Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

গুলশান ১ এ নিধি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালে ৪ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৫৬জন দেখেছেন

Image

মারুফ সরকার,স্টাফ রির্পোটার: আজ ০৫/১২/২০২৩ খ্রিস্টাব্দ তারিখ রোজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  ইশরাত সিদ্দিকা এর নেতৃত্বে "নিধি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল" নওয়াব ম্যানশন, গুলশান-১, ঢাকাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে প্রতিষ্ঠানে বেশকিছু খাদ্যপণ্য মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মজুদ করতে দেখা যায়। যাথযথ লেবেল সংযোজন ব্যতিরেকে খাদ্যদ্রব্য মজুদ করতে দেখা যায়। এছাড়াও ট্রেড লাইসেন্স এর ঠিকানার সাথে বাস্তবে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের ঠিকানার মিল পাওয়া যায় নি। এ সকল অপরাধে নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এর বিধান অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটিকে ৪,০০,০০০/- (চার লক্ষ) টাকা জরিমানা করা হয় এবং তাৎক্ষণিকভাবে তা আদায় করা হয়।  

অভিযান পরিচালনাকালে "নিধি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল" কর্তৃপক্ষকে খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরণ, মজুদ ও বিক্রয়ে নিরাপদ খাদ্য আইনের সংশ্লিষ্ট বিধি অনুযায়ী পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা, খাদ্য সংরক্ষন ও ভোক্তাদের স্বাস্হ্য ঝুঁকি এড়াতে নিয়ম মানতে নির্দেশনা দেয়া হয় এবং নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে করণীয় সম্পর্কে দিকনির্দেশনা সংবলিত পোস্টার প্রদান করা হয়।

অভিযানকালে মনিটরিং অফিসার মোহাম্মদ ইমরান হোসেন মোল্লা, ;মনিটরিং অফিসার  মো: আমিনুল ইসলাম,   নিরাপদ খাদ্য অফিসার মেহরিন যারীন তাসনিম,  নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আব্দুস ছালাম মৃধা, ; নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল খালেক মজুমদার,  ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অন্যান্য সাপোর্ট স্টাফ এবং ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্যবৃন্দের একটি চৌকস টিম উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

আজ রংপুরের স্থপতি আফিফার সাথে ফারাজের বিয়ে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দেশে ২৬ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৭৭ কোটি ডলার

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশে চলতি জানুয়ারি মাসের প্রথম ২৬ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১৭৬ কোটি ৭৩ লাখ ৪০ হাজার ডলার। এতে দৈনিক আসছে ৭ কোটি ৩৬ লাখ ডলার।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা গেছে, জানুয়ারি মাসের ২৬ দিনে ব্যাংকগুলোতে ১৭৬ কোটি ৭৩ লাখ ৪০ হাজার ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। দেশীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ (প্রতি ডলার ১১০ টাকা ধরে) ১৯ হাজার ৪৪০ কোটি টাকা।

রেমিট্যান্সের মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৩ কোটি ৩৭ লাখ ডলার, বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে ৪ কোটি ৮৯ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার, বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৫৭ কোটি ৯৪ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৫২ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য মতে, ২০২৩ সালের শেষ মাস ডিসেম্বরে প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন ১৯৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স। তার আগের বছর ২০২২ সালের ডিসেম্বরে রেমিট্যান্স এসেছিল ১৭০ কোটি ডলার। সদ্য সমাপ্ত ২০২৩ সালে প্রবাসী বাংলাদেশিরা দেশে রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন ২ হাজার ১৯২ কোটি (২১ দশমিক ৯২ বিলিয়ন) ডলারের সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। যা তার আগের বছর চেয়ে ৬৩ কোটি ডলার বা ২ দশমিক ৮৭ শতাংশ বেশি। ২০২২ সালের ১২ মাসে রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ১২৯ কোটি (২১ দশমিক ২৯ বিলিয়ন) ডলার।

২০২২-২৩ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ২ হাজার ১৬১ কোটি ৭ লাখ মার্কিন ডলার। তার আগে ২০২১-২০২২ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলার।

২০২০-২১ অর্থবছরে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ হয়েছিল। যার পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার। আর চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর) রেমিট্যান্স এসেছে ১ হাজার ৮০ কোটি মার্কিন ডলার।


আরও খবর



বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করা নিয়ে যে বার্তা দিল যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করার দায়িত্ব যুক্তরাষ্ট্রের আছে বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার। গতকাল বৃহস্পতিবার (০১ ফেব্রুয়ারি) দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এক সাংবাদিকের করা প্রশ্নের জবাবে এসক কথা বলেন তিনি।

এক সাংবাদিক মিলারকে প্রশ্ন করেন, বাংলাদেশ প্রসঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্রের সর্বশেষ প্রেসনোটে যেমনটা তিনি দেখেছেন যে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে বিভিন্ন নিরাপত্তা ক্ষেত্রে কাজ করতে আগ্রহী। এই ক্ষেত্রগুলোর মধ্যে আছে সন্ত্রাস দমন, সীমান্ত নিরাপত্তা, সাইবার নিরাপত্তা, সামুদ্রিক নিরাপত্তা ও আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত না জানিয়ে বাংলাদেশের নতুন সরকারের সঙ্গে বৃহত্তর প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের কাজ করাটা কীভাবে সম্ভব?

জবাবে মিলার জানান, সারা বিশ্বেই যুক্তরাষ্ট্রের এ ধরনের সম্পর্ক রয়েছে। বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, তারা বাংলাদেশে দমন–পীড়ন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন; তার অর্থ এই নয় যে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করার দায়িত্ব যুক্তরাষ্ট্রের নেই।

তিনি বলেন, যেসব ক্ষেত্র নিয়ে উদ্বেগ আছে, সেগুলোতে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করার দায়িত্ব যুক্তরাষ্ট্রের আছে। আবার যুক্তরাষ্ট্র যেসব ক্ষেত্রে সহযোগিতা করতে পারে বলে মনে করে, অভিন্ন স্বার্থ আছে বলে মনে করে, সে ক্ষেত্রগুলোতেও কাজ করার দায়িত্ব আছে।

ব্রিফিংয়ে আরেক প্রশ্নে বলা হয়, মুখপাত্র জানেন, মিয়ানমার এখন একটি যুদ্ধক্ষেত্র। সেখানে জান্তার সঙ্গে অন্য পক্ষের যুদ্ধ চলছে। এ কারণে মিয়ানমার থেকে আরও রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করতে চলেছে। হেলিকপ্টারসহ মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর সদস্যেরাও অনুপ্রবেশ করছেন। সেখানকার পরিস্থিতি নিয়ে মুখপাত্রের কোনো মন্তব্য আছে কি, তবে মিলার জানান, এ প্রশ্নের বিষয়ে বিস্তারিত পরে বলবেন তিনি।


আরও খবর



পুলিশ পদক পেলেন ৪০০ কর্মকর্তা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৩৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:৪০০ জন পুলিশ কর্মকর্তা সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ অবদান এবং সেবামূলক কাজের জন্য পদক পেলেন। বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন নিরাপত্তা বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রকাশিত তালিকা অনুসারে সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) পেয়েছেন ৩৫ জন, রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক (পিপিএম) ৬০ জন। আর গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদ্‌ঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, সততা, কর্মনিষ্ঠার জন্য বাংলাদেশ পুলিশ (বিপিএম) সেবা পদক ৯৫ জন এবং ২১০ জনকে রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক (পিপিএম) সেবা পদক দেওয়া হচ্ছে।

প্রতিবছর পুলিশের সেরা কর্মকর্তা ও সদস্যদের বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) এবং রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদকে (পিপিএম) ভূষিত করেন প্রধানমন্ত্রী। সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ অবদান এবং সেবামূলক কাজের বিবেচনায় এসব পদক দেওয়া হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এই পদকের যোগ্য কর্মকর্তাদের বাছাই করতে পুলিশ সদর দপ্তরে একটি কমিটি করা হয়। বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যরা কমিটির কাছে তাঁদের বছরের সেরা কাজটির বিবরণ পাঠান। এর ভিত্তিতে যাচাই শেষে পুলিশ সদর দপ্তরের কমিটি পদক পাওয়ার মতো কর্মকর্তাদের একটি তালিকা তৈরি করে অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠায়। প্রধানমন্ত্রী তা চূড়ান্ত করে থাকেন। পুলিশ সপ্তাহের প্রথম দিনের কর্মসূচিতে প্যারেডে সালাম গ্রহণের পর নিজ হাতে কর্মকর্তাদের এই পদকে ভূষিত করেন প্রধানমন্ত্রী। এই পদক পুলিশের চাকরিতে খুবই সম্মানজনক হিসেবে বিবেচিত। কর্মকর্তারা এর জন্য আর্থিক সুবিধাও পান এবং নামের শেষে এই পদক উপাধি হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।


আরও খবর



"ভারত-বাংলাদেশ মিয়ানমার ইস্যুতে একযোগে কাজ করবে"

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্করের সঙ্গে মিয়ানমারের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, বলে।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় দিল্লির হায়দরাবাদ হাউজে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্করের সঙ্গে প্রথমে একান্ত ও পরে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষীয় বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেনে, বৈঠকে অত্যন্ত আন্তরিক পরিবেশে খোলামেলা ও বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, সীমান্তে হত্যা নয় সৌহার্দ্য বজায় রাখা, আন্তঃদেশীয় যোগাযোগ বৃদ্ধিতে চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দরকে ভারতের ব্যবহারের কার্যকর সূচনা, বিদ্যুৎ শক্তির উৎসজনিত সহায়তার বিষয়সমূহের পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের পূর্ণ অধিকারসহ তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন এবং মিয়ানমারের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে দু'দেশের পারস্পরিক সম্পর্ক যে নতুন উচ্চতায় উঠেছে, সেটিকে আরও ঘনিষ্ঠ ও গভীর করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

আনুষ্ঠানিক বৈঠক পর্বে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব স্মিতা পান্ট এবং দু'দেশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী ঢুকছে বাংলাদেশে, সতর্ক বিজিবি-র‌্যাব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:তুমুল সংঘর্ষ চলছে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী ও সশস্ত্র বিদ্রোহীদের মধ্যে সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে। এ অবস্থায় বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করছে দেশটির বর্ডার গার্ড। সীমান্তে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সদস্যরা।

ঘুমধুম সীমান্ত এলাকা থেকে মিয়ানমার সীমান্ত কাছে। তাই কিছুক্ষণ পরপরই গুলি আর মর্টারের শব্দ শোনা যাচ্ছে। এ কারণেই সীমান্ত এলাকায় কঠোর অবস্থানে রয়েছে র‍্যাব। সীমান্তের পাশে যে বিজিবি চেকপোস্ট রয়েছে সেটি বাঁশ দিয়ে বন্ধ করে রাখা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে মিয়ানমার থেকে ছোঁড়া আরেকটি মর্টারশেল ঘুমধুম সীমান্তবর্তী এলাকায় পড়েছে। সেটি একটি বাড়ির বাগানে পড়ে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এর আগে, সোমবার মিয়ানমারের ছোঁড়া মর্টারশেলের আঘাতে ঘুমধুমে দুইজনের প্রাণহানি ঘটে।

প্রসঙ্গত, ঘুমধুম বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার অন্তর্গত নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার একটি ইউনিয়ন। ঘুমধুম সীমান্ত এলাকা থেকে মিয়ানমার সীমান্ত খুব কাছে। ২০১৭ সালে এ সীমান্ত দিয়ে রোহিঙ্গাদের একটি দল বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।


আরও খবর