Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালস এর ঔষধ কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

গাজীপুরে ঔষধ তৈরি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

প্রকাশিত:Monday ২৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১০৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড কারখানায় আগুন লেগেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট কর্মীরা কাজ করছে।


 


সোমবার (২৩ মে) দুপুরে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।


ফায়ার সার্ভিস জানায়, কারখানার নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে এবং ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।


খবর পেয়ে জয়দেবপুর, মির্জাপুর, ইপিজেড ও কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।


কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের ওয়ার হাউস ইন্সপেক্টর সাইফুল ইসলাম জানান, তাৎক্ষণিক আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।


অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।


আরও খবর



কামরাঙ্গীরচরে বাসা থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Thursday ২৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের একটি বাসা থেকে রাফিত রহমান শাওন (২১) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) রাতে জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান।

মোস্তাফিজুর রহমান জানান, কামরাঙ্গীরচর পশ্চিম রসুলপুর একটি বাড়ির নিচতলা থেকে ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আশপাশের কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিহত শাওনের বাবার নাম সোহেল রানা। পশ্চিম রসুলপুর ওই বাসার নিচতলায় একটি ম্যাচে থাকতেন শাওন। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে তিনি আগে কোনো এক মার্কেটের একটি দোকানে চাকরি করতেন। বর্তমানে কিছুই করতেন না। ঘটনার বিস্তারিত জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।

ঘটনাস্থলে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) কাজ করছে। এছাড়া আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ওই যুবকের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।


আরও খবর



মায়ের সঙ্গে ছোটাছুটি-লুটোপুটিতে বেড়ে উঠছে বাঘ শাবক দুটি

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

কখনো একদম গ্রিলঘেঁষে দাঁড়ায় ওরা। অপলক চোখে তাকিয়ে দেখে দর্শনার্থীদের। পরক্ষণে খাঁচার ভেতরে ছোটাছুটি করে। একজন অন্যজনের ঘাড়ে উঠছে। হঠাৎ ছুটছে মায়ের কোলে। কখনো মায়ের পিঠে চড়ে বসছে, আবার কখনো ওরা লুটোপুটিতে ব্যস্ত। ক্ষুধা লাগলেই মায়ের দুধ খাচ্ছে বাঘ শাবক দুটি। তবে মায়ের সঙ্গে খাঁচার ভেতরে রাখা মাংস ছিঁড়ে খাওয়ার চেষ্টাও করছে ওরা।

এ দৃশ্য মিরপুরে জাতীয় চিড়িয়াখানার। দুই মাস ১০ দিন বয়সী বাঘ শাবক দুটি দিনভর ব্যস্ত থাকে মায়ের সঙ্গে খুনসুটিতে। নিরাপত্তার কারণে ওদের বাবাকে রাখা হয়েছে পাশের খাঁচায়। ফলে বেলির একক সংসারে বেড়ে উঠছে দুই শাবক, যার মধ্যে একটি শাবক সাদা। এটি বিরল প্রজাতির বলে জানা গেছে।

jagonews24

চিড়িয়াখানা সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ এপ্রিল টগর-বেলি দম্পতির ঘরে আসে নতুন দুই অতিথি। এনিয়ে তৃতীয়বারের মতো এ দম্পতির প্রজনন হয়েছে। দুই শাবক জন্মের পর ওদের বাবা টগরকে পাশেই পৃথক খাঁচায় রাখা হয়। শাবক দুটি রয়েছে মায়ের সঙ্গে এক খাঁচায়। ছয়মাস বয়স পর্যন্ত ওদেরকে রাখা হবে মা বেলির খাঁচায়। দিনভর ছোটাছুটি-লুটোপুটি করে দিন কাটছে ওদের।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দর্শনার্থী দেখলেই বাঘ শাবক দুটি ভয় পায়। এজন্য ওদের খাঁচার কাছাকাছি দর্শনার্থীদের যেতে দেওয়া হচ্ছে না। অন্তত ছয়মাস পর ওদেরকে খাঁচার কাছে গিয়ে দেখতে পারবেন দর্শনার্থীরা।

jagonews24

চিড়িয়াখানার কিউরেটর মো. মুজিবুর রহমান মঙ্গলবার জাগো নিউজকে বলেন, ‘এখনো পর্যন্ত শাবক দুটি ভালো আছে। ২১ দিন পর পর ওদের রক্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে। ওদের সুস্থতা নিশ্চিতে বাড়তি পরিচর্যার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শাবক দুটিকে দেখলে আমাদেরও ভালো লাগে। নিজেদের সন্তানের মতো পরম যত্নে ওদের রাখার চেষ্টা করছি।’

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত শাবক দুটি ছেলে না মেয়ে, তা শনাক্ত করা যায়নি। ছয়মাস বয়স হলে এটি করা হবে। ওদের মায়ের সঙ্গে রাখা হয়েছে। ওই খাঁচায় সিসিটিভি বসানো হয়েছে। কিছুক্ষণ পরপর ওদের খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’

jagonews24

শাবক দুটি সুস্থভাবে বেড়ে উঠবে এবং দর্শনার্থীদের আকর্ষণ বাড়াবে এমনটাই প্রত্যাশা চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের।


আরও খবর



শান্তিরক্ষা মিশনে আফ্রিকায় গেলেন ১২৫ বিমানসেনা

প্রকাশিত:Thursday ০২ June 2০২2 | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে দায়িত্ব পালনের জন্য বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ১২৫ জন সেনা ঢাকা ছেড়েছেন।

জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে তাদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট বৃহস্পতিবার (২ জুন) সকালে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের উদ্দেশে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর এ আর্মড মিলিটারি ইউটিলিটি হেলিকপ্টার ইউনিটের নেতৃত্বে দিচ্ছেন গ্রুপ ক্যাপ্টেন আহসানুর রহমান।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে বিবাদমান সংঘাত নিরসনে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সদস্যরা অত্যন্ত দক্ষতা, পেশাদারি মনোভাব এবং আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে সে দেশের সরকার এবং আপামর জনসাধারণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। তাদের অর্জিত এ সুনাম ও সাফল্য অক্ষুণ্ন রেখে শান্তিরক্ষীরা ভবিষ্যৎ দিনগুলোতে যেন আরও উৎকর্ষতা অর্জন করতে পারে, এ কামনা করে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক মোনাজাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এসময় বিমানবন্দরে উপস্থিত থেকে সহকারী বিমান বাহিনী প্রধান (প্রশাসন) এয়ার ভাইস মার্শাল মো. সাঈদ হোসেনসহ বাহিনীর অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাদের বিদায় জানান।

এর আগে, গত ৩১ মে ঢাকা সেনানিবাসে ‘বাশার’ ঘাঁটিতে বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান শান্তিরক্ষা মিশনগামী সেনাদের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন। এসময় তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে তাদের সততা, পেশাদারি মনোভাব ও আন্তরিকতার সঙ্গে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী তথা দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনার আহ্বান জানান।


আরও খবর



কুমিল্লায় জাল ভোট-গোলযোগের দায়ে ছয়জনের জেল

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন চলাকালে বিভিন্ন কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়া ও গোলযোগের অপরাধে ছয়জনের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে একজনকে তিন মাস ও পাঁচজনকে তিন থেকে এক সপ্তাহ সাজা দেওয়া হয়। তবে তাৎক্ষণিক তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

বুধবার (১৫ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুমিল্লা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কামরুল হাসান জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, জাল ভোটের দেওয়ায় একজনকে তিনমাসের সাজা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সংরাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র থেকে পাঁচ বহিরাগতকে আটকের তিন থেকে সাত দিনের সাজা দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



সামাজিক নিরাপত্তায় ১ লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

২০২২-২৩ অর্থবছরে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে মোট ১ লাখ ১৩ হাজার ৫৭৬ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। যা বাজেটের ১৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ এবং দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ২ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এবারের বাজেটের শিরোনাম ‘কোভিড অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তন’।

অর্থমন্ত্রী জানান, প্রতিবছর সামাজিক সুরক্ষার কভারেজ ও বাজেট বরাদ্দ উভয় বৃদ্ধি করে যাচ্ছি। এরই মধ্যে ২৯ শতাংশ পরিবারকে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির আওতায় আনা হয়েছে এবং বাজেট বরাদ্দ ২০০৮-৯ অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ৮ গুণ বেড়েছে। দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে সুরক্ষা কর্মসূচির আওতায় আনার জন্য দুর্যোগ প্রবণ এলাকা, দরিদ্রতম এলাকা এবং জনসংখ্যার ঘনত্বের অনুপাতের মতো বিষয়গুলো নেওয়া হচ্ছে বিবেচনায়।

তিনি আরও জানান, শহর এলাকায় ‘শহর সমাজসেবা কার্যক্রম’ এবং ‘এসিড দগ্ধ ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পুনর্বাসন কার্যক্রম’ নামে মোট ৪টি সুদমুক্ত ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ কার্যক্রমে জনপ্রতি ৫ হাজার টাকা থেকে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত সুদমুক্ত ঋণ প্রদান ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

দুঃস্থ-প্রতিবন্ধী ও বয়স্কদের জন্য নেওয়া কার্যক্রম প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, দুঃস্থ প্রবীণ ব্যক্তিদের অধিকার সুরক্ষায় বয়স্ক ভাতা দেওয়া হচ্ছে। আর বিধবা ও স্বামী নিগৃহীত ভাতার ক্ষেত্রে প্রবীণ নারীকে দেওয়া হচ্ছে অগ্রাধিকার। ২০২১-২২ অর্থবছর থেকে জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে ৫৭ দশমিক ১ লাখ ভাতাভোগীর জন্য বয়স্ক ভাতা খাতে ৩ হাজার ৪৪৪ দশমিক ৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে, যা চলমান থাকবে। ২০২১-২২ অর্থবছরে ২০ লাখ ৮ হাজার প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে মাসিক ৭৫০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হয়েছে।

এসব উপকারভোগীর সংখ্যা ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৩ দশমিক ৫৭ লাখ বাড়িয়ে ২০ দশমিক ৮ লাখের স্থলে ২৩ দশমিক ৬৫ লাখে উন্নীত করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এসময় মাসিক ভাতার হার ৭৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা বাড়িয়ে ৮৫০ টাকা করা হবে। এছাড়া নতুন অর্থবছরে প্রতিবন্ধী ভাতা বাবদ ২ হাজার ৪২৯ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী।

ভাতা কর্মসূচির বাইরেও শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তি চালু করা হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ২০২১-২২ অর্থবছরে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ছিল ১ লাখ। আর বার্ষিক বরাদ্দ ছিল ৯৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা।

সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির আওতায় রয়েছে বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা ও প্রতিবন্ধী উপবৃত্তি কার্যক্রমে এবং দারিদ্র্য নিরসন কর্মসূচির আওতায় পল্লী ও শহর সমাজসেবা কার্যক্রম, এসিডদগ্ধ ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পুনর্বাসনে শতকরা ৫০ ভাগ নারী এবং বিধবা ও স্বামী নিগৃহীত দুঃস্থ মহিলা ভাতা এবং পল্লী মাতৃকেন্দ্র কার্যক্রমে শতকরা ১০০ ভাগ নারী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সুদমুক্ত ক্ষুদ্রঋণের কার্যক্রমসমূহে নারীর অন্তর্ভুক্তি বাধ্যতামূলক থাকায় এগুলো বার্ষিক গড়ে ১ দশমিক ২০ লাখ নারীর ক্ষমতায়ন, সামাজিক সুরক্ষা বৃদ্ধি, আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিতে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, সামাজিক অপরাধপ্রবণ নারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ৬টি কেন্দ্রের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে ভরণ-পোষণ, প্রশিক্ষণ, শিক্ষা ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এতিম শিশুদের খোরাকী ভাতা ২০২২ সাল হতে ৫০০ টাকা বাড়িয়ে মাসিক জনপ্রতি ৪ হাজার টাকা হারে প্রদান করা হয়েছে। শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রসমূহের মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত বিপন্ন শিশুদের সেবা প্রদান করে পরিবার বা নিকট আত্মীয় বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানে পুনঃএকত্রীকরণ/পুনর্বাসন নিশ্চিত করা হচ্ছে। বর্তমানে কেন্দ্রসমূহে মোট ২ হাজার ২৯১ জন (১ হাজার ৮৮ জন ছেলে এবং ১ হাজার ২০৩ জন মেয়ে) শিশু অবস্থান করছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতায় মা ও শিশু সহায়তা কর্মসূচিকে প্রাধান্য দিচ্ছে সরকার। এ জন্য ২০২১-২২ অর্থবছরের উপকারভোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ৪৫ হাজার থেকে ২ লাখ ৯ হাজার বাড়িয়ে ২০২২-২৩ অর্থবছরে মোট ১২ লাখ ৫৪ হাজারে উন্নীত করার প্রস্তাব করছি। এ খাতে নতুন অর্থবছরে মোট বরাদ্দ ১ হাজার ২৪৩ কোটি টাকা।

‘ফ্যামিলি কার্ড’ কর্মসূচি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ফ্যামিলি কার্ড’ কর্মসূচির আওতায় এক কোটি পরিবারের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর অধীনে করোনাকালে নগদ অর্থ সহায়তা বাবদ আড়াই হাজার টাকা করে যারা পেয়েছেন তারাসহ মোট এক কোটি পরিবার টিসিবির ‘ফ্যামিলি কার্ড’ সহায়তা পাচ্ছে। সরকারি এ উদ্যোগের ফলে দেশের প্রায় পাঁচ কোটি স্বল্প-আয়ের মানুষ সরাসরি উপকৃত হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মহামারির আগে দেশে দারিদ্র্যের হার ২০ দশমিক ৫ শতাংশ এবং অতি দারিদ্র্যের হার ১০ দশমিক ৫ শতাংশে নেমে আসে। যদিও মহামারির কারণে বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশের অগ্রগতি কিছুটা হোঁচট খায়, কিন্তু সরকারের পদক্ষেপে আবার উন্নয়নের গতিধারায় ফিরে আসতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ।


আরও খবর