Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

ডোমারে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ডাঃ সোহান চৌধুরী’র ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২১৮জন দেখেছেন

Image

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমারে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে এলাকার কৃতি সন্তান মানবিক ডাঃ সোহান চৌধুরী’র উদ্যোগে ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮মার্চ) সকাল ১১টায় ডোমার সদর ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে প্রধান অতিথি হিসাবে ক্যাম্পের

শুভ উদ্বোধন করেন, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম আহমেদ। সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন রিমুন এর পৃষ্টপোষকতায় ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ, শফিকুল ইসলাম স্বপন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান মানিক, ডোমার সরকারী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বপন রহমান, সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপিত সোহেল রানা, আ’লীগ নেতা আবুল কাশেম প্রমূখ উপ¯ি’ত ছিলেন।

সকাল ১১টা থেকে শুরু করে বিকাল ৪টা পর্যন্ত নবজাতক ও শিশু মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ সোহান চৌধুরী (এমবিবিএস) এলাকার ডের শতাধীক অসহায় রোগীর চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। তিনি জানান, আল্লাহর অশেষ রহমতে ও আপনাদের সকলের দোয়ায় আমি একজন ডাক্তার হতে পেরেছি। ডোমারের সন্তান হিসাবে প্রতি মাসে হলের ১বার করে এলাকার অসহায় মানুষের চিকিৎসা সেবা প্রদান করবো। ডাঃ সোহান চৌধুরী ডোমার বাজার মায়া মার্কেট এলাকার কাইমুল হক চৌধুরী ও ফারাহ দীপা দম্পতির ছেলে।



আরও খবর



এমন ঠাণ্ডা মাথার খুন চাকরিজীবনে দেখিনি: ডিবি প্রধান

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চাকরিজীবনে অনেক খুনের তদন্ত করেছি। কিন্তু এমন ঠাণ্ডা মাথার খুন দেখিনি।একজন সংসদ সদস্যকে কলকাতায় হত্যা করা হয়েছে যে কায়দায়, এটা মেনে নেওয়া কঠিন। লাশের টুকরো ঠাণ্ডা মাথায় করা হয়েছে। সংসদ সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে যে আলিশান বাড়িতে, মনে হয় এখনো সেখানে ঘাতকদের অট্টহাসি শুনতে পাচ্ছি। 

মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে পশ্চিবমঙ্গের কলকাতায় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ।

ডিবি প্রধান বলেন, এই লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ডের বিচার খুব কঠিন হবে বলে আমি মনে করি না। তিন আসামি বাংলাদেশে আছে, একজন এখানে আছে। চারজনের বক্তব্য, জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য পারিপার্শ্বিক তথ্য মিলেছে। ডিজিটাল তথ্য, পারিপার্শ্বিক এভিডেন্স নিয়ে আমরা কাজ করছি। আমরা এখনো হতাশ নই। কাজ করছি, আশা করছি তার দেহ বা দেহাংশ উদ্ধার সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, কলকাতার তদন্তকারী সিআইডি কর্মকর্তারা আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছেন। তারা আজও সার্চ করছেন। আমরাও কিছু অনুরোধ করেছি। সঞ্জীবা গার্ডেন্সের দিকে কাঠের পুলটার পাশে যে হাতিশালা লেক আছে, সেখানে সার্চ করতে বলেছি। পাশাপাশি সংসদ সদস্য আনার যে ফ্ল্যাটে ছিলেন সেখানেও সার্চ করতে বলেছি। কারণ, ওই বাসায় তিনটা কমোড আছে। সেখানে ফ্ল্যাশ করার পর জমা পানি যেই সুয়ারেজ লাইনে জমে, সেটাও ভাঙতে বলেছি। সঙ্গে লেকও সার্চ করতে বলেছি।

হারুন আরও বলেন, এমপি আনার হত্যার গুরুত্বপূর্ণ ঘাতক আমাদের কাছে আছে। সঙ্গে যে মেয়েটা ছিল সেও আমাদের কাছে আছে। তারা আমাদের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। সেই তথ্যগুলো নিয়ে আমরা কলকাতায় এসেছি। আমরা এখানকার সিআইডির সদর দপ্তর সফর করেছি। তাদের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া আসামি জিহাদকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি।

হারুন দাবি করে বলেন, আমরা প্রায় সব তথ্যের মিল পেয়েছি। ডিজিটাল এভিডেন্সও আছে। ওই মেয়েটা তো সেখানে ছিল। একটা জীবন্ত মানুষ সেখানে গেছেন। ছবি-সিসিটিভি ফুটেজ আছে। সবাই বের হলেন কিন্তু এমপি আনার বের হলেন না। সেটারও তো প্রমাণ আছে। তাছাড়া তারা তো সন্দেহজনক ব্যাগ নিয়েও বের হয়েছেন। সবকিছু মিলিয়ে পারিপার্শ্বিক সাক্ষ্যপ্রমাণ, তাদের (কলকাতার সিআইডি) তদন্ত, আসামিদের বিগত সময়ের অপরাধের আমলনামা- সবকিছু আমলে নিয়ে তারা তদন্ত করবেন। বের করবেন আনার হত্যার রহস্য। তারপর কোর্টে প্রেরণ করা হলে লজিক্যাল ও বিচারিক স্পিরিট কাজে লাগিয়ে মূল রহস্য বের করা সম্ভব হবে বলে মনে করি।

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচনে গত রোববার কলকাতায় যান ডিবিপ্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের তদন্ত দল। সোমবার দিনভর প্রতিকূল আবহাওয়ার মধ্যেই কলকাতায় দুই দেশের তদন্ত কর্মকর্তারা নানা জায়গায় ছুটাছুটি করেন। সকাল ১০টায় নিউ টাউনের সঞ্জীবা গার্ডেন্সে যান বাংলাদেশের গোয়েন্দা টিম। এ সময় কলকাতা সিআইডির কর্মকর্তারাও ছিলেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সেখানে নেওয়া হয় জিহাদকে। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সামনে ঘটনার বর্ণনা দেন তিনি। এরপর তদন্তসংশ্লিষ্টরা পোলেরহাট থানার কৃষ্ণমাটি বাগজোলা খালের কাছে যান।


আরও খবর



ভোলার দৌলতখানে বরফ কলের গ্যাসের রিসিভার বিস্ফোরণ, নিহত-১, নারি-শিশুসহ আহত-৮

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলার দৌলতখানে খোরশেদ আলম আইচ ফ্যাক্টরি (বরফ কল) গ্যাসের রিসিভার বিস্ফোরণ হয়ে ছিদ্দিকা খাতুন নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছে। এতে নারী-শিশুসহ আহত হয়েছে আরো ৮জন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গ্যাস নিয়ন্ত্রণ আনেন। শনিবার (৮ জুন) সন্ধ্যায় দৌলতখান পৌরসভা ৩নং ওয়ার্ডের আইচ ফ্যাক্টরিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বর্তমানে আহতরা বরিশাল,  ভোলা, দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। 

আহতরা জানান, সন্ধ্যার দিকে হঠাৎ করে খোরশেদ আলম আইচ ফ্যাক্টরিতে গ্যাসের রিসিভার বিস্ফোরণ হয়। এ সময় বিকট শব্দে গ্যাস এলাকায় ছড়িয়ে পরে ফ্যাক্টরির পাশে থাকা বসত ঘরের ছিদ্দিকা খাতুন নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়। এ ঘটনায় অন্তত আরো ৮ জন আহত হয়য়। আহতদের উদ্ধার করে বরিশাল, ভোলা, দৌলতখান হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। 

ভোলা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারি পরিচালক লিটন উদ্দিন জানান, গ্যাস বিষ্ফোরণের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা দীর্ঘ ক্ষণ চেষ্টা চালিয়ে গ্যাস নিয়ন্ত্রণ করেছে। এ ঘটনায় এক বৃদ্ধা মারা গেছে। আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।


আরও খবর



এমপি আনার হত্যার তদন্ত সঠিক পথেই এগুচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যা তদন্ত বাধাগ্রস্ত করতে তদবির বা কোনো চাপ নেই,বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সঠিক পথেই তদন্ত আগাচ্ছে। বুধবার (১২ জুন) দুপুরে সচিবালয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি এসব কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আনারের মেয়ে বাবা হত্যার বিচার চাইবে এটাই স্বাভাবিক। তদন্তে কেউ যাতে পার পেয়ে না যায় তিনি সেই অনুরোধ করেছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, এই হত্যার তদন্তে কোনো তদবির বা চাপ নেই। কে চাপ দিবে? তদন্তে যা বেরিয়ে আসবে সেভাবেই বিচার প্রক্রিয়া এগোবে।


আরও খবর



তৃষ্ণার্ত পথিকের স্বস্তি এনে দিতে জুড়ি নেই কচি তাল শাঁসের

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৯জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃস্বাদে অতুলনীয় ও পুষ্টিগুণে ভরপুর মৌসূমী ফল তালের শাঁসের কদর সেই আদি কাল থেকে। সব বয়সি মানুষের জন্য এটি মুখরোচক হলেও এর চাহিদা বাড়ে গ্রীষ্মকালে। তৃষ্ণার্ত পথিকের স্বস্তি এনে দিতে জুড়ি নেই কচি তাল শাঁসের। তবে পুরাতন তাল গাছ কেটে ফেলা ও নতুন করে গাছ রোপন না করায়  ফরমালিনমুক্ত তালের শাঁস পাওয়া বেশ কষ্টসাধ্য। বাড়ির পাশে বন বাদাড়ে বা রাস্তার ধারে অযতেœ বেড়ে ওঠা গাছে কিছু তাল দেখা যায়। ফলে দাম একটু বেশি। তবুও মৌসুমী ফল হওয়ায় সকলের কাছেই এর কদর রয়েছে।

মেহেরপুর জেলা কৃষি অফিসের তথ্য মতে, এ জেলায় নির্দিষ্ট কোন তাল বাগান নেই। রাস্তার পাশে, ফসলি জমির আইলে অনেক তাল গাছ রয়েছে। বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা গাছের সংখ্যা প্রায় ১০ হাজার। তবে এগুলোর মধ্যে সব গাছে ফল হয় না। গত কয়েক বছর যাবত তাল গাছ রোপন করা হয়েছে। এগুলো ফলবান হতে আরো অন্তত ৯/১০ বছর লাগবে। বজ্র নিরোধক বৃক্ষ হিসেবে সকলকে তাল গাছ রোপনের জন্য উদ্বুদ্ধ করছে কৃষি বিভাগ। 

জেলার বিভিন্ন হাট বাজার ও রাস্তার মোড়ে দেখা গেছে তাল শাঁস বিক্রি করছেন গাছিরা। কেউ কেউ রাস্তার পাশে চট বিছিয়ে তাল শাঁস বিক্রি করছেন। আবার অনেকেই ভ্যানে করে ঘুরে ঘুরে বিক্রি করছেন। প্রতিদিন সকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে বেচা বিক্রি। গ্রীষ্মের অসহনীয় গরমে অস্থির পথচারীদের এক মুহূর্তের জন্য হলেও তৃষ্ণায় স্বস্তি এনে দেয় তাল শাঁস। আবার অনেকেই বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন। মৌসুমী ফল হওয়ায় দামের বিষয়টি বিবেচনা করছে না ক্রেতারা। 

মৌসুমী তাল বিক্রেতা বালিয়া ঘাট গ্রামের রশিদ জানান, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় থেকে কচি তাল সংগ্রহ করেন তারা। তালের কাদি দেখে দর দাম ঠিক করা হয়। প্রতিটি তাল ১০ টাকা থেকে ১২ টাকা করে কিনে আনা হয়। পরে পরিবহন খরচ ও পারিশ্রমিক যোগ করে তালের শাঁসের দাম নির্ধারণ করা হয়। তাল গাছ আর তালের পরিমান কম হওয়ায় এবার তালের দামটা একটু বেশি। প্রতি পিচ তাল শাঁসের দাম ৫ টাকা থেকে ৭ টাকা। বিক্রিও বেশ ভালো। তবে বেশি দামে কেনার কারণে লাভ কম হচ্ছে।

গাংনী হাসপাতাল বাজারের তাল শাঁস বিক্রেতা শিশির পাড়া গ্রামের ফল বিক্রেতা হিরমত আলী জানান, সারা বছরই বিভিন্ন ফল বিক্রি করেন তিনি। জৈষ্ঠ্য মাসের শুরু থেকে তাল শাঁসের ব্যবসা করছেন। গত বছর ১২ টাকা হালি বিক্রয় করলেও এবছর ২০ টাকা দামে বিক্রি করা হচ্ছে। দাম বেশি হলেও এবছরেও চাহিদা খুব বেশি। ছোট বড় সকলেরই বেশ পছন্দের। একই কথা জানালেন ব্যবসায়ী লিটন আলী ও মহিবুল ইসলাম।

প্রভাষক এসএম রফিকুল আলম বকুল জানান, গ্রীষ্মকালের অন্যতম একটি রসালো সুস্বাদু ফল হচ্ছে তালের শাঁস। এটি খুবই জনপ্রিয় একটি খাবার হিসেবে পরিচিত। ছোটকালে এক টাকায় এক হালি তাল শাঁস পাওয়া যেত। এখন অনেক দাম তবুও ছেলে-মেয়ের জন্য নিয়মিত কিনে নিয়ে যান। তালের শাঁস খেতে অনেকটা নারকেলের মত। নরম ও সুস্বাদু হওয়ায় পরিবারের সকলেই তাল শাঁস খেতে খুবই ভালোবাসে। কেবল খেতেই সুস্বাদু নয়, এর রয়েছে পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা।

তালের উপকারিতা সম্পর্কে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আব্দুল আল মারুফ জানান, তালের শাঁসে থাকা জলীয় অংশ মানুষের দেহের পানি শূন্যতা দূর করে। এ ফলে মিনারেলস, আয়োডিন, জিংক, পটাশিয়াম ও ফসফরাস থাকে। বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ উপাদানে ভরপুর তালের শাঁস নানা রোগের দাওয়াই হিসেবে কাজ করে।


আরও খবর



রাণীশংকৈলে সেই স্বর্ণের মাটির স্তুপ পরিক্ষা ও স্ক্যান করার নির্দেশে দুই সদস্যের কমিটি গঠন

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image
মাহাবুব আলম, রাণীশংকৈল(ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোর ইউনিয়নের কাতিহার রাজোর এলাকার আরবিবি ইট ভাটার স্তুপ করা মাটি পরীক্ষা,অনুসন্ধান ও স্ক্যান করার নির্দেশসহ দুই সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। গত ২ জুন বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তর পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন শাখা ঢাকার ভুতত্ব পরিচালক কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

স্বর্ণ পাওয়ার বিষয়টি গুরত্বসহকারে নিয়ে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি মেহেদী হাসান বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরে আরবিবি ইটভাটার মাটির পূর্বের স্থানসহ বর্তমান স্থান পরীক্ষা,অনুসন্ধান ও মাটি স্ক্যানের আবেদন করে। সেই পেক্ষিতে এ অফিস আদেশ দেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। চিঠিতে উল্লেখ্য করা হয়েছে, সহকারী পরিচালক ভুতত্ব আনোয়ার সাদাৎ মুহাম্মদ সায়েম ও মোহাম্মদ আল রাজীকে আগামী ৩জুন থেকে ৫জুন অথবা প্রকৃত যাত্রার তারিখ হতে তিনদিনের মধ্যে প্রকৃত ঘটনার তথ্যসহ প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

এর আগে আজকের পত্রিকাসহ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ইটভাটায় স্বর্ণের খোজে কোদাল নিয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে হাজারো মানুষ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। এর পরে দিনে রাতে ইটভাটার মাটির স্তুপে অতিরিক্ত মানুষের সমাগম হওয়ায়। আইনশৃঙ্খলা অবনতির আশঙ্কায় গত ২৫ মে ইটভাটায় ১৪৪ ধারা জারী করে রাণীশংকৈল উপজেলা প্রশাসন। এরপর থেকে সেখানে পুলিশি পাহারায় চৌকি বসানো হয়। এতে সাধারণ মানুষ ইটভাটায় ভিড়তে পারে না। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি মেহেদী হাসান বলেন, যেহেতু ওই ইটভাটার মাটি ঐতিহাসিক এলাকা থেকে কাটা হয়েছে। এবং মানুষের মুখে মুখে স্বর্ণ পাওয়ার বিষয়টি চাউর হয়েছে। তাই রাষ্ট্রীয় ভাবে এটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যদি কোন ধরনের স্বর্ণ পাওয়া যায়। তাহলে সেটি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হবে।

রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রকিবুল হাসান বলেন, বাংলাদেশ ভুতাত্বিক জরিপ অধিদফতর এর নির্দেশে মাটির পরীক্ষা করা হবে বলে জানতে পেরেছি। তারা আসলে উপজেলা প্রশাসন থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

আরও খবর