Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

‘এপিক’ গ্যালাক্সি এস২৩ সিরিজ উন্মোচন করলো স্যামসাং

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৭৮জন দেখেছেন

Image

চৌধুরী আসিফ : ডিভাইস পড়ে গিয়ে আকস্মিক দুর্ঘটনা থেকে সুরক্ষায় স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে সর্বাধুনিক গরিলা গ্লাস ভিক্টাস ২ আকর্ষণীয় অফার সহ বাংলাদেশে খুব শীঘ্রই গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা’র প্রি -অর্ডারস শুরু হতে যাচ্ছে!

গ্যালাক্সি এস সিরিজের ফ্যানদের জন্য ২০২৩ সালের বহুল প্রতীক্ষিত ‘এপিক’ স্মার্টফোন গ্যালাক্সি এস২৩, গ্যালাক্সি এস২৩+ ও গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা উন্মোচন করলো স্যামসাং। ২০০ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা,  স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেন ২ প্রসেসর ও গরিলা গ্লাস ভিক্টাস ২ এর মতো দুর্দান্ত সব ফিচার গ্যালাক্সি এস২৩ সিরিজের স্মার্টফোনগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকো থেকে গতকাল ডিভাইসগুলো বিশ্বব্যাপী উন্মোচন করা হয়। গ্যালাক্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানের পর বাংলাদেশেও খুব দ্রুত গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা’র প্রি-অর্ডার গ্রহণ করা শুরু হবে। 

গ্যালাক্সি এস২৩ সিরিজের মাধ্যমে স্যামসাং বাজারে নিয়ে এসেছে নতুন গরিলা গ্লাস ভিক্টাস ২। এটি হাত থেকে পড়ে গিয়ে ফোনের ক্ষতি হওয়া থেকে সুরক্ষা দিবে এবং ফোনের লাইফ সাইকেল ৪-৫ বছর পর্যন্ত বাড়াবে। গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা, গ্যালাক্সি এস২৩+ ও গ্যালাক্সি এস২৩ ডিভাইসগুলয়তে যথাক্রমে ৬.৮ ইঞ্চি, ৬.৬ ইঞ্চি ও ৬.১ ইঞ্চির স্ক্রিন ব্যবহার করা হয়েছে। পাশাপাশি, তিনটি ডিভাইসের থাকবে ১,৭৫০ নিটস ডিসপ্লে ব্রাইটনেস। 

বাংলাদেশে খুব শীঘ্রই গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা প্রি -অর্ডারস শুরু হতে যাচ্ছে! সাথে থাকছে দুর্দান্ত সব অফারস! অফারস এর ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে স্যামসাং এর ফেসবুক পেইজে চোখ রাখুন। 

উন্মোচন করা প্রতিটি ফোনেই থাকবে অ্যান্ড্রয়েড ১৩, কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেন ২ প্রসেসর (বাংলাদেশ সহ সব দেশে), ১২জিবি এলপিডিডিআর৫এক্স র‌্যাম এবং ইউএফএস ৪.০ স্টোরেজ। আগের জেনারেশনগুলোর তুলনায় স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর ২৫ শতাংশ বেশি দ্রুত হবে; যেখানে গেমস খেলার অভিজ্ঞতাকে আরও বাস্তবসম্মত করে তুলবে। একইসাথে, আগের চেয়ে ৪০ শতাংশ বেশি বিদ্যুৎসাশ্রয় করবে স্ন্যাপড্রাগন জেন ২।  

গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রায় থাকছে ওআইএস সহ ২০০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা, অটোফোকাস সহ ১২ মেগাপিক্সেল আলট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা, ৩ী অপটিক্যাল জুম সহ ১০ মেগাপিক্সেল টেলিফটো লেন্স এবং ১০ অপটিক্যাল জুম সহ ১০ মেগাপিক্সেল টেলিফটো ক্যামেরা। আইএসওসিইএলএল এইচপি ২ এর মাধ্যমে ক্যামেরা আরও নিখুঁত ছবি তুলতে পারবে এবং একইসাথে, ৮কে ভিডিওর ক্ষেত্রে ৩০ ফ্রেমস পার সেকেন্ডের ফলে কম আলোতেও ঝকঝকে ভিডিও করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। বাংলাদেশে গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রা ডিভাইসটি ১২/৫১২ জিবি স্টোরেজ সহ পাওয়া যাবে। লো লাইট ফটোগ্রাফির জন্য 'নাইটোগ্রাফি' সহ দারুন সব ফীচার থাকছে গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রায়!

গ্যালাক্সি এস২৩ আলট্রায় থাকছে ৫,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি। পাশাপাশি, থাকছে ফাস্ট ওয়্যারলেস চার্জিং ও রিভার্স ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের সুবিধা। এই ফোনটি চারটি রঙে পাওয়া যাবে: ফ্যান্টম ব্ল্যাক, কটন ফ্লাওয়ার, এবং বোটানিক গ্রিন। 



আরও খবর



বই মানুষকে জ্ঞানের আলোয় আলোকিত করে..পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার)

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৭জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়িতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বই পাঠের প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি করতে পুলিশ সুপারের উদ্যোগে প্রথমবারের মতো নতুন কুঁড়ি ক্যান্টনমেন্ট হাই স্কুলে ’’বই পাঠ” উৎসব অনুষ্ঠিত।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি)  খাগড়াছড়ি নতুন কুঁড়ি ক্যান্টনমেন্ট হাই স্কুলে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি  জেলার  পুলিশ সুপার  মুক্তা ধর পিপিএম (বার)।

 পুলিশ সুপার মহোদয় উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের বলেন, যখন বই পড়বে তখন আশপাশে কোনো স্মার্টফোন বা ডিজিটাল ডিভাইস রাখবে না। বই পড়ছো এ সময় মোবাইলের একটা নোটিফিকেশনের আওয়াজ তোমার পড়ার বিঘ্ন ঘটাতে পারে। মনোযোগে যেন ব্যাঘাত না ঘটে তার জন্য নিরিবিলি পরিবেশ বই পড়ার স্থান হিসেবে নির্বাচন করবে। প্রযুক্তি আমাদের মনোযোগের ক্ষমতা অনেকটাই নষ্ট করেছে। একদিকে মেসেজের রিপ্লাই, আরেকদিকে ব্রাউজিং, আবার ইমেইল চেক। একসঙ্গে অনেক কাজের এমন বিরূপ আচরণে আমাদের স্ট্রেস বাড়ে। ফলে আমরা মনোযোগ হারাই। বই মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা এবং মনোযোগ দুটোই বৃদ্ধি করে। পাশাপাশি বয়ে আনে মানসিক প্রশান্তি।

প্রধান অতিথি,র বক্তব্যে খাগড়াছড়ি  জেলার  পুলিশ সুপার  মুক্তা ধর পিপিএম (বার) বলেন, বই মানুষকে জ্ঞানের আলোয় আলোকিত করে। জীবন চলার পথ দেখায়। বই পড়ার অভ্যাস গড়তে পারলে জীবন হয় সুন্দর ও সমৃদ্ধ। অন্যান্য সুকর্মের মতোই বই পড়া অভ্যাসে পরিণত হয় সচেতন পরিশ্রম দ্বারা।বক্তব্য শেষে পুলিশ সুপার মহোদয় শিক্ষার্থীদেরকে দুটি দলে (৬ষ্ঠ - ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে জুনিয়র টিম এবং ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে সিনিয়র টিম) ভাগ করেন। তিনি নির্ধারিত দুটি দলের জন্য দুটি বই পাঠ করার জন্য নির্ধারণ করে দেন। সিনিয়র টিমকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা ’’কারাগারের রোজনামচা” এবং জুনিয়র টিমকে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের স্বপ্নদ্রষ্টা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মুজিবকন্যা শেখ হাসিনার লেখা ’’আমাদের ছোট রাসেল সোনা” নামক বইগুলো পাঠ করার জন্য প্রদান করা হয়। বই পাঠ শেষে শিক্ষার্থীদেরকে পাঠ্য বিষয় থেকে ১০টি করে প্রশ্ন লিখতে বলা হয়। 

বই পাঠ অনুষ্ঠানের সমাপ্তিতে ২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয় শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে প্রাপ্ত প্রশ্নসমূহ থেকে গুরুত্বের বিবেচনায় সবচেয়ে সৃজনশীল প্রশ্নকারীকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরষ্কৃত করবেন। মূলত শিক্ষার্থীদের মাঝে বই পড়ার আগ্রহ সৃষ্টি করার লক্ষ্যেই খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মহোদয়  "বাংলাদেশ পুলিশের” পক্ষ থেকে প্রথমবারের মতো খাগড়াছড়ি জেলার প্রতিটি উপজেলায় এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন করা হয়।

এসময় সম্মানীত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়ন লেডিস ক্লাবের সহ-সভানেত্রী  ফারহানা চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস্) জনাব মোঃ জসীম উদ্দিন, পিপিএম, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তানভীর হোসেন, নতুন কুঁড়ি ক্যান্টনমেন্ট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রুশদীনা আখতার জাহান, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরির জেলা কর্মকর্তা জনাব আজিমুদ্দিন সহ অত্র হাই স্কুলের অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

আরও খবর



সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে গাংনীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৫জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,গাংনী(মেহেরপুর) প্রতিনিধিঃমেহেরপুরে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে চ্যানেল ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার রাশেদুজ্জামান ও জবাদিহি পত্রিকার সাংবাদিক সিরাজুদ্দোজা পাভেলের উপর হামলার প্রতিবাদে গাংনীতে মানববন্ধন করা হয়েছে।শনিবার সকাল ১০ টায় গাংনী প্রেস ক্লাবের সামনের আয়োজিত এ মানববন্ধনে জেলা ও উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিক ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের কর্মীরা অংশ গ্রহণ করে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

গাংনী প্রেস ক্লাবের সভাপতি তৌহিদ উদ দৌলা রেজার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বাংলা একাডেমির পদক প্রাপ্ত কথা সাহিত্যিক রফিকুর রশিদ রিজভী, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম শফিকুল আলম, মেহেরপুর প্রেস ক্লাবের আহবায়ক মহাসিন আলী আঙ্গুর, সভাপতি ফজলুল হক মন্টু, গাংনী প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলম, গাংনী রির্পোটারস ক্লাব সভাপতি আনারুল ইসলাম বাবু, গাংনী বাজার কমিটির সভাপতি সালাউদ্দীন শাওনসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মেহেরপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাজেদুল হক মানিক।

বক্তারা বলেন, পেশাগত দায়িত্বপালনকালে সাংবাদিকদের উপর যে বর্বরোচিত হামলা চালানো হয়েছে তা স্বাধীন সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে বড় বাধা। এ ঘটনায় জড়িত সকলকে শাস্তির আওতায় আনতে জোর দাবী জানান মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা।

উল্লেখ্য, গেল ১২ ফেব্রুয়ারী মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপিতে সড়ক দুর্ঘটনায় এক মোটর সাইকেল চালক নিহত হয়। ঘটনাস্থলে দুর্ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ধারণ করার সময় উচ্ছৃংশল কিছু মানুষ সাংবাদিক রাশেদুজ্জামানের উপর বর্বরোচিত হামলা চালায়। তাকে বাঁচাতে ছুটে গেলে তাদের হামলার শিকার হন সাংবাদিক পাভেল। এ ঘটনা মেহেরপুর সদর থানা পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।


আরও খবর



পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল উদ্বোধন ১ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২১জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের  বর্ণিল আয়োজনের মধ্যদিয়ে পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনা বিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারসামগ্রী পরিবেশনসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল-২০২৪ এর আয়োজন করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি)রাঙ্গামাটি জেলার চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে ৩ দিনব্যাপী 
পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনা বিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল- এর  উদ্বোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ঐতিহ্যবাহী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল- উদ্বোধন করবেন  পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, এমপি।

আগামী  ১ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ রাঙ্গামাটি জেলার চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে প্রতিদিন বিকাল ০৩.০০ টা থেকে রাত ০৮.০০ টা পযন্ত পার্বত্য তিন জেলার ১৬ সম্প্রদায়ের রসনাবিলাসসমৃদ্ধ ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারসামগ্রী পরিবেশনসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পার্বত্য সংস্কৃতি প্রতিফলনের লক্ষ্যে ৩ দিনব্যাপী ফুড এন্ড কালচারাল ফেস্টিভ্যাল-২০২৪ এর আয়োজন করেছেন পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান  সুপ্রদীপ চাকমা,র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী  কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, এমপি।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত থাকবেন রাঙ্গামাটি  আসনের  জাতীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  প্রতিমন্ত্রী   দীপংকর তালুকদার, এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব  মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি।

 পার্বত্য চট্টগ্রামের চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, ম্রো, তঞ্চগ্যা, বাঙ্গালি, অহমিয়া, খেয়াং, খুমি, গুর্খা, চাক, পাংখোয়া, বম, লুসাই, রাখাইন এবং সাঁওতালসহ ১৬টি সম্প্রদায় তাদের সুস্বাদু খাবার সামগ্রীসমূহ নিয়ে ঐতিহ্যবাহী এ ফেস্টিভ্যালে অংশগ্রহণ করবে। 

রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান এই তিন জেলা নিয়ে দেশের এক দশমাংশ অঞ্চলের অন্যতম পর্যটন এলাকা পার্বত্য চট্টগ্রাম। বাংলাদেশের ফেস্টিভাল অঞ্চল হিসেবে খ্যাত পার্বত্য চট্টগ্রাম। এ অঞ্চলের ঐতিহ্য ও ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের মাধ্যমে পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসকারী সকল সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবারের সমাহার, কৃষ্টি ও সংস্কৃতি দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকর্ষণ করবে। এ অঞ্চলে বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী খাবারসহ কৃষ্টি ও সংস্কৃতির প্রতিফলন ঘটবে এবং বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নয়নে এক নতুন মাত্রা যোগ হবে। পাশাপাশি এ ফেস্টিভ্যালের মাধ্যমে দেশের পর্যটন সম্পদের সম্ভাবনা আগের চেয়ে অধিকতর প্রসারিত ও বিকশিত হবে। এছাড়া এ কার্যক্রমের মাধ্যমে পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসকারী সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যপূর্ণ বন্ধন আরও সুদৃঢ় হবে।

আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




উপসচিব পদমর্যাদার চার কর্মকর্তাকে বদলি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:নতুন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে উপসচিব পদমর্যাদার চার কর্মকর্তাকে বদলি করে, বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আলাদা প্রজ্ঞাপনে তাদের বদলি করা হয়।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী জনশক্তি রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (বিএমইটি) পরিচালক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ভূইয়াকে প্রেষণে বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিলের পরিচালক, বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবু ছালেহ মো. মুসা জঙ্গীকে বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের পরিচালক, সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেনকে সিলেট জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ছাদেক আহমেদকে জনশক্তি রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (বিএমইটি) পরিচালক পদে প্রেষণে পদায়ন করা হয়েছে।

জনস্বার্থে জারি করা এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।


আরও খবর



গাংনীতে লাউ ক্ষেতের সাথে শত্রুতা চাষির দু’লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২৮জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃআঃ কুদ্দুস নামের এক কৃষকের এক বিঘা জমির লাউ ক্ষেত উপড়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে অন্ততঃ দুই লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেছেন ভুক্তভোগি। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহষ্পতিবার দিবাগত রাতে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বাঁশবাড়িয়া কলোনীপাড়ার মাঠে। সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আব্বাস আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী জমির মালিক মৃত আঃ আজিত মন্ডলের ছেলে কৃষক আব্দুল কুদ্দুস জানান, তিনি এক বিঘা জমিতে ২২০ টি লাউ গাছ রয়েছে। নিজের গচ্ছিত টাকা ছাড়াও এনজিও এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে প্রায় এক লাখ টাকা ঋণ নিয়ে লাউ চাষ করছেন। আশা ছিল দুই লক্ষাধিক টাকা পাবেন লাউ বিক্রি করে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর তিনি লাউ ক্ষেতে কাজ শেষে বাড়ি আসেন। শুক্রবার সকালে গিয়ে তিনি গোটা লাউ ক্ষেত উপড়ানো দেখতে পান। উপায়ান্তর না দেখে বিষয়টি তিনি স্থানীয় সাহারবাটি ইউপি সদস্য আব্বাস আলীকে জানান।

স্থানীয়রা জানান, মাস খানেক আগে এক রাতে স্থানীয় কিছু যুবক ছেলেদের সাথে উচ্চ শব্দে সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে ভুক্তভোগী কৃষকের সাথে বাকবিত-ার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার জেরে কিশোরগ্যাংয়ের সদস্যরা এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। সেই সাথে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক ক্ষতিপূরণ আদায় ও অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান জানান, মানুষের সাথে মানুষের শত্রুতা থাকতে পারে সেটা ফসলের ওপরে গিয়ে প্রভাব পড়বে এটা কখনো কাম্য নয়। যারা এ ধরনের ঘৃণ্যতম ঘটনা ঘটিয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে ক্ষতিপূরণ আদায়সহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি। গাংনী থানার ওসি (তদন্ত) মনোজিৎ কুমার নন্দী জানান, বিষয়টি খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। এখনও কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর