Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

ইমামকে রাজকীয় বিদায়, পেলেন ১০ লাখ টাকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৬১৫জন দেখেছেন

Image

গাজীপুর প্রতিনিধি ;গাজীপুরের একটি স্থানীয় মসজিদের ইমামকে রাজকীয় বিদায়ী সংবর্ধনা দিল এলাকাবাসী। তার নাম মো. হাসান। তিনি দীর্ঘ ৫৩ বছর গোসিঙ্গা বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ সময় হাদিয়া হিসেবে ইমামের হাতে তুলে দেওয়া হয় ১০ লাখ টাকা।

গত শনিবার গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার গোসিঙ্গা ইউনিয়নে মো. হাসানকে ব্যতিক্রমী এ সংবর্ধনা দিয়েছে এলাকাবাসী। তৈরি করা হয় অনুষ্ঠানমঞ্চ। বিদায় মঞ্চে কয়েকশ মোটরসাইকেলের বহর ও গাড়ির বহরযোগে ইমামকে বাড়ি থেকে আনা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা। 

বিদায়ের এমন আয়োজনে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন হাফেজ মো. হাসান। তিনি গোসিঙ্গা ইউনিয়নের খোঁজেখানি গ্রামের বাসিন্দা। সংসার জীবনে পাঁচ সন্তান ও দুই মেয়ের জনক। পাঁচ ছেলের মধ্য তিনজন মাদ্রাসায় শিক্ষক ও দুইজন লেখাপড়া করছেন। দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন তিনি।

মো. হাসান বলেন, ‘৫৩ বছরের হিসাব থাকলেও এর চাইতে বহু বছর ওই মসজিদে একাধারে ইমামতি করেছি। আমাকে মসজিদ কমিটি, বাজারের ব্যবসায়ী, গন্যমান্য ব্যক্তিসহ এলাকার মুসল্লিরা যে সম্মানে বিদায় দিয়েছেন তা অন্যান্য ইমামদের ইজ্জত বাড়িয়েছে। এমন নজির সব জায়গায় চালু হওয়া দরকার।’

সম্মাননা পাওয়া টাকায় তিনি একটি মসজিদ ও মাদ্রাসা তৈরি করতে চান। তিনি বলেন, ‘এ টাকা মসজিদ ও মাদ্রাসার পুরো কাজ হবে না। আরও টাকার দরকার। আমি আমার সম্মাননা পাওয়া টাকায় কাজ শুরু করব। বেঁচে থাকাকালীন যতটুকু পারব করে শেষ করব। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ও আমার পরবর্তী প্রজন্ম বাকি কাজ সম্পন্ন করবেন।’

গোসিংগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ছাইদুর রহমান শাহিন মোড়ল বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে মো. হাসান হুজুর এই মসজিদের ইমামতি করতে দেখেছি। সকল ক্ষেত্রে তিনি ছিলেন আন্তরিক। তার এ আন্তরিকতায় সকলের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। তারই প্রতিফলন তিনি অবসরকালে পেলেন। তার বিদায় উপলক্ষে সকলেই অশ্রুসিক্ত।’

তিনি আরও বলেন, সম্মাননা স্বরূপ বিদায়ী ইমামের হাতে নগদ ১০ লাখ টাকা তুলে দেওয়া হয়েছে। এলাকাবাসীর সঙ্গে প্রবাসীরাও এই আর্থিক সহযোগিতা করেছেন।

বিদায় অনুষ্ঠানে মসজিদ কমিটির সভাপতি গোসিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ছাইদুর রহমান শাহীনের সভাপতিত্বে ও মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিনহাজুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল আলম প্রধান।

এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, কাপাসিয়ার পীর সাহেব দেওনা ও মাদ্রাসা দাওয়াতুল হকের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী, জামিয়া আনওয়ারীয়া মাদ্রাসার বরমী মোহতামিম আল্লামা আশেখে মোস্তাফা, ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ইসমাইল হোসেন মোড়ল, গোসিঙ্গা বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. বোরহান উদ্দিন মন্ডলসহ স্থানীয় ওলামায়ে কেরাম, বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, মাদ্রাসার শিক্ষক, মসজিদ পরিচালনা কমিটি, বাজার পরিচালনা কমিটির নেতা, ব্যবসায়ী, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন দলের নেতাকর্মীরা।


আরও খবর



গাংনীর সীমান্তে বিএসএফ কর্তৃক কৃষক নির্যাতন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৫৭জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃমেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজিপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমানরক্ষী বাহিনী(বিএসএফ) কর্তৃক বাংলাদেশী এক কৃষককে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার(১২ জুন) সকাল ৯ টার দিকে বাংলাদেশ ভারত আন্তর্জাতিক সীমান্তের ১৪৬ ও ১৪৭ পিলারের মাঝে এ ঘটনাটি ঘটে। নির্যাতিত ওই কৃষকের নাম আলমগীর হোসেন। তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি দিয়েছে বিজিবি।

কৃষক আলমগীর হোসেন  জানান, আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাজিপুর গ্রামের ভারতীয় সীমান্তবর্তী মাঠে আন্তর্জাতিক মেইন পিলার ১৪৬ ও ১৪৭ এর মাঝে নিজ জমির মরিচ ক্ষেতে ঘাস কাটছিলেন তিনি। হঠাৎ ভারতের ফুলবাড়ি বিএসএফ ক্যাম্পের দুই সদস্য এসে তাকে মারধর করতে থাকে। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন আলমগীর। পরে ওই বিএসএফ সদস্যরা নিজেদের সিমান্তে চলে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে মাঠের অন্যান্য কৃষকরা আলমগীরকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর জ্ঞান ফিরে আসে। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। 

স্থানীয়রা জানান, মাঝে মধ্যেই ভারতের বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশের নিরীহ কৃষকদের উপর হামলা চালায়। মাঝে মধ্যেই কৃষকদের ওপর চওড়া হয় এবং বিভিন্ন সময় শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে। এই সীমান্তে নির্যাতন বন্ধের দাবিও জানান তারা।

৪৭ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল মোর্শেদ জানান, কাজিপুর সীমান্তে কৃষক নির্যাতনের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়। আর এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে এ জন্য সজাগ থাকতে হবে।


আরও খবর



পরিবেশ অধিদপ্তরের আয়োজনে বগুড়ায় বায়ুদূষণ প্রতিরোধে কর্মশালা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৬২জন দেখেছেন

Image

আল আমিন মন্ডল বিপ্লব (বগুড়া):বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে সোমবার (১০ই জুন২৪) পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় ও বগুড়া  জেলা কার্যালয়ের আয়োজনে পরিবেশ ভবনে বায়ু দূষণ প্রতিরোধে পরিবেশ বান্ধব ব্লকের ব্যবহার শীর্ষক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক (উপ-সচিব) মুহাঃ আহসান হাবিব। পরিবেশ অধিদপ্তর এর সরকারী পরিচালক তামিম হাসান এর সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করনে বগুড়া জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মাহথীর বিন মোহাম্মদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপ-পরিচালক সাইফুল ইসলাম ও আসাদুর রহমান, সহকারী পরিচালক নাজমুল হোসাইন, মলিন মিয়া, মিজানুর রহমান, ফারুক হোসেন ও রফিকুল ইসলাম প্রমূখ।


আরও খবর



পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করায় দেশে স্থিতিশীল: আইজিপি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে দেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়েছে, ফলে দেশে স্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করছে, বলেছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন।

আইজিপি বুধবার (১২ জুন) সকালে রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স কোয়ার্টারলি কনফারেন্সে সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, বর্তমানে দেশে জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তিনি জঙ্গিদের বিষয়ে সর্বদা সতর্ক থাকার জন্য মাঠ পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

তিনি বলেন, পুলিশকে আত্মতুষ্টিতে ভুগলে হবে না, আরো পেশাদারিত্বের সাথে দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করতে হবে। পুলিশ প্রধান বলেন , পুলিশ নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। ফলে পুলিশের প্রতি জনগণের প্রত্যাশা বেড়েছে। তিনি এ অবস্থা ধরে রাখার জন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

অতিরিক্ত আইজি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) মো. আতিকুল ইসলাম জানুয়ারি-মার্চ ২০২৪ কোয়ার্টারে দেশের সার্বিক অপরাধ চিত্র সভায় উপস্থাপন করেন।

সভায় অতিরিক্ত আইজি (প্রশাসন) মো. কামরুল আহসান বিপিএম (বার), স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) প্রধান অতিরিক্ত আইজি মো. মনিরুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম (বার), অতিরিক্ত আইজি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) মো. আতিকুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) সহ অতিরিক্ত আইজিপিগণ, সকল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও জেলার পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় অতিরিক্ত আইজি (প্রশাসন) মোঃ কামরুল আহসান, স্পেশাল ব্রাঞ্চের অতিরিক্ত আইজি মো. মনিরুল ইসলাম, এপিবিএন'র অতিরিক্ত আইজি সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, অতিরিক্ত আইজি (অডিট অ্যান্ড ইন্সপেকশন) খন্দকার লুৎফুল কবির, নৌ পুলিশের অতিরিক্ত আইজি আব্দুল আলীম মাহমুদ, বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমীর প্রিন্সিপাল মাসুদুর রহমান ভূঞা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন ।


আরও খবর



সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নিলেন জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান সেনাবাহিনীর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন । তিনি জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

রবিবার (২৩ জুন) এ তথ্য জানায় আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)। আগামী তিন বছরের জন্য সেনাপ্রধানের দায়িত্বে থাকবেন তিনি।

গত ১১ জুন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামানকে ২৩ জুন থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে জেনারেল পদে পদোন্নতি দিয়ে তিন বছরের জন্য সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে এক বিজ্ঞপ্তিতে আইএসপিআর জানায়, ওয়াকার-উজ-জামান ১৯৮৫ সালের ২০ ডিসেম্বর ১৩তম দীর্ঘমেয়াদি কোর্সের সঙ্গে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভ করেন। তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ, মিরপুর এবং যুক্তরাজ্যের জয়েন্ট সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ থেকে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেন। এ ছাড়া তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘মাস্টার্স অব ডিফেন্স স্টাডিজ’ এবং যুক্তরাজ্যের কিংস কলেজ, ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে ‘মাস্টার্স অব আর্টস ইন ডিফেন্স স্টাডিজ’ ডিগ্রি অর্জন করেন।

ওয়াকার-উজ-জামান সুদীর্ঘ ৩৯ বছরের বর্ণাঢ্য সামরিক জীবনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদের পাশাপাশি নবম পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং এবং সাভার এরিয়ার এরিয়া কমান্ডার, সেনা সদরে সামরিক সচিব এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া তিনি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আর্মড ফোর্সেস ডিভিশনে প্রধানমন্ত্রীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এরিয়া কমান্ডার সাভার এরিয়া ও জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) নবম পদাতিক ডিভিশন হিসেবে ওয়াকার-উজ-জামান টানা তিন বছর অত্যন্ত সফলভাবে বিজয় দিবস প্যারেড ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬-এর প্যারেড কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। বিরল এই কৃতিত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ‘সেনাগৌরব পদক’ (এসজিপি) পান।

ওয়াকার-উজ-জামান স্টাফ হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়োজিত একটি ব্রিগেড, স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড ট্যাকটিকস (এসআইএন্ডটি) এবং সেনা সদরে বিভিন্ন পদবি ও নিয়োগে দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়া তিনি প্রতিক্ষণ হিসেবে জেসিও এনসিও একাডেমি (জেএনএ), স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি অ্যান্ড ট্যাকটিকস ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস সাপোর্ট অ্যান্ড ট্রেনিংয়ে (বিপসট) অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে সব পদবির দেশি-বিদেশি সেনাসদস্যদের প্রশিক্ষণ দেন।

জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান জাতিসংঘের ব্যানারে মিলিটারি অবজারভার হিসেবে অ্যাঙ্গোলা এবং সিনিয়র অপারেশন অফিসার হিসেবে লাইবেরিয়াতে দায়িত্ব পালন করেন। সেনাবাহিনীতে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিনি ‘অসামান্য সেবা পদকে’ (ওএসপি) ভূষিত হন। তার স্ত্রীর নাম সারাহনাজ কমলিকা জামান। এ দম্পতির সামিহা রাইসা জামান ও শাইরা ইবনাত জামান নামে দুই কন্যাসন্তান রয়েছে।


আরও খবর



সরকারি অফিস ১৯ জুন থেকে ৯টা-৫টা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আগামী ১৯ জুন থেকে ঈদুল আজহার ছুটির পর নতুন সময়সূচিতে চলবে সরকারি অফিস। ওইদিন থেকে আগের মতো সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত অফিস করবেন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়, ‘আগামী ১৯ জুন (পবিত্র ঈদুল আজহার পরবর্তী প্রথম কর্মদিবস) থেকে দেশের সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অফিস সময়সূচি পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সরকার নির্ধারণ করলো।

রোববার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সরকারি অফিস চলবে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। দুপুর ১টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত জোহরের নামাজ ও মধ্যাহ্নভোজের বিরতি। শুক্রবার ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি।

প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, জরুরি পরিসেবাগুলো নতুন অফিস সময়সূচির আওতার বাইরে থাকবে। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট এবং ব্যাংক, বিমা ও অন্যান্য অর্থিক প্রতিষ্ঠানের সময়সূচি স্ব স্ব কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করবে।


আরও খবর