Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

খাগড়াছড়িতে পুলিশের অভিযানে ৩৪ লাখ টাকার সিগারেট জব্দ, গ্রেপ্তার এক

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩২৫জন দেখেছেন

Image

জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি থানা পুলিশের অভিযানে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে নিয়ে আসা ৩৪ লাখ টাকার সিগারেট  জব্দ করেছে মহালছড়ি থানা পুলিশ। এসময় সিগারেট পাচারের সাথে জড়িত পিকআপ গাড়ি সহ এক জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) রাত দেড়টার দিকে মহালছড়ি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই নিরস্ত্র) আরাফাত বিন ইউসুফ, সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ মহালছড়ি থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা  করাকালীন সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহালছড়ি ইউপির ২৪ মাইল ইউসিবি মহালছড়ি টু খাগড়াছড়ি  পাকা রাস্তার উপর কচুর ছড়া বোঝাই  পিক-আপগাড়ি করে অবৈধ সিগারেট নিয়ে যাচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে গাড়ির তল্লাশি চালিয়ে 

Super Slims Mond, premiun quality blend oris ১হাজার ৭০০ কার্টুন সিগারেট, সহ  আসামী  মোঃ সফিকুল আলম (২৩) কে গ্রেপ্তার করা হয়।

মহালছড়ি থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে 

উদ্ধারঃ  ৯৫০( নয়শত পঞ্চাশ ) কার্টুন  Super Slims Mond সিগারেট;  যাহার আনুমানিক মূল্য = ১৯,০০,০০০/- (উনিশ লক্ষ ) টাকা ২। ৭৫০( সাতশত পঞ্চাশ) কার্টুূন premiun quality blend oris সিগারেট,  যাহার আনুমানিক মূল্য = ১৫,০০,০০০/- (পনের লক্ষ) টাকা ,সর্বমোট ৩৪০০০০০/- (চৌ‌ত্রিশ লক্ষ) টাকা

গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা হলেন-মোঃ সফিকুল আলম (২৩)খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার স্বনির্ভর বাজার, এলাকার আবুল হোসেন, এর ছেলে।

মহালছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মো.আবুল হাসান জানান গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক অত্র থানায় মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রহিয়াছে।

শুল্ক ফাঁকি দিয়ে চোরাই পথে কোনো পণ্য প্রবেশ ও বাজারজাত করতে দেওয়া হবে না জানিয়ে খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, আইন শৃংঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মাদক ও চোরাচালানের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা করা হয়েছে। জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে জেলা পুলিশের প্রতিটি ইউনিট কাজ করে যাচ্ছে। মাদক ও চোরাচালান রোধে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের চলমান কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে জবাবদিহিতায় আনার ব্যাপারে সাংবাদিকদের দাবির সঙ্গে একমত তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার স্টাফ রিপোর্টার:সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে একটি নীতি ও জবাবদিহিতার আওতায় আনার জন্য সাংবাদিকদের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত। এ বিষয়ে সাংবাদিক ও অন্যান্য অংশীজনদের সঙ্গে কথা বলে পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, যেহেতু সাংবাদিকরা ইউটিউব ও ফেসবুকসহ সকল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে একটি নীতি ও জবাবদিহিতার আওতায় আনার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছিলেন, আমি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী হিসেবে এই দাবির সঙ্গে একমত এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনা করে তা পূরণ করার চেষ্টা করব।

আজ বুধবার সচিবালয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার (বিজেসি) নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকের প্রসঙ্গ টেনে মোহাম্মদ আলী আরাফাত এ সময় বলেন, সাংবাদিকদের যোগ্যতা ও গুণগত মান নির্ধারণে একটি নীতিমালা প্রণয়নের জন্য আরেকটি প্রস্তাব সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন থেকে পেয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার গত ১৫ বছরে গণমাধ্যমের বিস্তৃতির জন্য উদারপন্থা দেখিয়েছে। . . আমরা গণমাধ্যমকে পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করতে দিই।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আপনারা (পেশাদার সাংবাদিক) গণমাধ্যমে শৃঙ্খলা আনতে সাংবাদিকদের যোগ্যতা নির্ধারণে নীতিমালা চান। আমরা আপনাদের সঙ্গে কথা বলে তা প্রণয়ন করবো।

বিদ্যমান আইন উপেক্ষা করে সম্প্রচার বা ইন্টারনেট সেবা প্রদানের বিষয়ে তিনি বলেন, যারা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গণমাধ্যমে হঠাৎ ছাঁটাইয়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে সাংবাদিকদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা সর্বজনীন মানবাধিকার সনদের লঙ্ঘন। আমি দাপ্তরিক নির্দেশনা জারি করবো যাতে কোনও প্রতিষ্ঠান স্বল্প নোটিশে তার সাংবাদিকদের বরখাস্ত করতে না পারে। কাউকে ছাঁটাই করার নোটিশ কমপক্ষে তিন মাস আগে পরিবেশন করতে হবে।

একইভাবে, সাংবাদিকরা যদি পদত্যাগ করতে চান, তাদেরও একটি নির্দিষ্ট সময়ের আগে, যেমন দুই-তিন মাস আগে কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

সাংবাদিকদের দাবি পূরণে এসময় তাদের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজেসি চেয়ারম্যান রেজোয়ানুল হক রাজা, সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ মানস ঘোষ, ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রমুখ।

আরও খবর



ফুলবাড়ীতে রঙিন পাতাকপি চাষ

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী গ্রামে কৃষক মিলন রানা তার জমিতে রঙিন পাতাকপি চাষ শুরু করেছেন। ফুলবাড়ী উপজেলায় এই প্রথম রঙিন পাতাকপি চাষ শুরু হয়েছে। ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিস থেকে রুবি কিং মৌসুম ২৩-২৪ অর্থ বছরের টেকশই কৃষি উন্নয়ন কৃষক গ্রুপ। প্রদর্শনী ক্ষেতে কৃষক মিলন রানার ২০ শতক জমিতে গত ২৯/১০/২০২৩ইং তারিখে রঙিন পাতা কপির চাষ শুরু করেন। জমিতে লাগানোর দুই মাসে মধ্যে এই রঙিন ফুলকপি পরিপুক্ত হয়। যাহা উত্তোলন করে বাজারে বিক্রয় করা সম্ভব। বর্তমান বাজারে এই রঙিন পাতাকপি প্রতি কেজি ৫০টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে। ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ীতে কৃষক মিলন রানা এই প্রথম রঙিন পাতা কপি চাষ করে কৃষকদেরকে তাক লাগিয়েছেন। ২০শতক জমিতে ৭২০ পিচ চারা রোপন করেন সাবলম্বি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোছাঃ রুম্মান আক্তার জানান, ফুলবাড়ীতে এই প্রথম রঙিন পাতা কপির চাষ প্রদর্শনী হিসেবে লাগানো হয়েছে কৃষক মিলন রানা সফল হয়েছে। আমরা কৃষি দপ্তর থেকে সব রকম সহযোগিতা করেছি কৃষক মিলন রানাকে। সরেজমিনে প্রদর্শনীর ক্ষেত দেখতে এসে তিনি খুব আনন্দিত এবং সফলতা বোধ মনে করছেন। খয়েরবাড়ি গ্রামের কৃষক মিলন রানা জানান, আগামীতে ব্যাপক ভাবে রঙিন পাতা কপির চাষ শুরু করা হবে। এই কপি বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিসের অতিরিক্ত কৃষি অফিসার মোঃ শাহানুর। কৃষ প্রদর্শনীর আয়োজনে ছিলেন দিনাজপুর অঞ্চল টেকসই কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প। এ সময় ফুলবাড়ী থানা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক মোঃ আফজাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক উপজেলা মাইটিভি প্রতিনিধি মোঃ ফিজারুল ইসলাম ভুট্টু সহ প্রিন্ট মিডিয়ার সহ সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



মানুষের প্রথম ভরসাস্থল হবে পুলিশ: আইজিপি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:থানাকে নির্ভরতার প্রতীক হতে হবে। এক্ষেত্রে ডিএমপির অগ্রণী দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে, বলেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজারবাগে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

আইজিপি বলেন, পুলিশ হবে মানুষের প্রথম ভরসাস্থল। মাদক ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স বজায় রাখতে হবে। সেবাপ্রত্যাশীদের প্রতি মানবিক আচরণ করব আমরা।

তিনি বলেন, সম্প্রতি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভিন্ন উসকানির মুখেও অত্যন্ত ধৈর্য ধারণ করে দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশ ও নগরবাসীর আস্থা কুড়িয়েছে। একটি সুন্দর নির্বাচন উপহার দেওয়ার জন্য ডিএমপি আন্তরিকতা, নিষ্ঠা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে দায়িত্ব সফলভাবে পালন করেছে।

পুলিশপ্রধান বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ জনসাধারণের সঙ্গে সেতুবন্ধন তৈরি করেছে যা অতুলনীয়। জঙ্গিবাদ, সাইবার ক্রাইমসহ নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। ডিএমপি নাগরিকসুলভ মনোভাব যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করতে সক্ষম হয়েছে।


আরও খবর



চীনের কাছে আরও সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চীনকে বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম উন্নয়ন ও কৌশলগত অংশীদার আখ্যায়িত করে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে মসৃণ করতে বেইজিংয়ের কাছে আরও সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিভাগের ভাইস-মিনিস্টার সান হাইয়ান বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে শেখ হাসিনা এ সহযোগিতা চান। তিনি বলেন, ‘আমাদের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে মসৃণ করতে অতীতের চেয়ে চীন আরও বেশি সহযোগিতা করতে পারে।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর স্পিচরাইটার এম. নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।

