Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

মাদক সেবনের টাকা না পেয়ে নিজের ঘরে দিল আগুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৫৩জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ   নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে মায়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটি করে নিজের বসত ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে কৃষ্ণ পাল(৩৫) নামে এক মাদকাসক্ত। এতে কাটকোয়ারী দুই কক্ষের টিনের ঘরটি সম্পূর্ণ ছাই হয়ে যায় ও তিন লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়। মঙ্গলবার ( ২১ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ইব্রাহিমপুর ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় লোকজন ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভায়।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ইব্রাহিমপুর ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামের মৃত গৌরাঙ্গ পালের  ছেলে কৃষ্ণ দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকাসক্ত।


কৃষ্ণনের অত্যাচারে তার মা সহ প্রতিবেশীরাও আতঙ্কে থাকেন। ঘটনার দিন সকালে মাদক সেবনের টাকা চেয়ে মায়ের সঙ্গে কৃষ্ণনের কথা কাটাকাটি হয়। দুপুরে ১২টার দিকে কৃষ্ণ হঠাৎ নিজেদের বসত ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। মুহূর্তে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় লোকজন ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দীর্ঘ প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নেভালেও দুই কক্ষের চালা, সব আসবাবপত্র, জিনিসপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায় এবং প্রতিবেশী মোঃ আবুল বাশারের ঘরের ভিতরে থাকা বৈদ্যুতিক ওয়ারিং সহ ১০ সেফটির একটি ফ্রিজ পুড়ে যায় । এ ঘটনায় প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়। অগ্নিকাণ্ডের পর কৃষ্ণকে নবীনগর থানা পুলিশ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়।


নবীনগর উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার দেবগ্ৰত সরকার বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আগুন নেভানো হয়।স্থানীয় বীরেন্দ্র পাল ও কৃষ্ণনর মা বলেন, তিন ভাইয়ের মধ্যে কৃষ্ণ পাল মাদকাসক্ত ।ছেলেটির অত্যাচারে তার মা সহ প্রতিবেশী সকলে আতঙ্কে থাকেন। এলাকায় ছিচকে চুরিও করে কৃষ্ণ। যে ছেলে নিজের ঘর পুড়াতে পারে সে এলাকার যে কারো ক্ষতি করতে পারে। আমি সহ এলাকাবাসীর নিরাপত্তা চাই।নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুদ্দিন আনোয়ার বলেন, এলাকার লোকজন বলেছেন ছেলেটি মাদকাসক্ত ও নিজের ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়েছে। সেটা ধরেই আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি। সত্যতা পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



ঘুর্নীঝড় রেমালের তান্ডবে সৈয়দপুরে ব্যাপক ক্ষতি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৮০জন দেখেছেন

Image

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফারীর সৈয়দপুরে ভয়াবহ তাণ্ডব চালিয়েছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। এতে প্রায় পাঁচ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া গাছপালা উপড়ে গেছে প্রায় কয়েক হাজার। ২৯ মে দিবাগত রাত ১টা থেকে শুরু হয় রিমালের তাণ্ডব। প্রায় ২ ঘন্টা চলে ওই ঘুর্ণিঝড়ের তান্ডব। সৈয়দপুর শহরের আমিন মোড়ের বাসিন্দা দুলাল সরকার বলেন,  ২ ঘন্টা ধরে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডব এর আগে সৈয়দপুর শহর সহ উপজেলার কোথাও হয়নি। ২০০৭ সালে সিডরের চেয়েও কিছুটা ভয়ানক ছিলো এই ঘুর্ণিঝড়। আর মাত্র ১/২ ঘন্টা তান্ডব চালালে ভয়াবহ অবস্থা হয়ে যেতো। আমর পরিবার সহ এলাকার সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিল।

উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জুয়েল চৌধুরী বলেন, গাছপালা উপড়ে কয়েকটি গ্রামের  যোগাযোগ ব্যবস্হা বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক মানুষ ঘরবন্দী হয়ে গেছে।

সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.নুরী- আলম সিদ্দিকি জানান, উপজেলার শহর সহ গ্রামের অনেক ঘর বাড়ি গাছপালা ভেঙে উপড়ে গেছে। অনেক মানুষ ঘরবন্দী রয়েছেন।

নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক  বলেন, ঘুর্নীঝড়ে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি তদন্ত করা হয়েছে।  ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে সহায়তা করা হবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



পুর্ব শত্রুতার জেরে শার্শায় যুবককে হত্যা

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:যশোরের শার্শায় পুর্ব শত্রুতার জেরে মুসা (৩০) নামে এক যুবককে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে একই এলাকার কুখ্যাত অস্ত্র ও মাদক ব্যবসািয়রা। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন নিহতের ভাইপো রাসেল (২০) নামে আরেক যুবক।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে গুরুতর আহত মুসার অবস্থার অবনতি হলে যশোর জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে সেখানেও অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার বেলা ১২ টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার (৩০ মে) ৮ টার দিকে উপজেলার হরিণাপোতা মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে রাতেই শার্শা থানায় মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী পরিবার। নিহত মুসা হরিণাপোতা গ্রামের আতাউল হকের ছেলে ও তার ভাইপো আহত রাসেল ইসহাকের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গরু বেচাকেনা নিয়ে মুসার সাথে ৬/৭ মাসে আগে মান্দারতলা এলাকার অস্ত্র ও মাদক ব্যবসায়ি সিন্ডিকেটের রফিকুল, মিলন ও সুমনের সাথে দ্বন্দ ছিলো। ঘটনার দিন বিকেল ৫ টার দিকে মুসা ও তার ভাইপো রাসেল চা খাওয়ার জন্য হরিণাপোতা হাটখোলা মোড়ে যায়।

এ সময় রফিকুল, মিলন ও সুমনসহ একদল সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মুসাকে উপর্যুপরি কোপাতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। এ সময় বাধা দিতে এগিয়ে এলে ভাইপো রাসেল গুলিবিদ্ধ হন। পরে স্থানীয়রা দু’জনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক ভাইপো রাসেলকে ভর্তি রাখে এবং মুসার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। এখানেও তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় রেফার্ড করেন চিকিৎসাকরা। ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার বেলা ১১টায় তার মৃত্যু হয়।

নাভারন সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার নিশাত আল নাহিয়ান বলেন, গরু বেচাকেনা নিয়ে পুর্ব শত্রুতার জেরে আহত চাচা ও ভাইপোর মধ্যে মুসা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। ভাইপো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় শার্শা থানায় মামলা হয়েছে এবং এ হত্যাকান্ডে জড়িত আসামিদের আটক করার জন্য পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে বলে তিনি জানান।


আরও খবর



একই কায়দায় যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতা হত্যাকান্ড, কবে বিচার পাবে পরিবার?

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে প্রকাশ্যে ছাত্রলীগ নেতা আল আমিনের নৃশংস হত্যাকান্ডের একদিন শুক্রবার পর্যন্ত পেরিয়ে গেলেও কোনো আসামীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ৯ বছর আগে একই স্থানে একই কায়দায় প্রকাশ্যে নৃশংসভাবে যুবলীগ নেতা রফিকুলকে হত্যা করা হয়। সে বিচার শেষ না হতেই আবার ছাত্রলীগ নেতা হত্যা। কবে বিচার পাবে তাদের পরিবার? এমন প্রশ্ন ছুরছেন নানা মহলের মানুষ।

এলাকাবাসী, নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাবা মোতালেব হোসেন একজন সিএনজি চালক আর মা আছিয়া বেগম গৃহিনী। তাদের এক ছেলে ও দুই মেয়ের মধ্যে আল আমিন সবার বড়। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক ডিঙ্গিয়ে সবে মাত্র জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারী কলেজে ডিগ্রিতে পা রেখেছে তাদের ছেলে। সে লেখাপড়া করে একটা ভাল চাকরি করবে ও তাদের দেখাশুনা করবে। কিন্তু বাবা-মায়ের সেসব স্বপ্ন যেন নিমিশেই শেষ হয়ে গেল। লেখাপড়ার পাশাপাশি আল আমিন ওই কলেজের দ্বাদশ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করতো। সেই ছাত্রলীগের রাজনীতিই কাল হলো আল আমিনের। গত বুধবার ওই কলেজের এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে তাদের সঙ্গে অপর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের কথা কাটাকাটি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর জেরে গত বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে প্রকাশ্যে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী। এসময় কামরুল হাসান নামে অপর ছাত্রলীগ সদস্যকে কুপিয়ে আহত করা হয়। পরে হত্যাকারীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মোতালেব হোসেন বাদী হয়ে রাতে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় কালিয়াকৈর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও ওই কলেজের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইমন খান ও ওই কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানসহ ১৮জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো অনেককে আসামী করা হয়। কিন্তু হত্যাকান্ডের একদিন পেরিয়ে গেলেও হত্যাকারী কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে শুক্রবার ময়নাতদন্তের পর জানাযা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার মৃতদেহ দাফন সম্পূর্ণ করা হয়।

এর আগে গত ২০১৫ সালের ২১ আগস্ট একই স্থানে উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলামকে একই কায়দায় প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। লাশ নিয়ে কালিয়াকৈর উপজেলার সাহেব বাজার এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল ও কালিয়াকৈর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে প্রতিবাদ সভা করে। ঘটনার পরের দিন নিহতের বড় ভাই আব্দুল মোতালেব মিয়া বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। কিন্তু রাজনৈতিক রেষারেষি ও তদন্তের হেরফেরে ওই মামলাটি তিনবার নারাজি দেওয়া হয়েছিল। এর ফাঁক-ফুকুর দিয়ে আড়ালে চলে যায় অনেক রাঘব-বোয়াল নেতা।

