Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

জয়পুরহাটে বেশী মজুরীতেও মিলছেনা শ্রমিক, পানির নিচে ধান, বিপাকে চাষীরা

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাটঃজয়পুরহাটে আলুর পর একটু দেরীতেই রোপণ করা হয় বোরো ধান। অন্যান্য এলাকায় যখন পাকা ধান কাটাঁ শেষ পর্যায়ে, তখন এ জেলায় শুরু হয় বোরো ধান কাঁটা। বর্তমানে জয়পুরহাটে মাঠের পর মাঠ জুড়ে পড়ে আছে পাঁকা ধান। কয়েকদিনের ঝড়-বৃষ্টিতে নষ্ট হচ্ছে কৃষকের পাকা ধান। এর সাথে দেখা দিয়েছে কৃষি শ্রমিকের সংকট। ঝড়-বৃষ্টির পর বেশী দামেও মিলছেনা কৃষি শ্রমিক। পাঁকা ধান নিয়ে বিপাকে পরেছে চাষীরা। অল্প সময়ের মধ্যে ফসল ঘরে তুলতে না পারলে পাকা ধান নষ্ট হয়ে যাবে, আবার ঝড়-বৃষ্টির সাথে শীলা বৃষ্টির কারনে পাকা ধান ঝড়ে গিয়ে ফলন কম হবে এমন শঙ্কায় দিন যাপন করছেন চাষীরা।  

চাষীরা জানান, গত কয়েকদিন ধরে কম-বেশী ঝড়-বৃষ্টি হচ্ছেই। জেলার বিভিন্ন এলাকায় কৃষকের পাঁকা ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অধিকাংশ জমির ধান মাটিতে নুয়ে গেছে। ধান গাছ পানির নিচে ডুবে পঁেচ যাচ্ছে। অনেকেই শ্রমিক না পেয়ে ধানের আশা ছেড়ে দিয়েছে।
কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে ৬৯ হাজার ৭শ২৫ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এসব জমিতে উচ্চফলনশীল (উফশী) এবং হাইব্রিড জাতের ধান হয়েছে। খাদ্য উৎপাদনের জেলা হিসেবে পরিচিত জয়পুরহাট। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এবার ১২০ হেক্টর জমিতে কম চাষ হয়েছে। সে হিসেবে চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৩ লাখ মে.টন। এ পর্যন্ত ৪৫ শতাংশ জমির ধান কাঁটা-মাড়াই হয়েছে। এখনও ৫৫ শতাংশ ধান মাঠেই আছে।

কৃষকরা জানান, এ এলাকায় আলু পর ধান রোপণ করা হয়। সে কারণে ধান পাকতে একটু দেরি হয়। এবারও ধান পাকতে দেরি হয়েছে। যে সময় মাঠের পর মাঠ জুড়ে ধান পাঁকে, ঠিক সেই সময়ই শ্রমিকের সংকট দেখা দিয়েছে। কৃষি শ্রমিকের সংকটের কারণে ধান কাঁটা যাচ্ছে না। বেশী টাকাতেও শ্রমিক মিলছেনা। গত কয়েকদিনের ঝড়-বৃষ্টির কারণে অনেকের ধান বৃষ্টির পানিতে ডুবে গেছে। জমানো পানি অন্যত্র সরানোর কোনো উপায়ও নেই। আজ (৯জুন) রোববার সকালে জেলার কালাই পৌরশহরের নয়াপাড়া মাঠে গিয়ে কথা কৃষক সোহেল মিয়ার সাথে। তিনি জানান, মাঠের পর মাঠ জুড়ে ক্ষেতের ধান পেকে মাটিতে নুয়ে পড়েছে। কয়েকদিন ধরে ঝড়-বৃষ্টিও হচ্ছে। এ কারণে প্রায় সব জমিতেই পানি জুমে গেছে। সরানোর কোনো উপায় নেই। সবাই ধান কাটতে শ্রমিক খুঁজছে। এ কারনে শ্রমিকের সংকট দেখা দিয়েছে। গত বছর একবিঘা (৩৩ শতক) জমির ধান কাটতে শ্রমিকের মজুরি দিতে হয়েছিল ২ হাজার  ৫০০ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকা। এবার সেই একবিঘার ধান কাটতে মজুরি দিতে হচ্ছে ৬ হাজার থেকে ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত। তারপরও শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। বাধ্য হয়ে অনেকেই জমির ধান ছেড়ে যাচ্ছে। কারন পানিতে ডুবে অনেকের ধান পঁচে গেছে।  

কালাই পৌরশহরের দোকানদারপাড়া মহল্লার কৃষক জয়েন উদ্দিন, পাঁচগ্রামের কৃষক রেজাউল করিম, ক্ষেতলাল উপজেলার মুন্দাইল গ্রামের কৃষক জেলহাজসহ বেশকয়েকজন কৃষক জানান, এবার ধানকাঁটা শ্রমিকের খুবই সংকট। এর আগে কখনও শ্রমিকের সংকট হয়নি। যদিও বাহির থেকে শ্রমিকের দল আসছে, তাদের নিয়ে গৃহস্থদের মধ্যে টানাহেচঁড়া শুরু হয়েছে। জমানো একহাটু পানি সাথে বজ্রপাতের আতঙ্কে শ্রমিক ও কৃষক উভয়ই মাঠে নামতে ভয় পাচ্ছেন। ফলে মাঠের ধান মাঠেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

বাগইল গ্রামের কৃষক মিজানুর রহমান বলেন, পাকা ধান ঘরে তুলতে কৃষকরা পাগল হয়ে গেছে। বেশী দামেও মিলছেনা শ্রমিক। যাও মিলছে গত বছরের চাইতে এবার দ্বিগুন দাম দিতে হচ্ছে তাদের। এমনিতেই ধানের দাম কম। তিনি আরও বলেন, গত শুক্রবার চার বিঘা ধান কেটেছি ২০ হাজার টাকায় অথচ গত বছর এই চার বিঘার ধান কেটেছিলাম ১০ হাজার টাকায়। আবার ধানের দামও কম। এই যদি হয় তাহলে আমরা কৃষকরা যাবো কোথায়।    
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রাহেলা পারভিন বলেন, বৈরী আবাওহায়ার কারণে পুরোদমে ধান কাটা সম্ভব হচ্ছে না। আবওহায়া ভাল থাকলে আগামী ১০ দিনের মধ্যে ধান কাটা শেষ হবে। তিনি আরও বলেন, আগামীতে শ্রমিকের সংকট আরও দেখা দিবে। কারণ এ পেশায় নতুন করে আর কোন লোক আসবে না। আমরা কৃষকদের ধান কাটার যন্ত্রপাতী ভূর্তকিতে নিতে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি কৃষক এসব যন্ত্রপাতী সহজেই ক্রয় করবেন। তাহলেই এ সংকট থেকে পরিত্রান পাওয়া যাবে। অল্প সময়েই ফসল ঘরে ওঠবে।  

আরও খবর



তানোর পুষ্টি বাগান তৈরির সামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে, কৃষিই সমৃদ্ধি, এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে রাজশাহীর তানোরে বসতবাড়ির আঙ্গিনায় পতিত অনাবাদি জমিতে পারিবারিক পুষ্টি বাগান তৈরির সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার দুপুরের দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে কৃষি দপ্তরের আয়োজনে কৃষক ও কৃষাণীদের হাতে বাগান তৈরির সামগ্রী তুলে দেন উপজেলা কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ। 

জানা গেছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা এক ইঞ্চি জমি অনাবাদি রাখা যাবেনা এবং পারিবারিক পুষ্টি বাগান প্রকল্পের আওতায় বসতবাড়ির আঙ্গিনায় যে সব পতিত অনাবাদি জমি রয়েছে সেগুলোতে বাগান তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করে কৃষি দপ্তর। উপজেলার ১৪৯ জন কৃষক কৃষাণীর মাঝে একটি করে লেবু গাছ, একটি করে আম গাছ, একটা করে পিয়ারা গাছ ও একটি করে আমড়া গাছ এবং বীজ সংরক্ষণ পাত্র, এক বস্তা জৈব সার, নেট,  সাইনবোর্ড দেয়া হয়। 

কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ জানান, পারিবারিক পুষ্টি বাগান তৈরি হলে অন্তত পারিবারের সদস্যদের চাহিদা পূরুন করবে এবাগান। উপজেলার ১৪৯ জন কৃষক কৃষাণীর মাঝে দেয়া হয়েছে। আমরা সার্বক্ষণিক খোজ খবর নিয়ে বাগান গুলো যাতে সঠিক তৈরি হয় সেদিকে নজর দেয়া হবে। যাতে করে পুষ্টি বাগান থেকে সফলতা অর্জন করা যায়। এসময় কৃষি অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারী ও কৃষক কৃষাণীরা উপস্থিত ছিলেন। 

আরও খবর



জন্মদিনে জাতীয় কবির সমাধিতে সর্বজনের শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৪১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের আজ ১২৫তম জন্মবার্ষিকী। শনিবার ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন জাতীয় কবির সমাধিতে সর্বজনের শ্রদ্ধায় সিক্ত হয়েছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

সকালে থেকে কবির সমাধিতে পুষ্পাঞ্জলি দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন। র‍্যালি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল। শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন কবি পরিবারের সদস্যরা।

শ্রদ্ধা জ্ঞাপন শেষে কবির নাতনি খিলখিল কাজী বলেন, প্রতিবছরই আবেদন থাকে, জাতীয় কবির জন্মদিন জাতীয় ছুটি ঘোষণা করা হোক। সব বাঙালির কাছে কাজী নজরুল পৌঁছে যাক। নজরুল রচনাবলি অনুবাদের মাধ্যমে পৃথিবীর সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া সবার দায়িত্ব।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, নজরুল সবসময় মানবিকতার প্রচার করেছেন। তার বর্ণাঢ্য জীবনকে বিশ্লেষণ করে বলা যায়, তিনি অসম্প্রদায়িক মানবিকতার মানুষ ছিলেন। তিনি মানুষের মুক্তির কথা বলেছেন, এ জন্য তিনি সবসময় প্রাসঙ্গিক থাকবেন। জাতীয় জীবনে সামগ্রিকভাবে আমরা অসাম্প্রদায়িকতা-মানবিকতাকে ধারণ করতে পারলে জাতীয় কবিকে প্রকৃতভাবে ধারণ করতে পারবো।

প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও বাহাউদ্দিন নাছিমসহ নেতারা শ্রদ্ধা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অসাম্প্রদায়িক চেতনার কবি, বিদ্রোহী কবি, যৌবনের কবি কাজী নজরুল ইসলাম। কাজী নজরুল ইসলাম আমাদের সংকটে, সংগ্রামে, মুক্তিযুদ্ধে তিনি অফুরান এক প্রেরণার উৎস।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক দল বিবেচনায় কাউকে গ্রেফতার বা কারাদণ্ড বা শাস্তি দেওয়া হয় না। শুধুমাত্র অপরাধ করলেই শাস্তি দেওয়া হয়।

কবির সমাধিতে আরো শ্রদ্ধা জানিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, কবি নজরুল ইনস্টিটিউট, জাতীয় জাদুঘর, প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর, জাতীয় কবিতা পরিষদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

আরও খবর



রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিএসএমএমইউ ও আইএমইউর উপাচার্যের সাক্ষাৎ

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ড. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক।

রোববার (২৬ মে) সাক্ষাৎকালে উপাচার্য চিকিৎসাসহ বিএসএমএমইউ -এর সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান। এখানে রোগীদের উন্নত চিকিৎসা ও সেবার বিষয়ে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে। রোগীরা যাতে বিদেশে না গিয়ে সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে উৎসাহী হয় সে লক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

রোগীদের চিকিৎসা ও সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে সময়োপযোগী ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি বিএসএমএমইউ-এর সার্বিক কার্যক্রমকে ত্বরান্বিত করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন।

পরে, ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের (আইএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক মো. আব্দুর রশীদ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় উপাচার্য ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক কর্মকাণ্ড এবং ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন।

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন মাদরাসার শিক্ষার্থীরা যাতে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নিজেদের যোগ্য প্রমাণ করতে পারে কারিকুলাম উন্নয়নের ক্ষেত্রে সে বিষয়ে প্রাধান্য দিতে হবে।


আরও খবর



পশুর হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় অন্যায়ভাবে দিনমজুরকে কারাদন্ড-এসিল্যান্ড বদলীর প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭০জন দেখেছেন

Image
রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার কাতিহার পশুর হাটে অতিরিক্ত টোকা আদায় করছিলেন ইজারাদার। ঐ হাটে গেট পাহারাদার হিসেবে প্রতিহাটে থাকতেন মোস্তাফা কামাল (মাস্তান) গত শনিবার (৮ জুন) এরই প্রেক্ষিতে ইজারাদারের পরিবর্তে তাকে তুলে এনে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৮ ধারায় ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) 
আর্নিকা আক্তার। 

রবিবার (৯ জুন) দুপুরে উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটকে এলাকাবাসীর ব্যানারে এসিল্যান্ডের বদলী ও অন্যায়ভাবে ওই দিনমজুরকে কারাদন্ড প্রদান করার প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বাচোর ইউপি সদস্য,ওমের আলী,বাংলাদেশ জয়ভিম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রসেনজিৎ দাস মলয়,
কাতিহার বাজারে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রেজওয়ানুল হক রঞ্জু, কাতিহার বাজারের কৃতি সন্তান,মোসাদ্দেক হোসেন সাদ্দাম, উজ্বল রায় ও বিশ্বজিৎ রায় প্রমুখ। 

উল্লেখ মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, কাতিহার হাট ইজারাদার সারওয়ার নুর লিয়ন, তাকে জেল অথবা জরিমানা না করে হাটে খেটে খাওয়া দিনমজুর মোস্তাফিজুর রহমানকে কারাদণ্ড দেয়া কোন আইনের মধ্যে পড়েনা। তাই এটি একটি অমানবিক কাজ। তাই আমরা এই স্বেচ্ছাচারী অমানবিক এসিল্যান্ডের দ্রুত বদলি চান। এবং প্রতিটি গরুর হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় রোধে সচেষ্ট হবার আহবান জানান। 

এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার ভূমি আর্নিকা আক্তারের মুঠো ফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলে ফোনে পাওয়া যায়নি। 

আরও খবর



নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে রায়ের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

চাকরি ডেস্ক:নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে রায়ের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়


আরও খবর