রতি সপ্তাহে ছুটির দিনে মাসব্যপী রাসেল ভাইপারের আবাসস্থলসহ ডেঙ্গু ও এডিস মশা আবাসস্থল ধ্বংস কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। পর্যায়ক্রমে আমাদের গ্রামের আশে পাশে যে সকল পুকুরে বা ডোবায় কচুরিপানায় বা মশার বংশ বিস্তার করতে পারে এমন আবদ্ধ জলাশয় পরিস্কারের মাধ্যমে আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাবো।  পরে ডোবা, নালা ও মজা পুকুর পরিস্কার করে  মাছের পোনা ছাড়া হয়। কার্যক্রম শেষে এক প্রিতি ভোজের আয়োজন করা হয়। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



পত্নীতলায় প্রকল্প অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ৫৮জন দেখেছেন

Image
দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পত্নীতলায় এনজিও সংস্থা ইকো সোশ্যাল ডেপলোপমেন্ট অর্গানাইজেশন-(ইএসডিও) ও শতফুল বাংলাদেশের আয়োজনে জিসিএফ ও পিকেএসএফ এর অর্থায়নে বৃহস্পতিবার উপজেলা সভাকক্ষে ইসিসিসিপি-ড্রাউট প্রকল্পের" অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শতফুল বাংলাদেশের প্রশাষনিক কর্মকর্তা ইয়াসমিন আরা'র সঞ্চালনায় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পক্ষে উপজেলা কৃষি অফিসার সোহরাব হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পত্নীতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গাফফার। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শতফুল বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক নাজিম উদ্দিন মোল্লাহ, পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এর ব্যাবস্থপক রবিউজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ রাহাত, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা বেগম। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: মনিরুজ্জামান, বিএমডিএ এর সহকারী প্রকৌশলী তারেক আজিজ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী সন্তোষ কুমার কুন্ডু, ইএসডিও (ইসিসিসিপি)-ড্রাউট প্রকল্পের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর সেলিহান আলম প্রমুখ। 

এসময় বক্তারা বলেন, এই প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে, উপকার ভোগীদের দক্ষতা ও সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, খাল পুনঃখননের ফলে অনাবাদি জমি চাষের আওতায় আসবে এবং বরেন্দ্র অঞ্চলের মানুষের পানি ও কৃষি সমস্যা সমাধানে এই প্রকল্পটি যথেষ্ট অবদান রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা। 

আরও খবর



আত্রাইয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত-৪ আটক-৮

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: ৩য় ধাপে আগামী ২৯মে অনুষ্ঠিত হবে নওগাঁর আত্রাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতিমধ্যেই জমে উঠেছে প্রার্থীদের নির্বাচনী কার্যক্রম। এমন জমজমাট নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার মধ্যেই আত্রাইয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে কৈ মাছ ও কাপ পিরিচ প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ৪জন আহত হয়েছে। এঘটনায় মামলা রজু করে আত্রাই থানা পুলিশ ৮জনকে আটক করে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠিয়েছে। 

আহতরা হলো উপজেলার দীঘা গ্রামের শহিদুল ইসলাম (৬২), মনিরুজ্জামান রনি (৩৮), জগদিসপুর গ্রামের জিহাদ (২২) এবং সাহেবগঞ্জ গ্রামের কামনা আক্তার (২৮)। পরে উন্নত চিকিসার জন্য শহীদুল ইসলাম শহীদ ও মুনিরুজ্জামান রনিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এমন নেক্কার জনক ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে জড়িতদের বিচারের দাবি জানান। আটককৃত রাব্বি হোসেন, শহীদ হোসেন, আশিক হোসেন, আশরাফুল ইসলাম, রফিক হোসেন, মোজাফ্ফর হোসেন, হাফিজ ও শহীদকে ২৫মে শনিবার নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে শনিবার দুপুরে উপজেলার নিজ কার্যালয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী এবাদুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে এবাদুর রহমানের মুখপাত্র বলেন শুক্রবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার জয়সারা আব্বাসের মোড়ে তার ভাই ও কর্মী সমর্থকরা নির্বাচনের প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। এসময় প্রতিদ্বন্দ্বী কাপ পিরিচের প্রার্থী মমতাজ বেগমের ছেলের নেতৃত্বে ১০থেকে ১৫জন সন্ত্রাসীর একটি দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এসময় প্রার্থীর ভাই শহীদুল ইসলাম শহীদ ও মুনিরুজ্জামান রনি ৪জনকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করলে তারা গুরুত্বর আহত হয়।

