Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

ফুলবাড়ীর আলাদীপুর ইউনিয়নে নিরাপদ সবজি উৎপাদন যুক্ত প্রদর্শনীর মাঠ দিবস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২১৩জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার আলাদীপুর ইউনিয়নের ভিমলপুর গ্রামে নিরাপদ সবজি উৎপাদন যুক্ত প্রদর্শনীর কৃষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত। গতকাল সোমবার বিকেল ৫টায় ফুলবাড়ী উপজেলার আলাদীপুর ইউনিয়নের ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছর দিনাজপুর অঞ্চলে টেকসই কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প এর আওতায় নিরাপদ সবজি উৎপাদন যুক্ত প্রদর্শনীর মাঠ দিবস অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ও সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিসার মোছাঃ রুম্মান আক্তার। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা ট্রেনিং অফিসার মোঃ জাফর ইকবাল। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর প্রকেল্পর মনিটরিং কর্মকর্তা মোঃ মশিউর রহমান, প্রকল্পের উপ-পরিচালক মোঃ রাকিবুতজ্জামান, ফুলবাড়ী কৃষি অফিসে অতিরিক্ত কৃষি অফিসার মোঃ শাহিনুর রহমান, ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সঞ্জিতা রায়। মাঠ দিবসের সঞ্চালনায় ছিলেন ফুলবাড়ী কৃষি অফিসে অতিরিক্ত কৃষি অফিসার মোঃ শাহিনুর রহমান। আয়োজনে ছিলেন কৃসি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফুলবাড়ী। মাঠ দিবসের পূর্বে আলাদিপুর ইউনিয়নের কৃষক হামিদুর রহমানের নিরাপদ সবজি উৎপাদন ক্ষেতে গিয়ে তরমুুজ চাষের ক্ষেত পরিদর্শন করেন। এ সময় এলাকার শতাধিক কৃষক ও ফুলবাড়ী কৃষি অফিসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ডিএমপির সাবেক কমিশনার বিদেশে যাওয়া নিয়ে ভিডিও বার্তায় যা বললেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ডিএমপির সাবেক কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াকে নিয়ে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে নানা সংবাদ প্রকাশ করে। তবে সেসব বিষয় উড়িয়ে দিয়েছেন আছাদুজ্জামান মিয়া। বিদেশে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে ভিডিও বার্তা দিয়ে জানান, আগামী ২২ জুন তিনি দেশে ফিরছেন।

বুধবার (১৯ জুন) দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, আমি অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করছি দুই-একটি মিডিয়া খবর প্রকাশ করেছে যে, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পরে আমি সস্ত্রীক বিদেশে পালিয়ে এসেছি- যা মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। মূলত হৃদ্‌রোগের চিকিৎসার জন্য, ডাক্তারের পূর্ব-নির্ধারিত সময় অনুযায়ী আমি চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে এসেছি। চিকিৎসা শেষে আমি আগামী ২২ তারিখে দেশে ফিরব, ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে দুই-একটি মিডিয়ায় অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে যে খবর প্রকাশ করেছে সেটি অসত্য, বানোয়াট, অতিরঞ্জিত এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। জ্ঞাত আয়ের বাইরে এবং আমার জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়, এমন কোনো সম্পদ আমার বা আমার পরিবারের নেই। মূলত একটি চিহ্নিত মহল দেশের বাইরে থেকে এবং দেশের ভেতরে থেকে এই ধরনের অপপ্রচার করছে। এটি করা হচ্ছে আমাকে হেয় করার জন্য, সামাজিকভাবে আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের সামাজিক মর্যাদা ক্ষুণ্ন করার জন্য, তাদের হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য আক্রোশমূলক এ ধরনের হীন অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।

শেষে মিডিয়াকর্মীদের অনুরোধ করে ডিএমপির সাবেক এ কর্মকর্তা বলেন, আমি সম্মানিত মিডিয়াকর্মী ভাইদের কাছে অনুরোধ করব, আমার এবং আমার পরিবারের সম্মান ক্ষুণ্ন হয় এই ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন অপপ্রচার থেকে সবাই বিরত থাকবেন।

উল্লেখ্য, আছাদুজ্জামান মিয়া ২০১৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ডিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তাকে জাতীয় নিরাপত্তাসংক্রান্ত সেলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পদে নিয়োগ দেয় সরকার। ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়।


আরও খবর



রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানির কারণে ৩ লাখ টাকার মাছ মরে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয় ওই এলাকায় বসবাসকারী প্রায় অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা অসুস্থ হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

গত শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার তারাব পৌরসভার কর্ণগোপ এলাকায় খামারির পুকুর থেকে মরা মাছ তুলতে দেখা গেছে।

পুকুরটির মালিক হাসনাত মিয়া জানান, তিনি  কয়েক বিঘা জমির পুকুরে কাতল, রুই, তেলাপিয়া ও কার্প মাছসহ নানা প্রজাতির মাছ চাষ করে আসছেন। কিন্তু গত শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তার পুকুরের পাশে ওয়েস্ট নিটওয়ার লিমিটেড নামের একটি ডায়িং কারখানা পাইপ দিয়ে তাদের বিষাক্ত পানি পুকুরের পাশে ডোবায় ছেড়ে দেয়। পরে বৃষ্টি হলে সকালে ওই ডোবাটি ডুবে গেলে কারখানার বিষাক্ত পানি পুকুরে ডুকে যায়। পরে পুকুরে চাষের জন্য ছাড়া প্রায় ৩ লাখ টাকার মাছ মরে পানির উপর ভাসতে দেখেন তিনি। 

তিনি বলেন, কারখানার বিষাক্ত পানি ছেড়ে দেওয়ায় সকাল থেকেই মাছ মরা শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে কারখানার দায়িত্বরত একজন ব্যক্তি আমাকে ফোনে জানান অভিযোগ না করতে তারা আমার মাছের ক্ষতিপূরণ দিবেন। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ভুক্তভোগী জানান, আমরা এখানকার কারখানায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। কিন্তু এখানকার কারখানা গুলো পানি সুদানাগার প্লান (ইটিপি) থাকলেও তারা তা ব্যবহার না করে পাইপের মাধ্যমে এলাকায় বিষাক্ত পানি ডোবায় ছাড়ছেন। একটু বৃষ্টি হলেই ডোবা ডুবে গিয়ে চলাচলের সড়ক উঠে যায়। আমরা চলাচল করতে গেলে পায়ে পানি লাগে এতে আমাদের পায়ে নানা ধরনের রোগবালাই দেখা দিচ্ছে। 

এসব বিষয়ে কথা বললেই স্থানীয় তারাবো পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী (ফেল করা) রিপন ভূঁইয়া নামের এক ব্যক্তির মাধ্যমে মামলা হামলার হুমকি ধামকি দেন। তাছাড়া তারা দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে এসে এই এলাকায় বসবাস করায় প্রতিবাদ করতে ভয় পান বলে জানান। এ অবস্থা থেকে দ্রুত মুক্তির দাবিও জানান তারা। 

এ বিষয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি  রিপন ভূঁইয়া  বলেন, আমাদের কারখানার পানি ইটিপি প্লানের মাধ্যমে সুদানাগার করে ছাড়া হয়। এখানে শুধু আমাদের কারখানার পানি ছাড়া হয় তা নয় সকল কারখানার পানি ছাড়া হয়। কারো কোন ক্ষতি হলে সামনাসামনি বলুক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে ওয়েস্ট নিটওয়ার লিমিটেড কারখানার যোগাযোগ করা হলে ওয়েস্ট নিটওয়ার লিমিটেড এর মালিক ফরিদ  কথা বলতে রাজি নয় বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা  আলমগীর (UFO) বলেন  আমাদের উপজেলায় দূষিত পানি পরীক্ষার জন্য তেমন কোন সরঞ্জাম নেই তবে আমরা ঘটনার সত্যতা পেলে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা নিবো। কারখানা কে লিগেল নোটিশ প্রদান করবো। শিল্প কারখানা আইনে তার বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



যারা মানুষের কল্যাণে কাজ করেন তারই মহৎ: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬৬জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল  পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, মানুষের মধ্যে যারা অনিত্য জীবন ধারণ করে নিত্য জীবন ধারণ করেছেন এবং যারা মানুষের কল্যাণে কাজ করেন তারাই প্রকৃত মহৎ।

শুত্রুবার (৩১ মে)  বিকেলে খাগড়াছড়ি জেলাসদরের কমলছড়ি গ্রামে ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত ‘পার্বত্য বৌদ্ধ মিশন (পিবিএম) অনাথালয়’ পুনরায় চালুর লক্ষ্যে আয়োজিত এক সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এসব কথা বলেন।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক শুভমঙ্গল চাকমা সুদর্শী স্বাগত বক্তব্য রাখেন। 

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি আরও বলেন, জ্ঞানদীপ্ত, বুদ্ধিদীপ্ত মানুষের উপস্থিতিতে আজ পার্বত্য বৌদ্ধ মিশন (পিবিএম) অনাথালয় পুনরায় চালুকরণ হলো। তিনি বলেন, অনাথালয় হলো যেখানে অসহায় বা দীন-দুঃখীদের লালন পালন করা হয়। অনাথালয়ে অনাথদের আশ্রয় দান একটি মহৎ কাজ। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা মানুষ। মানুষের অনিত্য জীবনের মধ্যে যারা নিত্য জীবন ধারণ করেছেন তারাই মহৎ ও মহান। মহান ও মহৎ মানুষ পৃথিবীতে এসেছেন আবার চলেও গেছেন। তারা মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ, নবী করীম (সঃ), যীশুখ্রিষ্ট, গৌতম বুদ্ধ এরা ছিলেন মানুষরূপী দেবতা। প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন বাংলাদেশের মানুষের কল্যাণে নিবেদিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি আরও বলেন, জীবনে বৃহত্তর স্বার্থে ঐক্যের প্রয়োজন রয়েছে। ক্ষুদ্র স্বার্থের জন্য অনৈক্য দূর করে সকলকে একে-অপরের কাছে আসতে হবে। বৃহত্তর ও দূরদর্শী চিন্তা ছিলো বলেই সত্তরের দশকে শ্রদ্ধেয় জ্ঞানশ্রী ভান্তে দীঘিনালায় পার্বত্য চট্টল অনাথাশ্রম এবং আশির দশকে খাগড়াছড়ির কমলছড়ি শ্রদ্ধেয় সুমনালংকার ভান্তে পিবিএম’র মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছিলেন। এইসব মহীয়সী মানুষদের সৃষ্টিকে লালন এবং এগিয়ে নেয়ার দায়িত্ব সবাই মিলেই পালন করতে হবে। প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের মানুষের কথা ভাবে, দেশের শান্তির কথা ভাবে বলেই পার্বত্য অঞ্চলে সাম্প্রদায়িক সংঘাত বহুলাংশে বন্ধ হয়েছে। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষের মনে শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের  স্রোতধারা বহমান রয়েছে। আগামিতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশে পরিণত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের উন্নয়নে কাজ করার আহ্বান জানান পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর বোধিসত্ত্ব দেওয়ানের সভাপতিত্বে  বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান (সিনিয়র সচিব পদ-মর্যাদা) সুদত্ত চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব পদ-মর্যাদা) সুপ্রদীপ চাকমা, মং সার্কেল চীফ সাচিংপ্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ-প্রফেসর ড, সুধীন কুমার চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চাইথোঅং মারমা, বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদ’র কেন্দ্রীয় সভাপতি সুশীল জীবন ত্রিপুরা, অবসরপ্রাপ্ত মেজর ডা, অজয় চাকমা এবং খাগড়াপুর মহিলা কল্যাণ সংস্থা’র চেয়ারপারসন শেফালিকা ত্রিপুরা সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোক উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলে আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি কৃষক

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৮২জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ পোরশা (নওগাঁ):গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের আম চাষীরা। গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর বাজারে সকল প্রকার আম তিন গুন বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এবছর আমের ফলন কম। তবে ভাল দাম পেয়ে ক্ষতিপুষিয়ে যাচ্ছে চাষীদের।  

নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের বাতাসে বইছে এখন পাকা আমের মিষ্টি ঘ্রান। গাছে গাছে দেখা দিয়েছে বছরের শ্রেষ্ট ফল পাকা আম। এরই মধ্যে বাজারে উঠতে শুরু করেছে ফরমালিনমুক্ত গাছ পাকা তরতাজা আম। 

পাখিরা এখন গাছের ডালে বসে রসালো পাকা আম খাচ্ছে আর মোনের সুখে গাইছে প্রাণের গান। আম চাষী, ব্যবসায়ী, কৃষক, দিনমজুররা আম পাড়ায় ব্যস্ত। অনেকেই পরিবারের সকলে মিলে একসাথে বসে পাকা আম খাওয়ায় ব্যস্ত, আবার কেউ আত্মীয় স্বজনের বাসায় পাকা আম পাঠানোই ব্যস্ত।

পোরশা উপজেলার প্রাণকেন্দ্র সারাইগাছী বাজার, পোরশা সদর বাজার, তেঁতুলিয়া বাজার, নোচনাহার বাজার, শিশা বাজার ও বড়গ্রাম বাজার এবং সাপাহার উপজেলা সদরের আমের আড়ৎ গুলোতে গাছ পাকা আম কেনা বেচা শুরু হয়েছে। আমচাষী ও ব্যবসায়ীরা গাছ থেকে আম ভেঙ্গে বাজারে বিক্রি করা শুরু করেছেন। অনেক বাগান মালিকরা গাছেই আম ঠিকায় (কনটাকে) বিক্রি করছেন।

গাছে সকল জাতের আম পাকা দেখা না গেলেও গত কয়েকদিনে গুটি জাতীয়, গোপালভোগ ও খিরসাপাত(হিমসাগর) আম পাকা দেখা দিয়েছে। এ জাতীয় আমগুলো গাছ থেকে নামাতে নামাতেই পাকা দেখা দিবে আমের রাজা বলে খ্যাত ল্যাংড়া, এর পর পর্যায়ক্রমে ফজলী, রূপালী ও আশ্বীনা।

গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর আমের ভাল দাম পেয়ে খুশি আম চাষীরা। এবছর গুটি জাতীয় আম ১মন (৫২কেজি) বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১৫০০টাকা পর্যন্ত। গোপালভোগ একই ওজনে প্রতি মন আম বিক্রি হচ্ছে ২৪০০ থেকে ২৮০০টাকা পর্যন্ত। আর খিরসাপাত(হিমসাগর) প্রতি মন বিক্রি হচ্ছে ২৮০০ থেকে ৩৫০০ টাকা পর্যন্ত।

পোরশা উপজেলার বেশ কয়েকটি বাজারের আমের আড়ৎগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে, ব্যাপকভাবে আম বেচা-কেনা শুরু হয়েছে। প্রতিদিন এ উপজেলার বিভিন্ন আড়ৎ থেকে প্রায় অর্ধ শতাধীক ট্রাকে করে দেশের বিভিন্ন শহর এবং এলাকায় আম রপ্তানী করা হচ্ছে।

পোরশা উপজেলার সহড়ন্দ গ্রামের আমচাষী হাবিবুর রহমান জানান, এবছর আম মৌসুমের শুরু থেকে আবহাওয়া ভাল থাকলেও গাছে মুকুল আসার পরই কয়েকবার আকাশের বৃষ্টি হওয়ায় অনেক মুকুল ঝরে গিয়েছিল। এ কারনে এবছর আমের ফলন তুলনামূলক কম। তবে গত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর বাজারে আমের দাম অনেক ভাল। যে কারনে ফলন কম হলেও, দাম ভাল পেয়ে ক্ষতি পুষিয়ে যাবে বলে জানান তিনি। উপজেলার পাইকারী আম ব্যাবসায়ী সজল মিয়া জানান, তাদের আড়তে প্রতিদিন গুটি, গোপালভোগ ও খিরসাপাত আম বেচা কেনা হচ্ছে। একদিকে এলাকায় আমের ফলন কম, অন্যদিকে মোকামে চাহিদা বেশি থাকায় অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর আমের দাম অনেক বেশি।

পোরশা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মামুনূর রশিদ জানান, নওগাঁ জেলার অন্যান্য উপজেলার মধ্যে সর্বোচ্চ আম চাষ হয় পোরশা উপজেলায়। এবছর এ উপজেলায় ১০হাজার ৬শ হেক্টর জমিতে আম চাষ করা হয়েছে। পোরশা উপজেলার মাটি আম চাষ করার উপযোগী। মাটি ভাল হওয়ার কারনে এখানকার আম অনেক সুস্বাদু বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



ডিএমপির ৪ সহকারী পুলিশ কমিশনারকে বদলি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বদলি করে নতুন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) পদমর্যাদার ৪ জন কর্মকর্তাকে ।

বুধবার (৫ জুন) ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়।

বদলি কর্মকর্তারা হলো- সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. শাহিনুর ইসলামকে ডিএমপির ক্রাইম কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সেন্টারে, মো. হাফিজুর রহমানকে ট্রাফিক সবুজবাগ জোনে, নজরুল ইসলামকে লালবাগ বিভাগের কোতোয়ালী জোনে এবং কাজী ওয়াজেদ আলীকে মতিঝিল বিভাগের পেট্রল খিলগাঁও হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।


আরও খবর