Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ইরান যুদ্ধবিমান কিনছে রাশিয়া থেকে

প্রকাশিত:রবিবার ১২ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৮৯জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক: রাশিয়ার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক আরও জোরদার হচ্ছে। দেশটি ইউক্রেনে যুদ্ধের জন্য রাশিয়াকে ড্রোন ছাড়াও অন্যান্য অস্ত্র দিয়ে সাহায্য করে আসছে বলে পশ্চিমাদের অভিযোগ। তবে এবার রাশিয়া থেকে ইরান অস্ত্র কিনছে বলে খবর বেরিয়েছে।

গতকাল শনিবার ইরানের রাষ্ট্রীয় মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, রাশিয়া থেকে উন্নত এসইউ-৩৫ যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তিতে পৌঁছেছে ইরান। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের ইরানি মিশনের বরাত দিয়ে আইআরআইবি জানায়, এসইউ-৩৫ যুদ্ধবিমান প্রযুক্তিগতভাবে ইরানে গ্রহণযোগ্য এবং ইরান এই যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি চূড়ান্ত করেছে।

তবে এই চুক্তি নিয়ে রাশিয়ার পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। আইআরআইবি বলছে, বিভিন্ন দেশ থেকে ইরান সামরিক যুদ্ধবিমান কেনার বিষয়ে কথা বলছে। তবে তারা দেশের নাম প্রকাশ করেনি।

গত বছরের জুলাইতে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতোল্লা আলী খামেনির সঙ্গে দেখা করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ করার ব্যাপারে জোর দেন।


আরও খবর



রাজধানীর মোহাম্মদপুরে র‌্যাবের অভিযানে কিশোর গ্যাংয়ের ৩৯ সদস্য গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image
ফাইল ছবি:

নিজস্ব প্রতিবেদক:কিশোর গ্যাংয়ের ৩৯ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব, রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে।এ সময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন খান।

র‍্যাব জানিয়েছে, রাজধানীর মোহাম্মাদপুর, আদাবর, হাজারীবাগ এলাকায় ছিনতাই, চাঁদাবাজি, বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কিশোর গ্যাং ‘পাটালি গ্রুপ’-এর মূলহোতা মো. সুজন মিয়া ওরুফে ফর্মা সজিব, ‘চাঁন গ্রুপ’ ও ‘লেভেল হাইসহ বিভিন্ন গ্রুপের ৩৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এ দিকে কিশোর গ্যাংয়ের ৩৯ সদস্য গ্রেপ্তারের বিষয়ে শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বসিলায় র‌্যাব-২ এর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে র‌্যাব, সেখানে বিস্তারিত জানানো হবে।


আরও খবর



হাসপাতালে শয্যা সংকট,মেঝেতেও হচ্ছে না ঠাঁই

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬১জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান,নাসিরসগর,ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট,মেঝেতেও হচ্ছেনা ঠাঁই।সরেজমিন হাসপতালে গিয়ে দেখা গেছে এমনই চিত্র।

হাসপাতালে সীট না পেয়ে রােগীদের মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে দেখা যাচ্ছে।হাতপাতাল সুত্রে জানা গেছে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল হলেও এখানে প্রতিদিন ৮০ থেকে ৯০ জন রোগীকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।অতিরিক্ত রোগীর চাপ সামলাতে ডাক্তার আর নার্সদের খেতে হচ্ছে হিমশিম।

এমন হওয়ার কারন কি জানতে চাইলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়,এখানে ডাক্তারদের ব্যবহার,পর্যাপ্ত ঔষধ পত্র আর সেবার মান ভাল হওয়া পার্শ্ববর্তী সরাইল,লাখাই,মাধবপুর,অষ্টগ্রাম থেকেও চিকিৎসা নেয়ার জন্য রোগীরা আসেন।আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আর,এম,ও) ডাঃ সাইফুল ইসলাম জানান উক্ত হাসপাতালে আউটডোরে প্রতিদিন প্রায় ৫ থেকে ৬ শ রোগী দেখতে ডাক্তারদেন হিমশিম খেতে হচ্ছে।

নাসিরনগর হাসপাতালের চিকিৎসকদের  মাঝে ডাক্তার অভিজিৎ রায়,ডাক্তার মোঃ সাইফুল ইসলাম,ডাক্তার জীবণ চন্দ্র দাস,ডাক্তার মৌমিতা বসাকের চিকিৎসা ব্যবস্থা অন্যতম।তাই হাসপাতালের শয্যা সংকট দুর করতে স্থানীয়রা মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সৈয়দ একে একরামুজ্জামজন এমপি সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু দৃষ্টি কামনা করছেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



কুড়িগ্রামের রৌমারীতে বিদ্যুৎ সংযোগের অভাব কৃষকদের

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫১জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃকুড়িগ্রামের রৌমারী বিদ্যুতের সংযোগ না পাওয়ায় বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সেচ প্রকল্প কোন কাজে আসছে না। রৌমারী উপজেলায় বোরো চাষের লক্ষ নিয়ে ১০টি সেচ প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পূর্ণ হলেও কৃষকের কোন কাজে আসছেনা। বরেন্দ্রর বহুমুখী উন্নয়ন সেচ প্রকল্প বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় আশঙ্কায় পরছেন স্থানীয় সুবিধাভোগী কৃষকরা। সাশ্রয়ী খরচে বোরো ধানের চাষাবাদের জন্য ৩০ লাখ টাকা ব্যয় সেচ সম্প্রসারণের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয় বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) কুড়িগ্রামের রৌমারী। বরেন্দ্র বহুমুখী প্রকল্প এঅঞ্চলে ভূগর্ভস্থ পানির চাপ হ্রাস এবং সেচ সঙ্কট সমাধানে এ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ভূগর্ভস্থ পানির চাপ কমিয়ে নদী ও খাল থেকে পানি এনে জমিতে সেচ দিতে বিদ্যুৎ চালিত লো লিফট পাম্প (এলএলপি) স্থাপন এবং এলএলপির অধিভুক্ত সেচ এলাকায় ভূগর্ভস্থ পানির পাইপলাইন নির্মাণ করেছেন বিএমডিএ।

সেচ সঙ্কট মিটাতে কৃষিবান্দব সরকারের এই প্রকল্প বাস্তায়ন হলে সুফল পাবে এঅঞ্চলের হাজার কৃষক। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রৌমারী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় যেসব বরেন্দ্রর সেচ প্রকল্প হাতে নিয়েছে, যাদুর চর ইউনিয়নের যাদুরচর পাহাড় তলী,খেওয়ার চর, বোয়ালমারী, যাদুর চর পাহাড়তলী ২, যাদুর চর পাহাড়তলী ৩ , যাদুর চর পাহাড়তলী ৪,যাদুর চর ৫,কুরার চর ৬, বন্দবেড় ৭, পাহাড় তলী ৮,পাহার তলী ৯, পাহাড় তলী ১০টি পানির পাইপলাইন জিঞ্জিরাম নদের ভূগর্ভস্থ নির্মাণ করা হয়েছে।

১০টি এলএলপি সেচ প্রকল্পের মাধ্যমে নদী থেকে পাইপযোগে পানি তুলে প্রায় সাড়ে তিনশো হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চাষবাদ হবে বলে জানা গেছে। প্রতিটি পাইপলাইনের মধ্যেস্থল পয়েন্টে রাখা হয়েছে, হাওয়া নিষ্কাশনের নিঃশ্বাস রোড। এতে দের কিলোমিটার পর্যন্ত পাইপলাইন করা হয়েছে যারমাধ্যমে গ্রামের কৃষকরা এ লাইন থেকে সেচ সুবিধা পাবেন। এঅঞ্চলের কৃষকদের অভিযোগ সারাজীবন ডিজেল চালিত শ্যালো মিশিন দ্বারা বোরোর চাষ করে আসছি। এবার সরকারের সুদৃষ্টিতে বরেন্দ্রর বহুমুখী প্রকল্প এখানে সাশ্রীয় খরচে বোরো ধান চাষ করা যাবে শুনে খুবই খুশি হয়েছিলাম কিন্ত বিদ্যুতের জটিলতায় সেআশা আর বাস্তবায়ন হচ্ছেনা ।

সরকারের কাছে জোর দাবী বিদ্যুতের জটিলতার নিরোশন করে বোরো ক্ষেতে পানি দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন। কৃষক আব্দুল, আব্দুস ছালাম ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন অনেক বড় আশা নিয়ে দীর্ঘ তিনমাস ধরে এই বরেন্দ্র প্রকল্পের সাথে থেকে সবকিছুই করলাম কিন্ত কাজে আসছেনা। কারন বিদ্যুতের কি জটিলতা জানিনা তবে সরকারের কাছে জোর দাবী যাতে চলতি মৌসুমে বোরোর চাষ করতে সেদিকে সুনজর দিবেন।

এবিষয় রৌমারী উপজেলা সহকারী বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন প্রকৌশলী মিজানুর রহমান জানায় রৌমারী উপজেলাটি একটি অবহেলিত দরিদ্র এলাকা হওয়ায় এখানে এলাকার উন্নয়নের সার্থে দশটি স্থানে সেচ প্রকল্পের আওতায় এনে কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে শুধু বাকি বিদ্যুৎ লাইন। বিদ্যু লাইনের কাজও আমরা সম্পূর্ণ করেছি এখন শুধু মিটার পেলেই পানির লাইন চালু করা যায়। এরজন্য আবেদন করা হয়েছে বিদ্যুৎ কর্মকর্তাদের ঠেলাঠেলিতে এপ্রকল্পের বিঘœ ঘটছে বলে জানা গেছে।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মেহেরপুরে সাংবাদিকের উপর হামলার অন্যতম আসামী পাপ্পু জেল হাজতে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image

মেহেরপুর প্রতিনিধি :মেহেরপুরের আমঝুপিতে চ্যানেল ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার রাশেদুজ্জামান এবং দৈনিরক জবাবদিহি পত্রিকার সাংবাদিক সিরাজুদ্দোজা পাভেলের উপর বর্বরোচিত হামলার অন্যতম আসামি পাপ্পুকে (২৭) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারী) ভোরে তাকে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর থেকে আটক করা হয়। সে আমঝুপি গ্রামের মৃত প্যাডির ছেলে। মেহেরপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের বিশেষ অভিযানে সে আটক হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কনী মিয়া, এসআই আশরাফসহ পুলিশের একটি দল।

এদিন দুপুরে পাপ্পুকে নেওয়া হয় মেহেরপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল রানার আদালতে। আদালত তার রিমান্ড ও জামিন শুনানীর দিন ধার্য করেন আগামী ২২ ফেব্রুয়ারী। পরে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেয় আদালত।    

গেল ১২ ফেব্রুয়ারী আমঝুপিতে চ্যানেল ২৪ স্টাফ রিপোর্টার রাশেদুজ্জামান ও দৈনিক জবাবদিহি পত্রিকার সাংবাদিক সিরাজুদ্দোজা পাভেলের উপর হামলার ঘটনার মামলার এজাহার নামীয় ৪নং আসামি এই পাপ্পু। তিন দফা হামলার সময় এক দফা হামলা হয় পাপ্পুর নেতৃত্বে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই হামলার রহস্য এবং হামলাকারী অন্যান্যদের সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাবে বলে মনে করেন ঘটনার কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী।


আরও খবর



স্মার্ট এডুকেশনের প্রসারে বিডিআরইএনের সাথে কাজ করবে হুয়াওয়ে

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১১৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য স্মার্ট শিক্ষার সুযোগ ত্বরান্বিত করতে কৌশলগত একসাথে কাজ করবে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেড এবং বাংলাদেশ রিসার্চ অ্যান্ড এডুকেশন নেটওয়ার্ক (বিডিআরইএন)। এ সহযোগিতার বিষয়ে সম্প্রতি উভয়পক্ষের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করা হয়েছে।

এ সমঝোতা স্মারক বাংলাদেশে স্মার্ট ক্যাম্পাস ও স্মার্ট ক্লাসরুমসহ স্মার্ট শিক্ষার সকল উদ্যোগকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে হুয়াওয়ের প্রতিশ্রুতিরই একটি প্রতিফলন। হাই পারফরম্যান্স কম্পিউটিং (এইচপিসি), ক্লাউড, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) ইত্যাদির মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে নতুন সুযোগ এবং সম্ভাবনা তৈরির জন্য যৌথভাবে কাজ করবে হুয়াওয়ে এবং বিডিআরইএন। এই প্রক্রিয়ায়, হুয়াওয়ে, বিডিআরইএন-এর সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে উচ্চ-গতির ইন্টারনেট/ডেটা সংযোগ হার্ডওয়্যার এবং অন্যান্য সংশ্লিষ্ট অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার সরবরাহ করবে।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কার্যালয়ে এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়ার এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপের (ইবিজি) চিফ টেকনোলজি অফিসার (সিটিও) পেং জিয়াওলেই (অ্যান্ডি); এবং বিডিআরইএনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ তাওরিত নিজ-নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এ সমঝোতা স্মারকে সাক্ষর করেন। এছাড়া অ্যালেন লিউ, ভাইস প্রেসিডেন্ট, হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়া এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর, গভর্নমেন্ট এবং এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপ, হুয়াওয়ে বাংলাদেশ এবং  ইউজিসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং বিডিআরইএন ট্রাষ্টের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন মুহাম্মদ আলমগীর ও উভয় প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কর্মকর্তারা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অ্যালেন লিউ বলেন, “আমাদের লক্ষ্য শুধুমাত্র উন্নত প্রযুক্তি ও পণ্য সরবরাহই নয় বরং স্থানীয় পর্যায়ে প্রতিভা বিকাশে একটি গুরুত্বপুর্ণ দায়িত্ব পালন। হুয়াওয়ে বিশ্বাস করে স্মার্ট এডুকেশন সল্যুশন্স বাংলাদেশকে একটি অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে এবং তা সম্ভব হবে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে। সেই প্রেক্ষাপটেই বিডিআরইএনের সাথে এই চুক্তি আমাদের স্বপ্ন দেখায়। সমৃদ্ধ বাংলাদেশের যাত্রায় এটি একটি অন্যতম পদক্ষেপ।”

মুহাম্মদ আলমগীর বলেন, “বিডিআরইএন বাংলাদেশের একটি স্বনামধন্য অলাভজনক প্রতিষ্ঠান যা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে উচ্চগতির ও উচ্চমানের নেটওয়ার্কিং সেবা প্রদান করে। আমি মনে করি, আগামীতে শিক্ষাক্ষেত্রে যে বিপ্লব হতে চলেছে সেখানে হুয়াওয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আর এক্ষেত্রে সরাসরি অংশ নিয়ে অনন্য অবদান রাখতে আমরা হুয়াওয়ের সাথে কৌশলগত সহযোগিতার মাধ্যমে কাজ করতে আগ্রহী। হুয়াওয়ের অঙ্গীকার আমাদের জন্য আশাবাদের একটি উৎস এবং আমরা তাঁদের এ সক্ষমতার সর্বোচ্চ ব্যবহারে আগ্রহী। একসাথে কাজ করার মাধ্যমে আমরা এমন একটি সমাজ গঠন করতে চাই যেখানে প্রযুক্তিগত অগ্রগতি ব্যবহার করে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ক্ষমতায়ন করা সম্ভব।”

হুয়াওয়ে ৮০টির বেশি দেশে এবং ২৮০০টির বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্মার্ট শিক্ষা প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে। এর মধ্যেই পাঁচ লক্ষের বেশি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় হুয়াওয়ের আইসিটি সমাধানের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছে। বাংলাদেশেও হুয়াওয়ে একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে স্মার্ট আইসিটি সমাধান প্রদান করেছে।


আরও খবর

তিন পদে লোক নিচ্ছে হুয়াওয়ে বাংলাদেশ

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