পুনরায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিংয়ের অভিনন্দন জানান সান হাইয়ান। তিনি বলেন, দেশবাসীর ভাগ্য পরিবর্তনের সংগ্রাম এবং বাংলাদেশি জনগণের প্রতি ভালোবাসা ও মমতার কারণে শি জিংপিং প্রধানমন্ত্রীর পুনর্র্নিবাচিত হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত ছিলেন।

এছাড়া সান হাইয়ান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর একমাত্র কন্যা সায়মা ওয়াজেদকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি আশা করেন, ‘সায়মা ওয়াজেদ বিশ্বব্যাপী অটিজম নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে।

সান সাইয়ান আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং দেশকে একটি সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশে রূপান্তরিত করার কাজ দ্রুত গতিতে চলবে।

এ প্রেক্ষিতে চীনের উপমন্ত্রী ১৯৯১ সাল থেকে বাংলাদেশে তার একাধিক সফরের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘এ সময় আমি বাংলাদেশের অভূতপূর্ব ও অবিশ্বাস্য উন্নয়ন এবং দেশবাসীর জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের প্রচেষ্টা প্রত্যক্ষ করেছি।

জবাবে, প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে কারণ, তিনি সফলভাবে দেশবাসীর মধ্যে আত্মবিশ্বাস জাগিয়েছেন যে ‘আমরা করতে পারি।’ প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘ সময়ের জন্য সরকারের ধারাবাহিকতাকেও কৃতিত্ব দিয়ে বলেছেন সরকারের ধারাবাহিকতা বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহায়তা করেছে। শেখ হাসিনা সান হাইয়ানকে বাংলাদেশের ‘প্রকৃত পরিবর্তন’ দেখতে গ্রামীণ এলাকা ঘুরে দেখার পরামর্শ দেন।


আরও খবর



গলাচিপা ডিউজ ক্রিকেট কার্নিভাল শুভ উদ্বোধন করেন ইউএনও মো.মহিউদ্দিন আল হেলাল

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | ৬০জন দেখেছেন

Image
গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি;পটুয়াখালীর গলাচিপায় তরুণ প্রজন্মকে মূলধারার ক্রিকেটের সাথে পরিচয় করে দিতে শুরু করেছেন ডিউজ ক্রিকেট কার্নিভাল। সোমবার সকাল ১০ টায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে গলাচিপা ডিউজ ক্রিকেট কার্নিভাল শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.মহিউদ্দিন আল হেলাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. জহিরুন্নবী, উপজেলা ক্রিড়া  সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আবু বকর শিবলী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ডিউজ কার্নিভালের পৃষ্ঠপোষক ও উদ্যােক্তা ইন্জিনিয়ার কাওসার নাঈম রেজা শুভ্র , বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির পরিচালক মোঃ রিয়াদ হোসাইন , বেইজ বিল্ড ডিজিটাল একাডেমির প্রধান শিক্ষক মোঃ রেদওয়ান করিম তালাল প্রমূখ।

খেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ইন্জিনিয়ার কাওসার শুভ্র স্পোর্টস ক্লাব বনাম গলাচিপা ক্রিকেট একাডেমি। 
এরপরে টচে জয়লাভ করে ইঞ্জিনিয়ার কাওসার শুভ্র স্পোর্টস ক্লাব ব্যাটিং সিদ্ধান্ত নিয়ে ৩০ ওভার শেষে ২৩১ করেন জবাবে গলাচিপা  ক্রিকেট  একাডেমি ৯ উইকেট হারিয়ে ২৩২ রান করে জয় লাভ করেন। 

ইন্জিনিয়ার কাওসার শুভ্র বলেন, আজকের ডিউজ ক্রিকেট কার্নিভালের মূল উদ্দেশ্য ভবিষ্যত প্রজন্মকে সত্যিকারের ক্রিকেট বল-ব্যাটে খেলার সাথে পরিচিত করা। সেই লক্ষ্যে আমি ইঞ্জি: কাওসার শুভ্র স্পোর্টস ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেছি। গলাচিপার ক্রিকেট খেলায় যাতে স্থানীয় প্রতিভাবান খেলোয়াড়েরা সুযোগ পায়। আমাদের লক্ষ জাতীয় পর্যায়ে খেলতে গলাচিপার তরুণদের মনে আত্মবিশ্বাস জন্মানো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মহিউদ্দিন আল হেলাল বলেন, খেলাধুলা হবে খেলোয়াড় তৈরির জন্য। খেলা দিয়ে বিশ্ব জয় করা সম্ভব। তরুণদেরকে স্বপ্ন দেখাতে হবে খেলোয়াড় হিসেবে গড়ে উঠতে। এসময় তিনি ডিউজ ক্রিকেট কার্নিভাল ও স্পোর্টস ক্লাবকে সহযোগিতা করার সুযোগ করে দিবেন বলে আশ্বাস দেন। 

খেলা শেষে ৬২ রান করে ম্যান অব দা ম্যাচ অর্জন করেন মোঃ মনির হোসেন। 

আরও খবর