Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

গাইবান্ধায় র‍্যাবের অভিযানে হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৪৫০জন দেখেছেন

Image
গাইবান্ধা সংবাদদাতা:গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী থানার পূর্ব ফরিদপুর গ্রামের আমেনা বেগম (৫৫) হত্যা মামলার অন্যতম এজাহার নামীয় আসামী মোঃ শহীদ ওরফে (শরিফ) মিয়া (৩৫) কে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় গ্রেফতার করেছে গাইবান্ধা র‍্যাব-১৩।

৫ মে শুক্রবার বিকেল  র‌্যাব-১৩ গাইবান্ধা ক্যাম্পের সিনিয়র সহকারি পরিচালক (মিডিয়া) মাহমুদ বশির আহমেদ সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আসামীকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে ৪ মে বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী থানাধীন বুজরুক বিষ্ণপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিম আমেনা বেগম (৫৫) হত্যা মামলার অন্যতম এজাহার নামীয় পলাতক আসামী মোঃ শহীদ ওরফে শরীফ মিয়াকে গ্রেফতার করে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ভিকটিম আমেনা বেগম (৫৫) এর পরিবারের সঙ্গে আসামীদের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত ঝগড়া বিবাদ, মারামারিসহ মামলা মোকদ্দমা চলছিল। আসামী মামলাটি প্রত্যাহারের জন্য বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হত্যা করার হুমকি দিয়ে আসছিলো। এমতাবস্তায় গত ০৪/১১/২০২২ ইং তারিখ রাত ২০.০০ ঘটিকা হইতে পরদিন ০৫/১১/২০২২ ইং তারিখ ভোর ০৬.০০ ঘকিকার মধ্যে ভিকটিম আমেনা বেগম (৫৫) কে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আসামীগণ গুরুতর রক্তাক্ত যখমসহ হত্যা করিয়া ঘাসের জমিতে ফেলে রাখে। ভিকটিমের আত্নীয়স্বজন পরবর্তীতে অনেক খোঁজাখুজি করিয়া ভোরে উল্লেখিত স্থান হতে উদ্ধার করে। উক্ত ঘটনায় ভিকটিমের ছেলে মোঃ আউয়াল সরকার (৩২) বাদী হয়ে পলাশবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন। এরই ধারাবাহিকতায় ৪ মে ২০২৩ খ্রিঃ র‍্যাব-১৩ গাইবান্ধা ক্যাম্পের নেতৃত্বে একটি অভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী থানাধীন বুজরুক বিষ্ণপুর এলাকা হতে অভিযান চালিয়ে ভিকটিম আমেনা বেগম (৫৫) হত্যা মামলার অন্যতম এজাহার নামীয় পলাতক আসামী মোঃ শহীদ ওরফে শরীফ মিয়া (৩৫), পিতা-মোঃ দুদু মিয়া, সাং- বুজরুক বিষ্ণপুর, থানা-পলাশবাড়ী, জেলা-গাইবান্ধা’কে গ্রেফতার করেছে। 
 
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গ্রেফতারকৃত আসামী দীর্ঘদিন যাবৎ নিজেকে আত্নগোপন করিয়া বারবার তার অবস্থান পরিবর্তন করত। র‍্যাবের আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বর্ণিত হত্যা মামলার এজাহার নামীয় আসামী বলে স্বীকার করেছে। উক্ত ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্য আসামীদের বিরুদ্ধে গোপন অনুসন্ধান চলছে।

আরও খবর



জিপিএ -৫ না পাওয়ায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৭২জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:এস এস সি পরিক্ষায় জিপিএ -৫ না পাওয়ায় এমিল (১৬) নামের এক শিক্ষার্থীর আত্ত্বহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। রবিবার ১২ মে দুপুরে সৈয়দপুর শহরের ৮ নং ওয়ার্ডের বাংগালী পুর নীজ পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। তার বাবার নাম আব্দুর রহিম ওরফে মিন্টু। তার গ্রামের বাড়ি বদরগন্জ উপজেলার পাঠানের হাট ও সে সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।

স্হানীয়রা জানায়, আব্দুর রহিম ওরফে মিন্টুর ছেলে এমিল মেধাবী হওয়ায় সৈয়দপুর শহরের লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তি করানো হয় এবং তার পড়াশোনার সুবিধার্থে শহরের বাংগালী পুর নীজ পাড়া গ্রামের সাবেক কাউন্সিল মোসলেম উদ্দিনের বাসা ভাড়ায় নিয়ে বসবাস করতেন তারা। রবিবার ১২ মে শিক্ষার্থীর বাবা সকালে যায় গ্রামের বাড়ি। এদিকে এস এস সির রেজাল্ট হয় একই দিনে। এই রেজাল্টে ওই শিক্ষার্থী পায় ৪.৫৬। এতে শিক্ষার্থী সন্তুষ নয় বলেই আত্মহত্যা করেছে।শিক্ষার্থীর বাবা আব্দুর রহিম ওরফে মিন্টু বলেন, তার একমাত্র সন্তান, এমিল ছিল মেধাবী। নামাজও আদায় করতো ৫ ওয়াক্ত। কিন্তু সে কিভাবে যে এ ঘটনা ঘটাবে ভাবতেও কষ্ট হচ্ছে। 

জানতে চাইলে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ আলম  জানান স্হানীয় ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল থেকে খবর পেয়ে সেখানে যাই। আত্মহত্যার সত্যতা শিকার করে বলেন, লাশ এর সুরতহাল করা হয়েছে। ঘন্টা২/১ পরেই লাশ মর্গে পাঠানো হবে। রিপোর্ট এলেই সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে বলে জানান তিনি। 

আরও খবর



নওগাঁয় বাস চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহত, আহত আরেক শিক্ষার্থী

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৬৫জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা,নওগাঁ প্রতিনিধি:নওগাঁর মহাদেবপুরের নওহাটা মোড়ের পশ্চিম পার্শ্বে খামার বাড়ি এলাকায় বাস চাপায় সিফাত হোসেন (১৪) নামে ৭ম শ্রেণির এক মাদরাসা শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। রোববার (১৯ মে) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে নওগাঁ থেকে রাজশাহীগামী একটি বাসের ধাক্কায় তার মৃত্যু হয়। এঘটনায় ফয়সাল হোসেন (১৬) নামের ৮ম শ্রেণির ওপর এক ছাত্র গুরুতর আহত হয়েছে। 

নিহত সিফাত হোসেন উপজেলার চেরাগপুর ইউনিয়নের বুজরুক বড়াইল গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে এবং আহত ফয়সাল হোসেন পার্শ্ববর্তী নিয়ামতপুর থানার মুড়িহাড়ি গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে। তারা রানীপুকুর ক্বেরাতুল কুরআন ক্বওমী মাদরাসার ছাত্র।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকেলে আহত ফয়সাল হোসেন মাদরাসার ধান আদায়ের জন্য পেডেল চালিত একটি ভ্যানগাড়ি নিয়ে নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়ক দিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় ওই ভ্যানে ধানের বস্তা ধরে বসেছিল সিফাত হোসেন। হঠাৎ করে নওগাঁ থেকে রাজশাহীগামী  বেপরোয়াভাবে চলা একটি বাস তাদের সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে তারা দুইজন গুরুতর আহত হয়। তাদের আহত অবস্থায় নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেওয়ার সময় পথিমধ্যে সিফাত হোসেন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে এবং আহত ফয়সাল হোসেনকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে দেওয়া হয়েছে। 

এবিষয়ে জানতে চাইলে মাদরাসার প্রধান মুহতামিম শিক্ষক মাওলানা মুহাম্মদ রিয়াজুল হক কাশেমী বলেন, দুপুরে লেখাপড়া করার পরে আমি সবাইকে ঘুমাতে বলি। এর মধ্যে বিকেলে লোক মুখে শুনতে পাই এই ঘটনা। পরবর্তীতে জানতে পারি আমার মাদরাসার অপর শিক্ষক সাইফুল তাদের ধান নিতে পাঠায়। এখন আমি নওগাঁ সদর হাসপাতালে আছি। এখানে আমার শিক্ষার্থী ফয়সাল হোসেন ভর্তি আছে। সে এখন অনেকটা আশংকা মুক্ত।

এবিষয়ে জানতে চাইলে নওহাটা ফাঁড়ির এস আই জিয়াউল হক জিয়া বলেন, নিহত শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও খবর



মলি আক্তার রিতার উদ্যোগে পথচারীদের মাঝে বিশুদ্ধ খাবার পানি ও স্যালাইন বিতরণ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ১৬০জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃরাজধানীর ডেমরা থানাধীন বড়ভাঙ্গা এলাকায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মলি আক্তার রিতার উদ্যোগে পথচারীদের মাঝে বিশুদ্ধ খাবার পানি ও স্যালাইন বিতরণ করা হয়েছে। । এ সময় উপস্থিত ছিলেন রসূল নগর যুব সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি পেয়ার আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন তুষার,রসূল নগর যুব সংসদের অর্থ সম্পাদক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নেয়ামত উল্লাহ, ডেমরা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃ ইমরান হোসেন, হাজী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম,ডেমরা থানা আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আজিজ,মোঃ মজিবুর রহমান মন্টু, সুলাইমান মৃধা, নবমল্লিকা মডেল একাডেমির প্রধান শিক্ষিকা রীমা হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ৬৬নং ওয়ার্ড ডগাইড় উত্তর ইউনিট আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুর রহমান ফয়সাল সহ স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ।


ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ৬৭,৬৮,৬৯ নম্বর ওয়ার্ডকে ডিজিটাল হিসাবে গড়তে চান মলি আক্তার রিতা।নাগরিকের অধিকার সর্বোচ্চ বজায় রাখতে চান তিনি।নারীদের আত্মকর্মসংস্থান তৈরির জন্য নিরলস ভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বহু নারীকে কর্মসংস্থান ব্যবস্হা করেছেন মলি আক্তার রিতা।তিনি অসহায় গরীব মেয়েদের নিজের অর্থ সহোযোগিতায় বিয়ে দিয়েছেন। নির্যাতিত নারীদের পক্ষ নিয়ে বিনা অর্থে আইনি সেবা দিয়েছেন।এলাকাবাসীর অত্যন্ত পছন্দের একজন মানুষ হিসেবে করো বোন,কারো ভাবি,কারো মেয়ে হয়ে সামাজিক বহু সংগঠনের মাধ্যমে গরীব অসহায় মেহনতী মানুষের মাঝে এান খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছেন।চলতি দাবদাহ শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানি ও স্যালাইন বিতরণ করে চলেছেন।নারী কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হতে পারলে কিশোর গ্যাং ও চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণ, ফুটপাত দখলমুক্ত করতে চান মলি আক্তার রিতা। নারী ও বৃদ্ধদের জন্য ব্যায়ামাগার নির্মাণ করতে চান সংরক্ষিত নারী আসনের এ প্রার্থী। এলাকার যানজট সমস্যা নিরসন করার অঙ্গীকার করেন তিনি।মলি আক্তার রিতা বলেন, ওয়ার্ডের মাঠগুলোকে শুধু খেলাধুলা করার জন্য উপযোগী করে দেব। মেয়েদের খেলার সুযোগ তৈরি করব। একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মেয়েদের মাঠে খেলার ব্যবস্থা করে দেব। এলাকায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে নিরাপত্তা বাড়াব। মাদক নির্মূল করার চেষ্টা করব,আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে সুখে দুঃখে সার্বক্ষণিক মানুষের পাশে থাকব। এলাকার অবহেলিত নারীদের উন্নয়নে সব সময় নিজেকে নিয়োজিত রাখার চেষ্টা করেছি।আমি যেন আরও বেশি করে জনগণের সেবা করতে পারি এজন্যই জনগণের অনুরোধে এবার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।


আরও খবর



শিল্পী সমিতির নির্বাচন: ডিপজলের দায়িত্ব পালনে স্থগিতাদেশ জারি

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির (২০২৪-২৬) মেয়াদি নির্বাচনে সম্পাদক পদে বিজয়ী ডিপজল তার পদে বসতে পারবেন না বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে পরাজিত সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নিপুণ আক্তারের অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (২০ মে) বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ১৫ মে নিপুণের পক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট পলাশ চন্দ্র রায় শিল্পী একটি রিট আবেদন করেন। রিটে নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে এ ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠনের পাশাপাশি নতুন করে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা ও মিশা-ডিপজলের নেতৃত্বাধীন কমিটির দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়।

গত ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ফলাফল ঘোষণা হয় শনিবার (২০ এপ্রিল) সকালে। ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার খোরশেদ আলম খসরু। এতে নতুন সভাপতি নির্বাচিত হন জনপ্রিয় অভিনেতা মিশা সওদাগর এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হন অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

সভাপতি মিশা সওদাগর নির্বাচনে মোট ভোট পান ২৬৫টি। অন্যদিকে মাহমুদ কলি ১৭০ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত ডিপজল পান ২২৫ ভোট। ১৭ ভোট কম পেয়ে পরাজিত হন নিপুণ আক্তার (২০৯)।


আরও খবর



ইসলামপুর মোখলেছ হটাও-আইএইচটি বাঁচাও দাবীতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image

লিয়াকত হোসাইন লায়ন,ইসলামপুর(জামালপুর)প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুর শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজিতে সীট ও খাবার বাণিজ্যসহ শিক্ষার্থীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের ক্ষুব্দ হয়ে ‘মোখলেছ হটাও,আইএইচ টি বাঁচাও’ দাবীতে লেকচারার  ডা. শাহ্ মো: মোখলেছুর বিরুদ্ধে  বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

রবিবার (১৯ মে) ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজির ক্যাম্পাস চত্তরে শিক্ষার্থীরা এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন।  ৪র্থ, ৫ম এবং ৬ষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থী কৌশিক, মেহেদী হাসান ও আতিক কাওসার ও বৈশাখী আক্তারসহ শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজির লেকচারার মোখলেছুর রহমান, খন্ডকালীন  হিসাবে যোগদান করার পর  থেকে পাঠদানে অবহেলা, হোস্টেলে সীট ও খাবার বাণিজ্যসহ নানাভাবে শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে রেখেছেন। কলেজের ক্লাসে২-৩ ঘন্টা সময় নষ্ট করলেও ১০মিনিটের বেশী পাঠদান করেন না। ক্লাসে দুনিয়াবী কথা বলে শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করেন। হোস্টেলের  ছাত্রীদের নিয়ে দেহ ব্যবসাসহ নানা কুরুচি পূর্ণ মন্তব্য করেন তিনি। প্রতিবাদ করলেই শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় নাম্বার কম, সাইলেন্ট এবসেন্ট, ফেল, ছাত্রত্ব বাতিল ,হোস্টেলের সীট বাতিলের হুমকি ও সহ বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করা হয়।

এছাড়াও হোস্টেল সুপার রবিউল ইসলামের যোগশাজসে হোস্টেলের খাবার মিলে নিজের পছন্ন মত মিল ম্যানেজার র্নিধারণ করে টাকা আত্মসাত করেন ডা.মোখলেছুর রহমাম। শিক্ষার্থীরা খাবার না খেলেও মাসিক খাবারের টাকা গুণতে হয়। শিক্ষার্থীদের ঠিকমত পাঠদান না করে হোস্টেলে কিভাবে টাকা মেরে নিম্নমানের খাবার দেওয়া যায় এই হিসাব নিয়ে ব্যস্ত থাকেন তিনি। কলেজটিতে আউট সোর্সিংয়ের  মাধ্যমে আয়া, বুয়া, বাবুর্চিদের বেতন থাকা না থাকলেও ১শত টাকা করে ৪০ হাজার টাকা উত্তেলন করা হয়।

তিনি নিজেকে অঘোষিত অধ্যক্ষ মনে করে মনগড়াভাবে সরকারি ছুটি বাতিলসহ দিবস পালনে বাঁধা দিয়ে থাকেন।  কলেজের জুনিয়রদের নিয়ে সিনিয়র ভাই ও আপুদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উস্কানিমূলক কথা বলে কলেজের পরিবেশ নষ্ট করার পায়তারা করেন। 

ডা. শাহ্ মো: মোখলেছুর রহমানের কর্মকান্ডে অতীষ্ঠ হয়ে আন্দোলনে ডাক দিয়ে কলেজের সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে অবিলম্বে  মোখছেুর রহমানকে বহিস্কারের দাবী জানান তারা।

এব্যাপারে ডা. শাহ্ মো: মোখলেছুর রহমানের সাথে মুঠোফেনে কথা হলে তিনি উপরোক্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


আরও খবর