Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লায় শিক্ষক হত্যা মামলায় ৬ জনের ফাঁসির আদেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মে 2০২3 | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৭৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক,কুমিল্লা: কুমিল্লায় আলোচিত শিক্ষক হত্যা মামলায় ৬ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ পঞ্চম আদালতের বিচারক জাহাঙ্গীর হোসেন এ রায় দেন।

একই সঙ্গে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড করা হয়। কুমিল্লা আদালতের সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) জাকির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন মো. নয়ন, কামাল, মিঠুন, জামাল, মো. ইলিয়াছ ও জাকির হোসেন। তারা কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার পোচাইতলী গ্রামের বাসিন্দা। রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন জামাল, ইলিয়াস ও জাকির হোসেন। অন্যদিকে, নয়ন, কামাল ও মিঠুন পলাতক রয়েছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১০ সালের ৮ আগস্ট জমি নিয়ে বিরোধে বারপাড়া সিটি স্কুলের শিক্ষক জাহিদুল আজমকে হত্যা করা হয়। তিনি শহরের বারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। এ জাহিদুলের বাবা এ কে এম ফারুক আজম বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ ৯ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে।


আরও খবর



রাষ্ট্রপতি তিনদিনের সফরে রাঙ্গামাটি যাচ্ছেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image
রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন (ফাইল ছবি)

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন প্রকৃতির সজীবতা উপভোগ করতে পাহাড়ের শহর পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে আসছেন ।

আগামী ৮ জুলাই থেকে ১০ জুলাই সকাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি রাঙামাটিতে অবস্থান করবেন বলে খবর পাওয়া গেছে। রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন।

সোমবার (১ জুলাই) সকালে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন খান, পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ, সিভিল সার্জন ডা. নূয়েন খীসা, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী আহম্মদ শফি, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ চাকমাসহ জেলার সকল দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভা সূত্র থেকে জানা যায়, ৮ জুলাই সকলে হেলিকপ্টার যোগে তিনি রাঙামাটি আসবেন। আরণ্যক হলিডে রিসোর্টে রাত্রী যাপন করবেন। ১০ জুলাই সকালে কক্সবাজের উদ্দেশ্যে রাঙামাটি ত্যাগ করবেন।

রাঙামাটি অবস্থানকালে রাষ্ট্রপতি পাহাড়িদের কোমর তাঁতে বোনা ঐতিহ্যবাহী পোশাকের মার্কেট পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে।

৯ জুন হাউজবোটে কাপ্তাই হ্রদ ভ্রমণ করে কাপ্তাই উপজেলায় যাবেন। সেখানে বাংলাদেশের একমাত্র পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শ করবেন। পরে রাষ্ট্রপতি নয়নাভিরার আসামবস্তি সড়ক হয়ে রাঙামাটিতে ফিরবেন বলে জানা গেছে। পরে ১০ তারিখ সকালে রাঙামাটি ত্যাগ করবেন।


আরও খবর



প্রকাশনার ২২ বছরে পদার্পণ করল জাতীয় দৈনিক আমার কাগজ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মদ হেদায়েতুল্লাহ:- র্ষপূর্তির সেমিনারে বক্তারা গণতন্ত্র, সুশাসন ও উন্নয়নের সাথে গণমাধ্যমের সম্পর্ক নিবিড় আমার কাগজ প্রতিবেদক রাজধানীতে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা জনমত গঠনে গণমাধ্যমের বলিষ্ঠ ভূমিকা তুলে ধরে বলেছেন, গণতন্ত্র, সুশাসন ও উন্নয়নের সাথে গণমাধ্যমের সম্পর্ক নিবিড়তম। সরকার প্রশাসন যন্ত্রের মাধ্যমে যে উন্নয়নযজ্ঞ চালায় সে সম্পর্কে গণমাধ্যমই জনগণকে অবগত করাতে পারে।

দৈনিক আমার কাগজ’র ২১ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে  শনিবারে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের মেঘনা হলে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘উন্নয়ন প্রশাসন ও গণমাধ্যম’।


দৈনিক আমার কাগজ সম্পাদক ফজলুল হক ভূইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত আলোচক হিসেবে ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আখতার হোসেন, সুরক্ষা সেবা বিভাগের (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়) সিনিয়র সচিব মো. মশিউর রহমান এনডিসি, বিটিআরসির সাবেক চেয়ারম্যান (সিনিয়র সচিব) শ্যামসুন্দর সিকদার, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. আমিন উল্লাহ নূরী, নজরুল ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক এ এফ এম হায়াতুল্লাহ, সিনিয়র সাংবাদিক ও সাংবাদিক নেতা এম এ আজিজ এবং জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ। 

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্মসচিব মো. ফিরোজ উদ্দিন খলিফা।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দৈনিক আমার কাগজ’র উপদেষ্টা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা হোসেন এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি হাজী আলাউদ্দিন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন হাসান মাহমুদ ও আফরোজা নাইচ রিমা।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন তালুকদার, সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মকবুল হোসেন, সাবেক সচিব নূর মোহাম্মদ মজুমদার, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মুহিদুল ইসলাম, বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ফয়েজ আহমেদ, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তন্ময় দাস, প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. শাহেনুর মিয়া, অতিরিক্ত সচিব মনোজ কুমার রায়, সাবেক অতিরিক্ত সচিব এস এ এম ফজলুল কবির, সাবেক অতিরিক্ত সচিব স্বপন কুমার সরকার ও সিরাজুল হায়দার, চীনের কুনমিংয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল-এর সাবেক কনসাল জেনারেল এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইন্সটিটিউটের প্রধান নির্বাহী ফায়জুল হক, গণমাধ্যমের সাথে সমন্বয় ও উন্নত সেবা প্রদান প্রকল্পের পরিচালক মো. মমিনুল হক জীবন, যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ হোসেন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান, পুলিশ স্টাফ কলেজের ভাইস রেক্টর (ডিআইজি) মো. রেজাউল হক, সাবেক ডিআইজি মেজবাহুন নবী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক আহমেদুল কবীর, জাতীয় পুষ্টি পরিষদের মহাপরিচালক হাসান শাহরিয়ার কবিরসহ অনেক সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা ও গণমাধ্যম কর্মী। 


জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ অনুষ্ঠানের বিষয়বস্তুকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে বলেছেন, প্রশাসন গণমাধ্যমের নিরপেক্ষ ভূমিকা প্রত্যাশা করে। তিনি বলেন, উন্নয়ন ও প্রশাসনিক কর্মকান্ডে ব্যর্থতা থাকতে পারে। সেসগুলো গুরুত্বের সঙ্গে গণমাধ্যমে তুলে ধরতে হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতায় চলতি বছর হজ চলাকালে বাংলাদেশী হাজীদের নানা দুর্ভোগের কথা তুলে ধরে আরো বলেন, লাখ লাখ টাকা খরচ করে লোকজন হজে গিয়ে নানা কষ্ট করলেও সেসব দেখার কেউ নেই। এমনকি হজ মিশন কিংবা এ্যাম্বেসির কাউকে পাওয়া যায় না। নেই কোনো হেল্প ডেস্ক। অথচ বিনা পয়সায় যারা হজে যান, তারা নানা সুবিধা ভোগ করেন। তিনি বলেন, যাদের যা দায়িত্ব, তারা সেটি সঠিকভাবে পালন করলে কোনো সমস্যা থাকার কথা নয়। 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আখতার হোসেন বলেন, সরকার প্রশাসন যন্ত্রের মাধ্যমে সকল কাজ সম্পাদন করে। সরকার গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচী গণমাধ্যমের মাধ্যমেই জনগণ অবহিত হয়। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার রূপরেখা দিয়েছেন। সেটি বাস্তবে রূপ দিতে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরি। এ প্রসঙ্গে তিনি সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত ‘দুর্নীতিকান্ড’ নিয়ে বলেন, দুর্নীতি সর্বস্তরে হচ্ছে। দুর্নীতিবাজদের বয়কট করার মাধ্যমে সেটি প্রতিরোধ করা সম্ভব।  

সুরক্ষা সেবা বিভাগের (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়) সিনিয়র সচিব মো. মশিউর রহমান এনডিসি বিষয়বস্তুতে ‘গণমাধ্যম’ শব্দের সংযোজন সম্পর্কে বলেন, বর্তমানে গণমাধ্যম দু’ধারায় বিরাজমান। একটি সামাজিক যোগাযোগ এবং অপরটি সংবাদমাধ্যম। তিনি সংবাদমাধ্যমের দায়বদ্ধতা তুলে ধরে বলেন, বর্তমানে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। কাজ করলে ভুল হতে পারে। সেই ভুলগুলো ইতিবাচকভাবে ধরিয়ে দিলে প্রশাসন শুধরে নিতে পারে। কিন্তু তথ্যগত বিভ্রাটের জন্য অনেক সময় ভুল ধারণার সৃষ্টি হচ্ছে।  


