Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:তাপপ্রবাহ ও অসহনীয় গরমে চলতি বছর হজে গিয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে এক হাজার তিনশত এক জন হজযাত্রীর। মারা যাওয়া এসব মানুষের বেশিরভাগই ছিলেন অননুমোদিত হজযাত্রী। তীব্র দাবদাহে দীর্ঘ পথ হেঁটে পাড়ি দেয়ায় তারা মারা গেছেন।

সৌদি কর্তৃপক্ষ রবিবার (২৩ জুন) জানিয়েছে, এবার পুরো হজ মৌসুম জুড়েই দাবদাহ ছিল মক্কায়। প্রায় দিনই তাপমাত্রা ছিলে ৪৫ থেকে ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এজন্য বেশিরভাগ হাজির মৃত্যু হয়েছে হিটস্ট্রোকসহ গরমজনিত অসুস্থতায়।

দেশটির মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মৃত হাজিদের ৮৩ শতাংশের হজে যাওয়ার সরকারি অনুমোদন ছিল না। এরফলে অনুমোদন নিয়ে যাওয়া অন্যান্য হাজিদের মতো প্রখর রোদ থেকে বাঁচতে কুলিং সিস্টেম, ঠাণ্ডা পানি ও ছায়াযুক্ত স্থানে থাকার মতো সেবা গ্রহণ করতে পারেননি তারা। তীব্র তাপদাহে কোনোরকম আশ্রয় ছাড়াই তাদের হাঁটতে হয়েছে দীর্ঘপথ। এতে পথের মাঝেই প্রাণ হারান অনেকেই।

বার্তাসংস্থা এএফপি একজন আরব কূটনীতিকের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এবারের হজে ৬৫৮ জন মিসরীয় মারা গেছেন। ইন্দোনেশিয়া বলেছে, তাদেরও ২০০ জনেরও বেশি নাগরিক প্রাণ হারিয়েছেন এবং ভারতও তাদের ৯৮ জন হাজির মৃত্যুর কথা জানিয়েছে।

এছাড়া পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, জর্ডান, ইরান, সেনেগাল, সুদান এবং ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলও তাদের হাজিদের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

খবর:মিডলইস্টমনিটর



আরও খবর



মিরসরাইয়ে লোকালয়ে অজগর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৯৫জন দেখেছেন

Image

মিরসরাই প্রতিনিধি:মিরসরাইয়ে লোকালয় থেকে অজগর সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার (৩০ জুন) রাত ৯ টার দিকে উপজেলার ৮নং দুর্গাপুর ইউনিয়নের প‚ব দুর্গাপুর গ্রাম থেকে অজগরটি উদ্ধার করা হয়। ওই রাতেই মহামায়া ইকোপার্কে অজগরটি অবমুক্ত করেন বনবিভাগ। প‚র্ব দুর্গাপুর এলাকার একটি বাড়ির আঙ্গিনায় জালি তারের সাথে আটকে যায় অজগরটি। স্থানীয় লোকজন দেখতে পেয়ে বন বিভাগের মিরসরাই রেঞ্জের কর্মকর্তাদের খবর দিলে রাত ৯ টার দিকে তারা সাপটি উদ্ধার করে।


বন বিভাগের মিরসরাই রেঞ্জের রেঞ্জার শাহান শাহ নওশাদ জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রæত ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। এরপর অক্ষত অবস্থায় অজগরটি উদ্ধার করে নিয়ে আসি। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তার নির্দেশনানুযায়ী এই নির্বিষ অজগরটি রাতেই মহামায়া ইকোপার্কের বনে অবমুক্ত করা হয়।
তিনি আরো বলেন, কোথাও সাপ দেখলে না মেরে বন বিভাগকে খবর দেওয়ার অনুরোধ করছি।


আরও খবর



ছাতকে বানভাসীদের দুর্ভোগের শেষ নেই

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৭জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হোসেন রনি,ছাতক(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:ছাতকে সার্বিক বন্যা পরিস্থিরি উন্নতি হলে ও বিভিন্ন এলাকায় এখনো সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। শহরের বন্যা পানি কমলে ও বেশিভাগ গ্রামে আরো অবনতি ঘটেছে। আবার কোথাও কোথাও রয়েছে স্থিতিশীল। ক’দিনের অবিরাম বর্ষণে ছাতক শহরের বিভিন্ন এলাকা পানিতে প্রায় ডুবে আছে। যে সড়কে দাপিয়ে বেড়িয়েছে মোটরযান আজ সেই সড়কে চলছে নৌকা। যাদেরকে রাস্তায় দেখা যাচ্ছে তারা ছুটছে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে। নিম্নআয়ের মানুষ, দিনমজুররা আশ্রয় নিচ্ছেন আশ্রয়কেন্দ্রে, বড় নৌকা আর যাদের অবস্থা কিছুটা ভালো তারা উঠেছেন আবাসিক হোটেলে। কেউ কেউ আছেন প্রতিবেশী ও আত্মীয়ের বাসায়। এছাড়া কোন কোন এলাকার বাঁধ ভেঙ্গে ও নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এদিকে উত্তর ছাতকে বন্যার পরিস্থিতি অপরিবর্তীত রয়েছে। বিভিন্নস্থানে বন্যার পানিতে বাসা-বাড়ি, রাস্তা ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় তিন লক্ষাধিক লোক লোক হয়ে পড়েছেন পানিবন্দী। এ পানিবন্দী বানভাসীরা বিশুদ্ধ খাবার পানি ও খাদ্যাভাবে চরম মানবেতর দিন যাপন করছেন। ত্রাণের জন্য জানাচ্ছেন আকুল আকুতি। বিভিন্নস্থানে প্রশাসনের তরফ থেকে সামান্য ত্রাণ বিতরণ করা হলেও তা কেউ পাচ্ছেন আবার কেউ পাচ্ছেন না বলে বানভাসীদের দাবি। এর সাথে রয়েছে তাদের গবাদি পশু। মাঠঘাট, বাসা-বাড়ি পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় গো-খাদ্যের চরম সংকটে পড়েছেন তারা।

বস্যা পানি বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত করে ধীরে ধীরে নদী-খাল বেয়ে হাওরে নামছে। তবে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার দক্ষিন ছাতকে পানি বাড়ছে। এতে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর জেগে উঠছে বন্যার ক্ষতচিহ্ন। বন্যায় অসংখ্য কাঁচা, আধাপাকা ঘরবাড়ি, ক্ষেতের ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেসে গেছে চাষের মাছ। এদিকে বন্যাদুর্গত এলাকায় অব্যাহত রয়েছে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম। প্রশাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে চলছে ত্রাণ বিতরণ। গত শনিবার সকালে মাষ্টার হাবিবুর রহমান ফাউডেশনের উদ্দ্যোগে উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ আব্দুল হক স্মৃতি ড্রিগী কলেজে আশ্রয়কেন্দ্রে রান্না করা দ’ুশতাধিক বিরানীর প্যাকেট  বানভাসীদেও মধ্যে বিতরন করেন ছাতক প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রনি,শিক্ষক রেজ্জাদ আহমদ,সাংবাদিক খালেদ আহমদ,আব্দুস সাত্তার ও ফজল উদ্দিন প্রমুখ।দুশতাধিক নারী,পুরুষ বৃদ্ধা ও শিশুদেও বিরানীর প্যাকেট বিতরন করা হয়েছে। 

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জ জেলার চারটি পৌরসভা এলাকাসহ ৭৮টি ইউনিয়নের ১ হাজার ১৮টি গ্রামের ছয় লাখ ৬০ হাজার মানুষ বন্যা পরিস্থিতির শিকার। সুনামগঞ্জ জেলার পুরোটাই বন্যাকবলিত হলেও সবচেয়ে বেশি প্লাবিত হয়েছে ছাতক উপজেলা। ছাতক উপজেলার পৌরসভাসহ সকল ইউনিয়নের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। নদীর পানি হাওরে প্রবেশ করার কারণে সুনামগঞ্জের অনেক হাওর এখন পানিতে টইটুম্বুর। প্রশাসনের হিসাব অনুযায়ী সুনামগঞ্জ জেলার ৫৪১টি আশ্রয়কেন্দ্রে মোট ১৮ হাজার ৪২৯ জন বন্যা আক্রান্ত মানুষ আশ্রয় নেন। সুনামগঞ্জের বন্যা আক্রান্ত মানুষের পাশে প্রশাসনের পাশাপাশি কাজ করছেন জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ। সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, আগামী ৪৮ ঘণ্টা ভারী, অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যদি উজানে বেশি বৃষ্টি হয়, তাহলে পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। 

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী বলেন, ‘সার্বিক পরিস্থিতি আমাদের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। পর্যাপ্ত ত্রাণসামগ্রী আছে। আশ্রয়কেন্দ্রে শুকনা খাবার, রান্না করা খাবার বিতরণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’


আরও খবর



তিতাস গ্যাসের ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১০৯জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃতিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসির ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম-পরিকল্পনার আওতায় শুদ্ধাচার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে।রোববার কোম্পানির প্রধান কার্যালয় কারওয়ান বাজারে এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কারপ্রাপ্তদের সঙ্গে উপস্থিত কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌ. মো. হারুনুর রশীদ মোল্লাহ। এ সময় কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি পিএলসি'র বিস্ময়কর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমডি হারুনুর রশিদ মোল্লাহ তার যাদুস্পর্শী প্রতিভার ঝলকে কোম্পানিকে লোকসান কমিয়ে আনতে নানামুখী সহায়ক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তার এই যুগোপযোগী পদক্ষেপের কারণে তিতাস গ্যাস পূর্বের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে বর্তমানে একটি শক্ত ভিতের উপর দাঁড়িয়েছে। তিতাস গ্যাসের গ্রাহক সেবার মান বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ। তিতাস গ্যাসের অবৈধ গ্রাহকদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে, বকেয়া আদায়ে নিয়মিত অভিযান পরিচালিত হচ্ছে, রাজস্ব আদায় ও মাত্রা অর্জনে নিরলস পরিশ্রম করেছে কর্মকর্তা কর্মচারীরা। 

গেজেট অনুযায়ী শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ার ক্ষেত্রে সরকারি কর্মচারীকে উল্লিখিত সূচকের ১০০ নম্বরের মধ্যে অবশ্যই ৮০ নম্বর পেতে হবে। এটি না পেলে ওই কর্মচারী এ পুরস্কার পাওয়ার জন্য প্রাথমিকভাবে বিবেচিত হবেন না। আর বিবেচিত কর্মচারীদের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া কর্মচারী শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হবেন। 

প্রতি বছর সরকারের শুদ্ধাচার পুরস্কারপ্রাপ্ত কর্মচারীরা পুরস্কার হিসেবে একটি সার্টিফিকেট এবং এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ পাবেন।

উল্লেখ্য, কোম্পানি হতে গ্রেড-২ হতে গ্রেড-৯ ভুক্ত কর্মকর্তা, গ্রেড-১০ হতে গ্রেড-১৬ ভুক্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং গ্রেড-১৭ হতে গ্রেড-২০ ভুক্ত কর্মচারী ক্যাটাগরিতে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এই শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রাপ্তির মধ্য দিয়ে তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা নতুন উদ্যমে উৎসাহ নিয়ে কাজ করবেন বলে আশা করা যায়।


আরও খবর



দেশ ও জনগনের কল্যানে কাজ করাই সরকারের প্রধান লক্ষ্য-ধর্মমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর) প্রতিনিধি:ধর্মমন্ত্রী আলহাজ্ব ফরিদুল হক খান এমপি বলেছেন,ধর্মের মূল কথাই হচ্ছে মানুষ হিসেবে মানুষের সেবা করা। সব ধর্মই মানুষের কল্যাণের কথা বলে। তাই ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করতে হবে। দেশের সকল জনগণের উন্নত জীবনযাপন নিশ্চিতকরণের লক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। জন কল্যানে কাজ করতেই সরকার নাগরিকদের বিভিন্ন ধরনের ভাতা প্রদানের কার্যক্রম চালু করেছে। জনগণকে ভালো রাখাই শেখ হাসিনা সরকারের প্রধান লক্ষ্য।

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানদের বরণ ও সাবেক চেয়ারম্যানদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন,দেশ স্বাধীন হয়েছে বলেই আজকে সকল উচ্চপদে বাঙালিরা অবস্থান নিয়েছেন। আর্থসামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমরা এখন পাকিস্তান থেকে অনেক এগিয়ে গেছি। একটি যুদ্ধ বিধ্বস্থ দেশ গড়ে তোলা কম কথা নয় কিন্তু স্বাধীনতার পর পরই জাতির পিতা আমাদের  একটি সংবিধান দিয়ে যান। তাই জনগনের কল্যানে সততার সাথে সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সেবা প্রদানের আহবান জানান।

উপজেলা প্রশাসন আয়োজনে(৭ জুলাই) রবিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডঃ আঃ সালাম, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জামাল আব্দুল নাসের বাবুল,অফিসার ইনচার্জ সুমন তালুকদার, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ বিএসসি,সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুজিনা আক্তার চায়না, সহকারী কমিশনার ভূমি সাঈদ মোহাম্মদ ইব্রাহীম, জেলা পরিষদ সদস্য মজিবর রহমান শাহজাহান, অধ্যক্ষ আবু নাছের চৌধুরী চার্লেস, ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান শাহিন চৌধুরী, ইফতেখার আলম বাবুল, আব্দুল ছালাম,আনিছুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। 

বিদায় ও বরণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসন কর্মকর্তা, সাংবাদিক বিভিন্ন ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি, সুধীজনরা উপস্থিত ছিলেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



আজ ১২ ঘণ্টা ইন্টারনেটে ধীরগতি থাকতে পারে

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ শনিবার (১৩ জুলাই) রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য আংশিক বন্ধ থাকবে সাবমেরিন কেবল (সিমিউই-৪)। সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট ব্যস্থাপনায় ধীরগতি হতে পারে।

শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকেলে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস কোম্পানি লিমিটেড পিএলসি (বিএসসিপিএলসি) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সাবমেরিন ক্যাবল (সিমিইউ-৪) সিস্টেমের সিঙ্গাপুর প্রান্তে কনসোর্টিয়াম কর্তৃক গৃহীত রক্ষণাবেক্ষণ কাজ করার জন্য ১৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত প্রায় ১২ ঘণ্টা এ ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত সার্কিটগুলো আংশিক বন্ধ থাকবে।

এতে আরও উল্লেখ করা হয়, এ কারণে দেশের বিভিন্ন জায়গায় নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সেবা ব্যাহত হতে পারে। সাময়িক এ অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে বিএসসিপিএলসি। তবে কুয়াকাটায় স্থাপিত দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন (সিমিউই-৫) ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত সার্কিটগুলো যথারীতি চালু থাকবে।

বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিপিএলসি) সিমিউই-৪ এবং সিমিউই-৫ নামের দুটি আন্তর্জাতিক সাবমেরিন কেবল কনসোর্টিয়ামের (কোম্পানি) সদস্য। যেটি বাংলাদেশে সাবমেরিন কেবলসের অধিক ক্ষমতা ও পর্যাপ্ততা নিশ্চিত করে। বর্তমানে সিমিউই-৪ এবং সিমিউই-৫ কেবল দুটির মাধ্যমে বাংলাদেশের ইন্টারনেট এবং আন্তর্জাতিক ভয়েস ট্র্যাফিক চলছে। সিমিউই-৪ এর জন্য বিএসসিসিএল এর কেবল ল্যান্ডিং স্টেশন রয়েছে কক্সবাজারে। আর সিমিউই-৫ এর জন্য বিএসসিসিএল এর ল্যান্ডিং স্টেশন চালু হয়েছে পটুয়াখালীর কুয়াকাটাতে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর