Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

জয়পুরহাটে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন হুইপ স্বপন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাটঃদ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়পুরহাট-২  (কালাই-ক্ষেতলাল-আক্কেলপুর) আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে  মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে কালাই উপজেলা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জান্নাত আরা তিথি'র কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি।
এর আগে তিনি জয়পুরহাট-বগুড়া মহাসড়কের দুপাশে দাঁড়িয়ে থাকা  ভোটারদের  সাথে কুশল বিনিময় করেন।  ক্ষেতলাল উপজেলার বটতলী বাজার থেকে ১০ কিলোমিটার  পায়ে হেঁটে ও ভ্যানে  চড়ে এসে তিনি মনোয়নপত্র দাখিল করেন।  

এ সময়  জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুর রহমান রকেট,  সহসভাপতি সোলায়মান আলী, গোলাম হক্কানী, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক সুমন কুমার সাহা,  কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিনফুজুর রহমান মিলন উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন  আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী। তিনি কেন্দ্রীয় কমিটিতে ৫ম বারের মতো সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৮১ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত হন এই নেতা। ১৯৯১ থেকে ৯২ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯২-৯৪ সালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪-৯৮ সালে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০০২ সালে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে চলে আসেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদকের পদে। সেখানে টানা সাত বছর দায়িত্ব পালন করে ২০০৯ সালে প্রথমবারের মতো সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ পান। এরপর থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের এই নেতা বর্তমান সময় পর্যন্ত টানা পাঁচবার একই পদে থেকে রাজনীতি করছেন। এই পদে থেকে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে সক্রিয় করতে রাজশাহী, খুলনা, রংপুর বিভাগের দায়িত্ব পান। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন।

আওয়ামী লীগের এই নেতা ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে দাঁড়ান। সেই সময় তিনি ৩ হাজার ১৫৯ ভোটের ব্যবধানের বিএনপির প্রার্থী গোলাম মোস্তাফার কাছে হেরে যান। ২০১৪ সালের নির্বাচনে তিনি আবারও আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হন। সেসময় বিরোধী দলগুলো নির্বাচন বর্জন করে তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিলে আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। এরপর তিনি ২০১৮ সালে পুনরায় আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হন। সেসময় তিনি বিএনপির প্রার্থী খলিলুর রহমানকে ২ লাখ ২ হাজার ৬১০ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে নির্বাচিত হন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর এই নেতা জাতীয় সংসদের হুইপের দায়িত্ব পান। এবার তিনি দলীয় নৌকা প্রতীকে জয়পুরহাট-২ আসন থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

আরও খবর



মাগুরায় ৩৩ শ' পরিবারের মাঝে জেলা আওয়ামী লীগ নেতার ত্রাণ বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৮জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুর সদর উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডের ৩ হাজার ৩ শ' দুস্থ অসহায় পরিবারের মাঝে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ব্যাক্তিগত অর্থায়ানে ত্রাণ বিতরণ করেন  মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগের উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লায়ন জাহিদুর রেজা চন্দন। মূলত বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণের কর্মহীন হয়ে পড়া ও এলাকার সহায় সম্বলহীনদের দুর্দশা লাঘবের জন্য  প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তিনি করোনাকালীন সময় থেকে এ ত্রাণ বিতরণ শুরু করেন, যা বর্তমানে অব্যাহত রেখেছেন। শীত মৌসুমে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কম্বলসহ শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। মানুষের মাঝে চাল আটা ডাল তৈল আলু ছাড়াও অতি প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী বিতরণ করে মানুষের নজরে এসেছেন।তিনি প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মসজিদের ইমামদের মধ্যে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। তার এ কর্মকান্ডের প্রেক্ষিতে তিনি কোন নির্বাচনে প্রার্থী হবেন কিনা জিঙ্গাসা করা হলে তিনি জানান, জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে জনগনের সেবা করার বেশী সুযোগ পাওয়া যায়। জনগন যদি তাকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে সমর্থন দেয় তা হলে তিনি আগামী উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা পোষন করেন। 

মাগুরা জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে তার ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত  ছিলেন মাগুরা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  পঙ্কজ কুমার কুন্ডু, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের  সভাপতি বাবুল ফকির সহ সংশ্লিষ্ট উপজেলার ইউনিযন সমুহের আওয়ামী লীগের সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক এবং মাগুরা পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ।

লায়ন জাহিদুর রেজা চন্দন আরো বলেন যতদিন তার সামর্থে কুলাবে ততদিন তিনি এ সাহায্য করে যাবেন এবং অসহায় মানুষের পাশে সব সময় থাকবেন। 

আরও খবর



বিএটি বাংলাদেশকে শীর্ষ করদাতা হিসেবে স্বীকৃতি দিলো বৃহৎ করদাতা ইউনিট (LTU)

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:[ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি, ২০২৪] ২০২২-২৩ করবর্ষে আবারও দেশের সেরা করদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বিএটি বাংলাদেশ। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখতে এই করবর্ষে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে মোট ১,৩৫২ কোটি টাকা কর্পোরেট ট্যাক্স হিসেবে জমা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বুধবার রাজধানীর জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কার্যালয়ে বৃহৎ করদাতা ইউনিট (LTU) প্রাতিষ্ঠানিক করদাতাদের “বিশেষ সম্মাননা ও সম্মাননাপত্র প্রদান” শীর্ষক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা সদস্য সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদ। অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন বৃহৎ করদাতা ইউনিট (LTU) এর কর কমিশনার মোঃ ইকবাল বাহার।

উল্লিখিত করবর্ষে প্রতিষ্ঠানটি মূল্য সংযোজন কর, সম্পূরক শুল্ক, করপোরেট ট্যাক্স, আমদানি শুল্ক এবং অন্যান্য কর হিসেবে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে সবচেয়ে বেশি প্রায় ৩১,৫০৭ কোটি টাকা জমা দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএটি বাংলাদেশের কোম্পানি সেক্রেটারি মো. আজিজুর রহমান এফসিএস, এরিয়া হেড অব কর্পোরেট ফাইন্যান্স নাশভা বিনত হামিদ, এবং সহকারী ব্যবস্থাপক, ফিস্কাল অ্যাফেয়ার্স বায়জিদ হক জোয়ারদার।

সেরা করদাতা হিসেবে সম্মাননা প্রাপ্তির পর বিএটি বাংলাদেশের কোম্পানি সেক্রেটারি মো. আজিজুর রহমান এফসিএস বলেন, “বিএটি বাংলাদেশ সম্পূর্ণভাবে দেশের আইন ও বিধি মেনে চলে, শতভাগ স্বচ্ছতা বজায় রাখে এবং সময়মতো কর প্রদান করে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের মাধ্যমে একটি সম্ভাবনাময় আগামীর লক্ষ্য অর্জনে আগামী বছরগুলোতেও দেশের অগ্রগতির উল্লেখযোগ্য অংশীদার হিসেবে ভূমিকা রাখবো বলে আমরা দৃঢ় বিশ্বাসী।”


আরও খবর

আজ রংপুরের স্থপতি আফিফার সাথে ফারাজের বিয়ে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পত্নীতলায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image
পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ (পবিস) এর ৮ম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার পত্নীতলাস্থ নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর প্রধান কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রথমেই সদস্যগণের রেজিস্ট্রেশন, পারস্পরিক যোগাযোগ ও প্রর্দশনী স্টল পরিদর্শনের পর নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সমিতি বোর্ডের সভাপতি দিপক কুমার সরকারের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার শাহ্ মোঃ রাজ্জাকুর রহমান, নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর ডিজিএম (সদর-কারিগরী) সদর দপ্তর শাহিন কবির।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সমিতি বোর্ডের সহ-সভাপতি সৈয়দ আহম্মেদ সরকার, সচিব মোকলেছুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ ছামছুল হক, এলাকা পরিচালক রিয়াজ উদ্দীন মন্ডল, হারুন-অর রশিদ, নজরুল ইসলাম, পরিচালক নাফিস আরা, আনজুমান আরা, মনোনীত এলাকা পরিচালক মিজানুর রহমান। এসময়  বাপবিবো নওগাঁর নির্বাহী প্রকৌশলী ময়নূল হাসান, এলাকা পরিচালক মহাদেবপুর নজরুল ইসলাম, পত্নীতলা প্রেসক্লাব ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব বুলবুল চৌধুরী, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাঃসম্পাদক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন, প্রো-বনো লইর্য়াস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য চৌধুরী ব্রেলভীর, সাংবাদিক মিজনুর রহমান, আল-আমিন রহমান, সমিতির সকল ডিজিএম, এজিএম ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, গ্রাহকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, 'শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ'এই মহতী স্বপ্ন ইতোমধ্যে বাস্তবায়িত হয়েছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা, কর্মচারীরা ‘আলোর ফেরিওয়ালা’ হয়ে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সেবা প্রদান করেছেন। গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছানোর কারণে মানুষের জীবনমান সহজতর হয়েছে। তবে কিছু সংখ্যক অসাধু ব্যক্তি অবৈধভবে বিদ্যুৎ চুরির ফলে একদিকে গ্রাহক হয়রানির শিকার হচ্ছে অন্যদিকে সমিতি আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। গ্রাহক সদস্যগণকে ট্রান্সফর্মার চুরি রোধকল্পে সজাগ দৃষ্টি রাখার অনুরোধ করা হয়।

সভায় সভাপতি, সচিব, জেনারেল ম্যানেজার ও কোষাধ্যক্ষ নিজ নিজ বার্ষিক প্রতিবেদন পাঠ করেন। সভায় বিগত এক বছরে নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধকারী বিভিন্ন পর্যায়ের গ্রাহকদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

আরও খবর



মাগুরার জেলা প্রশাসক কতৃক রঙিন কপিক্ষেত পরিদর্শন

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৮৪জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরার  শ্রীপুর উপজেলার নাকোল ইউনিয়নের হাজরাতলা গ্রামের বরালীদহ কৃষি ব্লকে বিভিন্ন ধরনের রঙিন ফুলকপি, লেটুস, ক্যাপসিকাম ও ব্রুকলির প্রদর্শনী প্লট সরেজমিনে পরিদর্শন করেন মাগুরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ। শ্রীপুর উপজেলার হাজরাতলা গ্র্মের কৃষক সুশেন বালা যশোর অঞ্চলের টেকসই কৃষি সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় ২০ শতক জমিতে এ রঙিন কপি চাষ করে সবার দৃষ্টিতে এসেছেন। গোল্ডেন ফ্লাওয়ার জাতের এ রঙিন কপি তার দেখাদেখি অনেকেই চাষ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে জেলা প্রশাসক এ কপিক্ষেত পরিদর্শন কালে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

উন্নত জাতের এ রঙিন ফুলকপিগুলো সাদা রঙের ফুলকপির চেয়ে পুষ্টিমানে এগিয়ে।
জেলা প্রশাসন, মাগুরা সম্মানিত কৃষক দেরকে এ ধরনের উন্নত জাতের ফুলকপি ও সবজি আরও বেশি পরিমাণে চাষাবাদ করার আহবান জানান। একই সাথে এ ধরনের সবজি আবাদে কৃষি বিভাগের সাথে জেলা প্রশাসন পরিপূর্ণ সহযোগিতা প্রদান করবে মর্মে জেলা প্রশাসক সবাইকে আশ্বস্ত করেন।

আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মাতৃভাষা দিবসে ইবি সিআরসির উদ্যোগে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩১জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান,ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কাম ফর রোড চাইল্ড (সি আর সি) বিশ্ববিদ্যালয় শাখা স্কুলের উদ্যোগে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার বেদিতে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানটি সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের ইমদাদুল হকের সঞ্চালনায় প্রথমে জাতীয় সংগীত তারপর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা শুরু হয়। 

এই সময় উপস্থিত ছিলেন সিআরসি স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, সাব্বির খান, নবীন শিক্ষক সাঈফুদ্দিনসহ সংগঠনটির  সদস্য আখি আলমগীর, লাময়া, কেয়া প্রমুখ।

নবীন সদস্য আখি আলমগীর তার বক্তব্যে  শিশুদের সাসনে ভাষা আন্দোলনের গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরেন। নবীন শিক্ষক সাঈফুদ্দিন ভাষা আন্দোলনের গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে বলেন পৃথিবীর বুকে একমাত্র দেশ! যে দেশটি ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে সেটা হচ্ছে আমাদের বাংলাদেশ, তাই আমাদের উচিত ভাষাকে রক্ষা করা।

সংগঠনটির সভাপতি শাহীদ কাওসার তার বক্তব্য বলেন, 'একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের অনুপ্রেরণা। এই অনুপ্রেরণা আগামী প্রজন্মের মাঝে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সি আর সি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে এই দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরার জন্যই চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতার আয়োজন। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিশুরা ভাষা আন্দোলনের গুরুত্ব হাতে কলমে শিখতে পারবে। তিনি আশাবাদী বাংলাদেশের  সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য সি আর সি ইবি শাখা  অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

আরও খবর