Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

লবণ কতটুকু খাবেন ওজন কমাতে ?

প্রকাশিত:Saturday ১১ December ২০২১ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ২২৬জন দেখেছেন
Image

অনলাইন ডেস্ক: স্লিম হওয়ার সহজ উপায় খুঁজতে গিয়ে ইতিমধ্যে প্রয়োগ করে ফেলেছেন বেশ কিছু পদ্ধতি। মেদ ঝরাতে কমিয়েছেন খাবারে লবণের পরিমাণ। কিন্তু সত্যিই কী লবণ খেলে ওজন বাড়ে? বিশেষজ্ঞদের মতে, লবণ খেলে ওজন বাড়ার সমস্যাটা আসলে একটা মিথ। অনেকেই মনে করেন, লবণ বেশি খেলে শরীরে পানির পরিমাণ বেড়ে যায়। আর তাই স্লিম হওয়ার জন্য ডায়েট করার সময় খাবারে লবণের পরিমাণ কমিয়ে দেন। আসলে এই কথাটা পুরোপুরি সত্যি নয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ জানিয়েছে, লবণ খেলে এমন নয় যে ওজন অনেকটা বেড়ে যাবে। এমনকি উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় যারা ভোগেন, তাদেরও প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে লবণ খেতে হবে। নতুবা দেখা দেবে অন্য শারীরিক সমস্যা।

চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক প্রতিদিন ঠিক কতটুকু লবণ খেতে পারবেন-

১) একজন সুস্থ মানুষের প্রতিদিন এক চা চামচ লবণ খাওয়া উচিত। তবে কাঁচা লবণ না খেয়ে রান্নায় দিয়ে খাওয়াই ভালো। প্যাকেটের গায়ে পড়ে আয়োডিন যুক্ত লবণ কিনুন।

২) লবণের অভাবে শরীরে সোডিয়ামের অভাব হয়। রক্তচাপ কমে যায়, মাথা ঘোরা ছাড়াও নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই দৈনন্দিন খাবারের তালিকা থেকে লবণ পুরোপুরি বাদ দেওয়া একেবারে বোকামির কাজ হবে।

৩) পাউরুটি, চিপস, সস, চিজসহ নানা ধরনের খাবারে লবণ থাকে। এগুলো খাওয়ার সময় লবণের পরিমাণ লক্ষ্য রাখতে হবে।

৪) জিম করলে বা কিডনির সমস্যা থাকলে ডায়াটেশিয়ানের পরামর্শ মতো খাবারে লবণের পরিমাণ ঠিক করুন।


আরও খবর



ওমিক্রন প্রতিরোধে নির্দেশনা জারি করলেন পুলিশ সদস্যদের

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১৬৫জন দেখেছেন
Image

করোনাভাইরাসের এর নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও এর প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন প্রতিরোধে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (অপারেশনস-২) মোহাম্মদ উল্ল্যা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নির্দেশনাগুলো হলো

১. প্রত্যেক পুলিশ সদস্য ডিউটি পালনের সময় অবশ্যই মাস্ক, গ্ল্যাভস, হেডকভার, ফেসশিল্ড প্রভৃতি পরিধান করবেন।

২. ডিউটি পালনকালে কিছু সময় পর পর হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে এবং নিয়মিত ডিউটি শেষে সাবান/হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।

৩. কোডিড-১৯ (ওমিক্রন) উপসর্গ দেখা দিলে আইসোলেশন সেন্টারে রেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

৪. প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে দ্রুত সময়ের মধ্যে কোডিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে ইউনিট ইনচার্জ কর্তৃক অধীন পুলিশ ও নন-পুলিশ সদস্যদের ভ্যাকসিন গ্রহণ নিশ্চিত করা।

৫. পুলিশের সব ইউনিটে ‘No Mask No Service’ এবং ’No Mask No Entry’ নির্দেশনা প্রতিপালন করা এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে মাস্কের ব্যবস্থা রাখা।

৬. ডিউটিরত সব ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব (কমপক্ষে ৩ ফুট বা ১ মিটার), হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

৭. সেবা গ্রহীতা ও দর্শনার্থীদের পুলিশ স্থাপনায় প্রবেশের ক্ষেত্রে শরীরের তাপমাত্রা নির্ণয় ও হাত ধোয়া/স্যানিটাইজ নিশ্চিত করা।

৮. প্রত্যেক পুলিশ সদস্যের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী (মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ইত্যাদি) ব্যবহার নিশ্চিত করা।

৯. অপারেশনাল কাজে ব্যবহৃত অস্ত্র, হ্যান্ডকাফ, রায়ট গিয়ার, হ্যান্ডমাইক, মেটাল ডিটেক্টর, আর্চওয়ে ইত্যাদি যথাযথভাবে জীবাণুমুক্ত করা।

১০. ডিউটি শেষে আবাসস্থলে প্রবেশের আগে ইউনিফর্ম ও জুতা ভালোভাবে জীবাণুমুক্ত করা এবং সাবান দিয়ে গোসল করা।

১১. ডাইনিং রুম, ক্যান্টিন, বিনোদন কক্ষ, রোল কল, ডিউটিতে যাবার পূর্বে ও ডিউটি হতে ফেরার পরে, সমাবেশস্থলে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রীর ব্যবহার নিশ্চিত করা।

১২. কোভিড-১৯ উপসর্গ দেখা দিলে কিংবা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে ছিল বা এসেছে এমন পুলিশ সদস্যদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে কোভিড পরীক্ষার ব্যবস্থা করা।

১৩. কোভিড-১৯ পজেটিভ সদস্যদের ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী কেন্দ্রীয়/বিভাগীয়/জেলা পুলিশ দাসপাতাল ও স্থানীয় হাসপাতালে রেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।

১৪. জরুরি প্রয়োজনে রোগীকে অন্যত্র স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ইউনিট ইনচার্জ কর্তৃক তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

১৫. ইউনিট ইনচার্জ ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিজ ইউনিটের আক্রান্ত সদস্য ও তার পরিবারের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা এবং সার্বিক সহায়তা প্রদান করা।

১৬. হাজতখানা সর্বদা জীবাণুমুক্ত রাখা এবং হাজতে থাকাকালীন কোন ব্যক্তির কোডিড-১৯ এর লক্ষণ প্রকাশ পেলে অবিলম্বে তাকে পৃথক করে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া।

১৭. রেশন সামগ্রী, ওষুধ ইত্যাদি সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিতরণের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করা।

১৮. কোডিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স কর্তৃক প্রণীত এসওপি এর নির্দেশনাসমূহ অনুসরণ এবং রোলকলে সচেতনতামূলক ব্রিফিং প্রদান করা।

১৯. কোডিড-১৯ সংক্রাতে ইতিপূর্বে প্রেরিত নির্দেশনা যথাযথ ও আন্তরিকভাবে প্রতিপালন করবেন।

২০. প্রত্যেক পুলিশ ইউনিটে কর্মরত সব সদস্যদের স্থানীয় স্বাস্থ্য প্রশাসনের সঙ্গেসমন্বয়পূর্বক কোভিড-১৯ (বুস্টার ডোজ) ভ্যাকসিন গ্রহণে নিশ্চিত করতে হবে।

২১. কোভিড-১৯ সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী বিধায় সব পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবারবর্গকে অবশ্যই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করতে হবে


আরও খবর



সরকার পরিবর্তনের ফয়সালা রাজপথেই : ফখরুল

প্রকাশিত:Friday ৩১ December ২০২১ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১১৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকার পরিবর্তনের ফয়সালা রাজপথেই হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে নসরুল হামিদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ সব সময় বলছে অনেক উন্নয়ন করে ফেলেছি। কিন্তু মূল জিনিসটা আমরা হারিয়ে ফেলেছি। সেটা হচ্ছে আমাদের রাজনৈতিক স্বাধীনতা। এই স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হলে এবং স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে সুসংহত করতে হলে খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। রাজপথেই এর ফয়সালা হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর যে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে রাজনীতি বিতাড়িত করার চেষ্টা করছে তার বিরুদ্ধে আমরা লড়ে যাচ্ছি। এই লড়াই এখন বেগবান হচ্ছে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে। এই লড়াই অল্প সময়ের মধ্যে একটা দুর্বার গণআন্দোলনে পরিণত হবে।

সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবি করে ফখরুল ইসলাম বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই কারণ তিনি একমাত্র নেত্রী যিনি গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য নয় বছর আপসহীন সংগ্রাম করেছেন। উড়ে এসে জুড়ে বসে প্রধানমন্ত্রী হননি, মানুষকে সঙ্গে নিয়ে হয়েছেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, এখন যে পার্লামেন্ট আছে, সেই পার্লামেন্টে বিরোধীদল বলতে কিছু নেই। রাজনৈতিক নেতা ও আওয়ামী লীগের নেতারা বলেন, তাদের কোনো মূল্যই নেই। একজন ওসি সরাসরি বলে আপনারা কে? আপনাদের তো আমরাই বানিয়েছি। অর্থাৎ রাজনীতিটা পুরোপুরি সরিয়ে একটা আমলাতান্ত্রিক বা সামরিক আমলাতান্ত্রিক ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে ও সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপুর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমর, নিতাই রায় চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।


আরও খবর



নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শরীফ গ্রেপ্তার।

নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শরীফ গ্রেপ্তার।

প্রকাশিত:Sunday ০৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১২২জন দেখেছেন
Image


মোঃ আব্দুল হান্নানঃ

৮ জানুয়ারী ২০২২ রোজ শনিবার,  বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে সুচিকিৎসার দাবিতে ব্রাক্ষণবাড়িয়া গণসমাবেশ ডাকে জেলা বি,এন,পি।গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে শহরে ১৪৪ ধারা জারী করে জেলা প্রসাশন।প্রশাসনের  ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরতলীর নাটাই উত্তর ইউনিয়নের বটতলি বাজারে সমাবেশ করে বিএনপি। 


সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপি'র সাবেক সভাপতি, সাবেক পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি ,প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী,  বিএনপি’র জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য  আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী,প্রধান বক্তা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  চেয়ারপারসনের সম্মানিত উপদেষ্টা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া, চেয়ারপারসনের সম্মানিত উপদেষ্টা নাসিরনগর উপজেলার জননন্দিত নেতা আলহাজ্ব সৈয়দ একরামুজ্জান সুখন , ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা এমপি, কেন্দ্রীয় বিএনপি'র অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামল,ভূঁইয়া ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান কসবা আখাউড়ার গণমানুষের নেতা কবির আহমদ ভূঁইয়া, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু,সহ সভাপতি জাকির হোসেন সিদ্দিকী, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি  জাকির হোসেন  সহ কেন্দ্রীয় জেলাও বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত বিএনপি সহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ স্বতঃস্ফূর্তভাবে উপস্থিত ছিলেন। 


সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোন গ্রেপ্তারী পরোয়ানা ছাড়াই নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল বাতেন শরীফকে গ্রেপ্তার করে নেয পুলিশ।অন্যায় ভাবে শরীফকে গ্রেপ্তারে নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রদল যুবদলে, বি,এন,পি ও সকল অঙ্গও সহযোগি সংগঠনের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তার নিঃশর্ত  মুক্তির দাবি করা হয়েছে।


আরও খবর



সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ট্রাফিক-ডেমরা জোনের উদ্যোগে সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালিত

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image


নাজমুল হাসানঃ

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ট্রাফিক-ডেমরা জোনের উদ্যোগে মাতুয়াইল মেডিকেল পয়েন্টে এক সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সোমবার (২৪ জানুয়ারি ২০২২) সকাল ০৯:৩০ ঘটিকা থেকে ১১:০০ ঘটিকা পর্যন্ত এই সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করা হয়।ট্রাফিক-ডেমরা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মো: ইমরান হোসেন মোল্লার নেতৃত্বে জোনের দায়িত্বরত অফিসার ও ফোর্স উক্ত কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।


সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সকলকে উদাত্ত আহবান জানিয়ে এসি ট্রাফিক-ডেমরা জোন ইমরান হোসেন মোল্লা বলেন, "সমাজের প্রতিটি মানুষ, জনপ্রতিনিধি, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ সবাইকে চেষ্টা করতে হবে।উল্লেখ্য যে, মাতুয়াইল মেডিকেল পয়েন্ট একটি সড়ক দুর্ঘটনাপ্রবণ স্থান।


প্রায়শই সেখানে মারাত্মক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে ও হতাহত হয়। যা অত্যন্ত দু:খজনক"।সাম্প্রতিক সময়ে মাতুয়াইলের মেডিকেল পয়েন্টে সড়কটিতে দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় ট্রাফিক-ডেমরা জোনের উদ্যোগে পথচারী,যাত্রী,চালক ও সংশ্লিষ্ট সকলের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যেই এ কর্মসুচী পালিত হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 



আরও খবর



শনাক্ত ১৬ হাজারের বেশি, মৃত্যু ১৮

প্রকাশিত:Tuesday ২৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত চব্বিশ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৩৩ জন, যা গত বছরের জুলাইয়ের পর সর্বোচ্চ। শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৪০ শতাংশ। গত বছরের জুলাইয়ে একদিনে ১৬ হাজার ২৩০ জন শনাক্ত হয়েছিলেন।

করোনায় এ পর্যন্ত দেশে ২৮ হাজার ২৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছে; শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ ১৫ হাজার ৯৯৭ জনে।

আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। গতকাল সোমবার আগের ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু এবং ১৪ হাজার ৮২৮ জন  শনাক্ত হওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। শনাক্তের হার ছিল ৩২ দশমিক ৩৭ শতাংশ।

আজকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৯৫ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৫৮ হাজার ৯৫৪ জন।

২৪ ঘণ্টায় ৪৯ হাজার ৬৯৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৪৯ হাজার ৪৯২টি। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের ৩২ হার দশমিক ৪০ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১২ জন পুরুষ ও ছয়জন নারী। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে আট, চট্টগ্রামে ছয়জন এবং রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগে একজন করে মারা গেছেন।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।


আরও খবর