মামলা ও প্রত্যক্ষদশী সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (২৪মে) দিবাগত রাতে উপজেলার জয়সাড়া গ্রামে কৈ মাছ ও কাপ পিরিচ প্রতীকের কর্মী-সমর্থকের মধ্যে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। এতে কৈ মাছ প্রতীকের ছোট ভাই শহিদুল ইসলাম ও ভাতিজা মনিরুজ্জামান রনি এবং সমর্থক জিহাদ আহত হন। একই ঘটনায় কাপ পিরিচ প্রতীকের বৌমা কামনা আক্তারও আহত হন। আহতরা আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন। 

আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার লুৎফা খাতুন জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত ১টায় ৪জন সামান্য জখম হয়ে হাসপাতালে আসলে তাদের চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এদিকে দিঘা গ্রামের সাজেদুর রহমান বাদী হয়ে রাত সাড়ে ১২টায় থানায় মামলা দায়ের করেন। এদিকে রাত ১১টার সময় ঘটনার স্থানে কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থীর ভাই ও ভাকিজা উপস্থিত থাকায় নির্বাচনী আইন লঙ্ঘন করেছেন মর্মে সচেতন ভোটারেরা অভিযোগ করেন।

কাপ পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী মমতাজ বেগম জানান, কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থীর ভাই ও ভাতিজা আমার ভোটারকে টাকা দিয়ে কেনার চেষ্টা করছে এমন খবর পেয়ে আমরা সেখানে গেলে তারা আমাদের উপর চড়াও হয়।

আত্রাই থানার তদন্ত ওসি লুৎফর রহমান বলেন, সাদা রংয়ের কার গাড়ীতে করে মানুষ অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার সামনে চেকপোষ্ট বসিয়ে কার গাড়ীসহ ৮ জনকে থানায় নিয়ে আসা হয়। তবে গাড়ীতে কোন অপহরণকারী পাওয়া যায়নি। পরে সাজেদুর রহমান বাদি হয়ে নির্বাচনী কাজে বাধা ও মারধরের অভিযোগ করলে তাদের আটক দেখানো হয়।


আরও খবর



তৃষ্ণার্ত পথিকের স্বস্তি এনে দিতে জুড়ি নেই কচি তাল শাঁসের

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৯জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃস্বাদে অতুলনীয় ও পুষ্টিগুণে ভরপুর মৌসূমী ফল তালের শাঁসের কদর সেই আদি কাল থেকে। সব বয়সি মানুষের জন্য এটি মুখরোচক হলেও এর চাহিদা বাড়ে গ্রীষ্মকালে। তৃষ্ণার্ত পথিকের স্বস্তি এনে দিতে জুড়ি নেই কচি তাল শাঁসের। তবে পুরাতন তাল গাছ কেটে ফেলা ও নতুন করে গাছ রোপন না করায়  ফরমালিনমুক্ত তালের শাঁস পাওয়া বেশ কষ্টসাধ্য। বাড়ির পাশে বন বাদাড়ে বা রাস্তার ধারে অযতেœ বেড়ে ওঠা গাছে কিছু তাল দেখা যায়। ফলে দাম একটু বেশি। তবুও মৌসুমী ফল হওয়ায় সকলের কাছেই এর কদর রয়েছে।

মেহেরপুর জেলা কৃষি অফিসের তথ্য মতে, এ জেলায় নির্দিষ্ট কোন তাল বাগান নেই। রাস্তার পাশে, ফসলি জমির আইলে অনেক তাল গাছ রয়েছে। বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা গাছের সংখ্যা প্রায় ১০ হাজার। তবে এগুলোর মধ্যে সব গাছে ফল হয় না। গত কয়েক বছর যাবত তাল গাছ রোপন করা হয়েছে। এগুলো ফলবান হতে আরো অন্তত ৯/১০ বছর লাগবে। বজ্র নিরোধক বৃক্ষ হিসেবে সকলকে তাল গাছ রোপনের জন্য উদ্বুদ্ধ করছে কৃষি বিভাগ। 

জেলার বিভিন্ন হাট বাজার ও রাস্তার মোড়ে দেখা গেছে তাল শাঁস বিক্রি করছেন গাছিরা। কেউ কেউ রাস্তার পাশে চট বিছিয়ে তাল শাঁস বিক্রি করছেন। আবার অনেকেই ভ্যানে করে ঘুরে ঘুরে বিক্রি করছেন। প্রতিদিন সকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে বেচা বিক্রি। গ্রীষ্মের অসহনীয় গরমে অস্থির পথচারীদের এক মুহূর্তের জন্য হলেও তৃষ্ণায় স্বস্তি এনে দেয় তাল শাঁস। আবার অনেকেই বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন। মৌসুমী ফল হওয়ায় দামের বিষয়টি বিবেচনা করছে না ক্রেতারা। 

মৌসুমী তাল বিক্রেতা বালিয়া ঘাট গ্রামের রশিদ জানান, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় থেকে কচি তাল সংগ্রহ করেন তারা। তালের কাদি দেখে দর দাম ঠিক করা হয়। প্রতিটি তাল ১০ টাকা থেকে ১২ টাকা করে কিনে আনা হয়। পরে পরিবহন খরচ ও পারিশ্রমিক যোগ করে তালের শাঁসের দাম নির্ধারণ করা হয়। তাল গাছ আর তালের পরিমান কম হওয়ায় এবার তালের দামটা একটু বেশি। প্রতি পিচ তাল শাঁসের দাম ৫ টাকা থেকে ৭ টাকা। বিক্রিও বেশ ভালো। তবে বেশি দামে কেনার কারণে লাভ কম হচ্ছে।

গাংনী হাসপাতাল বাজারের তাল শাঁস বিক্রেতা শিশির পাড়া গ্রামের ফল বিক্রেতা হিরমত আলী জানান, সারা বছরই বিভিন্ন ফল বিক্রি করেন তিনি। জৈষ্ঠ্য মাসের শুরু থেকে তাল শাঁসের ব্যবসা করছেন। গত বছর ১২ টাকা হালি বিক্রয় করলেও এবছর ২০ টাকা দামে বিক্রি করা হচ্ছে। দাম বেশি হলেও এবছরেও চাহিদা খুব বেশি। ছোট বড় সকলেরই বেশ পছন্দের। একই কথা জানালেন ব্যবসায়ী লিটন আলী ও মহিবুল ইসলাম।

প্রভাষক এসএম রফিকুল আলম বকুল জানান, গ্রীষ্মকালের অন্যতম একটি রসালো সুস্বাদু ফল হচ্ছে তালের শাঁস। এটি খুবই জনপ্রিয় একটি খাবার হিসেবে পরিচিত। ছোটকালে এক টাকায় এক হালি তাল শাঁস পাওয়া যেত। এখন অনেক দাম তবুও ছেলে-মেয়ের জন্য নিয়মিত কিনে নিয়ে যান। তালের শাঁস খেতে অনেকটা নারকেলের মত। নরম ও সুস্বাদু হওয়ায় পরিবারের সকলেই তাল শাঁস খেতে খুবই ভালোবাসে। কেবল খেতেই সুস্বাদু নয়, এর রয়েছে পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা।

তালের উপকারিতা সম্পর্কে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আব্দুল আল মারুফ জানান, তালের শাঁসে থাকা জলীয় অংশ মানুষের দেহের পানি শূন্যতা দূর করে। এ ফলে মিনারেলস, আয়োডিন, জিংক, পটাশিয়াম ও ফসফরাস থাকে। বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ উপাদানে ভরপুর তালের শাঁস নানা রোগের দাওয়াই হিসেবে কাজ করে।


আরও খবর