Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কোনো প্রার্থীকে জিতিয়ে বা হারিয়ে দেওয়া আমাদের দায়িত্ব নয়: সিইসি

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৮৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, ‘নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব কোনো প্রার্থীকে জিতিয়ে দেওয়া বা হারিয়ে দেওয়া নয়। আমাদের দায়িত্ব ভোটাররা যাতে সঠিকভাবে ভোট দিতে পারেন সেটি নিশ্চিত করা।

আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ব্রিফিংয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিইসি এসব কথা বলেন। খুলনার সরকারি মহিলা কলেজ অডিটোরিয়ামে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে সবচেয়ে বড় দায়িত্ব প্রিজাইডিং অফিসারদের। কেন্দ্রের ভেতরে শৃঙ্খলা অতি প্রয়োজন। আর শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব আপনাদের। দায়িত্ব হালকাভাবে নেবেন না। আপনারা চাইলে ভোট বন্ধ করতে পারেন। কেন্দ্রের ভেতরে শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব আপনাদের।

সিইসি বলেন, ‘মানুষের মধ্যে আস্থা থাকতে হবে। নির্বাচনে কোনরকম অনাস্থা যেন মানুষের মধ্যে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। ভোটাররা যেন সুষ্ঠুভাবে তাদের ভোট প্রয়োগ করতে পারে সেটা নিশ্চিত করাই আমাদের মূল লক্ষ্য।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান (অব.) ও নির্বাচন কমিশন সচিব মো. জাহাংগীর আলম। এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন, রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঁঞা, খুলনা রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি মো. মঈনুল হক ও খুলনার পুলিশ সুপার মো. মাহবুব হাসান প্রমুখ।


আরও খবর



ওয়ালটন এক্সিকিউটিভ নিয়োগ দিচ্ছে

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

চাকরি ডেস্ক:ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস বিভাগ এক্সিকিউটিভ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী প্রার্থীরা আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। বেতন ছাড়াও প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা অনুযায়ী বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পাবেন নির্বাচিত প্রার্থীরা।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড

পদের নাম: এক্সিকিউটিভ

বিভাগ: ফাইন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস

চাকরির ধরন: বেসরকারি চাকরি

আবেদন করার মাধ্যম: অনলাইন

আবেদনের শেষ তারিখ: ৩ আগস্ট ২০২৪

পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়

শিক্ষাগত যোগ্যতা: অ্যাকাউন্টিং/ফাইন্যান্সে এমবিএ

অন্যান্য যোগ্যতা: অ্যাকাউন্টিং (ইবিএস) সফটওয়্যার ব্যবহার, ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং প্রশাসনিক দক্ষতা। এমএস এক্সেল এবং অন্যান্য অ্যাকাউন্টিং সফটওয়্যারে দক্ষতা।

অভিজ্ঞতা: ১ বছর। তবে অভিজ্ঞতা ছাড়াও আবেদন করতে পারবেন।

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ (উভয়)

বয়সসীমা: ২৪ থেকে ৩০ বছর

কর্মস্থল: ঢাকা

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

অন্যান্য সুবিধা: মোবাইল বিল, লাভ শেয়ার, প্রভিডেন্ট ফান্ড, ইনস্যুরেন্স, দুপুরের খাবারের সুবিধা, প্রতি বছর বেতন পর্যালোচনা, বছরে ২টি উৎসব বোনাস, সার্ভিস বেনিফিট।

আবেদন যেভাবে: আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করতে ও বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।


আরও খবর

প্রাণ গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪




বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জাতীয় সংসদের বাজেট পেশ করার পর নানা মহল থেকে নানা প্রতিক্রিয়া আসছে,বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।আমরা সব প্রতিক্রিয়া আমলে নিচ্ছি। যেগুলো বাস্তবসম্মত এবং বাজেটে বাস্তবায়নযোগ্য সেগুলো অবশ্যই পুনর্বিবেচনা করা হবে। কারণ এখনো বাজেট পাস হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাজধানীর ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) মিলনায়তনে ‘বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের অর্থনীতি : প্রবৃদ্ধি, মুদ্রাস্ফীতি, খাদ্য ও পুষ্টি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেট পেশ করার পর নানা মহল নানা বক্তব্য দিচ্ছে। আবার অনেকেই সমালোচনা করছেন। তাদের উদ্দেশে বলব আমাদের অর্থনীতি নিয়ে, বাজেট নিয়ে বিশ্বব্যাংক কি বলছে সেদিকেও নজর দিয়েন।

তিনি বলেন, বাজেট নিয়ে আরও বক্তব্য আছে, বিশ্বব্যাংক বলেছে ভালো হয়েছে। আমার টাকা লাগবে, বিশ্বব্যাংকের কথা শুনতে হবে। না হলে আপনারা (সমালোচকরা) টাকা দেন।

আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, শেখ হাসিনা সরকার জনবান্ধব সরকার। অনেকেই বলে, সরকার শিগগিরই পড়ে যাবে, কই সরকার তো পড়ে না। সরকার দেউলিয়া হয়ে গেছে, দেউলিয়া মানে কি? দেউলিয়া তো হলো না। বিশ্বব্যাংক কিছু বোঝে না, আপনি সব কিছু বোঝেন? বাজেট দিলাম, এটা দেখেন ও বোঝার চেষ্টা করেন। এই বাজেট জনবান্ধব বাজেট। কোনো কিছুতে সমস্যা থাকলে পুনর্বিবেচনা করার সম্ভাবনা আছে।

সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসানের সভাপতিত্ব সেমিনারে আরও বক্তব্য দেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার প্রতিনিধি ড. জিয়াকুন শি, সাবেক পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম প্রমুখ।


আরও খবর



দেশ ছেড়েছেন সাবেক ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৯২জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার,স্টাফ রিপোর্টার: ডিএমপির সাবেক কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ও তার পরিবারের বিপুল সম্পদের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর দেশজুড়ে বিভিন্ন মহলে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। ঈদুল আজহার ছুটি শেষে তার সম্পদের বিষয়ে অনুসন্ধান কার্যক্রম শুরু করতে পারে দুদক।

এদিকে এরইমধ্যে আছাদুজ্জামান সস্ত্রীক দেশ ছেড়েছেন। গেল সপ্তাহে তারা আমেরিকায় গেছেন। আছাদুজ্জামান দেশটিতে বিভিন্ন সম্পত্তি গড়েছেন। বিনিয়োগ করেছেন বিভিন্ন খাতে। এছাড়া সেখানে তাদের ছোট ছেলে আসিফ মাহাদীন পড়াশুনা করেন।

জানা যায়, আছাদুজ্জামান নিজ নামে, স্ত্রী আফরোজা জামান, দুই ছেলে আসিফ শাহাদাত, আসিফ মাহদীন ও মেয়ে আয়েশা সিদ্দিকার নামে দেশে প্লট, ফ্ল্যাট, বাড়িসহ বিভিন্ন সম্পত্তি গড়ার পাশাপাশি আমেরিকাসহ কয়েকটি দেশেও বিপুল পরিমাণ অর্থের বিনিয়োগ করেছেন।

সম্প্রতি, সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থা আছাদুজ্জামানের দুর্নীতিলব্ধ আয়ে গড়া নানা সম্পত্তির খোঁজখবর নিতে শুরু করেন। আছাদুজ্জামান তা বুঝতে পেরেই আগেভাগে গা ঢাকা দেন। একপর্যায়ে গেল সপ্তাহে সস্ত্রীক আমেরিকায় চলে যান।

এদিকে গণমাধ্যমে আছাদুজ্জামানের দুর্নীতির খবর আসার পর নড়েচড়ে বসেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। ঈদুল আজহার ছুটির পর তার বিষয়ে অনুসন্ধান কার্যক্রমের সিদ্ধান্ত নিতে পারে দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাটি।

দুদক কমিশনার জহুরুল হক গণমাধ্যমকে বলেছেন, আছাদুজ্জামান মিয়ার সম্পদের তথ্য প্রকাশের খবর তাঁর নজরে আসেনি।... যদি সাবেক এই পুলিশ কর্মকর্তার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের খোঁজ পাওয়া যায়, তাহলে দুদক ব্যবস্থা নেবে।

জানা যায়, আছাদুজ্জামান মিয়ার সম্পদের বাড়াবাড়ির বিষয়টি বেশ কয়েক বছর আগে নজরে এসেছিল দুদকের। শুরু হয় অনুসন্ধানও। তবে তা খুব একটা এগোয়নি। অনুসন্ধান না আগানোর পেছনে কারণও খুব একটা স্পষ্ট নয়।

তবে সংস্থাটির আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলছেন, ছুটির পর অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেবেন তারা। আস্থা নিয়ে পুলিশের উচ্চ পদে আসীনদের এমন কর্মকাণ্ডে, বাহিনীটিতে শুদ্ধি অভিযান জরুরি হয়ে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেন এ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী।

‘মিয়া সাহেবের যত সম্পদ’ নামে দৈনিক মানবজমিন একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশের পর নতুন করে শিরোনামে এলেন আসাদুজ্জামান মিয়া। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, আছাদুজ্জামান মিয়া ও তার পরিবারের সম্পদের পাহাড়। অনেক সম্পদের নথি ধরে সরজমিনে সেসবের সত্যতা মিলেছে।

এ বিষয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘রাজনৈতিক আশীর্বাদ ছাড়া এ ধরনের দুর্বৃত্তায়ন সম্ভব নয়। একদিকে প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ অবস্থান অপরদিকে রাজনৈতিক আশীর্বাদ একত্রিত হয়ে তাদের দুর্নীতি এবং অসামঞ্জস্য আয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। তারা আইনের সুরক্ষার পরিবর্তে ভক্ষক হয়ে গেছেন। তারা অপরাধ নিয়ন্ত্রক। তার মানে তারা জানেন কোন অপরাধ কীভাবে করতে হয়। এটা জেনে বুঝেই করেছেন ‘

‘তারা যে অসামঞ্জস্য অপরাধগুলো করেছেন প্রতিটি ক্ষেত্রেই কিন্তু এক ধরনের সহযোগী আছে। তাদের অনেকেই হয়তো জেনে বা না জেনে অংশীদার হয়েছেন। এ অবস্থায় সব অপরাধের ক্ষেত্রে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা ছাড়া অন্য কোনো ম্যাজিক বুলেট নেই।’

আরও খবর



কালুপাড়া গ্রামে গভীর নলকূপ প্রকল্পের এলাকায় অবৈধ্যভাবে ড্রেন ভাঙ্গন ও পুকুর খনন এর বিরুদ্ধে অভিযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩৩জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুর জেলার বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার কালুপাড়া গ্রামে প্রতিপক্ষরা গভীর নলকূপ প্রকল্পের এলাকায় অবৈধ্যভাবে ড্রেন ভাঙ্গন ও পুকুর খনন এর বিরুদ্ধে পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর গত ২৬/০৬/২০২৪ইং তারিখে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মোঃ রাজু আহম্মেদ। পার্বতীপুর উপজেলার কালুপাড়া গ্রামে মৃত্যু মোজাফ্ফর মন্ডল এর পুত্র মোঃ রাজু আহম্মেদ এর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কালুপাড়া কৃষক সমবায় সমিতি নামে একটি সরকারি রেজিষ্টার সমবায় সমিতি রয়েছে। যাহার রেজি নং-৫৬/৮৭। উক্ত সমবায় সমিতির আওতায় মোঃ রাজু আহম্মেদ ঐ কমিটির সহ সভাপতি হিসাবে গভীর নলকূপ পরিচালনা করে আসছেন। গত ২৫/০৬/২০২৪ইং তারিখে পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউপির কালুপাড়া গ্রামের মৃত্যু মবার উদ্দীন  এর পুত্র মোঃ মিজানুর রহমান ও মৃত্যু পওয়াতুল মোল্লার পুত্র মোঃ আফসার আলী, মোঃ ্আফসার আলীর পুত্র মোঃ মিলন, মৃত্যু নজির উদ্দিন তেলির পুত্র মোঃ আইয়ুব আলীগংরা গভীর নলকূপটির পাশের্^ পুকুর খনন এর কারণে গভীর নলকূপ এর ঘরটি ভেঙ্গে পড়ে যাচ্ছে এবং ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। বিষয়টি আফসার আলীকে অবগত করলে তিনি ব্যবস্থা না নিয়ে গভীর নলকূপ এর ঘরটি সরিয়ে নেওয়ার কথা বলেন। মোঃ মিজানুর রহমান এর নির্দেশে এবং মিলন এর নির্দেশে গভীর নলকূপ এর সেচ ড্রেন তুলে ফেললে এতে সাধারণ কৃষকদের চলতি বছর আমন মৌসুমে সেচ নিতে ব্যহত হবে। কালুপাড়া গ্রামে গভীর নলকূপ সাময়িক কমিটির সভাপতি মোঃ আইয়ুব আলীকে বিষয়টি জানালে গভীর নলকূপ এর ঘরটি যেহেতু তাদের জায়গায় সে ক্ষেত্রে তারা ঘরটি ভেঙ্গে দিতে পারে। রাজু আহম্মেদ অভিযোগে উল্লেখ করেন, গভীর নলকূপটি স্থাপনের আওতার মধ্যে প্রতিপক্ষদের একটি নিজেস্ব স্যালোমেশিন অগভীর নলকূপ থাকায় তারা চানা গভীর নলকূপটি অকেজ হয়ে থাক। এবং স্যালোমেশিন এর মাধ্যমে কৃষদেরকে সেচ সুবিধা দিতে পারেন। এতে প্রায় ৪০ জন কৃষক সেচ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। কালুপাড়া কৃষক সমবায় সমিতির সাময়িক পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আইয়ুব আলীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, গভীর নলকূপ তারাই পরিচালনা করছিলেন। হিসাব চাইলে তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেন। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতির আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অভিযোগকারী রাজু আহম্মেদ। 


আরও খবর



মধুপুর পৌরসভা আজ নগর পিতার ছোঁয়ায় আলোকিত মডেল শহর

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৪৭জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা বিশেষ প্রতিনিধি মধুপুর টাঙ্গাইল:টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌরসভা আজ নগর পিতা সিদ্দিক হোসেন খান এর বিভিন্ন  উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ডের জন্য একটি  আলোকিত মডেল পৌর শহরে পরিনত হয়েছে।

দীর্ঘদিন অন্ধকারে থাকা মধুপুর পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকার সড়ক আজ আলোয় আলোকিত। মধুপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকার রাতের দৃশ্য আজ দিনের মতো আলো জ্বলমলে। এ ছাড়াও শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পাবলিক টয়লেট স্থাপন, বিভিন্ন পৌর এলাকায় পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নতি, বিভিন্ন রাস্তাঘাট পাকাকরণ, বাসস্ট্যান্ড প্রশস্তকরণ, শতভাগ বিদ্যুৎ সংযোগের মতো জনগুরুত্বপূর্ণ কাজ এবং  বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বিশুদ্ধ ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্পের কাজ প্রায় শেষের দিকে। এই বিশুদ্ধ পানি পৌর শহরের বিভিন্ন বাসাবাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য দ্রুত কাজ এগিয়ে চলছে।

এ ছাড়াও পৌর শহরকে  মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মামলাবাজি মুক্ত রেখে শহরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিনি জিরো টলারেন্স হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রথম মেয়াদে শুরু করা অসম্পন্ন উন্নয়নমূলক কাজগুলো সমাপ্ত করে খুব শীঘ্রই  ঐতিহ্যের মধুপুরকে আধুনিক ও উন্নত শহর হিসেবে সারা দেশে পরিচিতি ঘটাবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি।

পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাঘাট দীর্ঘ স্থায়ীত্বের জন্য ডালাইয়ের মাধ্যমে শেষ করেছেন।

ইতিমধ্যে নগর এলাকা পরিস্কার  পরিছন্ন রাখতে বাসাবাড়ি, জনবহুল এলাকা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রায় সাড়ে চার হাজার ডাস্টবিন স্থাপনের কাজ চলছে। খুব শীঘ্রই তিনি পৌরবাসীর জন্য একটি পার্ক উপহার দিবেন। যেখানে সব বয়সের মানুষ বিনোদনের জন্য সময় কাটাতে পারবে।

তিনি প্রতিদিনের রুটিন মাফিক ফজরের নামাজ আদায় করে পায়ে হেটে বিভিন্ন এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে দেখা করেন। তাদের কোনো সমস্যা বা অভিযোগ পেলে সেখানেই তা সমাধান করার চেষ্টা করেন। এ সকল কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ পৌরবাসী আজ তাকে নগর পিতা নামে আখ্যায়িত করেন। 

মধুপুরের বিভিন্ন সংগঠনের দায়িত্বে থেকে মানবসেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছেন এই সাদা মনের মিষ্টহাসির  মানুষটি।

তার কর্মদক্ষতা ও নিষ্ঠার কারণে এবার টাঙ্গাইল জেলার চালকল মালিক সমিতির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। নগর পিতার এ বিজয় মধুপুরবাসীর অন্তরে একটি মাইলফলক হিসেবে গচ্ছিত থাকবে এমনটাই প্রত্যাশা নগরবাসীর। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর