Logo
আজঃ Tuesday ২৪ May ২০২২
শিরোনাম

ক্রিকেটার নাসির হোসেন বাবা হলেন

প্রকাশিত:Monday ১৮ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১৫৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে অবশেষে পুত্র সন্তানের বাবা হলেন জাতীয় ক্রিকেটার নাসির হোসেন। গত ৮ এপ্রিল নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মি দম্পতির কোলজুড়ে এসেছে তাদের প্রথম সন্তান। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে খবরটি নিশ্চিত করেছেন নাসির নিজেই।


গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তামিমা তাম্মির বেবি বাম্পের ছবি পোস্ট করে সবার কাছে দোয়া চেয়েছিলেন নাসির। তবে এর আগে গত ডিসেম্বরেই জানা যায়, বাবা হতে চলেছেন এ তারকা অলরাউন্ডার।


অবশেষে প্রথমবারের মতো বাবা হওয়ার অনুভূতি পেলেন ৩০ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার। দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন নাসির-তামিমা দম্পতি।


উল্লেখ্য, গত বছরের ১৪ এপ্রিল বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন নাসির ও তামিমা। এরপর থেকে এ বিয়ে নিয়ে নানান ঝামেলা পোহাতে হয়েছে এ দুজনকে। এমনকি বারবার যেতে হয়েছে আদালতেও।


আরও খবর



তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৩৩ হাজার পরিবার

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১১৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দেশের ৩২ হাজার ৯০৪ গৃহ ও ভূমিহীন পরিবার আসন্ন ঈদের আগে তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ঘর পেয়েছেন।গণভবন থেকে মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) ভিডিও কনফারেন্সে এসব ঘর হস্তান্তর করেন শেখ হাসিনা।


প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের হাতে ঘরের চাবি তুলে দেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।


তৃতীয় ধাপের এসব ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা বলেন, আমার সবচেয়ে ভালো লাগে যখন দেখি একটা মানুষ ঘর পাওয়ার পর তার মুখের হাসি। জাতির পিতা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন।


সবার জন্য আবাসন নিশ্চিত করতে সরকারের কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাকি যে ঘরগুলো আছে সেগুলো আস্তে আস্তে তৈরি করে সব মানুষ যেন মানুষের মতো বাঁচতে পারে, সুন্দর জীবন পেতে পারে। সেটাই আমাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না, ভূমিহীন থাকবে না। এটাই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।



শেখ হাসিনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে ঘোষণা দিয়েছেন যে, বাংলাদেশের কোনো মানুষ যাতে ভূমি ও গৃহহীন না থাকে। সেজন্য তিনি দুই শতক জমির উপর দুই রুম বিশিষ্ট একটি ঘর উপহার দিচ্ছেন। এসব ঘরের ডিজাইন প্রধানমন্ত্রী নিজেই প্রণয়ন করেছেন।


তৃতীয় ধাপে এসব ঘর দেওয়ার আগে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ঘর পেয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৩২৯টি পরিবার। তৃতীয় ধাপের আরও ৩২ হাজার ৭৭০টি ঘর নির্মাণাধীন রয়েছে।


আশ্রয়ণের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের চেয়ে তৃতীয় ধাপের ঘরগুলো অনেক বেশি টেকসই। তৃতীয় ধাপে একেকটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা। তৃতীয় ধাপের ঘরগুলোতে আরসিসি পিলার, গ্রেড ভিম, টানা লিংকটারসহ বেশ কিছু বিষয় সংযোজন করা হয়।  



এসব ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের পোড়াদিয়া বালিয়া, বরগুনা সদর উপজেলার গৌরিচন্না ইউনিয়নের খাজুরতলা, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী ইউনিয়নের খোকশাবাড়ী ও চট্টগ্রামের আনোয়ারার বারখাইন ইউনিয়নের হাজিগাঁওয়ে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।


আরও খবর



রান্না করা মাংস ও সালাদের দোকানে কাজ করতেন টাইটানিক ছবির নায়িকা

প্রকাশিত:Monday ২৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
Image

 বিনোদন ডেস্ক।

হলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কেট উইন্সলেট। ‘টাইটানিক’ সিনেমায় রোজের চরিত্রে অভিনয় করে জয় করে নিয়েছেন অস্কার। হয়েছেন কালজয়ী সিনেমার অংশ।


দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের মতে, একজন অভিনেত্রী হিসেবে উইন্সলেটের নমনীয়তা স্পষ্ট। তিনি ‘টাইটানিক’ এবং দার্শনিক ‘রেব্যুলোশনারি রোড’- এর মতো ব্লকবাস্টার সিনেমায় অভিনয় করার পাশাপাশি। এইচবিওর ‘মিলড্রেড পিয়ার্স’ এবং ‘মেয়ার অফ ইস্টটাউন’- এর মতো ড্রামাতেও অভিনয় করেছেন। হয়েছেন বিখ্যাত।



তবে কেট উইন্সলেট বিখ্যাত এবং মিলিয়ন ডলার উপার্জন শুরু করার আগে বাকিদের মতো সাধারণ কাজ করতেন।


বার্কশায়ার লাইভ অনুসারে, উইন্সলেট বার্কশায়ারের রিডিং শহরে বেড়ে উঠেন। অভিনেত্রী হওয়ার আগে রান্না করা মাংস এবং তৈরি করা সালাদ ইত্যাদির দোকানে কাজ করতেন।



তিনি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, তার প্রথম সিনেমা ‘হেভেনলি ক্রিয়েচার’- এ অভিনয় করার সময় অভিনয়ের ক্যারিয়ারকে সুরক্ষিত করার আশায় পার্শ্ব কাজ হিসেবে তিনি ডেলিতে কাজ চালিয়ে যান। কেননা একজন অভিনেত্রী হিসেবে জীবিকা নির্বাহ করা বেশ কঠিন। বিশেষ করে যখন কেউ সবেমাত্র কাজ শুরু করে।


তিনি বলেন, ‘অবশ্য যখন আমি বিখ্যাত সিনেমাগুলোতে প্রধান চরিত্রে সুযোগ পেতে শুরু তখন সময়ের সঙ্গে সবকিছু বদলে যায়।’

১৯৯৪ সালে শোবিজ দুনিয়ায় আত্মপ্রকাশের পর উইন্সলেটের পরবর্তী দুর্দান্ত হিট ছিল ১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সেন্স অ্যান্ড সেন্সিবিলিটি’ ছবিটি। এরপর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। অনেক দূর এগিয়ে শক্ত করে নিয়েছেন নিজের স্থান।


আরও খবর



ধুপখোলা মাঠকে মাঠ হিসেবে ব্যবস্থাপনা করতে হবে

প্রকাশিত:Saturday ১৪ May ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৩ May ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

পুরাতন ঢাকার গেন্ডারিয়ার ধুপখোলা মাঠকে সম্পূর্ণরূপে মাঠ হিসেবে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আইনজীবী ও বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।


তিনি বলেছেন, মাঠটিকে মাঠ হিসেবে ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এখানে যত স্থাপনা আছে এগুলো সরিয়ে ফেলতে হবে।



শনিবার (১৪ মে) পরিবেশ ও সংস্কৃতি কর্মী এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা ধূপখোলা মাঠ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।


রেজওয়ান হাসান বলেন, ঢাকা শহরের মাস্টার প্ল্যান ও হাইকোর্টের রায়ে বলা আছে, মাঠের মধ্যে কোনো স্থাপনা হতে পারবে না। আর ধূপখোলা মাঠের মতো এরকম ঐতিহ্যবাহী মাঠ নেই। যে কোনো নির্মাণ কাজ করতে গেলে ওখানে একটা সাইনবোর্ড দিয়ে জনগণকে জানাতে হবে এই নির্মাণ কাজ কে করছে, অর্থায়ন কে করছে, ইঞ্জিনিয়ার কে, অনুমোদনের তারিখ কবে। এখানে এরকম কোনো সাইনবোর্ড আমরা দেখতে পাইনি।



তিনি আরও বলেন, ঢাকা শহরের বেশির ভাগ খেলার মাঠ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে সিটি করপোরেশন। আর সিটি করপোরেশন যদি আইন ভঙ্গ ও হাইকোর্টের রায় উপেক্ষা করে মাঠের মধ্যে স্থাপনা করে তাহলে জনগণ যাবে কোথায়। এখানে ‘রক্ষকই ভক্ষক’ এই উদাহরণ সৃষ্টি করছে সিটি করপোরেশন।


পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সহ-সভাপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, মহানগরী, বিভাগীয় শহর ও জেলা শহরের এলাকাসহ দেশের সব পৌর এলাকার খেলার মাঠ, উন্মুক্ত স্থান, উদ্যান ও প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইন, ২০০০ অনুসারে মাঠে কোনো স্থাপনা করার সুযোগ নেই। এই আইনে বিজিএমইএ ভবন ভেঙে ফেলা হয়েছে। ধূপখোলা মাঠে যে সব অবৈধ নির্মাণ কাজ রয়েছে সেগুলো সরিয়ে ফেলতে হবে। আর এই কাজটি করতে সিটি করপোরেশনকে উদ্যোগ নিতে হবে।



নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসেন বলেন, দেশের আইন ও উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী কোনো মাঠে স্থাপনা তৈরি করা যায় না। খেলার মাঠ খেলার জন্যই উন্মুক্ত থাকবে। ধূপখোলা মাঠ ঢাকার মধ্যে সবচেয়ে বড় খেলার মাঠ। এছাড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররাও এখানে খেলাধুলা করেন।


তিনি নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য সিটি করপোরেশনের প্রতি আহ্বান জানান।


প্রতিনিধি দলে আরও উপস্থিত ছিলেন- গ্রিন ভয়েসের প্রধান সমন্বয়ক আলমগীর কবির, কেন্দ্রীয় সহ-সমন্বয়ক হুমায়ুন কবির সুমন, ময়মনসিংহ বিভাগের সমন্বয়ক শাকিল কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক তারেক রহমান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মিল্টন, পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দীন, ক্যামেলিয়াসহ অন্যান্য নেতারা।



আরও খবর



কি কারণে হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে তা এখোনো পরিষ্কার নয়

নরসিংদীতে মা ও ছেলে-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৬৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

নরসিংদী জেলার বেলাব উপজেলায়  বাবলা গ্রামে বসতঘর থেকে মা ও ছেলে-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  


রোববার (২২ মে) সকালে উপজেলার পাটুলী ইউনিয়নের বাবলা গ্রাম থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।ধারণা করা হচ্ছে, শনিবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় তাদের ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে।


নিহতরা হলেন- উপজেলার পাটুলী ইউনিয়নের বাবলা গ্রামের গিয়াস উদ্দিন শেখের স্ত্রী রাহিমা বেগম (৩৫), তার ছেলে রাব্বি শেখ (১২) এবং মেয়ে রাকিবা আক্তার (৭)। রাহিমা বেগম পেশায় একজন দর্জি ছিলেন।


পুলিশ জানায়, নিহত রহিমার স্বামী পেশায় রং মিস্ত্রি। তিনি কাজের সুবাদে শনিবার (২১ মে) গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার আড়ালিয়া গ্রামে যান। সকালে বাড়িতে এসে দেখেন ঘরে স্ত্রী ও দুই সন্তানের মরদেহ পড়ে আছে। পরে তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধারের কাজ শুরু করেন।


নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান  বলেন, কি কারণে হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে তা এখোনো পরিষ্কার নয়। তবে আমরা তদন্ত শুরু করেছি। মরদেহ উদ্ধারের কাজ চলছে।


আরও খবর



সিদ্ধিরগঞ্জে ১০বছরের শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকা থেকে ১০বছরের শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Sunday ১৫ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

শরীফ আহমেদঃ   

নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন মিজমিজি এলাকার আলাউদ্দিনের বাসা থেকে ১০ বছরের শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ।


নিহতের নাম মেহেদী হাসান সে মিজমিজি এলাকার আলাউদ্দিনের বাড়ির ভাড়াটিয়া জাহাঙ্গীরের পুত্র তার মায়ের নাম পারভিন বেগম।


নিহত মেহেদী হাসানের পিতা জাহাঙ্গীর পেশায় ইমারত নির্মাণ শ্রমিক এবং মা পারভীন বেগম গার্মেন্টস শ্রমিক বলে জানা গেছে।


রবিবার ১৪ মে বিকেলে মেহেদী হাসানের গলায় গামছা প্যাঁচানো মৃত দেহটি ঘরের আড়ার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।


প্রাথমিকভাবে মেহেদী হাসানের রহস্যজনক মৃত্যুর সঠিক কারণ জানাতে পারেনি পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।


আরও খবর