Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ৯৩.৫৮ শতাংশ

প্রকাশিত:Thursday ৩০ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৬৪জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষায় এবার গড়ে ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাস করেছে। গতবার ছিল ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ। সেই হিসাবে এবার পাসের হার বেড়েছে ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিস্তারিত তথ্য জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শিক্ষা বোর্ডগুলোর সূত্রে জানা গেছে, মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এবারের মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪০ হাজার ৩৯৫ জন। এর মধ্য উত্তীর্ণ হয়েছে ২০ লাখ ৯৬ হাজার ৫৪৬ জন।

৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ৯৪ দশমিক ০৮, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পাসের হার ৯৩ দশমিক ২২, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৮৮ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

কুমিল্লা বোর্ডে গড় পাসের হার ৯৬ দশমিক ২৭ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ১৪ হাজার ৬২৬ জন। চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ৯১ দশমিক ১২ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ১২ হাজার ৭৯১ জন। রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৯৪ দশমিক ৭১ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ২৭ হাজার ৭০৯ জন।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের গড় পাসের হার ৯০ দশমিক ১৯, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ১০ হাজার ২১৯ জন। সিলেট বিভাগে গড় পাসের হার ৯৬ দশমিক ৭৮, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ৪ হাজার ৮৩৪ জন শিক্ষার্থী।

আজ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  এরপর পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পরীক্ষার ফলাফল সবার কাছে অনলাইনে পৌঁছে যাবে। এ সময় তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, নিজের হাতে বাচ্চাদের হাতে নতুন বই তুলে দিতে পারলাম না। দুঃখ থেকে গেল, তবে এর জন্য করোনা দায়ী।’

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এসএসসি ও সমমানের ফল গ্রহণ করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এ সময় বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে শিক্ষামন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে সাংবাদিকদের কাছে ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন। এর আগে বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে পরীক্ষার ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ফলাফল গ্রহণ করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

পরীক্ষার্থীরা শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইট ও এসএমএসের মাধ্যমে ফল জানতে পারবে। এ ছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিষ্ঠানে গিয়ে সবাইকে ফল দেখার অনুরোধ জানিয়েছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবার ১৪ নভেম্বর এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়। এর মাধ্যমে দেড় বছর পর প্রথম কোনো পাবলিক পরীক্ষায় বসে শিক্ষার্থীরা। সব বোর্ড মিলিয়ে এবার এসএসসিতে পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪০ হাজার ৩৯৫ জন।

এবার সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে তিনটি নৈর্বচনিক বিষয়ে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে বাংলা, ইংরেজির মতো আবশ্যিক বিষয়গুলোতে এবার পরীক্ষা না নিয়ে আগের পাবলিক পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হয়।


আরও খবর



‘দেশে যতদিন কৃষিবিদ আছে ততদিন কেউ না খেয়ে থাকবে না’

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান বলেছেন, যতদিন কৃষিবিদ আছে ততদিন এ দেশে কেউ না খেয়ে থাকবে না। দেশবরেণ্য কৃষিবিদরা দেশের সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রেখে চলেছেন।

শনিবার (৩১ জুলাই) বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি খন্দকার তায়েফুর রহমান রিয়াদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন মিলনায়তনে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

jagonews24

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আহনাফ আনজুম দারার সভাপতিত্বে ও আবদুল্লাহ আল নোমান নাঈমের সঞ্চালনায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য মো. ইকরামুল হক টিটু।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা ড. খান মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহির উদ্দিন, রেজিস্ট্রার মো. সাইফুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. এ কে শাকুর আহম্মদ।

অনুষ্ঠানে বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াদ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়কে মাদক ও র্যাগিংমুক্ত রাখতে আমি দৃঢ় অঙ্গীকার বদ্ধ। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের সৎ ও সোচ্চার থেকে কাজ করার নির্দেশ দেন।


আরও খবর



বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯ জনের চাকরি

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ০৫টি পদে ১৯ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ৩০ আগস্ট ও ০৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

পদের বিবরণ
jagonews24

চাকরির ধরন: স্থায়ী
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
কর্মস্থল: বরিশাল

আবেদনপত্র সংগ্রহ: বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস ও ওয়েবসাইট www.bu.ac.bd থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন।

আবেদনের ঠিকানা: রেজিস্ট্রার, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, কর্ণকাঠী, বরিশাল সদর, বরিশাল-৮২৫৪।

আবেদনের শেষ সময়: ১ নং পদের জন্য ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ এবং ২-৫ নং পদের জন্য ৩০ আগস্ট ২০২২

সূত্র: ইত্তেফাক, ১৮ আগস্ট ২০২২


আরও খবর



চলতি বছর গ্যাসের মূল্য দ্বিগুণ হবে: রাশিয়া

প্রকাশিত:Wednesday ১৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

চলতি বছর অর্থাৎ ২০২২ সালেই নিজেদের রপ্তানিযোগ্য গ্যাসের মূল্য দ্বিগুণ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে রাশিয়া। দেশটি জানিয়েছে, প্রতি এক হাজার ঘন মিটার গ্যাসের গড় মূল্য বেড়ে ৭৩০ ডলারে দাঁড়াতে পারে। এদিকে পাইপলাইনের মাধ্যমে ইউরোপে গ্যাস রপ্তানি কমিয়েছে পুতিন প্রশাসন। বুধবার (১৭ আগস্ট) রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ইউক্রেনে হামলার পর রাশিয়ার ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে পশ্চিমা দেশগুলো। এরপর পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ইউরোপে গ্যাসের সরবরাহ কমিয়েছে রাশিয়া। তাছাড়া গ্যাসের দাম রাশিয়ার মুদ্রায় পরিশোধ করতে অস্বীকার করায় ইউরোপের বেশ কিছু দেশে গ্যাসের সরবরাহ বন্ধ রেখেছেন পুতিন।

এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বজুড়ে গ্যাসের দাম বেড়ে আকাশচুম্বী হয়েছে। এদিকে রাশিয়ার অর্থমন্ত্রণালয় পূর্বাভাসে জানিয়েছে, গ্যাজপ্রম দ্বারা পাইপলাইনে গ্যাস রপ্তানি এই বছর কমে ১৭০ দশমিক ৪ বিলিয়ন ঘনমিটারে দাঁড়াবে। যদিও মে মাসে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল ১৮৫ বিলিয়ন ঘন মিটার। ২০২১ সালে পাইপলাইনের মাধ্যমে ২০৫ দশমিক ৬ বিলিয়ন ঘন মিটার গ্যাস রপ্তানি করা হয়।

অন্যদিকে রাশিয়া থেকে ফের জ্বালানি তেল আমদানি শুরু করেছে জাপান। দেশটির অর্থমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জুলাই থেকে আমদানি শুরু হয়েছে। এর আগে রাশিয়া থেকে জ্বালানি আমদানি বন্ধ রাখে জাপান। রাশিয়ার ওপর পশ্চিমাদের নিষেধাজ্ঞা ছিল এর অন্যতম কারণ। তাছাড়া ইউক্রেনে হামলাকে কেন্দ্র করে জাপানও রাশিয়ার ওপর বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

জুলাই মাসে জাপান কী পরিমাণ রাশিয়ান তেল আমদানি করেছে তা স্পষ্ট করে জানায়নি মন্ত্রণালয়টি। তবে বলা হয়, গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৬৫ দশমিক ৪ শতাংশ কম জ্বালানি তেল আমদানি করা হয়েছে। তাছাড়া এলএনজি আমদানি কমেছে ২০২১ সালের জুলাইয়ের চেয়ে ২৬ দশমিক ১ শতাংশ। পাশাপাশি কয়লার আমদানি কমেছে ৪০ দশমিক এক শতাংশ।


আরও খবর



ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, অপরজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

কুষ্টিয়ায় ব্যবসায়ী আবুল কাশেমকে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড ও অপরজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুরে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া ২নং মসজিদ গলি লেনের বাসিন্দা মো. আজাদ হোসেন (৫২) এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত হলেন- কুষ্টিয়া হাউজিং এলাকার বাসিন্দা মো. মিন্টু হোসেন (৪৫)।

রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া জজ কোর্টের সরকারি কৌসুলি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, ২০১৪ সালের ১৪ আগস্ট রাত পৌনে ১০টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের এন এস রোডের ফুডকিং ফাস্ট ফুডের মালিক আবুল কাশেম দোকান থেকে বাসায় ফিরছিলেন। পথে কুতুব উদ্দিন আহমেদ লেন দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় আসামিরা দলবদ্ধভাবে হামলা চালিয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে। পরে আহত অবস্থায় আবুল কাশেমকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে ইফতেখার আহমেদ নাইম বাদী হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখ করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলাটি কুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক আশরাফুল আলম তদন্ত শেষে ২০১৫ সালে ৭ জুলাই দুইজনের বিরুদ্ধে হত্যার দায়ে জড়িত অভিযোগ এনে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। পরে দীর্ঘ বিচারকাজ শেষে বৃহস্পতিবার আদালত এই রায় ঘোষণা করেন।


আরও খবর



গ্রাহকের টাকা অবৈধভাবে খরচ করছে ডায়মন্ড লাইফ

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

বছরের পর বছর গ্রাহকদের টাকা অবৈধভাবে ব্যয় করছে জীবন বিমা কোম্পানি ডায়মন্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স। ব্যবসা শুরুর পর একে একে আট বছর পার করলেও বিমা কোম্পানিটি খরচের লাগাম টেনে ধরতে পারেনি। আইন লঙ্ঘন করে মাত্রাতিরিক্ত টাকা খরচ করায় কোম্পানিটির পলিসিহোল্ডার বা গ্রাহকরা ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এছাড়া প্রতি বছর তামাদি (ল্যাপস) হয়ে যাচ্ছে কোম্পানিটির বিক্রি করা বিমা পলিসির বড় একটি অংশ। নতুন পলিসি যে পরিমাণ বিক্রি হচ্ছে বছর ঘুরে নবায়ন প্রিমিয়াম আদায় হচ্ছে তার অর্ধেকেরও কম। ফলে খরচ দেখিয়ে টাকা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে কি না, তা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন।

কোম্পানিটি বিমা ব্যবসার নিবন্ধন সনদের শর্তও লঙ্ঘন করেছে। অন্যতম শর্ত ছিল তিন বছরের মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া। তবে ২০১৩ সালে নিবন্ধন পেয়ে ২০১৪ সালে ব্যবসা শুরু করা কোম্পানিটি আট বছর পার করেও পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে পারেনি।

একটি জীবন বিমা কোম্পানি ব্যবস্থাপনা খাতে কী পরিমাণ অর্থ ব্যয় করবে তা আইন দ্বারা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। কোম্পানিটি সেই সীমা মানেনি। জাগো নিউজের অনুসন্ধানে জানা যায়, আইন অনুযায়ী সবশেষ সমাপ্ত ২০২১ সালে ডায়মন্ড লাইফের ব্যবস্থাপনা খাতে সর্বোচ্চ ব্যয়ের সীমা নির্ধারিত ছিল ১২ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। তবে বছরটিতে কোম্পানিটি ব্যয় করেছে ১৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। অর্থাৎ আইন লঙ্ঘন করে প্রতিষ্ঠানটি দুই কোটি টাকা অতিরিক্ত ব্যয় করেছে।

শুধু ২০২১ সাল নয়, এর আগের বছরগুলোতেও এই জীবন বিমা কোম্পানিটি ব্যবস্থানা খাতে আইন লঙ্ঘন করে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছে। ২০২০ সালে কোম্পানিটি আইন লঙ্ঘন করে ব্যবস্থাপনা খাতে অতিরিক্ত ব্যয় করে ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। বছরটিতে ব্যবস্থাপনা খাতে কোম্পানিটির সর্বোচ্চ ব্যয় নির্ধারিত ছিল ১০ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। তবে কোম্পানিটি ব্যয় করে ১২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।

এর আগে ব্যবস্থাপনা খাতে আইন লঙ্ঘন করে ২০১৯ সালে ৪ কোটি ১৭ লাখ টাকা, ২০১৮ সালে ৪ কোটি ৭৪ লাখ টাকা এবং ২০১৭ সালে ২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা অবৈধভাবে খরচ করে কোম্পানিটি।

ব্যবস্থাপনা খাতে অবৈধভাবে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করায় কোম্পানিটির পলিসিহোল্ডার ও শেয়ারহোল্ডাররা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। আইনি সীমার অতিরিক্ত যে টাকা ব্যয় করা হচ্ছে তার ৯০ শতাংশই প্রতিষ্ঠানের পলিসিহোল্ডাররা প্রাপ্য। বাকি ১০ শতাংশের ভাগিদার শেয়ারহোল্ডাররা।

আইন লঙ্ঘন করে ব্যবস্থাপনা খাতে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে ডায়মন্ড লাইফের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পিপলু বিশ্বাস জাগো নিউজকে বলেন, আমরা ব্যবস্থাপনা ব্যয় আইনি সীমার মধ্যে নিয়ে আসার পরিকল্পনা নিয়েছি। আশা করি ২০২২ সালে আমাদের ব্যয় আইনি সীমার মধ্যে থাকবে।

ব্যবসা শুরুর পর ২০২১ সাল পর্যন্ত প্রতিটি বছরেই আইনি সীমার অতিরিক্ত অর্থ ব্যবস্থাপনা খাতে ব্যয় হয়েছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন গ্রাহকরা, এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, অতীতে যাই হোক, এবার আমরা ব্যয় আইনি সীমার মধ্যেই রাখবো।

ব্যবস্থাপনা খাতে অস্বাভাবিক অর্থ ব্যয় করা হলেও প্রতি বছর কোম্পানিটি নতুন যে প্রিমিয়াম আয় করছে পরবর্তী বছরে নবায়ন প্রিমিয়াম বাবদ আদায় হচ্ছে তার খুবই নগন্য পরিমাণ। ২০২১ সালে কোম্পানিটি নবায়ন প্রিমিয়াম আয় করেছে ৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। অথচ আগের বছর কোম্পানিটি প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম আয় করে ১১ কোটি ৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ, নবায়নে কোম্পানিটির অর্ধেকের বেশি প্রিমিয়াম আদায় হয়নি।

এ চিত্র শুধু ২০২১ সালের নয়। কোম্পানিটি ব্যবসা শুরুর পর থেকেই নবায়ন প্রিমিয়াম আদায়ে এমন দশা বিরাজ করছে। ২০২০ সালে কোম্পানিটি নবায়ন প্রিমিয়াম আদায় করে ৩ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। তার আগে ২০১৯ সালে ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা, ২০১৮ সালে ২ কোটি ৮২ লাখ টাকা এবং ২০১৭ সালে ১ কোটি ৭০ লাখ টাকা নবায়ন প্রিমিয়াম বাবদ আদায় হয়।

অথচ ২০১৯ সালে ডায়মন্ড লাইফ প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম আয় দেখায় ৯ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। তার আগে ২০১৮ সালে ৮ কোটি ২৫ লাখ টাকা এবং ২০১৭ সালে ১০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম বাবদ আয় দেখায় জীবন বিমা কোম্পানিটি। অর্থাৎ প্রতি বছর কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয়ের অর্ধেকেরও বেশি অর্থ নবায়নে আদায় হচ্ছে না।

ডায়মন্ড লাইফের প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম ও নবায়ন প্রিমিয়ারের চিত্র সন্দেহজনক বলছেন বিমা খাত সংশ্লিষ্টরা। একাধিক বিমা কোম্পানির শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, ডায়মন্ড লাইফ প্রতি বছর প্রথমবর্ষ প্রিমিয়াম আয় যা দেখাচ্ছে, পরের বছর নবায়ন প্রিমিয়াম আয় হচ্ছে তার অর্ধেকের কম। এতে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠে, কোম্পানি প্রথমবর্ষ প্রিমিয়াম আয় যা দেখাচ্ছে, প্রকৃতপক্ষে আয় তা হচ্ছে কি না। নাকি অতিরিক্ত প্রিমিয়াম দেখিয়ে কোম্পানি থেকে কমিশনসহ বিভিন্ন খাতের খরচ বাবদ টাকা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে- নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) বিষয়টি খতিয়ে দেখা উচিত।

নবায়ন প্রিমিয়াম অর্ধেকেরও বেশি আদায় না হওয়ার কারণ হিসেবে ডায়মন্ড লাইফের সিইও পিপলু বিশ্বাস জাগো নিউজকে বলেন, নতুন কোম্পানিতে কর্মী ধরে রাখা কষ্টকর। আবার এ খাতে কিছু লোক আছে, যারা কোম্পানি ছেড়ে যাওয়ার পর নানারকম বদনাম ছড়ায়। তবে আমরা নবায়ন প্রিমিয়াম আয় বাড়ানোর চেষ্টা করছি। কেন গ্রাহকরা নবায়ন প্রিমিয়াম দিচ্ছেন না তা জানার জন্য নিয়মিত আমাদের কল সেন্টার থেকে গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

নিবন্ধন সনদের অন্যতম শর্ত ছিল তিন বছরে মধ্যে পুঁজিবাজারে আসতে হবে। কিন্তু আট বছরেও পুঁজিবাজারে আসতে না পারার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে পিপলু বিশ্বাস বলেন, আমাদের কোম্পানির লাইফ ফান্ড পজিটিভ হয়েছে। আমরা পুঁজিবাজারে আসতে কার্যক্রম শুরু করেছি। এরই মধ্যে ইস্যু ম্যানেজার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর