Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

হিলিতে যথাযথ মর্যাদায় আওয়ামীলীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১৮জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:দিনব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশের স্বাধীনতা অর্জনে দিনাজপুরের হিলিতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী (প্লাটিনাম জয়ন্তী) উদযাপন করা হয়েছে।

রোববার (২৩ জুন) উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে সকাল ৯ টায় হিলি বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন,শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও  শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে বিকেল সাড়ে ৫ টায় হিলি বাজারের গোডাউন মোড় থেকে আনন্দ র‌্যালী বের হয়ে বন্দরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একইস্থানে গিয়ে শেষ হয়।এরপর সেখানে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উদযাপন কমিটির আহবায়ক ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজা শাহীন এর সঞ্চালনায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন প্রতাব,প্রভাষক আশরাফ আলী প্রধান,আব্দুল লতিফ মাষ্টার, আবুল কালাম আজাদ, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত, সাধারণ সম্পাদক নাসিম আহম্মেদ টুকু,উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম লিটন, সাঃ সম্পাদক এমদাদুল মল্লিক,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি কাহের আলী,সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ,পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আতাউর রহমান কাজল, ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলম, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মহাসিন আলী,শ্রমিক লীগের সভাপতি গোলাম মোর্শেদ,পৌর যুবলীগের আহবায়ক মাহমুদুল হাসান উজ্জল,যুগ্ম আহবায়ক তারিকুল ইসলাম ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিক সরকার, কৃষক লীগের সভাপতি মিলন,সাধারণ সম্পাদক রাকিব হাসান ডালিমসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



মার্টিনেজের জয়সূচক গোলে শিরোপা আর্জেন্টিনার

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক:সোমবার (১৫ জুলাই) মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে ২৩ বছর পর ফাইনালে ওঠা কলম্বিয়াকে ১-০ গোলে হারের তিক্ত স্বাদ দিলো আলবিসেলেস্তেরা। জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন লাউতারো মার্টিনেজ।

এর আগে, নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় কোনো গোল আসেনি। এতে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের ফাইনাল।

বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরুর কথা থাকলেও কলম্বিয়ান দর্শক-সমর্থকদের সঙ্গে নিরাপত্তাকর্মীদের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির কারণে প্রায় এক ঘণ্টা ১৫ মিনিট পর মাঠে গড়ায় ফাইনাল।

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই আর্জেন্টিনাকে চাপে রাখে কলম্বিয়া। বলের দখল, লক্ষ্যে শট, কর্নার-সবদিক দিয়েই আধিপত্য বজায় রেখেছিল রদ্রিগেজরা।

তবে ম্যাচের প্রথম মিনিটে দুর্দান্ত এক সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। মন্টিয়েলের ক্রস থেকে পা ছোঁয়ালেও কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাননি আলভারেজ।

ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটে প্রথমবার আক্রমণে উঠে কলম্বিয়ানরা। তবে লুইস ডিয়াজের মাটি কামড়ানো শট ঠেকিয়ে দেন এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। পরের মিনিটেই বারের পাশ দিয়ে চলে যায় রদ্রিগেজের বাড়নো বলে করডোভা শট।

এরপর ম্যাচের ১৩তম মিনিটে ফের আক্রমণে যায় কলম্বিয়া। রদ্রিগেজের বাড়ানো বলে কুয়েস্টার হেড সহজেই মুঠোবন্দি করেন আর্জেন্টাইন কিপার।

ম্যাচের ৩৩তম মিনিটে দারুণ এক শট নিয়েছিলেন লারমা। তবে আর্জেন্টাইন বাজপাখির হাত ছুঁয়ে মাঠের বাইরে চলে যায় বল। ম্যাচের বাকি সময়ে আর তেমন কোনো সুযোগ তৈরি করতে না পারায় শেষমেষ গোলশূন্য বিরতি নিয়েই মাঠ ছাড়ে দল দুটি।

বিরতি থেকে ফিরেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ চালায় দল দুটি। ম্যাচের ৪৮তম মিনিটে দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিলেন ম্যাক অ্যালিস্টার। তবে তাকে হতাশ করেন কলম্বিয়ার রক্ষণভাগ।

ম্যাচের ৫৮তম মিনিটে ডি মারিয়াও সুযোগ পেয়েছিলেন। তবে তার দুর্দান্ত শট ঠেকিয়ে দেন কামিলো ভার্গাস।

৮ মিনিট পরই দুঃখে ভাসে পুরো হার্ড রক স্টেডিয়াম। চোটে পড়ে ছাড়েন লিওনেল মেসি। এরপর সাইডবেঞ্চে বসেইকান্নায় ভেঙে পড়েন বিশ্বকাপজয়ী এই অধিনায়ক।

২ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে জালে বল জড়িয়েছিল আর্জেন্টিনা। জালের নাগাল পেয়েছিলেন মেসির বদলি নামা গঞ্জালেস। তবে অফসাইডের ফাঁদে পড়ে সেটি বাতিল হয়ে যায়।

এরপর ম্যাচের ৮৮তম মিনিটে আরও একটি বড় সুযোগ হাতছাড়া করে আর্জেন্টিনা। ডি মারিয়ার ক্রসে সামনে বাড়িয়েছিলেন গঞ্জালেস। তবে ঠিকঠাক টাইমিংয়ে সুযোগ লুফে নিতে পারেননি আলভারেজ। এতে নির্ধারিত সময়ে গোলশূন্য থাকে ম্যাচ। অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় ম্যাচ।


আরও খবর



জাল-নৌকা-ই ঠিকানা ভোলার জেলে পল্লীর শিশুদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলার মেঘনা নদীর বুকে জেগে উঠা ভোলারচর, মাঝেরচর, মদনপুর চর, চটকিমারা চর, রামদাসপুর এবং মেঘনার কুলের বিভিন্ন বেরি বাঁধ এলাকার জেলেপাড়া। সেখানে হাজার হাজার জেলেদের বসবাস। নদী ভাঙ্গনে দিশেহারা ঐ জনপদের বসতি ছাড়া আর কিছু নেই। নদীতে মাছ শিকার ও কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করা ছাড়া তাদের আর কোনো উপায় নেই। পৈত্রিক পেশাকে ধরে জীবিকা নির্বাহ করছে হাজার হাজার পরিবার। এসব অঞ্চলে প্রাথমিক বা কিছু জায়গায় মাধ্যমিকের আলো পৌঁছালেও যেন শিক্ষা গ্রহণ না করেই জেলে বা কৃষক হিসেবে গড়ে উঠছে তাদের শিশুরা। দারিদ্র্যের সংসারে একটু আয়ের আশায় এখানকার শিশুরা খুব কম বয়সেই বেছে নিতে বাধ্য হয় জেলে অথবা কৃষি জীবন। যেখানে তাদের এই বয়সে হাসি-খুশি ও আনন্দ-উল্লাসে বেড়ে ওঠার কথা, সেখানে শুধুই দারিদ্র্যের কষাঘাতে জর্জরিত। যে বয়সে  শিশুটির হাতে থাকার কথা ছিল বই-খাতা, সেই শিশুটির হাতে আজ মাছ ধরার জাল। দিন কাটে তার নদীর বুকে। সন্তানদের পড়ালেখা করানোর প্রতি আগ্রহ নেই তাদের বাবা মায়ের। আধুনিক সভ্যতা থেকে পিছিয়ে পড়া এই জনপদের অভিভাবকদের অসচেতনতা ও নদী ভাঙ্গনের কারণে শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছে না এখানকার শিশুরা। চরাঞ্চল ও  জেলে পল্লীর অধিকাংশ শিশুদের জীবনের গল্প এমন।

সরেজমিনে দেখা যায়, জেলে নৌকায় কাজ করা অধিকাংশের বয়স ৮ থেকে ১৫ বছর। জীবনের প্রয়োজনে তারা এই বয়সে হয়ে ওঠে দক্ষ মাঝি বা জেলে। এই শিশুদের কেউ বাবার সঙ্গে জাল টানে, কেউ নৌকার বৈঠা ধরে, কেউবা জাল থেকে মাছ ছাড়িয়ে ঝুড়িতে তোলে। আকৃতি অনুযায়ী মাছ বাছাই করার কাজও তারা করে। এভাবেই নিচ্ছে তারা দক্ষ জেলেতে পরিণত হওয়ার শিক্ষা। মাঝে মাঝে বাবার কাজের দায়ভারও তাদের বইতে হয়। ধরা মাছ নিয়ে বাবা হাটে গেলে বাবার অনুপস্থিতিতে উত্তাল নদীতে নৌকা নিয়ে চলে যায় শিশুটি। জোয়ার ভাটা ওদের মুখস্থ। দিন শেষে এই মাছ বিক্রি করে যা পায় তা দিয়ে কিছুটা হলেও উপকৃত হয় তাদের পরিবারের মানুষগুলো।

ভোলার খাল, ইলিশা বেরিবাঁধ, মাঝেরচর, মদনপুরসহ এসব অঞ্চলের জেলে পরিবারগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে প্রতিনিয়ত অনিশ্চতায় বিবর্ণ হয়ে ওঠে জেলে পল্লীর হাজারো শিশুর শৈশব। শিশুশ্রমের বেড়াজালে বন্দিজীবন আর বাবার কষ্টের সঙ্গী হতে ষষ্ঠ শ্রেণিতে আর পড়া হয় না অধিকাংশ শিশুর। ফলে কোমলমতি সব শিশুর কাঁধে ওঠে সংসারের বোঝা। বাবা-মা ছোট ভাইবোন নিয়ে বেঁচে থাকাই তখন তাদের জীবনের মূলমন্ত্র। চর অঞ্চলের  অনেক শিশুর স্কুলে যাওয়ার ইচ্ছা থাকলেও সম্ভব হয়ে ওঠে না যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না হওয়ায়।

ইলিশা তেমাথা ঘাটের কাছেই বাবার মাছ ধরার সঙ্গী হিসেবে ছিলেন ১০ বছরের শিশু হাসিব। হাসিবের  ভাষ্য ‘স্কুলে যাইতে তো ইচ্ছা করে তয় কামের লাইগ্যা যাইতে পারি না। জোয়ার আওয়ার আগেই জাল পাতি, আর ভাটায় পানি টানলে মাছ লইয়া আইতে আইতে স্কুল ছুটি হইয়া যায়।

এ ঘাটেই কথা হয় আরো কিছু জেলে শিশুর সঙ্গে। মনির, আব্বাস ও রুবেল নামের এই শিশুরাও বলছে, বাবার কাজের সঙ্গী হতে হয় বলেই তারা স্কুলে যেতে পারে না। মদনপুরের কয়েকজন জেলের সাথে কথা বললে তারা জানান, মাছ ধরা আমাদের পৈত্রিক পেশা। এই পেশাকে ধরে রেখেছি এখনো। আমাদের সন্তানরা সেই পেশা ধরে রাখবে। ইচ্ছা থাকলেও ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা করানোর খরচ নেই। তাই মাছ ধরার কাজ শিখাচ্ছি। 

ছেলে বেলা থেকে কাজ শিখলে বড় হয়ে একজন দক্ষ মাঝি হিসাবে নিজেদের গড়তে পারবে ওরা। রাজাপুরের জেলে ইউসুফ (৪৫) বলেন, সব পরিবারই এখন বোঝে যে, তাদের পোলাপাইনগুলারে পড়ানো উচিৎ। কিন্তু পেটের তাগিদে সবাই তো পড়াইতে পারে না। 

ভোলার খালের মাছ ব্যবসায়ী আরিফ জানান, নৌকায় একজন জেলের পক্ষে জাল টেনে মাছ ধরা কষ্টকর। মাছ ধরতে হলে আরো লোকের দরকার হয়। দরিদ্র জেলেরা অধিকাংশ ক্ষেত্রে তার পরিবারের মানুষগুলোকে সহকারী হিসেবে ব্যবহার করে। মূলত এই কারণে শিশুগুলোকে স্কুল ছাড়তে হয়।

স্থানীয় দৈনিক ভোলার বাণী’র সম্পাদক মাকসুদ রহমান বলেন, জেলে পল্লীর শিশুদের শিক্ষিত করতে হবে এমন প্রবণতা কম। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে, দরিদ্র ও অভাবী মানুষের বিচরণ বেশি। শিশুদের শিক্ষিত করার প্রবণতা তখন বৃদ্ধি পাবে যখন সমাজ থেকে অভাব দূর করা যাবে। প্রতিটি শিশুর জীবনের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ সম্পর্কে পরিবারকে সচেতন করতে পারলে কমে আসবে শিক্ষাবঞ্চিত শিশুর সংখ্যা।


আরও খবর

আমতলীতে ৩দিন ব্যাপী কৃষি মেলা শুরু

বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪




খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুস্হতার জন্য দোয়া

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image

ষ্টাফ রিপোর্টারঃআজ (৮ জুলাই, ২০২৪) বিকেলে বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া'র আশু রোগমুক্তি কামনায় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটি'র অন্যতম সদস্য ও জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটি'র আহবায়ক  চিত্রনায়ক  হেলাল   খান 

সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলায় তার বাস ভবনে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত করেন।


আরও খবর



ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার হুমকি, থানা জিডি

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৬৭জন দেখেছেন

Image
মারুফ  সরকার,স্টাফ রিপোর্টার:এবার ব্যারিস্টার  সুমনকে হত্যার উদ্দেশ্যে একটি শক্তিশালী মহল তিন দিন ধরে চার থেকে পাঁচজনের একটি টিম মাঠে নেমেছেন  । তিনি শেরে বাংলা নগর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। সাধারণ ডায়রিতে উল্লেখ করা আছে, আমি ঢাকায় অবস্থান করছিলাম গত ২৭ তারিখ রাত ৮ঃ০০ টায় আমার বাসভবনে থাকা অবস্থায় চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাহার সরকারি নাম্বার থেকে আমার ব্যক্তিগত হোয়াটসঅ্যাপ নাম্বারে কল দেয়। আমাকে জানায়, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে  একটি শক্তিশালী মহল গত তিন দিন হল চার থেকে পাঁচজনের একটি টিম মাঠে নেমেছে।আমি যাতে রাতের বেলা বের না হয় সেজন্য তিনি জানান এবং আমাকে সাবধানে থাকতে বলে। তখন আমি অফিসার ইনচার্জ এর কাছে পরিচয় জানতে চাইলে পরিচয় জানাতে অস্বীকার করেন। এছাড়া তিনি আমাকে সাবধানে থাকতে বলেন।  তিনি এখন মারাত্মকভাবে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানা যায়। 

শেরে বাংলা নগর থানার এসআই শরিফুজ্জামান শরীফ ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে জানান,  তিনি জিডি করেছেন, আমরা তদন্ত করে দেখছি। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার সুমনকে মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আরও খবর



টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | ১২৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। শুক্রবার (৫ জুলাই) রাত ৮টার দিকে নিজ বাড়ি ও নির্বাচনি এলাকা গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এর আগে দুই দিনের সফরে বিকেল বিকেলে মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় পদ্মা সেতুর সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে তিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশ্যে সড়ক পথে যাত্রা করেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার চাচতো ভাই শেখ হেলালসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরে ৭৫ এর ১৫ আগস্ট শহীদ বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে পবিত্র ফাতেহা পাঠ, বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন সরকারপ্রধান।

এর আগে রাত ৮টার দিকে প্রধানমন্ত্রী সমাধিস্থলে পৌঁছালে সেখানে অবস্থানরত স্থানীয় নেতাকর্মীরা হর্ষধ্বনি ও স্লোগানে স্লোগানে তাকে বরণ করে নেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই দিনের ব্যক্তিগত এ সফরে আজ নিজ বাড়িতে রাত্রিযাপন করবেন। পর দিন সকালে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি বিজড়িত জিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন ও শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণসহ কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন সরকারপ্রধান। এদিন মধ্যাহ্ন্যভোজ শেষে তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হবেন।


আরও খবর