Logo
আজঃ মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

ক্রিকেট ২০২৮ অলিম্পিকেও জায়গা পেল না

প্রকাশিত:শনিবার ২১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ২২১জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক: বিশ্বেরে সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ অলিম্পিকে ক্রিকেটের অন্তর্ভুক্তি নিয়ে বহু দিন ধরেই দেন দরবার চলছে। তবে আরও একবার ব্যর্থ হতে হলো। ২০২৮ সালের লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিকে ক্রিকেটকে যুক্ত করা হচ্ছে না। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক্স কমিটির (আইওসি) পক্ষ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে।

ইতোমধ্যে আইওসির তরফ থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলকে (আইসিসি) এই বিষয়টি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু জানা যায়, সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে ২০২৮-এ না হলেও, তার পরের অলিম্পিক অর্থাৎ ২০৩২ সালের ব্রিসবেন অলিম্পিকে ক্রিকেটকে অন্তর্ভুক্ত করা হতে পারে। তবে সবটাই এখনও জল্পনাও স্তরেই রয়েছে।

আইসিসি একটি নতুন অলিম্পিক কমিটিও গঠন করে ফেলেছে। যার নেতৃত্বে থাকবেন বিসিসিআই সেক্রেটারি জয় শাহ। তিনি আইসিসিতে আবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের হয়েও প্রতিনিধিত্ব করেন।

এর আগে আইওসি ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে জানিয়েছিল যে, লস অ্যাঞ্জেলেস গেমসে মোট ২৮টি ক্রীড়া ইভেন্ট হবে এবং তরুণদের কথা মাথায় রেখে সম্ভাব্য নতুন খেলাগুলিকেও যুক্ত করা হবে। তবে ক্রিকেটকে আপাতত দূরেই সরিয়ে রাখল সংস্থাটি।

১৯০০ সালের প্যারিস অলিম্পিক গেমসে ক্রিকেট শুধুমাত্র একবারই অংশ ছিল। যেখানে গ্রেট ব্রিটেন এবং আয়োজক ফ্রান্স- এই দুই দলই ছিল অংশগ্রহণকারী। গত বছর অগস্টে আইওসি আরও আটটি ক্রীড়া শাখার সঙ্গে পর্যালোচনার জন্য সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত করেছিল। শোপিস ইভেন্টের জন্য বিবেচনা করা বাকি আটটি খেলা হল, বেসবল/সফটবল, পতাকা ফুটবল, ল্যাক্রোস, ব্রেক ডান্সিং, কারাতে, কিকবক্সিং, স্কোয়াশ ও মোটরস্পোর্ট।

অলিম্পিকে না হলেও ২০২২ কমনওয়েলথ গেমসে আটটি দেশের মধ্যে নারীদের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ক্রিকেটকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়া ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছিল।


আরও খবর



ঈদযাত্রায় যুক্ত হবে বিআরটিসির ৫৫০ বাস

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) ৫৫০টি বাস,আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে রাজধানী শহর ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী পরিবহনে অংশ নেবে  । দূরপাল্লার বাসগুলোর পাশাপাশি এই বাসগুলো সার্ভিস দেবে।

সোমবার (১৮ মার্চ) সকালে মতিঝিল বিআরটিসি ভবনে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্তের কথা জানান সংস্থাটির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা গত সপ্তাহে ঈদে উপলক্ষ্যে মিটিং করেছি। সেখানে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, ঢাকা শহরে আমাদের ৬০০টি বাস আছে। এখান থেকে ঢাকা শহরের জন্য ৫০টি বাস রেখে বাকি ৫৫০টি বাস ঈদ সার্ভিসে যুক্ত করা হবে। এছাড়া আমাদের বাকি দূরপাল্লার বাসগুলো নিয়মিত চলবে। এবার ঈদের ছুটি লম্বা হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঈদ পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা পত্রিকায় গণ বিজ্ঞপ্তি আকারে কয়েকদিনের মধ্যেই দিয়ে দেবো।

তাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের বহরের গাড়িগুলোর মাত্র ৩৪টির লিজে আছে। আমরা আর গাড়ি লিজে চালাবো না। এটি শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা হবে।

তিনি বলেন, ২০২০ সালে ১ হাজার ৮২৫টি বাসের মধ্যে ৮৮৫টি বাস অনরুট ছিল; ২০২১ সালে ১ হাজার ৭৬২টি বাসের মধ্যে ১ হাজার ১০৬টি বাস অনরুটি ছিল, ২০২২ সালে ১ হাজার ৩৫০টি বাসের মধ্যে ১ হাজার ২৩৩টি বাস অনরুটে ছিল এবং ২০২৩ সালে ১ হাজার ৩৫০টি বাসের মধ্যে ১ হাজার ২৫৩টি বাস অনরুটে ছিল।


আরও খবর



মানবতায়-"৯৪" গ্রুপের দোয়া ও ইফতার মাহফিল

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ২৮৯জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃ 

রাজধানীর ডেমরা ছোট পাইটি আমবাগান 'মদিনাতুল উলুম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এতিমখানা মাদ্রাসা'য় মানবতায়-"৯৪" গ্রুপের পক্ষ থেকে "মৃত ও জীবিত সকল ৯৪" বন্ধুদের জন্য দোয়া কামনায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ও এতিম শিশুদের সাথে নিয়ে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।শনিবার ২৩ মার্চ এই ইফতার মাহফিলের কর্মসূচি পালিত হয়। এই কর্মসূচির আওতায় ১৫৫ জন এতিম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের ইফতার এবং ভালো খাবার সরবরাহ করা হয়।দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এতিমখানা মাদ্রাসায় পড়াশোনা করা এসব শিক্ষার্থীদের কারও বাবা নেই, কারও মা নেই; আবার কারও বাবা-মা কেউই নেই। সব সময় ভালো খাবার জোটেও না। ২৩ মার্চ এই শিক্ষার্থীরা রমজানের ইফতার পেয়ে উচ্ছ্বসিত এতিম ও সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীরা। সবাই আনন্দ-উৎসবের সঙ্গে ইফতার করেন। ছিল মৌসুমী ফল তরমুজ, আপেল,মালটা,কলা, খেজুর এবং সুস্বাদু মোরগ পোলাও।


মানবতায়-"৯৪" গ্রুপের এই আয়োজনের প্রশংসা করে মদিনাতুল উলুম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এতিমখানা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এটি খুব ভালো একটি উদ্যোগ। ছোট্ট অসহায় শিশুদের নিয়ে ইফতার করা এক ভিন্ন অভিজ্ঞতা। সারা দিন অনাহার যাপন শেষে যখন ইফতার সামনে আসে, তখন এমনিতেই মন ভালো হয়ে যায়। আর আজ মানবতায়-"৯৪" গ্রুপের কল্যাণে এই এতিম শিশুদের হাসিমুখ দেখে মন ভরে গেল। মানবতায়-"৯৪" গ্রুপের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।’

সংগঠনটি দীর্ঘ বছর ধরে অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।



আরও খবর



ব্যবস্হাপকের পারিবারিক কাজে ব্যবহার হচ্ছে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের রেষ্টহাইজ

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৬৭জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:সৈয়দপুর বিমানবন্দরের রেষ্ট হাউজটি ব্যবস্হাপকের পারিবারিক কাজে ব্যবহার হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে দিয়ে ও প্রতিকার না পাওয়ার ও অভিযোগ পাওয়া যায়।সরে জমিন গিয়ে দেখা যায়, দেশ বিদেশের গুরুত্বপূর্ণ যাত্রীদের দিন বা রাত্রি যাপন করার জন্য সিভিল অ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষ সৈয়দপুর বিমানবন্দর সংলগ্ন প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি দ্বিতল ভিআইপি ভবন নির্মাণ করে। যেখানে রয়েছে, ডাবল বেড এর ৪ টি রুম।খাবারের জন্য বিশাল মাপের ডাইনিং। প্রতিটি শয়নকক্ষে একটি করে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র। ড্রয়িং ও ডাইনিং রুমে রয়েছে একই মানের যন্ত্র। খাবার তৈরির জন্য ইলেকট্রিক হিটারও চুলা। কিন্তু এরপরও সেখান থেকে একটি পয়সা ও ইনকাম হয়না সিভিল অ্যাভিয়েশনের।কারন এটি ব্যবস্হাপক নিজ দখলে রেখে পারিবারিক কাজে ব্যবহার করছেন। 

চাকরি হারানোর ভয়ে নাম প্রকাশ করতে না চাওয়া অনেকেই বলেন,ভিআইপি কোন যাত্রী রেষ্ট হাউজটি ভাড়া চাইতে গেলে বলা হয় রেষ্ট হাউজটি খালি নাই।একারনে সেটি ভাড়াও হয়না মাসের পর মাস।ব্যবস্হাপক ওই রেষ্ট হাউজে রাজ হাসও কবুতরের খামার গড়ে তুলেছেন। আর এসব দেখাশোনা করছেন,৩ জন সরকারি কর্মচারী। আর তাদের বেতন দেয়া হয় সরকারের কোষাগার থেকে। রেষ্ট হাউজের এসি ও ইলেকট্রিক খরচ বছরে হয় ১ লাখ টাকার বিদ্যুৎ বিল। সংস্কার বাবদ প্রতি বছর ব্যয় ধরা হয়,দেড় থেকে ২ লাখ টাকা। সব মিলিয়ে প্রতিবছর প্রায় ১৫ লাখ টাকার ও বেশি ব্যয় হচ্ছে সিভিল অ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের। কর্তৃপক্ষ সরেজমিন গিয়ে তদন্ত করলেই সব কিছুই দেখতে পাবেন।

এছাড়া বিমানবন্দর ব্যবস্হাপকের বসবাসের যে বাসাটি বরাদ্দ রয়েছে, সেটিতে তিনি বসবাস না করে ১১ ও ১৪ গ্রেডের কর্মচারীদের নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যার কারনে সেখান থেকে এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ তেমন একটা ভাড়াও পান না।এমনকি সরকারি টাকায় ক্রয় করা গাড়ি নিজের পরিবারের কাজে ব্যবহার করছেন ব্যবস্হাপক। অথচ তেল খরচ করছেন,সরকারের। এসব বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে লিখিত অভিযোগ দিয়ে ও প্রতিকার মেলেনি,বরং হেনস্তা হয়েছেন,অভিযোগ কারিরা। 

তবে বিমানবন্দর ব্যবস্হাপক সুপ্লব কুমার বলেন, রেষ্ট হাউজটি ভাড়া হয়না বলেই সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য রাজ হাস ও কবুতরের খামার করা হয়েছে। কিন্তু অন্যান্য অভিযোগ ভিত্তি হীন বলে মনে করেন তিনি। 

আরও খবর



ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদানিতে ভারতের সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪ | ১১২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতীয় ভূখণ্ড ব্যবহার করে ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদানিতে ভারতের সহায়তা চেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এই আহ্বান জানান।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার মো. নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রত্যাশিত বিদ্যুৎ সহজে আমদানি করতে ভারত পক্ষের সহায়তা চেয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদানি করবে এবং আগামী ২৫ মার্চ ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়ালের ঢাকা সফরের সময় এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে।

বাংলাদেশ ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা করছে এবং ভুটান ও বাংলাদেশের মধ্যে আলোচনা প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

শেখ হাসিনা বাংলাদেশ থেকে পাট ও পাটজাত পণ্য আমদানির জন্য এন্টি-ডাম্পিং ব্যবস্থা প্রত্যাহারের জন্য ভারত সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এছাড়া তিনি হাইকমিশনারকে বলেন, ভারত সৈয়দপুর অবস্থিত রেলওয়ে ওয়ার্কশপটি আধুনিকায়ন করতে পারে।


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে পাইকারী বাজারে কাঁচা মরিচের কেজি ১৫ টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৭৯জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার হাটবাজারে সরবরাহ বেড়ে যাওয়াসহ উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় পাইকারী বাজারে ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে কাঁচা মরিচ। মরিচের দাম কমে আসায় লোকসানের মুখে পড়েছেন মরিচ চাষিরা।গতকাল শনিবার (৬ এপ্রিল) সকালে ফুলবাড়ী পৌর এলাকার পাইকারী সবজির বাজারে গিয়ে দেখা যায়, সকাল সাড়ে ৬ টা থেকে সকাল সাড়ে ৯টা প্রতি কেজি উচ্চ ফলনশীল জাতের (অগ্নি, মধুমতি, বিন্দু ও বিজলী ২০২০) কাঁচা মরিচ প্রকার ভেদে ১৮ থেকে ২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে দাম আরও কমতে থাকে। সর্বশেষ সকাল ১০ টার দিকে পাইকারি বাজারে ১৫ টাকা কেজি দরে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছে।

পাইকারী বাজারে কাঁচা মরিচ কিনতে আসা পার্বতীপুরের ঢাকুলা গ্রামের সবজি ব্যবসায়ী গোলাম রহমান, মধ্যপাড়ার আবুল হোসেন বলেন, গত পাঁচদিন আগেও পাইকারী বাজারে কাঁচা মরিচ প্রতি কেজি ৩২ থেকে ৩৫ টাকা দরে কিনতে হয়েছে। কিন্তু আজ মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) ১৫ টাকা কেজিদরে প্রয়োজনীয় মরিচ কিনেছেন। এগুলো নিজ নিজ এলাকায় প্রতিকেজি ১৮ থেকে ২০ টাকা দরে বিক্রি করবেন।

উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের আমডুঙি গঙ্গাপ্রসাদ গ্রামের কাঁচা মরিচ চাষি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কলেজ শিক্ষার্থী নির্মল মার্ডি বলেন, চলতি মরিচ চাষ মৌসুমে ২৭ শতক জমিতে উচ্চ ফলনশীল মধুমতি ও বিজলী ২০২০ জাতের মরিচ চাষ করেছেন। ইতোমধ্যে তিনি খেত থেকে প্রায় ৫০ মণ মরিচ তুলেছেন বিক্রির জন্য। কিন্তু দাম পড়ে যাওয়ায় মরিচ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। আশা করেছিলেন,পাইকারী বাজারে কমপক্ষে ২৩ থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে মরিচ বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু দাম পড়ে যাওয়ায় এখন উৎপাদন খরচও উঠবে কি না তা নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন।

পাইকারী মরিচ ব্যবসায়ী ব্যবসায়ি মিলন মিয়া ও আমজাদ হোসেন বলেন, বর্তমানে হাটবাজারে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত মরিচের সরবরাহ বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ক্রেতার অভাবে দাম পড়ে গেছে। তবে আগামীতে মরিচের দাম আরো কমে আসবে বলে তাদের ধারনা।

উপজেলার দক্ষিণ কৃষ্ণপুর গ্রামের মরিচ চাষি গোলাম মোস্তফা আকন্দ বলেন, এক বিঘা জমিতে উচ্চ ফলনশীল অগ্নি ও বিন্দু জাতের মরিচ চাষ করেছেন।এতে তার খরচ হয়েছে প্রায় ২২ হাজার টাকা। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ওই জমি থেকে অন্তত ৬৫ থেকে ৭০মণ মরিচ পাবেন। কিন্তু বর্তমানে মরিচের যে দাম, এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে মরিচ বেঁচে উৎপাদন খরচ উঠলেও কোনো লাভ হবে না। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হবে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রাসরণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ শাহানুর ইসলাম বলেন, চলতি মৌসুমে উপজেলায় পৌর এলাকাসহ ৭ টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ১১০ হেক্টর জমিতে মরিচ চাষ করা হয়েছে। এতে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৬৫ মেট্রিক টন। এ বছর তেমন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না থাকাসহ রোগবালাই না ধরায় আশানুরুপ ফলন হয়েছে মরিচের।


আরও খবর