বিটিআরসির সাবেক চেয়ারম্যান (সিনিয়র সচিব) শ্যামসুন্দর সিকদার গণমাধ্যমের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, সংবাদপত্র হচ্ছে সমাজের দর্পণ। বিভিন্ন স্তরের অনিয়ম-অসঙ্গতি সংবাদপত্রের মাধ্যমেই সংশ্লিষ্টরা জানতে পারেন। কাজেই সংবাদপত্রকে দায়িত্বশীল হতে হবে।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. আমিন উল্লাহ নূরী বলেন, গণমাধ্যম সমাজের দর্পণ। গণমাধ্যমের মাধ্যমেই সরকারের উন্নয় কর্মকান্ড যেমন প্রচার হয়, তেমনি অনিয়ম-অসঙ্গতিগুলো প্রকাশ পায়।  

নজরুল ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক এ এফ এম হায়াতুল্লাহ বলেন, উন্নয়ন প্রশাসনকে গণমাধ্যমকে একীভূত করা না গেলে কোন কাজে সফলতা আসবে না। জনগণও পুরোপুরি সুফল পাবে না।

সিনিয়র সাংবাদিক এম এ আজিজ বলেন, আইনে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা যতটুকু, গণতন্ত্র ততটুকু থাকে। তিনি বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের কথা বলা হয়। অথচ এ দেশের কোনো প্রতিষ্ঠান চতুর্থ শিল্প উপযোগী হিসেবে এখনো গড়ে ওঠেনি।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ বলেন, উন্নয়ন ও গণতন্ত্র একের সাথে আরেকটা সম্পৃক্ত। গণমাধ্যম না তাকলে উন্নয়ন থাকে না, গণতন্ত্র থাকে না। বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার কারণে বর্তমানে গণমাধ্যম সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছে না বলে তিনি অভিযোগ করেন।


মূল প্রবন্ধে জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্মসচিব মো. ফিরোজ উদ্দিন খলিফা উল্লেখ করেন, যে দেশে প্রচার মাধ্যম স্বাধীন-শক্তিশালী সে দেশে গণতন্ত্র উন্নত এবং উন্নয়নও গতিশীল। উন্নয়ন প্রশাসন ও গণমাধ্যমের ভবিষ্যৎ অঙ্গিকার হলো চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের মাধ্যমে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মতো যুগান্তকারী বিভিন্ন প্রযুক্তি দ্বারা বিনির্মিত হবে স্মার্ট বাংলাদেশ।


‘স্মার্ট বাংলাদেশে’ মাথাপিছু আয় হবে কমপক্ষে ১২ হাজার ৫০০ মার্কিন ডলার; দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকবে ৩ শতাংশের কম মানুষ আর চরম দারিদ্র্য নেমে আসবে শূন্যের কোঠায়; মূল্যস্ফীতি সীমিত থাকবে ৪-৫ শতাংশের মধ্যে; বাজেট ঘাটতি থাকবে জিডিপির ৫ শতাংশের নিচে; রাজস্ব-জিডিপি অনুপাত হবে ২০ শতাংশের উপরে; বিনিয়োগ উন্নীত হবে জিডিপির ৪০ শতাংশে। শতভাগ ডিজিটাল অর্থনীতি আর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিভিত্তিক সাক্ষরতা অর্জিত হবে। সকলের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে যাবে। স্বয়ংক্রিয় যোগাযোগ ব্যবস্থা, টেকসই নগরায়নসহ নাগরিকদের প্রয়োজনীয় সকল সেবা থাকবে হাতের নাগালে। তৈরি হবে পেপারলেস ও ক্যাশলেস সোসাইটি। আর এ সব কিছুর পেছনে মূল লক্ষ্য হবে সমতা ও ন্যায়ভিত্তিক একটি সুখী সমাজব্যবস্থা গড়ে তোলা।

   -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



তাহিরপুরে সাধারণ মানুষকে হয়রানি,ভয়ভীতি ও ব্ল্যাকমেইল করে চাদাঁবাজির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৫০জন দেখেছেন

Image
জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সাধারণ মানুষকে অযথা হয়রানি, ভয়ভীতি ও ব্ল্যাকমেইল করে দিনের পর দিন চাদাঁবাজি করে আসছে এমন অভিযোগে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে।১৩ জুলাই (রবিবার) বিকেলে উপজেলার বাদাঘাট বাজার মেইন রোডে  তাহিরপুর উপজেলাবাসীর ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্টিত হয়।শেষে বিক্ষুদ্ধ জনতা ঝাড়ু হাতে নিয়ে নানা কুকর্ম তুলে ধরে স্লোগানে স্লোগানে বাদাঘাট বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তি উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত বৈদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ।বিক্ষোভ মিছিল শেষে বাজারের মেইন রোডে বিক্ষুদ্ধ জনতা এক প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।এসময় বক্তারা,তাহিরপুর সীমান্তের  ভারতীয় বুঙ্গার কয়লা,চিনি,মাদক,গাঁজা ইয়াবার ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন ভারতীয় পণ্য চোরাচালানের গডফাদার এই হাবিব সারোয়ার আজাদের নানা কুকর্মের ইতিহাস সাধারণ জনতার সামনে তুলে ধরেন।বক্তরা বলেন,আজাদ সাংবাদিকতাকে পুঁজি করে সীমান্তের কালো ব্যাবসায়ীদের দ্বারা একটি সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ বাহিনী গড়ে তুলে। এ বাহিনী নিয়ে সীমান্ত এলাকার কালো ব্যবসার বিভিন্ন পয়েন্টসহ এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে চোরাচালান ও মাদক ব্যবসার নিয়ন্ত্রন করতে শুরু করে। যা আজ অবধি বহাল রয়েছে। সাধারন মানুষ তার এসব কালোবাজারি ব্যাবসা ও অপকর্ম জানা স্বত্তেও ভয়ে মুখ খুলতে চাইনা।তার আন্ডারগ্রাউন্ডের এসব অপকর্ম নিয়ে কেউ মুখ খুলতে চাইলে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করে মামলা দিয়ে হয়রানি করে।

বক্তরা আরও বলেন,এসব মাদক ব্যবসা ও ভারতীয় কয়লা ও চিনির চোরাচালান করে গত কয়েক বছরে আজাদ কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। এছাড়াও হাবিব সারোয়ার আজাদ নিজেকে সাংবাদিক ও র‌্যাব,পুলিশ, বিজিবির সোর্স পরিচয় দিয়ে তার একান্ত সহযোগীদের নিয়ে সীমান্ত এলাকা দিয়ে মাদকদ্রব্য পাচাঁর করাসহ চাঁদাবাজি করতে গিয়ে দফায় দফায় গণধৌলাইয়ের শিকার হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আদালতে ও থানায় চাঁদাবাজি  ও চোরাচালান ও শিশু বলৎকারসহ একাধিক মামলা হয়েছে। শুধু তাই নয় "হাবিব সারোয়ার আজাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার পুরানো ও মূর্তি ভাংচুর মামলাও রয়েছে। এব্যাপারে ব্যবসায়ী আফজাল হোসেন,আব্দুল হক, নাঈম আহমেদ, কামরুল ইসলামসহ আরো অনেকেই বলেন, মাদ, গাজাঁ, ইয়াবা ব্যবসায়ীসহ সীমান্তের চোরাচালানের গডফাদার  হাবিব সারোয়ার আজাদের অত্যাচারে এলাকার সর্বস্তরের মানুষ অতিষ্ট হয়ে পড়েছে,তার এইসব অপকর্মের সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক বিচারের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে জোর দাবি করছি। 

ব্যবসায়ী আব্দুল হক(৪৮) বলেন,হাবিব সারোয়ার আজাদ প্রশাসনের নাম ভাংগিয়ে ওপেন চাঁদাবাজি ও মাদকের ব্যবসা করছে,তার কারণে এলাকার ছোট বড় সকলেই অতিষ্ট, আমরা তার দৃষ্ঠান্ত মূলক শাস্তি দাবী করছি। 

উল্লেখ, গতকাল ২০১৮ সালে ইয়াবা বিক্রি শেষে চরগাঁও লতারকিত্তা নামকস্থানে যাওয়ার পর খবর পেয়ে এলাকাবাসী ৩৪৫পিছ ইয়াবাসহ হাবিব সারোয়ার আজাদকে হাতেনাতে আটক করে। এসময় আজাদ মাতাল অবস্থায় এলাকার লোকজনের সাথে খারাপ আচরণ করলে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে তাকে গণধৌলাই দেয়। খবর পেয়ে বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন এসআই সাইদুর ও এএসআই পীযুষ ঘটনাস্থলে গিয়ে ইয়াবাসহ মাতাল অবস্থা তাকে গ্রেফতার করে। একই সালে পার্শ্ববর্তী বিন্নাকুলি বাজারে ইয়াবা বিক্রি করার সময় হাবিব সারোয়ার আজাদের ভাতিজা জুবায়ের শাহকে ৫০০পিছ ইয়াবাসহ র‌্যাব গ্রেফতার জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



কোটা সংস্কারের দাবিতে সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image
জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:চলমান কোটা সংস্কার ও মেধাভিত্তিক নিয়োগে সরকারি পরিপত্র বহাল রাখার দাবির প্রতি একাত্মতা ঘোষনা করে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বেলা ৩ টায় শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়কের জিআরপি মোড়ে ছাত্র আন্দোলনের’ ব্যানারে এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মানববন্ধন করেন তারা।জুম্মার নামাজ শেষে বৈষম্য বিরোধী নানা ফেস্টুন ও ব্যনার নিয়ে উল্লেখিত স্থানে জড়ো হয় হতে থাকে শিক্ষার্থীরা। চলমান আন্দোলনের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে, সুযোগের সমতা নিশ্চিতের দাবি জানান তারা। এই সময় বক্তব্য দেন মো: রিফাত, মো: শান্ত, সুজন ইসলাম, সিয়াম হোসেন প্রমূখ।আন্দোলনে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে  বলেন, দেশ এখন স্মার্ট আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ থেকে প্রতিনিয়ত মেধাবীরা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে আসছে। আগামীর বাংলাদেশের কাণ্ডারি হবে দেশের মেধাবীরা। সেজন্য মেধার সর্বাত্মক সুযোগ বজায় রাখা কাম্য।
শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, দেশের সর্বস্তরে কোটা সংস্কার বিষয়ক যেসব আন্দোলন হচ্ছে তা যৌক্তিক। মেধার মুল্যায়ন না হলে দেশে শিক্ষার কমে যাওয়ার আশংকা অনেক। তাই মেধার মুল্যায়ন করতে হবে।  সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছে। মেধার মূল্যায়নকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়ার জানান আন্দোলনকারীরা।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



মাগুরায় জমি নিয়ে দাঙ্গা যুবক খুন বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা সদর উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামে জমিজমা দাঙ্গায়  জাহিদ মোল্যা (৪৪) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। নিহত জাহিদ ওই গ্রামের আবদুল কুদ্দুস মোল্যার ছেলে।

এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামের আনারুল মোল্যার সাথে বড় ভাই জয়নাল মোল্যার ছেলে আশরাফ মোল্যার মধ্যে  জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। বৃহস্পতিবার বিকালে আনারুল মোল্যা বাড়ির সামনে বিরোধপূর্ণ একটি জমিতে মাটি ভরাটের কাজ করছিলো। এ সময় তার ভাতিজা আশরাফ এতে বাঁধা দিলে উভয় পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। উভয় পরিবারের সমর্থনে একই গোষ্ঠির লোকজন ঢাল সড়কি নিয়ে দাঙ্গায় লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন কমবেশি আহত হয়। আহতদের মধ্যে আলতাফ মোল্যা (৫৩), আলমগীর (৪৫), জাহিদ বিশ্বাস (৪৪), জাহিদ মোল্যা (৪৪), মোশারফ মোল্যা (৫৬), উজ্জ্বল মোল্যা (২৪), পিকুল মোল্যা (৪২), মনিরুল (৩২), নাসিরুল রফিক মোল্যা (৩৮), রবিউল মোল্যা (৪০), শমসের মোল্যা, হাসানুর মোল্যা (৪০) ও সায়েদ মোল্যা (৩৫) কে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত জাহিদ মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মধুখালী পৌছালে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে জাহিদ মোল্যার মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থিতরা প্রতিপক্ষের অন্তত ১০টি বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মেহেদী রাসেল বলেন, খবর পেয়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।


আরও খবর