Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

ইইউ’র সঙ্গে সংঘাতের পথে যুক্তরাজ্য

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৯৯জন দেখেছেন
Image

ইউক্রেন সংকটের মধ্যে আবারও চাপের মুখে পশ্চিমা ঐক্য। এবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে সরাসরি সংঘাতের পথে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য। ইইউ ত্যাগের জন্য ব্রেক্সিট চুক্তির বোঝাপড়াকে এতদিন বিশাল সাফল্য হিসেবে বর্ণনা করলেও এখন তার কিছু ধারা একপাক্ষিকভাবে বদলে দিতে চাইছে বরিস জনসনের সরকার। দেশটির এমন সিদ্ধান্তে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইইউ। এ নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা এখন চরমে।

সম্প্রতি উত্তর আয়ারল্যান্ড প্রোটোকলের অংশবিশেষ পরিবর্তন করতে ব্রাসেলসের ওপর চাপে কাজ না হওয়ায় একতরফাভাবে কিছু নিয়ম বদলানোর জন্য ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে আইনি খসড়া পেশ করেছে যুক্তরাজ্য। সেইসঙ্গে বিরোধ মেটাতে ইইউ আদালতের এখতিয়ারও চ্যালেঞ্জ করছে জনসন প্রশাসন।

যুক্তরাজ্যের এই একতরফা পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে ইইউ। ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মারশ শেফচোভিচ বলেছেন, লন্ডনের এমন উদ্যোগে যোগ্য প্রতিক্রিয়া দেখাবে ব্রাসেলস। উত্তর আয়ারল্যান্ড প্রোটোকল নিয়ে নতুন করে আলোচনার সম্ভাবনা পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি।

ব্রেক্সিট চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করলে যুক্তরাজ্যের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে পারে ইইউ। ব্রিটিশ পণ্য আমদানির ওপর শাস্তিমূলক শুল্ক বসানো থেকে গোটা ব্রেক্সিট চুক্তিই স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিতে পারে ব্রাসেলস।

ইইউ-যুক্তরাজ্যের মধ্যে পূর্ণমাত্রার বাণিজ্যিক সংঘাতের শঙ্কায় দুশ্চিন্তার ছায়া নেমে এসেছে শিল্প ও বাণিজ্য জগতে। যুক্তরাষ্ট্রও বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। উত্তর আয়ারল্যান্ডের শান্তি পরিস্থিতিতে কোনো ধরনের হুমকি দেখতে চায় না ওয়াশিংটন। জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস ব্রিটিশ প্রশাসনের পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন, দেশটি বিনা কারণে চুক্তি ভঙ্গ করার পথে হাঁটছে।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেছেন, বিষয়টি নিয়ে তিনি ইইউ’র সঙ্গে আলোচনা করতে চান। তবে ব্রাসেলসকেও উত্তর আয়ারল্যান্ডের কঠিন সমস্যাগুলো নিয়ে আলোচনার সদিচ্ছা দেখা হবে।

প্রসঙ্গত, ইইউ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর থেকেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন উত্তর আয়ারল্যান্ড সংক্রান্ত সমঝোতা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে চলেছেন। সেখানে আঞ্চলিক নির্বাচনের পর ‘গুড ফ্রাইডে’ চুক্তি অনুযায়ী সব পক্ষকে নিয়ে সরকার গঠনে চলমান অচলাবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি নিয়ে নতুন করে সরব হয়েছেন তিনি। উত্তর আয়ারল্যান্ডের শান্তির স্বার্থেই আন্তর্জাতিক চুক্তির মধ্যে ‘সামান্য রদবদল’ প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন জনসন।

ব্রেক্সিট চুক্তি অনুযায়ী উত্তর আয়ারল্যান্ড ও যুক্তরাজ্যের মূল ভূখণ্ডের মধ্যে শুল্কসীমা নির্ধারণ করা রয়েছে। অন্যদিকে, উত্তর আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে ইইউ সদস্য আইরিশ প্রজাতন্ত্রের সীমান্ত পুরোপুরি উন্মুক্ত। জনসন সরকারের বিতর্কিত আইন কার্যকর হলে সেই সমঝোতা মুখ থুবড়ে পড়বে। যুক্তরাজ্য থেকে উত্তর আয়ারল্যান্ডে পণ্য পরিবহন সহজ করতে ‘গ্রিন চ্যানেল’ সৃষ্টি, কর সংক্রান্ত নিয়মে পরিবর্তন এবং ইইউ আদালতের এখতিয়ার শেষ করতে চান বরিস জনসন।

সূত্র: ডয়েচে ভেলে


আরও খবর



খাগড়াছড়িতে বিএনপির সড়ক অবরোধে বিপাকে পর্যটকরা

প্রকাশিত:Tuesday ০৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

খাগড়াছড়িতে চলছে বিএনপির ডাকা ২৪ ঘণ্টার সড়ক অবরোধ। অবরোধের ফলে খাগড়াছড়ি থেকে দূরপাল্লার কোনো যানবাহন ছেড়ে যায়নি। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষসহ খাগড়াছড়ি ভ্রমণে আসা পর্যটকরা।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া বিএনপির এ সড়ক অবরোধে এখনো কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে জেলা ও উপজেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন আছে।

জেলা শহরের শাপলা চত্বর, চেঙ্গী স্কোয়ারসহ আশপাশের সড়কে অটোরিকশা ও মোটরসাইকেলসহ অন্যান্য যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও খাগড়াছড়ি থেকে ছেড়ে যায়নি দূরপাল্লার কোনো যানবাহন। বন্ধ রয়েছে সাজেকগামী পর্যটকবাহী পরিবহন।

খাগড়াছড়িতে বিএনপির সড়ক অবরোধে বিপাকে পর্যটকরা

অবরোধের ফলে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন খাগড়াছড়ি ভ্রমণে আসা পর্যটকরা। যান চলাচল বন্ধ থাকায় পর্যটকদের সড়কের পাশে বসে থাকতে দেখা গেছে।

জেলা ও উপজেলা শহরে কোথাও অবরোধ আহ্বানকারীদের পিকেটিং চোখে না পড়লেও মঙ্গলবার সকালের দিকে খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম আঞ্চলিক সড়কের বাইল্যাছড়ি জোড়াব্রিজ এলাকায় গাছ কেটে সড়ক অবরোধ করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। এছাড়াও বিভিন্ন সড়কে গাছের গুড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধের জানান দেন অবরোধকারীরা।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক মো. ইসমাইল বলেন, আমরা খাগড়াছড়ি ও সাজেক ঘুরতে এসেছি। সকালে এসেই অবরোধে আটকা পড়েছি। এখন সাজেক কাউন্টার থেকে গাড়ি যাচ্ছে না। সাজেক ভ্রমণে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন এ পর্যটক।

খাগড়াছড়িতে বিএনপির সড়ক অবরোধে বিপাকে পর্যটকরা

সাজেকগামী পরিবহনের লাইনম্যান মো. আরিফ জানান, বিএনপির ডাকা অবরোধের ফলে সাজেকগামী সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। তাই সাজেকের উদ্দেশে কোনো গাড়ি যাচ্ছে না।

খাগড়াছড়ি সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ রশিদ জানান, অবরোধ চলাকালে যেন কোনো ধরনের দুর্ঘটনা না ঘটে, সেজন্য বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূঁইয়ার বাড়িতে হামলা এবং বাড়ি-গাড়ি ভাঙচুরের প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা সড়ক অবরোধের ডাক দেয়।


আরও খবর



ভোক্তাদের পিঠ দেওয়ালে ঠেকিয়ে গ্যাসের দাম বাড়ানো হলো: ড. এজাজ

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image

বর্তমানে দেশে দ্রব্যমূল্যের যে অবস্থা, তাতে ভোক্তাদের কোনো রকম চাপ নেওয়ার পরিস্থিতি নেই। ভোক্তাদের পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গেছে। এমন সময় গ্যাসের দাম বাড়ানো হলো। অথচ এটা ঠিক এমন একটা সময়, যখন সরকার জনগণের কষ্টটা বুঝে নিজেই ভর্তুকি দেবে। জনগণকে সাপোর্ট দিয়ে যাবে। আবার যখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, তখন তো ভোক্তারাই চাপটা নিতে পারবে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. এজাজ হোসেন এসব কথা বলেছেন।

রোববার (৫ জুন) প্রাকৃতিক গ্যাসের নতুন মূল্য ঘোষণা করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এতে গ্যাসের দাম প্রায় ২৩ শতাংশ বাড়ানো হয়। এ ঘোষণার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জাগো নিউজকে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, গ্যাসের দামের সঙ্গে দুইটা দিক আছে। একটা সরকারের দিক, আরেকটা ভোক্তাদের দিক। ভোক্তাদের দিক যদি চিন্তা করি, তবে আমি দেখছি এটা খুবই খারপ সময়। জনগণ অনেক চাপে আছে। এখন অবশ্যই দাম বাড়ানোর সময় না। জানি না জনগণ কীভাবে নিজেদের সামাল দেবে। দাম বাড়ানোর যদি প্রয়োজন হয়ও, তাহলে ভোক্তাদের সঙ্গে বসে তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। নিজেরা নিজেরা দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলে জনগণকে তার মূল্য দিতে হয়।

তিনি আরও বলেন, সরকারের দিকটা হলো, আমরা এমন একটা চাপে পড়ে গেছি যে, আমাদের এলএনজি আমদানি করতেই হচ্ছে। আমাদের জ্বালানির যে আবস্থা, আমরা সম্পূর্ণ রূপে গ্যাসের ওপর নির্ভর করি। গ্যাসের ওপর যদি নির্ভর করতে হয়, গ্যাস শেষ হয়ে গেলে তো আমদানি করা ছাড়া কোনো উপায় নাই।

তিনি বলেন, ৭৫ সালে ১০ কেজিও ভোজ্যতেল আমদানি হতো না। সরিষা তেল দিয়েই আমরা খাওয়া দাওয়া করতাম। এখন দেশের খাওয়া দাওয়া ৯০ ভাগই আমদানি করা তেল দিয়ে হয়। যার কারণে আমাদের সরিষা তেল উৎপাদন থেকে কৃষকরা সরে গেছে।

গ্যাস মজুত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের গ্যাস শেষ হয়ে গেছে কি না এটা নিয়ে অনেক বিতর্ক আছে। আমি নিজেও বিশ্বাস করি আমাদের অনেক গ্যাস আছে। কিন্তু যাই হোক, যা করণীয় সরকার তো তা করেনি। আমাদের গ্যাস সংকট আছে। অতএব আমাদেরকে এলএনজি আনতেই হবে। এরই মধ্যে এলএনজির দাম তো আকাশ ছোঁয়া। যদি এই মুহূর্তে সঠিক কোনো পরিকল্পনা না থাকে, আমরা যদি তার বিকল্প ব্যবস্থা করতে না পারি, কিংবা আমাদের যদি দুর্দিনের জন্য কোনো গচ্ছিত টাকা না থাকে, তাহলে এ ধরনের অবস্থা হবেই।

বিদ্যুতের দামও বাড়বে এমন শঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, সরকার তো সাহস করে অতিরিক্ত বাড়ায়নি। যতটুকু বাড়িয়েছে, এখন দেখা যাক জনগণের ওপর কতটুকু চাপ সৃষ্টি করে। আমার শঙ্কা হচ্ছে বিদ্যুতের দাম আরও বেশি বাড়াবে।


আরও খবর



ডায়াবেটিস রোগীরা ইনসুলিন নিলে যে ভুলগুলো করবেন না

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে অনেকেরই ইনসুলিন নেওয়ার প্রয়োজন হয়। ডায়েট, ব্যায়াম ও ওষুধের নিয়ম মানার পরও যখন আর অগ্ন্যাশয় থেকে পর্যাপ্ত ইনসুলিন বের হয় না, তখন বাইরে থেকে ইনসুলিন দিয়ে রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে হয়।

বিশেষ করে টাইপ ১ ডায়াবিটিসে যারা ভোগেন তাদের শরীরে পর্যাপ্ত ইনসুলিন তৈরি হয় না বলে প্রথম থেকেই ইনসুলিন নিতে হয়। তবে ডায়াবেটিক রোগীদের মধ্যে ৯০-৯৫ শতাংশেরও বেশি ভোগেন টাইপ ২ ডায়াবেটিসে।

বিভিন্ন ওষুধেও যখন নিয়ন্ত্রণে থাকে না রক্তের শর্করার মাত্রা, তখনই চিকিৎসকরা পরামর্শ দেন ইনসুলিন নেওয়ার। তবে বেশিরভাগ মানুষের মধ্যেই ইনসুলিন নিয়ে নানা ধারণা আছে।

অনেকেই ভাবেন, ইনসুলিন নেওয়া মানেই ডায়াটেটিস খারাপ পর্যায়ে চলে গেছে। আবার কারও কারও ভয় হয় এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে। ইনসুলিন সম্পর্কিত কিছু ভুল ধারণা আছে যা এড়িয়ে চলা উচিত ডায়াবেটিস রোগীদের-

>> ইনসুলিন শরীরের কোনো ক্ষতি করে না। বরং প্রয়োজনের খাতিরে ইনসুলিন না নিলে রক্তচাপ ও কোলেস্টেরল বাড়তে পারে। এর পাশাপাশি হৃদযন্ত্র, কিডনি এমনকি শরীরের সব প্রত্যঙ্গেই খারাপ প্রভাব পড়ে।

>> অনেকেরই ধারণা আছে, ইনসুলিন নিলে আবার খাবার নিয়ন্ত্রণের কী দরকার! এই ধারণা কিন্তু একেবারেই ভুল। কারণ ইনসুলিনে রক্তে শর্করার মাত্রা কমে ঠিকই কিন্তু খাবারে রাশ না টানলে সেই মাত্রা আবারও বেড়ে যেতে পারে। তাই ইনসুলিন নিলেও খাবার মেপে খেতে হবে।

>> আবার ইনসুলিন নিলে শরীরচর্চাও বন্ধ করা উচিত নয়। অনেক সময়ে পর্যাপ্ত ইনসুলিন নেওয়া সত্ত্বেও রক্তে শর্করার মাত্রা কমে না। অর্থাৎ ইনসুলিন রেজিস্টেন্স হয়। তবে ব্যায়াম করলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ইনসুলিনের কার্যকারিতা আরও বেড়ে যায়।

>> ইনসুলিন সংরক্ষণের বিষয়েও নানা ধারণা আছে! মনে রাখবেন, সব সময় ফ্রিজে রাখতে হবে ইনসুলিন। ১২-১৪ ঘণ্টার বেশি ইনসুলিন ফ্রিজের বাইরে রাখলে তার কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যায়। ইনসুলিন নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিবার সূচ বদলাতে হবে। না হলে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে।


আরও খবর



মার্কেটিং ম্যানেজার পদে চাকরি দেবে এসিআই

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে (এসিআই) ‘মার্কেটিং ম্যানেজার/সিনিয়র মার্কেটিং ম্যানেজার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১৯ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড (এসিআই)
বিভাগের নাম: ফুডস

পদের নাম: মার্কেটিং ম্যানেজার/সিনিয়র মার্কেটিং ম্যানেজার
পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিবিএ/এমবিএ (মার্কেটিং)
অভিজ্ঞতা: ০৮ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: ৪০ বছর
কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs2.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১৯ জুন ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর



উপবৃত্তির অর্থ বিতরণে অধিদপ্তরের ছয় নির্দেশনা

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

অবিতরণ অবস্থায় থাকা প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্প-তৃতীয় পর্যায়ের ২০২০-২১ অর্থবছরের উপবৃত্তি ও কিটস অ্যালাউন্স বাবদ ৮৬৪ কোটি ২০ লাখ ৩ হাজার ৫০০ টাকা শিগগির সুবিধাভোগীদের অ্যাকাউন্টে পাঠানো হবে। তবে, উপবৃত্তির এ অর্থ বিতরণের ক্ষেত্রে ছয় নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

সোমবার (১৩ জুন) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে সুবিধাভোগী অভিভাবকরা যা প্রতারণার শিকার না হন তাই ছয় নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

নির্দেশনাগুলো হলো— সচল নগদ অ্যাকাউন্টটি (যেটি ২০২০-২১ অর্থবছরে খোলা হয়েছিল) এবং পিন রিসেট করে গোপন রাখতে হবে। অ্যাকাউন্ট হোল্ডার/সুবিধাভোগী কোনো অবস্থায়ই তার পিন নম্বর অন্যের সঙ্গে শেয়ার করবেন না। অভিভাবক তার নগদ অ্যাকাউন্ট নম্বরের মোবাইলটি নিজের কাছে রাখবেন এবং মেসেজ দেখবেন। সর্বোচ্চ ১৫ দিনের মধ্যে অবশ্যই টাকা ক্যাশ আউট করবেন।

এছাড়া সুবিধাভোগীর মোবাইল অথবা সিমকার্ড হারিয়ে গেলে বা অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে থাকলো তা দ্রুত বন্ধ করে সিমকার্ড পরিবর্তনের বিষয়টি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপবৃত্তি বিভাগে জানাতে হবে। যেকোনো সমস্যায় অভিভাবক/সুবিধাভোগী সংশ্লিষ্ট প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবেন।


আরও খবর