সর্বশেষ দীর্ঘদিন পর ওই মামলার চার্জসিট হলেও ৯ বছর ধরে ন্যায় বিচারের অপেক্ষায় তার পরিবার। ওই হত্যাকান্ডের বিচার শেষ হতে না হতেই একই কায়দায় আবার ছাত্রলীগ নেতা আল আমিনকে হত্যা। কবে বিচার পাবে তাদের পরিবার? এমন প্রশ্ন ছুড়ছেন নানা মহলের মানুষ। শুধু যুবলীগ নেতা রফিকুল ও ছাত্রলীগ নেতা আল আমিনই নয়, নাম জানা ও অজানা হত্যাকান্ডগুলো দীর্ঘদিন বিচারের জন্য ঝুলে থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। তারা জানিয়েছেন, কখনো লাশ নিয়ে সড়ক-মহাসড়কে বিক্ষোভ, অর্ধদিবস হরতাল কর্মসূচী, প্রতিবাদ সভা করলেও বছরের পর বছর ধরে চলে বিচার কার্য। ফলে হতাশায় ভুগছেন পরিবারের সদস্যরা।

নিহত ছাত্রলীগ নেতার মামা হারুন মিয়া জানান, ময়নাতদন্ত পর বিকেলে জানাযার নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার মৃতদেহের দাফন সম্পূর্ণ করা হবে। তবে এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

অপর নিহত যুবলীগের নেতা রফিকুলের বড় ভাই আব্দুল মোতালেব মিয়া বলেন, আমার ভাইকে প্রকাশ্যে যেভাবে হত্যা করেছে, ঠিক একই কায়দায় ওই ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু অর্থের বিনিময়ে ভাই হত্যার মামলা থেকে অনেককে বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে আমার ভাই হত্যার বিচার আল্লাহর উপর ছেড়ে দিয়েছি।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম জানান, আল আমিন হত্যাকান্ডের ঘটনায় তার বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া ওই স্থানে যুবলীগ নেতা রফিকুল হত্যাকান্ডের বিষয়টি আমার জানা নেই।


আরও খবর



সুন্দরগঞ্জে 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৩জন দেখেছেন

Image
সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা)প্রতিনিধিঃগাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র ত্রৈমাসিক সাহিত্য পত্রিকা 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।

শনিবার (২২ জুন) বিকেলে সুন্দরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজের মিলনায়তনে এ উপলক্ষ্যে সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র সভাপতি নাসরিন সুলতানা রেখা।

সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র সাধারণ সম্পাদক ও জাগো বাহে'র সম্পাদক কুশল রায়ের সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা ড. শফিউল ইসলাম ভূঁইয়া, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান মিঞা, অধ্যক্ষ মুহা. একরামুল হক, সহকারী অধ্যাপক আব্দুল আজিজ, সাংবাদিক ও লেখক আবু নাসের সিদ্দিক তুহিন, সংগঠক ও লেখক ফয়সাল সাকিদার আরিফ, প্রভাষক আবু বকর সিদ্দিক, জাগো বাহে'র নির্বাহী সম্পাদক সুদীপ্ত শামীম, সংগঠক এরশাদুল আলম প্রমূখ।

কবিতা ও ছড়া পাঠ করেন সাহিত্য সংসদ'র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরকার হোজায়ফা হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক আল আমিন মোহ, সাংবাদিক আনিসুর রহমান আগুন, আব্দুর রাজ্জাক আল রোহান, সাবরিনা জাহান সুমি, ফাইয়াজ ইসলাম ফাহিম, সাইফুল ইসলাম তারাপুরী, আলমগীর আকন্দ কাব্যকীট, মোহাম্মদ হাসান, জান্নাতুল ফেরদৌসি জিনাত, মোরসালিন সুলতানা মিম প্রমূখ।

পরে সুন্দরগঞ্জ সাহিত্য সংসদ'র ত্রৈমাসিক প্রকাশনা 'জাগো বাহে' ঈদ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

আরও খবর



অর্থ আত্মসাতের মামলায় ড. ইউনূসের বিচার শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে করা মামলায় নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। অভিযোগ গঠনের ফলে মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক সৈয়দ আরাফাত হোসেন আসামিদের অব্যাহতির আবেদন খারিজ করে তাদের অভিযোগ গঠন করেন।

এর আগে ২ জুন দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করতে শুনানি করেন। অপরদিকে ড. ইউনূসসহ ১৪ জনের পক্ষের তাদের আইনজীবী অব্যাহতি চেয়ে শুনানি করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত এ বিষয়ে আদেশের জন্য ১২ জুন দিন ধার্য করেন।

২০২৩ সালের ৩০ মে গ্রামীণ টেলিকমের শ্রমিক-কর্মচারীদের কল্যাণ তহবিলের ২৫ কোটি ২২ লাখ ৬ হাজার ৭৮০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। সংস্থাটির উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে মামলাটি করেন।


আরও খবর