Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

ফরিদপুরে কমেছে পেয়াজের ঝাঝ,ভোক্তা অধিকারের অভিযান অব্যাহত

প্রকাশিত:সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৯১জন দেখেছেন

Image

টিটুল মোল্লা,ফরিদপুর:গত দুই দিন পর পেয়াজের বাজার অস্থিরতার ঝাঝ কিছুটা কমতে শুরু করেছে।আজ সোমবার শহরের হাজী শরিয়াতুল্লাহ বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে পেয়াজের দাম কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে।

গত শুক্রবার ভারত থেকে পেয়াজ আমদানী বন্ধ এমন ঘোষনার পর থেকে বাজারে আকাশ ছোয়া দামে বিক্রি হতে থাকে।বাজারে পেয়াজের সংকট ও অসাধু কিছু ব্যবসায়ীর দৌরাত্বে এমন দামের প্রভাব নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতা দের পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ। এদিকে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে আজও পেয়াজের বাজার মনিটরিং চলছে। এ ব্যাপারে

জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ সোহেল শেখ জানান, হঠাৎ করে অস্বাভাবিক ভাবে পেয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় তারা জেলার বিভিন্ন পেয়াজের আড়ত ও খুচরা বাজারে ভ্রাম্যমান অভিযান পরিচালনা চলছে। আড়তদারদের ক্রয় রশিদ পরীক্ষা করে যৌক্তিক দামে পেয়াজ বিক্রির জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ভোক্তা অধিকার আইনের ব্যপ্তয় হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মুড়িকাটা পেয়াজ পুরোদমে উঠতে শুরু করলে বাজার পরিস্থিতি আরো স্বাবাবিক হবে বলে তিনি আশা করেন।জেলার বাজারের মুড়িকাটা নতুন পেয়াজ ১০০-১১০টাকা, দেশী পুরাতন পেয়াজ ১৫০-১৬০ টাকা এবং ভারতীয় পেয়াজ ১০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।


আরও খবর



মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ২০০তম জন্মবার্ষিকী আজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:বাংলা সাহিত্যের অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ২০০তম জন্মবার্ষিকী আজ ।উনবিংশ শতাব্দীর বিশিষ্ট বাঙালি কবি ও নাট্যকার তথা বাংলা সাহিত্যের নবজাগরণের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব ছিলেন  মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত। মহাকবি মাইকেল মদুসূদন দত্ত ১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি কেশবপুর উপজেলার কপোতাক্ষ নদের তীরে সাগরদাঁড়ি গ্রামে বিখ্যাত দত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।তার পিতা রাজনারায়ণ দত্ত ছিলেন জমিদার।মা ছিলেন জাহ্নবী দেবী।মধুসূদনের প্রাথমিক শিক্ষা শুরু হয় মা জাহ্নবী দেবীর কাছে। জাহ্নবী দেবীই তাকে রামায়ন,মহাভারত,পুরাণ প্রভৃতির সঙ্গে সুপরিচিতি করে তোলেন। তেরো বছর বয়সে মদুসূদন দত্ত কলকাতা যান এবং স্থানীয় একটি স্কুলে কিছুদিন পড়াশোনার পর তিনি সেসময়কার হিন্দু কলেজে (বর্তমানে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়) ভর্তি হন।তিনি বাংলা, ফরাসি ও সংস্কৃত ভাষায় শিক্ষালাভ করেন।এরপর  তিনি কলকাতার বিশপস কলেজে অধ্যয়ন করেন।এখানে তিনি গ্রিক, ল্যাটিন ও সংস্কৃত ভাষা শেখেন।পরবর্তীতে আইনশাস্ত্রে পড়ার জন্য তিনি ইংল্যান্ড যান। 

মাইকেল মদুসূদন দত্ত বাংলা ভাষায় সনেট ও অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক ছিলেন।তিনি বাংলা সাহিত্যের পাশাপাশি ইংরেজি সাহিত্যেও অসামান্য অবদান রাখায় বিশ্ববাসী এ ধীমান কবিকে মনে রেখেছে কৃতজ্ঞচিত্তে।পাশ্চাত্যের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে ১৮৪৩ সালে খৃষ্টধর্মে দিক্ষিত হন এবং মাইকেল উপাধি গ্রহণ করেন।ইংরেজি সাহিত্যে তাঁর কীর্তির যথাযথ মূল্যায়ন না হওয়ায় তিনি মনক্ষুন্ন হয়ে পড়েন।ইংরেজি সাহিত্য থেকে দূরে সরে বাংলা ভাষায় সাহিত্য রচনায় মনোনিবেশ করেন।বাংলা সাহিত্যে মাইকেল মদুসূদন দত্তের কালজয়ী রচনাবলীর অন্যতম হলো মেঘনাদবধ কাব্য,দ্য ক্যাপটিভ লেডী,শর্মিষ্ঠা,ক্যাপটিভ লেডী,তিলোত্তমাসম্ভব কাব্য, কৃষ্ণকুমারী, বুড়ো শালিকের ঘাঁড়ে রোঁ,পদ্মাবতী,ব্রজঙ্গনা কাব্য, বীরাঙ্গনা কাব্য,হেক্টরবধ,চতুর্দশপদী কবিতাবলী। 

মাইকেল মদুসূদন দত্ত ১৮৫৯ সালে রচনা করেন পৌরাণিক নাটক শমিষ্ঠা।১৮৬০ সালে রচনা করেন একেই বলে সভ্যতা, বুড়ো শালিকের ঘাঁড়ে রোঁ এবং পদ্মাবতী নাটক।পদ্মাবতী নাটকেই তিনি প্রথম অমিত্রাক্ষর ছন্দ ব্যবহার করেন।এরপর ১৮৬১ সালে মেঘনাদ বধ মহাকাব্য, ব্রজঙ্গনা কাব্য, কৃষ্ণকুমারী নাটক, ১৮৬২ সালে পত্রাকাব্য বীরাঙ্গনা এবং ১৮৬৬ সালে চতুর্দশপদী কবিতাবলী রচনা করেন।  

এ মহাকবির জন্মের কারণেই সাগরদাঁড়ি ও কপোতাক্ষ নদ জগৎবিখ্যাত। কালের প্রবাহে কপোতাক্ষ নদের যৌবন বিলীন হলেও মাইকেলের কবিতার কপোতাক্ষ নদ যুগে যুগে বয়ে চলেছে।১৮৭৩ সালে ২৯ জুন কলকাতায় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন এ মহাকবি।কলকাতায় তাকে সমাধিত করা হয়।

কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ তুহিন হোসেন বলেন, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ২০০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কবির জন্মভিটা উপজেলার কপোতাক্ষ নদের পাড়ে সাগরদাঁড়িতে গত ১৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে নয়দিনব্যাপি মধুমেলা।হাজারো মধুভক্তের উপস্থিতিতে প্রতিদিন মুখরিত হচ্ছে মেলা প্রাঙ্গণ।মধুমঞ্চের আলোচনা সভা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্যান্ডেলে সার্কাস, যাদু প্রদর্শনী, মৃতুকূপসহ প্রতিদিনের বিভিন্ন আকর্ষনীয় খেলাধুলা দর্শকদের নজর কাড়ছে।শিশুরা নগরদোলায় চড়ে খুব আনন্দ পাচ্ছে।মেলায় জনসমাগম বাড়াতে যশোর শহরসহ কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে প্রতি নিয়ত মধুমেলার প্রচার-প্রচারণা চলছে।
সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত বলেন,মেলা শুরুর দিন থেকে সাগরদাঁড়ি এলাকাসহ আশপাশের গ্রামে আত্মীয়-স্বজন এসে ‘মধুমেলা’ উপভোগ করছেন। এ মেলাকে কেন্দ্র করে অনেকেই মেয়ে-জামাই, বন্ধু-বান্ধবসহ আত্মীয়-স্বজনদের দাওয়াত দিয়েছেন।প্রতি বাড়িতে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। অন্যবারের তুলনায় এবারের মেলায় অনেক বেশি দর্শনার্থী ও মধুপ্রেমীদের সমাগম ঘটছে বলে তিনি জানান।

যশোর জেলা প্রশাসন ও কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত মধুমঞ্চে প্রতিদিন মহাকবির স্মৃতিময় জীবনী নিয়ে আলোচনা সভায় দেশবরেণ্য খ্যাতিমান কবি সাহিত্যিকরা উপস্থিত থাকছেন।মধুমেলায় গ্রামীণ কুটির শিল্পপণ্যসহ বিভিন্ন পণ্যের প্রায় ৪শ’ ষ্টল বসেছে।

আরও খবর



মধুপুরে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বাল্যবিবাহ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩৩২জন দেখেছেন

Image

বাবুল রানা মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলাধীন কুড়ালিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড মেম্বার আঃ আজিজের ছেলের সাথে ১৩ বছরের মেয়ের বিয়ে সংঘটিত হয়েছে।দীর্ঘদিন পর মধুপুরে এতো অল্প বয়সের একটি কিশোরী মেয়ের বিয়ে সংঘটিত হলো।জানা যায়, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া কেশরগন্জ এলাকায় একটি বাল্যবিবাহ  সংঘটিত হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলবাড়িয়া পুলিশ প্রশাসন এবং সাংবাদিক মিলে ঘটনা স্থলে গিয়ে সত্যতা পেয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।

এসময়  প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্ষন্ত ছেলে মেয়ের বিয়ে দিবেন না বলে একটি অঙ্গিকার নামায় স্বাক্ষর  প্রদান করেন উভয় পক্ষের অভিভাবক।  কিন্তু পরবর্তীতে সুকৌশলে ছেলের বাবা কুড়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আঃ আজিজ সেখান থেকে মেয়েকে এনে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে নিজ বাড়িতে  বিয়ে সম্পুর্ন করেন বলে জানা যায়।  বিষয়টি মধুপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেনকে অবহিত করা হলে তিনি ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য স্হানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আঃ মান্নানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানান।

উক্ত বিয়ে বেশ কয়েকদিন আগে সংঘটিত হয়েছে বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান।ঘটনাটি ঘটেছে ১৪ ফেব্রুয়ারী বুধবার বিকেলে উপজেলার কুড়ালিয়া গ্রামে। বাল্য বিবাহ রোধে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপদেশ দিয়া আসছেন মধুপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত মোল্লা আজিজুর রহমান।

তিনি মাদক, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং সহ মোবাইলের অপব্যবহার রোধে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্র ছাত্রী ও অভিভাবকদের পরামর্শ দিয়ে ব্যাপক আলোচনায় এসেছেন। এ বাল্যবিবাহের ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি সরেজমিনে দেখে বাল্যবিবাহ সংঘটিত ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে না পারলে ভবিষ্যতে অনেক ফুটফুটে কিশোরী অকালে ঝরে পড়বে এমনটাই বলছেন এলাকার সুধী মহল।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



পাকিস্তানে নির্বাচনের ফলাফলে এগিয়ে স্বতন্ত্ররা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা দীর্ঘ প্রতিক্ষা শেষে ধাপে ধাপে করা হচ্ছে। শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পৌনে ৫টা পর্যন্ত ১৩৬টি আসনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

এরমধ্যে এগিয়ে রয়েছে স্বতন্ত্ররা, যেখানে বেশিরভাগই ইমরান খানের সমর্থিত। পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের (ইসিপি) ওয়েবসাইট থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ইসিপির তথ্যমতে, স্বতন্ত্ররা পেয়েছে ৫৪টি আসন। নওয়াজ শরীফের পিএমএল-এন পেয়েছে ৩১টি আসন। বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পিপিপি (পি) পেয়েছে ৩০টি আসন। একটি আসন পেয়েছে জমিয়ত উলেমা-ই-ইসলাম ফজল (জিইউআই-এফ)। মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্টের (এমকিউএম) পেয়েছে তিনটি আসন।

পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যম ডনের  তথ্যমতে, নির্বাচনে ইমরান খানের দল পিটিআই সমর্থিতরা ২৮টি আসন পেয়েছে। পিএমএল-এন ২০টি ও পিপিপি (পি) পেয়েছে ১৮ আসন।

কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আর-জাজিরা জানিয়েছে, স্বতন্ত্ররা ৫১টি আসন পেয়েছে, যার মধ্যে ইমরান খানের সমর্থিতরাও রয়েছে। ৩৯টি আসন পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পিএমএল-এন। আর তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে পিপিপি (পি)। দলটি পেয়েছে ৩৩টি আসন।

এবার পাকিস্তানের ২৬৫ আসনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। একটি আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। ভোটগ্রহণের কয়েকদিন আগে সেখানে দুর্বৃত্তদের গুলিতে একজন প্রার্থী নিহত হওয়ায় সেখানকার ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

পাকিস্তানের কোনো দলকে সরকার গঠন করতে হলে এককভাবে তাদের ১৩৪টি আসনে জিততে হবে। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, পাকিস্তানে এবার কোনো দল নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না–ও পেতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলে পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এরপর শুরু হয় ভোট গণনা কার্যক্রম। তবে, ফলাফল দেরিতে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে। অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) দাবি, ফলাফল পরিবর্তন করতেই দেরি করা হচ্ছে। তবে, এ বিষয় মানতে নারাজ ইসিপি।

ফলাফল দেরিতে প্রকাশের কারণ জানিয়ে ইসিপির বিশেষ সচিব জাফর ইকবাল বলেন, ইন্টারন্টে পরিষেবার জন্যই ফলাফল প্রকাশে দেরি হচ্ছে।


আরও খবর

সোনার খনি ধসে ভেনেজুয়েলায় নিহত ২৩

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার অভাবে ভ্যান চালকের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার অভাবে ভ্যান চালকের মৃত্যু। ফুলবাড়ী উপজেলা শিবনগর ইউপির ঘাটপাড়া গ্রামের মৃত্যু মোস্তাব এর পুত্র মোঃ দুলাল (৩৫) বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় অসুস্থ অবস্থায় ফুলবাড়ী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। ভর্তি হওয়ার পর সে চিকিৎসার জন্য ছটপট করে। এ সময় কর্তব্যরত নার্স সাবিনা ইয়াসমিন কে অক্সিজেন দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন দুলাল।

কিন্তু কর্তব্যরত নার্স তার কোন কথা কর্ণপাত না করে চলে যান। সকাল সাড়ে ১০টায় দুলাল চিকিৎসার অভাবে হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। কর্তব্যরত দায়িত্বে ছিলেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আলমগীর, নার্স সাবিনা ইয়ামিন, মোছা: সুরাইয়া বেগম ও মিনারা বেগম। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এলাকাবাসী বিনা চিকিৎসায় দুলাল এর মৃত্যু হওয়ায় ন্যায় বিচারের দাবী জানান।

ঐ ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী ও রোগীরা জানান, সে অক্সিজেন ও চিকিৎসা পাওয়ার জন্য কর্তব্যরত নার্সদেরকে বার বার অনুরোধ করছিলেন কিন্তু তার কোন কথা কেউ কর্ণপাত করেন নি।

এদিকে ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ অপ্রিতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে এ জন্য ফুলবাড়ী পৌর সভার মেয়র আলহাজ্ব মাহমুদ আলম লিটন স্থানীয় জনগণকে শান্ত হওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি জানান, এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত কমিটি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা অপরাধী তারা অবশ্যই শাস্তি পাবে।

অপর দিকে ফুলবাড়ী পৌর সভার প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরী মানুন জানান,ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স এর দায়িত্বে যারা রয়েছেন তারা রোগীদের প্রতি কোন গুরুত্ব দেন না। গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে এবং প্রশাসনের গুরুত্ব না থাকায় এই ধরনের ঘটনা দুঃখ জনক। যারা অপরাধী তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে।

ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা: মশিউর রহমান জানান, যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত দুঃখ জনক। তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আইন শৃঙ্খরা রক্ষার্থে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। বিচারের অসস্থ হওয়ায় দুলাল এর আত্মীয় স্বজনেরা লাশ নিজ বাড়ীতে নিয়ে যায়। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল।


আরও খবর



নবীনগর বড়হিত মৌড়ের ট্রাক্টর উল্টে খাদে পরে চালকসহ নিহত ২ আহত ১

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

মোহাম্মাদ হেদায়েতুল্লাহ্   নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া  প্রতিনিধি;- ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে ট্রাক্টর উল্টে খাদে পরে চালকসহ দুজন নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে একজন। আজ বৃহস্প্রতিবার সকালে উপজেলার নাটঘর ইউনিয়ন বড়হিত মৌড়ের পূর্ব পাশে নবীনগর টু রাধিকা সড়কে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন ব্রাহ্মণহাতা নারুই গ্রামের মো. আলামিন মিয়ার ছেলে মো. রাকিব মিয়া (১৫)।


নিহতরা হলেন- উপজেলার কাইতলা উত্তর ইউনিয়ন ব্রাহ্মণহাতা (নারুই) গ্রামের বজলু মিয়ার ছেলে আমির হোসেন (১৫) ও আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়ন রুটি খামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে চালক এনামুল হোসেন ৩৫।


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বড়হিত মৌড়ের পূর্ব পাশে নবীনগর টু রাধিকা সড়কে একটি ট্রাক্টর বেপরোয়া গতিতে শিবপুরের দিকে যাচ্ছিলো। এ সময় ট্রাক্টরটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে খাদে পরে যায়। ঐ সময় চালকসহ সহকারী ঘটনাস্থলে মারা যান। গুরুতর আহত হন ট্রাক্টরের আরেক সহকারী। স্থানীয়রা এসে গুরুতর আহত অবস্থায় একজন কে উদ্ধার করলেও দুজন ঘটনা স্থলে মারা যান। আহত হওয়া ব্যাক্তি কে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তারা আরও বলেন, অদক্ষ ড্রাইভার দিয়ে গাড়ি চালানোর কারণে এবং রাধিকা টু নবীনগর রোড নতুন হওয়ায় গাড়ির ড্রাইভার গুলো বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালায়।এতে প্রায় দূর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। 


নবীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম জানান, একটি ট্রাক্টর শিবপুরের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে বেপরোয়া গতির কারণে বড়হিত এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক্টরটি খাদে পড়ে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রাক্টর চালক এনামুল ও তার তার সহযোগী আমির মারা যান। দুর্ঘটনায় ট্রাক্টর চালকের আরেক সহযোগী রাকিব আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে।

        -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর