Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

লাইসেন্স ছাড়া মসলা পণ্য বিক্রি, জরিমানা ৫০ হাজার

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

লাইসেন্স ছাড়া মসলাজাতীয় পণ্য বিক্রি করায় রাজধানীর বড় মগবাজারের একটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে বিএসটিআই।

প্রতিষ্ঠানটি হলো আজা আইডিয়াল অ্যাগ্রো ফুড অ্যান্ড বেভারেজ। সোমবার (২৭ জুন) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে প্রতিষ্ঠানটিকে জরিমানা করা হয়।

সিএম লাইসেন্স ছাড়া ‘মরিচ গুঁড়া’, ‘হলুদ গুঁড়া’, ‘ধনিয়া গুঁড়া’, ‘জিরা গুঁড়া’, ‘কারি পাউডার’ বিক্রয় ও বাজারজাতের অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে জরিমানা করে বিএসটিআই।

বিএসটিআইয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আমিমুল এহসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ পরিচালিত হয়।


আরও খবর



অরক্ষিত রেলক্রসিং, দুর্ঘটনা নয় হত্যাকাণ্ড: রব

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

সারাদেশে রেলক্রসিং অরক্ষিত রেখে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি মূলত হত্যাকাণ্ড বলে মন্তব্য করেছেন জেএসডি সভাপতি অ স ম আব্দুর রব। রেলক্রসিং সুরক্ষা করতে ৮ দফা দাবি জানিয়েছেন তিনি।

রোববার (৩১ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব দাবি জানান।

রব বলেন, সারাবিশ্বে রেলপথ নিরাপদ হলেও বাংলাদেশে লেভেলক্রসিং অরক্ষিত থাকায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। ফলে লেভেলক্রসিংগুলো যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে অসংখ্য মৃত্যুতে উন্নয়নের ‘রোল মডেল’ প্রতিফলন হয় না।

তিনি বলেন, শুধু গত সাত মাসে রেলপথে দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১৭৮ জন। আর আহত হয়েছেন এক হাজার ১৭০ জন। বিভিন্ন পরিসংখ্যানে জানা যায়, রেলপথে দুই হাজার ৮৫৬টি লেভেলক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে অবৈধ এক হাজার ৩৬১টি। সেই হিসাবে প্রায় ৪৮ শতাংশ অবৈধ। এছাড়াও বৈধ লেভেলক্রসিংগুলোর মধ্যে ৬৩২টিতে গেটম্যান নেই। দেশে ৮২ শতাংশ রেলক্রসিং অনিরাপদ।

‘একটি রাষ্ট্রে অরক্ষিত লেভেলক্রসিং থাকবে আর প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনায় মানুষ নিহত হবে এটা সভ্য দেশে চিন্তাও করা যায় না। রেলক্রসিংগুলোতে নিরাপদ সুরক্ষায় কার্যকর কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় হত্যাকাণ্ডের সব দায় সরকারকে বহন করতে হবে।’

জেএসডি সভাপতি বলেন, অরক্ষিত রেলক্রসিং এ অসংখ্য প্রাণ ঝরে যাওয়ার পরও সরকার কোনো জোরালো পদক্ষেপ নেয়নি। বরং প্রতিটি দুর্ঘটনার পর লোক দেখানো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশ বাস্তবায়নের কোনো পদক্ষেপও নেওয়া হয় না, এমনকি দুর্ঘটনায় দায়ীদের শাস্তির আওতায়ও আনা হয় না। রেল কর্তৃপক্ষ রেলক্রসিংয়ে সংঘটিত দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির কোনো তথ্যও সংগ্রহ করে না।

দাবিগুলো হলো-

১. বৈধ-অবৈধ সব ধরনের অরক্ষিত লেভেলক্রসিং নিরাপদ করতে হবে। রেলক্রসিং এ প্রাণহানির দায়ে শাস্তির বিধান করতে হবে।

২. সব লেভেল ক্রসিং এ প্রয়োজনীয় গেটম্যান নিয়োগ করতে হবে। গেটকিপার পদ স্থায়ী করতে হবে।

৩. প্রত্যেক রেলক্রসিংয়ে শক্তিশালী গেটবার বা পথরোধক স্থাপন করতে হবে। রেলক্রসিংয়ে প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে।

৪. দুর্ঘটনায় দায়ীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে ও রেলের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দায় নির্ধারণ করতে হবে। রেল ব্যবস্থাপনায় সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে।

৫. গেটম্যানদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনে কর্তৃপক্ষর নজরদারি নিশ্চিত করতে হবে।

৬. যানবাহন চালকদের সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রশিক্ষণের আয়োজন করতে হবে।

৭. সড়কে প্রাণহানির দায়ে আইনের কঠোর প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে।

৮. নিরাপদ সড়ক ও রেলপথ নিশ্চিত করতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নিতে হবে।


আরও খবর



কক্সবাজারে হোটেল থেকে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার, পাশে মিললো চিরকুট

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

‘আমার মৃত্যুর জন্য অন্য কেউ দায়ী নয়’ এমন চিরকুট লিখে কক্সবাজার শহরের কলাতলীর একটি হোটেলে কাউসার (২৬) নামে এক পর্যটক আত্মহত্যা করেছেন।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে কলাতলীর পর্যটন জোনের সৈকত পাড়ার একটি হোটেল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। কাউসার জয়পুরহাট সদরের সানাউল মাদরাসা এলাকার দিঘীপাড়া গ্রামের মো. মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে।

এ বিষয়ে কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম বলেন, কাউসার বিষাক্ত ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি। তবে ময়নাতদন্ত শেষেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

তিনি আরও বলেন, কী কারণে আত্মহত্যা করেছেন তা এখনো জানা না গেলেও তার কাছ থেকে বেশ কয়েকটি চিরকুট পাওয়া যায়। যেখানে তিনি তার মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী করেননি ও হোটেল কর্তৃপক্ষকে হয়রানি না করার কথাও লেখা রয়েছে।

কক্সবাজার সদর থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম উদ্দিন বলেন, মঙ্গলবার দুপুরেই ওই পর্যটক কক্ষটি ভাড়া নেন। তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে।

তিনি আরও বলেন, কক্ষে মেলা চিরকুটগুলো নিহতের লেখা কিনা তাও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।


আরও খবর



সিদ্ধিরগঞ্জে চোরাই ডিজেলসহ র‍্যাবের জালে তেল চোর চক্রের ২ সদস্য

প্রকাশিত:Sunday ১৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১২৪জন দেখেছেন
Image

স্টাফ রিপোর্টারঃ-মোঃআবু কাওছার মিঠু 



সিদ্ধিরগঞ্জে এক হাজার লিটার চোরাই ডিজেলসহ জ¦ালানী তেল চোরাই চক্রের ২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল এসও রোড এলাকার মৃত. আলী হোসেনের ছেলে  মো. মাসুম রানা (৩৪) ও একই জেলার বন্দর থানার সোনাচড়া এলাকার মৃত দেলু মিয়ার ছেলে মো.. আবুল হোসেন (৩৫)। 


এ সময় চোরাই ডিজেল তেল পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত একটি পিকআপ জব্দ করে র‌্যাব। শনিবার (১৬ জুলাই) সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে ওই চোরাই ডিজেলসহ গ্রেপ্তার করা হয়।র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তারকৃতরা তেল চুরি চক্রের  সংঘবদ্ধ সক্রিয় সদস্য। তারা দূরপাল্লার ভারী যানবাহনগুলো রাত্রীকালীন চলাচলের সময় চালকরা ক্লান্ত হয়ে রাস্তার পাশে পার্কিং করে বিশ্রাম নিলে বা ঘুমিয়ে গেলে সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে তেল চুরি করে। 


জব্দকৃত পিকআপের উপর বিশেষ কায়দায় তেলের ড্রাম ও মোটর সেট করে মোটরের সাথে পাইপ দ্বারা ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যানের তেলের ট্যাংকি হতে গোপনে তেল চুরি করে নামায়। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর



কক্সবাজারে ছাত্রলীগ নেতা ইমন হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
Image

কক্সবাজার পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমন হাসান মওলা (২০) হত্যা মামলার প্রধান আসামি আবদুল্লাহ খানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার (২৪ জুলাই) ভোরে টেকনাফ থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১৫।

এর আগে শনিবার মধ্যরাতে নিহতের বাবা মো. হাসান বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর থানায় আটজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। এছাড়া এতে অজ্ঞাতনামা আরও ৭/৮ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ইমন কক্সবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। কয়েকমাস আগে তার সঙ্গে মামলার প্রধান আসামি আবদুল্লাহর ঝগড়া হয়, যা স্থানীয়ভাবে নিষ্পত্তিও করা হয়। কিন্তু আবদুল্লাহ বিষয়টি মনের মধ্যে পুষে রেখে প্রতিশোধের সুযোগ খুঁজতে থাকেন। একপর‍্যায়ে ২১ জুলাই রাত সাড়ে ৯টার দিকে ইমন মোটরসাইকেল নিয়ে বাসায় ফেরার সময় আবদুল্লাহর বাড়ির পাশে পৌঁছলে আসামিরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে মারাত্মকভাবে জখম করে।

ওইসময় ইমনের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তার মোটরসাইকেল নিয়ে আসামিরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন ইমন মারা যায়।

এ বিষয়ে মামলার বাদী নিহতের বাবা হাসান বলেন, আমার ছেলে মৃত্যুর আগে তাকে হত্যার সঙ্গে জড়িতদের নাম-ঠিকানা বলে গেছে। সে যাদের নাম বলেছে তাদেরকেই মামলার আসামি করা হয়েছে।

এদিকে, মামলার কয়েক ঘণ্টা পরেই প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। এ নিয়ে রোববার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় সংবাদ সম্মেলন করে র‍্যাব-১৫।

গ্রেফতার আবদুল্লাহ খানের বরাত দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-১৫ এর সহকারী পরিচালক নিত্যানন্দ বলেন, নিহত ইমনের বাবা হাসানের শহরের বাজারঘাটায় একটি পলিথিন, পাপোস ও কার্পেটের দোকান রয়েছে। সেখানে একটি পাপোস কিনতে গিয়েই আবদুল্লাহ খান ও ইমনের মধ্যে বিবাদের শুরু। এরই জেরে ইমন ও তার বন্ধুরা মিলে আবদুল্লাহ ও তার সহযোগীদের ২০২১ সালে মারধর করে। ওই ঘটনায় আবদুল্লাহর পরিবার বাদী হয়ে মামলা করে। তবে মামলাটি সামাজিকভাবে নিষ্পত্তি হলেও এতে মনোক্ষুণ্ন ছিল আবদুল্লাহ। সে প্রতিশোধ নিতে সুযোগের অপেক্ষায় থাকে। সে সুযোগ ২১ জুলাই রাতে আবদুল্লাহ পায়।

তিনি আরও বলেন, আবদুল্লাহকে ইমন হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা পুলিশ নেবে।

কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, নিহতের বাবার দেওয়া এজাহারটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামিকে সোমবার আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। এছাড়া অন্যদের গ্রেফতারেও অভিযান চলছে।


আরও খবর



বরিশালে পানিতে ডুবে শিশুসহ দুজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় পানিতে ডুবে মো. ইব্রাহিম (দেড় বছর) নামের এক শিশু ও ইয়াসিন ফড়িয়া (২০) নামের এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (১ আগস্ট) দুপুরে পুকুরে গোসল করতে গিয়ে ইয়াসিন ফড়িয়ার মৃত্যু হয়। বেলা ১১টার দিকে বাড়ির পাশের একটি পুকুর থেকে মো. ইব্রাহিম নামের ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ইয়াসিন উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের ফুল্লশ্রী গ্রামের শাহাজালাল ফড়িয়ার ছেলে। ইব্রাহিম একই উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের চাঁদত্রিশিরা গ্রামের মোজাম শিকদারের ছেলে।

ইয়াসিনের স্বজনরা জানান, দুপুরে পুকুরে একা গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হন ইয়াসিন। পরে পরিবারের লোকজন পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইয়াসিনের বাবা শাহাজালাল ফড়িয়া বলেন, ‘ইয়াসিন মৃগী রোগে আক্রান্ত ছিল। গোসল করতে গিয়ে হয়তো সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছিল। এ কারণে পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয়েছে।’

ইব্রাহিমের স্বজনরা জানান, ইব্রাহিম বাড়ির পাশে অন্য শিশুদের সঙ্গে খেলা করছিল। একপর্যায়ে দীর্ঘক্ষণ তাকে দেখতে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খুঁজতে থাকেন পরিবারের সদস্যরা। পরে বড়ির পাশের একটি পুকুরে ইব্রাহিমকে ভাসতে দেখা যায়। উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ফারহানা ইসলাম বলেন, ইয়াসিন ও ইব্রাহিমকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। তখন আর কিছু করার ছিল না।

আগৈলঝাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাজহারুল ইসলাম জানান, পরিবার থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় মরদেহ দুটি দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর