Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

‘জেরুজালেম থেকে সবাইকে আমার সালাম’ : শচীন

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৬৩জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক : ইসরায়েলে ছুটি কাটাচ্ছেন ভারতীয় ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে বেশ কিছু ছবি পোস্ট করে ভ্রমণের জানান দিচ্ছেন এই তারকা। একটি ভিডিও পোস্টও করেছেন শচীন। যেখানে দেশটির বিভিন্ন জায়গায় তাকে ঘুরতে দেখা যায়।

শচীন গিয়েছিলেন জেরুজালেমেও। সেখানে রয়েছে মুসলিমদের তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রার্থণার জায়গা আল-আকসা মসজিদ। এই মসজিদের সামনে থেকে একটি ছবি তুলে তিনি ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘জেরুজালেম থেকে সবাইকে আমার সালাম।’

৪৯ বছর বয়সী শচীন অবসরের পর পুরো দমে জীবনকে উপভোগ করছেন। যেখানে এ মাসের শুরুতে তিনি পরিবারসহ ইসরায়েলে যান।

7Shares
facebook sharing button
twitter sharing button

আরও খবর



পত্নীতলায় মাদকদ্রব্য সহ ৩জনকে আটক করেছে র‌্যাব

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৯০জন দেখেছেন

Image
দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব-৫, রাজশাহীর একটি অপারেশন দল শুক্রবার পত্নীতলা উপজেলার ঘোষনগর ইউপির মোসলেমের মোড়ে অভিযান চালিয়ে ৪৭.৫ কেজি অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা সহ সংঘবদ্ধ মাদক চক্রের ৩সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

র‌্যাব-৫, রাজশাহীর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৫, রাজশাহীর একটি চৌকস আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পত্নীতলার ঘোষনগর এলাকায় কতিপয় সংঘবদ্ধ মাদক চক্রের সদস্যরা অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজার একটি বড় চালানসহ অবস্থান করছে বলে জানতে পেরে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে ৩ জনকে ২টি বস্তাসহ আটক করে। এসময় তাদের বস্তা তল্লাশী করে ৪৭.৫ কেজি অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা উদ্ধার করে।

আটককৃতরা হলো পত্নীতলা উপজেলার ঘোষনগর ইউপির নবীর উদ্দীনের ছেলে নূর নবী (৩৮), উপজেলার চাপড়া গ্রামের রামপদ এর ছেলে রজনী কান্ত (৩২) এবং চাপাই নবাবগঞ্জ জেলার নাচোল দেউপাড়া গ্রামের ইসাহাকের ছেলে মোঃ নবী (৩০)। এসময় তাদের কাছে থাকা ৩টি মোবাইল ফোন ও সীম উদ্ধার করে।

র‌্যাব জানায়, ধৃত আসামিগণ সঙ্গবদ্ধ মাদক চক্রের সদস্য। তারা নিজ পেশার আড়ালে দীর্ঘদিন যাবত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে সুকৌশলে অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা, ফেন্সিডিল সহ বিভিন্ন মাদক কৌশলে কুমিল্লা জেলার ভারতীয় সীমান্ত এলাকা হতে সংগ্রহ করে নওগাঁ সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল।

উপরোক্ত ঘটনায় থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছে বলে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাফফর হোসেন নিশ্চিত করেছেন।

আরও খবর



হিলিতে বাড়ছে মসলা জাত পণ্যের দাম

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:এখনো প্রায় একমাস বাকি কোরবানি ঈদ।এর আগেই দিনাজপুরের হিলিতে বেড়েছে মসলা জাত পণ্যের দাম। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে জিরাসহ মসলা জাতীয় পণ্য আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে। যেখানে ১/২ গাড়ি জিরাসহ অন্যান্য মসলাপণ্য আমদানি হতো।এখন প্রতিদিনই ৫/৭ গাড়ী জিরাসহ মসলা পণ্য আমদানি হচ্ছে। প্রতি টন জিরা আমদানি হচ্ছে ৩ হাজার ১৩০ ডলার মুল্যে। কোরবানি ঈদের একমাস আগে দাম বৃদ্ধিতে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এটা ব্যবসায়ীদের কারসাজি।তারা অধিক মুনাফার আশায় মসলা জাত পণ্য মজুদ রেখে দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। আর খুচরা বিক্রেতারা বলছেন,আমরা ভারতীয় জিরা,আদা,চায়না রসুন বিক্রি করি। আমদানিকারকদের কাছ থেকে আমাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। তাই বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে। আমদানিকারকরা বলছেন,ডলার সংকটের কারণে ভারত অভ্যন্তরে জিরাসহ অন্যান্য মসলা জাত পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে দাম কয়েক দিনের স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে জানান আমদানিকারকরা ।  

আজ শনিবার দুপুরে হিলি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এক মাস আগে মানভেদে জিরা বিক্রি হয়েছে প্রতিকেজি ৫৭০ থেকে ৫৮০ টাকা দরে। এখন সেই জিরাই কেজিতে ১৩০ টাকা বেড়ে ৭০০ থেকে ৭১০ টাকা কেজি দরে হচ্ছে। অন্যান্য মসলা পণ্যের দাম দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কালো এলাচ ২৬০০ থেকে ২৯০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও তা এখন ১০০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২৭০০ থেকে ৩০০০ টাকা কেজি দরে এবং সাদা এলাচ মাঝারি ৩৪০০ শত টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও তা এখন কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে ৩ ৫০০ শত টাকা কেজি দরে, সাদা এলাচ বড় ধরণের ৪১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও তা কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে ৪২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও দারুচিনি, লং, গোল মরিচ,ধনিয়া,কালো জিরা কেজিতে ৫০ থেকে ১০০ টাকা বেড়েছে। এদিকে আমদানিকৃত আদা গেলো শনিবার (১৮ মে) প্রতিকেজি আদা ২৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও আজ শনিবার (২৫ মে) বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকায়। প্রতিকেজি দেশীয় রসুন ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও আজ বিক্রি হচ্ছে ২৪০ টাকায়। এক মাস আগে দেশীয় শুকনা মরিচ ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও আজ তা কেজিতে ৩০ টাকা বেড়ে ২৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর গতকাল শুক্রবার দেশীয় পেঁয়াজ ৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও আজ তা কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।   

রংপুর থেকে জিরা কিনতে আসা আকবর আলী জানান, আমি এক মাস আগে হিলিতে ঘুরতে এসে তখন ৫৮০ টাকা কেজি দরে জিরা কিনেছি। আজ হিলিতে একটি কাজে এসে জিরা কিনলাম ৭০০ টাকা কেজি দরে। 

আদা কিনতে আসা ফরহার হোসেন বলেন, কোরবানি ঈদের আগে হঠাৎ করেই আদার দাম বেড়ে গেছে। গত শনিবার প্রতিকেজি আদা বিক্রি হয়েছিল। ২৪০ টাকা কেজি দরে। আমি ৬০ টাকা দিয়ে ২৫০ গ্রাম আদা কিনি। আর আজ শনিবার বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকা কেজি দরে। ৭০ টাকা দিয়ে ২৫০ গ্রাম আদা কিনলাম। 

আরেক ক্রেতা ধরন্দা গ্রামের গোলাম মোর্শেদ বলেন, প্রতিবছর কোরবানি ঈদের আগে সব ধরনের মসলার দামে বাড়ে। এবারও বেড়েছে। গেলো শনিবার প্রতিকেজি রসুন কিনি ২০০ টাকা কেজি দরে। আর আজ শনিবার কিনতে হলো ২৪০ টাকা কেজি দরে।তিনি আক্ষেপ করে বলেন,হিলি বন্দর দিয়ে প্রতিদিন আদা আসছে। কিন্তু আমদানিকারক ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা মজুদ রেখে বেশি দামে বিক্রি করছেন।

শুকনা মরিচ,আদা-রসুন ও পেঁয়াজ বিক্রেতা ময়নুল ইসলাম বলেন,আদা হিলিবন্দর দিয়ে আমদানি হয়। আর চায়না রসুন আমদানি হয় অন্যদিকে দিয়ে। পাইকারি বিক্রেতাদের কাছ থেকে এক সপ্তাহ আগে এতিকেজি আদা ২২০ টাকায় কিনে ২৪০ টাকায় বিক্রি করি। আর রসুন ১৮০ টাকা কেজি দরে কিনে ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করি। কিনতেই পড়ছে প্রতিকেজি আদা ২৬০ টাকা এবং রসুন কিনতে পড়ছে ২২০ টাকা। আমরা কেজিতে ২০ টাকা লাভ রেখে বিক্রি করছি। এ কারণেই শুকনা মরিচ,পেঁয়াজ আদা-রসুনের দাম বেড়েছে।

ডলার সংকট কাটিয়ে উঠলে ও জিরা আমদানিতে শুল্ক কমলে দাম আরও কমে আসবে বলে মনে করছেন আমদানিকারকেরা।

হিলি কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে,চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২০ মে পর্যন্ত ভারতীয় ৩৮৩ টি ট্রাকে ১০ হাজার ৭১৭ মেট্রিক টন জিরা ও ভারতীয় ১৬ টি ট্রাকে ২৫৩ মেট্রিকটন এলাচ এবং ভারতীয় ২৪১ টি ট্রাকে ৪১৩৭ মেট্রিক টন আদা আমদানি হয়েছে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে।


আরও খবর



মান্দায় গণধর্ষণ মামলার ৫ আসামি গ্রেফতার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা নওগাঁ প্রতিনিধি:নওগাঁর মান্দায় গণধর্ষণ মামলার ৫ আসামিকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গতকাল রোববার রাতে উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামিদের আজ সোমবার আদালতের মাধ্যমে নওগাঁ কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আসামিরা হলেন, মান্দা উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাপুর গ্রামের আবদুর রশিদ (৩৭) ও লালন চৌধুরী (৩৬), নহলা কালুপাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিন (৩০), পারশিমলা গ্রামের আজিজুল হক (২৮) ও প্রান্ত কুমার (১৯)।

এর আগে গত শনিবার (১ জুন) মামলার সহযোগী আসামি নওগাঁর রানীনগর উপজেলার ধনপাড়া গ্রামের সোহরাব হোসেনের ছেলে মামুনকে (৩৮) গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিমের সাথে মামলার সহযোগী আসামি মামুনের এক বছর আগে মুঠোফোনে পরিচয় ঘটে। এ পরিচয়ের সূত্র ধরে মামুনের নওগাঁ শহরের ডিগ্রি কলেজ এলাকার ভাড়া বাসায় তিনি মাঝে মধ্যেই দেখাসাক্ষাৎ করতে  আসতেন। এ সুবাদে গত ১ জুন মামুন মুঠোফোনে তাকে নওগাঁ শহরে ডেকে নেয়। এর পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে একটি মোটরসাইকেলযোগে তাকে নিয়ে মান্দা উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাপুর গ্রামের এক মাঠের ধারে এক ব্রিজের কাছে নিয়ে যায়।

ভিকটিম ও মামলার বাদি বলেন, ‘রাত তখন সাড়ে ১০টা। এসময় মামুন মুঠোফোনে সেখানে এক ব্যক্তিকে ডেকে নেয়। এর পর সেখানে আরও চার ব্যক্তি উপস্থিত হন। পরে আমাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ও টেনেহিঁচড়ে পাশের একটি পাটখেতে নিয়ে গিয়ে ৬জনে মিলে পালাক্রমে আমাকে ধর্ষণ করে। এসময় আমার আর্ত চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। এরপরে অভিযুক্তরা আমার একটি স্মার্টফোন ও ৭ হাজার টাকা নিয়ে সেখান থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক কাজী বলেন, গণধর্ষণের ঘটনায় ভিকটিম বাদি হয়ে ৬জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে অভিযান চালিয়ে মামলার সব আসামিকে গ্রেফতারসহ জেলহাজতে পাঠানো হয়। এ সময় আসামি নিজাম উদ্দিনের বাড়ি থেকে ভিকটিমের মোবাইলফোন উদ্ধার করে পুলিশ।


আরও খবর



৬০ কিমি বেগে ঝড়সহ বজ্রবৃষ্টির আশঙ্কা

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আবহাওয়া অফিস দেশের সব বিভাগেই ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে। এর মধ্যে ২ অঞ্চলের ওপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়সহ বজ্রবৃষ্টির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সোমবার (২৪ জুন) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেওয়া এক পূর্বাভাসে এ আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপিতে বলা হয়, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার অঞ্চলের ওপর ওপর দিয়ে দক্ষিণ অথবা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেইসঙ্গে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এদিকে আবহাওয়া অফিসের অপর এক বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, সন্ধ্যা পর্যন্ত রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। বৃষ্টিপাতের এ প্রবণতা কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে।


আরও খবর



সরাইলের কারাবরণকারী ১১ যুবদল নেতাকে সংবর্ধনা প্রদান করেছে কেন্দ্রীয় যুবদল

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩০জন দেখেছেন

Image

রুবেল মিয়া সরাইল:বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি'র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশ নায়ক জনাব তারেক রহমানের নির্দেশে বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে  কারাবরণকারী নেতৃবৃন্দ কে সংবর্ধনা প্রদান করেছে সরাইল উপজেলা যুবদলের নেতৃবৃন্দ।  

বৃহস্পতিবার (৬ই জুন) সন্ধ্যায় সরাইল সদরের  মুন্সি মার্কেট এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন উপজেলা যুবদল।

উপজেলা যুবদলে আহবায়ক আবু সুফিয়ান সিদ্দিকীর  সভাপতিত্বে  ও  সদস্য সচিব মো. নুর আলম মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় যুবদল ও টিম লিডার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোসেন তারেক, এতে স্বাগত বক্তব্য দেন কুমিল্লা বিভাগীয় সহ  সাংগঠনিক সম্পাদক ভিপি তাজুল ইসলাম,

এ সময় সভায় কেন্দ্রীয় যুবদলের গণ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক  মামুন ভুইয়া,  উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনিছুর ইসলাম ঠাকুর সাংগঠনিক সম্পাদক দুলাল মাহমুদ আলী, উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক জহিরুল ইসলাম ভূইয়া, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান পলাশ, উপজেলা জাসাস এর আহ্বায়ক রিপন ঠাকুর ও সদস্য সচিব জাকির সহ উপজেলা যুবদলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।    

উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান সিদ্দিকী গণমাধ্যম কে জানান, ২৮অক্টোবর ২০২৩ এর আন্দোলনে গ্রেফতার হওয়া  সরাইলের ১১ যুবদলের নেতা ও আহত ২ জন যুবদলের  নেতাকে এ  সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন- যুবদলের সাংগঠনিক কর্মকান্ড গতিশীল করার লক্ষ্যে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর