Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

ইলন মাস্কের টুইটারের সিইও পদ ছাড়ার ঘোষণা

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৮৫জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক; জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) পদ থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান ইলন মাস্ক। এক টুইটে নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি আজ বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বুধবার টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন মাস্ক। অবশ্য পদত্যাগের আগে এই পদের জন্য নতুন একজনকে খুঁজে বের করবেন তিনি এবং এরপরই সংস্থাটি থেকে সরে দাঁড়াবেন।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে ইলন মাস্ক লিখেছেন, ‘এই চাকরি নেওয়ার মতো বিকল্প কাউকে খুঁজে পাওয়া মাত্রই আমি সিইও (টুইটারের) পদ থেকে পদত্যাগ করব। এরপর আমি শুধু সফটওয়্যার ও সার্ভার টিম চালাব।’ টুইটারের পাশাপাশি ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টেসলা এবং স্পেস এক্সও পরিচালনা করে থাকেন মাস্ক।

এর আগে টুইটারের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে তার সরে দাঁড়ানো উচিৎ কিনা- এমন প্রশ্ন সামনে এনে ইলন মাস্ক একটি জরিপ শুরু করেন। ওই জরিপে অংশ নেওয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষই তাকে চলে যাওয়ার পক্ষে মত দেন।

জরিপে ৫৭ দশমিক ৫ শতাংশ উত্তরদাতাই বলেছেন, ইলন মাস্কের উচিত টুইটারের প্রধান নির্বাহীর পদ ছেড়ে দেওয়া। গত রোববার রাতে এই জরিপ শুরু করেন মাস্ক এবং পরে তিনি জরিপের ফল মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন। প্রায় এক কোটি ৮০ লাখ মানুষ জরিপে অংশ নেন।

গত অক্টোবর মাসের শেষের দিকে ৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে টুইটার কিনে নেন ইলন মাস্ক। এরপর তিনি সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব নেন এবং এরপর থেকে প্ল্যাটফর্মটিতে তার আনা নানা পরিবর্তন ব্যাপক সমালোচনার শিকার হয়েছে।


আরও খবর



শিশুকুঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image

ঝিনাইদহ কামরুজ্জামান:জাকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্যদিয়ে ঝিনাইদহ শিশুকুঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজ প্রাঙ্গনে এ পুনর্মিলনী আয়োজন করে এক্স স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন অব শিশুকুঞ্জ। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ-২ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ নাসের শাহরিয়ার জাহেদী মুহুল। আরোও উপস্থিত ছিলেন- কর্নেল এসএম রাকিব ইবনে রেজওয়ান, ঝিনাইদহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমরান জাকারিয়া, ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী হিজল, শিশুকুঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কাশেম। অনুষ্ঠানের পূর্বে এক বর্নাঢ্য র‌্যালী প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে শহর প্রদক্ষিণ পর পুনরায় কলেজ প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়। বিকালে স্থানীয় শিল্পী ও সন্ধ্যার পর ঢাকা থেকে আগত শিল্পদের সমন্বয়ে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান শেষ হয়।  


আরও খবর



খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ ১৫টি প্রশংসনীয় কাজে আইজিপি পুরস্কার পেল

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ,  চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম মহোদয় এর দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ পুলিশের সেবায় এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে।এই অগ্রযাত্রার সাথে তাল মিলিয়ে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সেবার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে আইজিপি মহোদয় কর্তৃক পুরস্কৃত হয়েছে। এই অর্জন কেবল সম্ভব হয়েছে সম্মানিত পুলিশ সুপার খাগড়াছড়ি জেলা,  মুক্তা ধর পিপিএম (বার) এর সার্বিক তত্ত্বাবধান ও দিকনির্দেশনার ফলে।

খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ যে ১৫টি বিষয়ে আইজিপি পুরস্কার পেলেন বিষয়বস্তু নিম্নরূপ:-
১.খাগড়াছড়ি জেলা মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ কর্তৃক চাঞ্চল্যকর ও ক্লুলেস হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনপূর্বক প্রধান আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

২.খাগড়াছড়ি জেলা গুইমারা থানা পুলিশ কর্তৃক অস্ত্রসহ এক (০১) জন সন্ত্রাসী গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

৩.খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ কর্তৃক অপহৃত ভিকটিম সহ মূল অপহরণকারী গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

৪.খাগড়াছড়ি জেলার সদর থানা পুলিশের অভিযানে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা ০২ লক্ষ টাকার অধিক বিদেশি সিগারেট ও ০১ টি টমটম জব্দ সহ ০১ জন চোরাকারবারি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

৫.খাগড়াছড়ি জেলা সদর থানা পুলিশের অভিযানে ব্যাংকের আত্মসাৎকৃত অর্থ উদ্ধারসহ ০১ জন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার ।

৬.খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা থানা পুলিশের অভিযানে ০১ টি দেশীয় তৈরি পাইপগান  ও ০২ রাউন্ড কার্তুজ সহ একজন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

৭.খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানা পুলিশের অভিযানে আন্ত:জেলা চোর চক্রের ০২ সদস্য গ্রেফতার এবং ০৪ টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার সংক্রান্তে পুরস্কার। 

৮. খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা থানা পুলিশ কর্তৃক সাড়ে ০৩ একরের অধিক জায়গায় চাষাবাদকৃত ৩০ কোটি ২৬ লক্ষ টাকার অধিক মূল্যের গাজা জব্দ সংক্রান্তে পুরস্কার। 

৯. খাগড়াছড়ি জেলার খাগড়াছড়ি সদর থানাধীন ভাইবোনছড়া পুলিশ ফাঁড়ি কর্তৃক  প্রায় ০২ লক্ষ টাকার বিদেশী সিগারেট সহ একজন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার। 

১০. খাগড়াছড়ি জেলার খাগড়াছড়ি সদর থানা কর্তৃক ১০৪০ লিটার  চোলাই মদ সহ ০২ জন আসামী গ্রেফপ্তার সংক্রান্তে পুরস্কার। 

১১. খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানা পুলিশের অভিযানে অপহরণ মামলার রহস্য উন্মোচন সহ ০১ জন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

১২. খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের অভিযানে চোরাই স্বর্ণালংকার সহ ০১ জন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

১৩. খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ কর্তৃক ২ লক্ষাধিক টাকার অধিক মূল্যের ভারতীয় ঔষধ সহ ০২ আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার।

১৪. খাগড়াছড়ি জেলার খাগড়াছড়ি সদর থানা পুলিশের অভিযানে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা মূল্যের বিদেশি সিগারেট সহ ০১ জন আসামি গ্রেফপ্তার সংক্রান্ত পুরস্কার। 

১৫. খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা থানা পুলিশ কর্তৃক ০৮ লক্ষ টাকার অবৈধ কাঠ সহ ০২ জন আসামি গ্রেফতার সংক্রান্তে পুরস্কার। 

১৫ টি ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ পুরস্কার প্রাপ্তিতে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ চৌধুরী আবদুল্লাহ আল- মামুন বিপিএম (বার),পিপিএম মহোদয় এর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে খাগড়াছড়ি জেলার  পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার) বলেন,এ পুরস্কার অর্জন আমাদের  দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের ক্ষেত্রে জেলা পুলিশের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাদের আরো উৎসাহিত ও উজ্জীবিত করবে। অনুজ হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যদের কাছে শ্রদ্ধেয় আইজিপি স্যারের কর্মজীবন সর্বদা অনুকরণীয় এবং আমাদের বিশ্বাস স্যারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ পুলিশের এই অগ্রযাত্রা থাকবে চির অম্লান।

উল্লেখ্য যে এর আগেও খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ মাননীয় আইজিপি মহোদয় কতৃক পুরস্কৃত হয়েছে।

আরও খবর



নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (১১ জুন) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, আগামী ২৩ জুন অপরাহ্ন থেকে বিএ-২৯০২ লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, ওএসপি, এসজিপি, পিএসসি, চিফ অব জেনারেল স্টাফ (সিজিএস)-কে জেনারেল পদবিতে পদোন্নতি প্রদানপূর্বক ওই তারিখ অপরাহ্ন থেকে ৩ বছরের জন্য সেনাবাহিনী প্রধান পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, প্রতিরক্ষা বাহিনীগুলোর প্রধানদের (নিয়োগ, বেতন, ভাতা এবং অন্যান্য সুবিধা) আইন, ২০১৮ অনুযায়ী তিনি বেতনভাতা পাবেন।



আরও খবর



কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচনে ৯ নং ওয়ার্ডে গনসংযোগ করেছেন মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৫৪জন দেখেছেন

Image

মুশফিকুর রহমানঃকাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচনে উপলক্ষে নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম রফিক প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় উঠান বৈঠক, আলোচনা সভা,নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে জনগণের কাছে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছে।শনিবার ৮ জুন বিকাল ৫ টা থেকে পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড  হাটাবো  মধ্যপাড়া এলাকায় দুলুদা গ্রামে  নির্বাচনী   গণসংযোগ  উঠান বৈঠকের মাধ্যমে প্রচারনা চালান তিনি।যুব সমাজের আইকন গরিব অসহায় মানুষের আস্থাভাজন,স্মার্ট গ্রীন কাঞ্চন পৌরসভার স্বপ্নদ্রষ্টা তিনি।কাঞ্চন পৌরসভা মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করাকালীন কাঞ্চন পৌরসভা  কে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজী, ভূমিদস্য মুক্ত করেছেন তিনি।সরেজমিনে গিয়ে আরো জানা যায় গত করোনা মহামারির সময়ে  কাঞ্চন পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ড প্রতিটি পাড়া-মহল্লা প্রতিটি ঘরে ঘরে তিনি খোঁজখবর নিয়েছেন  অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন  ত্রাণ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন রফিকুল ইসলাম।নারায়ণগঞ্জ রূপগঞ্জ কাঞ্চন পৌরসভা আসন্ন নির্বাচনে বার বার নির্বাচিত মেয়র আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম জানায়, তিনি গরিব দুঃখী মানুষের বন্ধু  ঐতিহ্যবাহী স্বনামধন্য মানসম্পন্ন  ও  রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী।তিনি কাঞ্চন পৌরসভার উন্নয়নের রূপকার মাটি ও মানুষের নেতা।তাই আগামী ২৬ শে জুন কাঞ্চন পৌরসভা আসন্ন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী  হিসেবে   সকল  ভোটারদের  কাছে একটি করে মূল্যবান ভোট  ও দোয়া চান তিনি।এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন  কাঞ্চন পৌরসভা আওয়ামীস্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকমোঃ সাগর মিয়া।৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী যুব লীগের সভাপতি ফরিদুল ইসলাম ফরিদ।


আরও খবর



হাইওয়ে পুলিশের ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট হাইওয়ে পুলিশের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে (১১ জুন) রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান।

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম-এর সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মো. শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম (বার)।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বেনজীর আহমদ, এমপি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মো. জাহাংগীর আলম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজি (প্রশাসন) মো. কামরুল আহসান, স্পেশাল ব্রাঞ্চের প্রধান অতিরিক্ত আইজি মোঃ মনিরুল ইসলামসহ বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিগণ, ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দ এবং সড়ক পরিবহন সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি বলেন, মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হাইওয়ে পুলিশ প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছে। ট্রাফিক ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে হাইওয়ে পুলিশে ড্রোন সংযোজন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতার ফলে গত ঈদুল ফিতরে জনগণের যাত্রা স্বস্তিদায়ক হয়েছে। মন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন, এবার ঈদুল আযহায়ও জনগণ নির্বিঘ্নে তাদের নিজ নিজ গন্তব্যে পৌঁছতে পারবেন।

মন্ত্রী সড়কে নিরাপত্তা প্রদানের পাশাপাশি মাদক পরিবহন বন্ধে কাজ করার জন্য হাইওয়ে পুলিশকে নির্দেশনা প্রদান করেন। জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মো. জাহাংগীর আলম বলেন, নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলা শুধু হাইওয়ে পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এজন্য প্রয়োজন সড়ক ব্যবহারকারীদেরকে ট্রাফিক আইন মান্য করা। তিনি ট্রাফিক আইন মেনে চলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম বলেন, হাইওয়ে পুলিশ আন্তরিকতার সাথে সড়কে শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য কাজ করছে। আজ হাইওয়ে পুলিশের অস্তিত্ব সকল স্থানে দৃশ্যমান।

তিনি বলেন, আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া পশুবাহী কোন গাড়ি থামানো যাবে না বলে পুলিশের সকল ইউনিটকে ইতোমধ্যে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশ সফলতার সাথে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বজায় রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

আইজিপি বলেন, জনগণ যাতে নিরাপদে নিজ নিজ গন্তব্যে পৌঁছতে পারে সেজন্য হাইওয়ে পুলিশ, জেলা পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট সকল পুলিশ ইউনিট আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজি মো. শাহাবুদ্দিন খান, বিপিএম (বার) বলেন, নানা সীমাবদ্ধতা স্বত্বেও নিরাপদ সড়ক গঠনের জনপ্রত্যাশা পূরণে হাইওয়ে পুলিশ আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি হাইওয়ে পুলিশের জনবল বাড়ানো এবং আইন প্রয়োগে কঠোরতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে হাইওয়ে পুলিশের সার্বিক কার্যক্রমের ওপর একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। পরে এ উপলক্ষে একটি কেক কাটা হয়।


আরও খবর