Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

দলীয় পদ হারালেন আলোচিত চেয়ারম্যান সেলিম খান

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৮১জন দেখেছেন
Image

চাঁদপুরের আলোচিত লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম খানকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার (৪ জুন) সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যের সর্বসম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটোয়ারী দুলাল জানান, দলের নিয়ম-শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।


আরও খবর



দেশে বিচারবহির্ভূত হত্যা নেই, তথ্য পেলে তদন্ত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:Sunday ১৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

আগে হলেও দেশে এখন বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নেই বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, এমন হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে কোনো তথ্য পেলে সরকার তদন্ত করবে।

রোববার (১৪ আগস্ট) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেটের সঙ্গে বৈঠক শেষে মোমেন এ কথা বলেন।

এর আগে সকালে চারদিনের সফরে ঢাকায় আসেন ব্যাচেলেট। জাতিসংঘের কোনো মানবাধিকার প্রধানের এটিই প্রথম বাংলাদেশ সফর।

মিশেলের সফরের প্রাক্কালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বার্তায় বলা হয়েছে, মানবাধিকার বিষয়ে জাতিসংঘের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ। নাগরিকের অধিকার সুরক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ সফর একটি উপলক্ষ হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।


আরও খবর



রাজধানীতে আজ কখন কোথায় লোডশেডিং

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

দেশে বিদ্যুতের ঘাটতি কমাতে ১৯ জুলাই থেকে চলছে এলাকাভিত্তিক শিডিউল করে লোডশেডিং। প্রতিদিনই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় লোডশেডিং কার্যক্রম পরিচালনা হচ্ছে। লোডশেডিংয়ের এ শিডিউল পরিবর্তনও হচ্ছে।

বৃহস্পতিবারও (২৮ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে সেই ধারাবাহিকতায় শুরু হবে লোডশেডিং কার্যক্রম। চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত।

রাজধানীর বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) ও ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) কোথায় কখন লোডশেডিং করবে, সে তালিকা দিয়েছে।

ডিপিডিসির গ্রাহকরা লোডশেডিংয়ের শিডিউল দেখতে ক্লিক করুন এখানে এবং ডেসকোর গ্রাহকরা ক্লিক করুন এখানে


আরও খবর



ভোটারকে মারধরের ঘটনায় ইউপি সদস্য কারাগারে

প্রকাশিত:Monday ০৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে নির্বাচন চলাকালে কেন্দ্রে ভোটারকে মারধরের ঘটনায় হাসান মাহমুদ আপেল নামে এক ইউপি সদস্যকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

সোমবার (৮ আগস্ট) দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কমলনগর আমলি আদালতের বিচারক তারেক আজিজ এ নির্দেশ দেন। হাসান মাহমুদ উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও হাজিরহাট ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক। মামলার বাদী সজিব একই ওয়ার্ডের বাসিন্দা।

বাদীর আইনজীবী কামরুল হাসান রনি বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হাসানসহ ১০ আসামি আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। এতে আদালত হাসানের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছের। অন্যদের জামিন দিয়েছেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০২১ সালের ২১ জুন হাজিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে হাসান মাহমুদ আপেল সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভোটকেন্দ্রটিও তার বাড়ির সামনে ছিল। ভোট চলাকালে এক পর্যায়ে আপেল তার লোকজন নিয়ে ভোটারদের এলোপাতাড়ি পিটিয়ে কেন্দ্র দখল করে নেন। পরে নিজের প্রতীকে ভোট আদায় করেন তারা।

এ সময় ভোট দিতে আসা সজিব হোসেনকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। সজিব সদস্য প্রার্থী কবির হোসেনের লোক ছিলেন। এ ঘটনায় পরদিন সজিব বাদী হয়ে আপেলকে প্রধান করে ১৮ জনের বিরুদ্ধে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কমলনগর আমলি আদালতে মামলা করেন।

কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত। পরে কমলনগর থানা পুলিশ তদন্ত শেষে ১০ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।


আরও খবর



এডিডাসের ৮ কারখানার শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধের দাবি

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড এডিডাসের আট কারখানার শ্রমিক-কর্মচারীদের মজুরি পরিশোধে মানববন্ধন হয়েছে। এই কারখানাগুলো কম্বোডিয়ায় অবস্থিত। ১১ দশমিক ৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মজুরি পরিশোধের দাবি জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন পাঁচ শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মী ও শ্রমিকেরা।

বক্তারা জানান, মহামারির মাঝামাঝি সময় এডিডাস তাদের সরবরাহ করা কারখানাগুলোর ক্রয়াদেশ কম্বোডিয়ায় স্থগিত করে। ফলে সব কারখানার কর্তৃপক্ষ তাদের শ্রমিকদের মজুরি এবং আইনগত পাওনাদি পরিশোধ করতে পারে নাই। পরবর্তীতে শ্রমিকদের প্রতিবাদের কারণে প্রায় এক মাস পর ৫০০ জন শ্রমিককে চাকরিতে পুনরায় নিয়োগ করা হয়। বাকি শ্রমিকদের এখনো তাদের পাওনাদি পরিশোধ করা হয় নাই।

মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তারা জানান, মহামারির প্রথম ১৪ মাসের জন্য শ্রমিকদের ১১ দশমিক ৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মজুরি বকেয়া রয়েছে, যা শ্রমিকপ্রতি ৩৮৭ মার্কিন ডলারের সমান। বহির্বিশ্বে এডিডাসের সাপ্লাই চেইনে শ্রমিকদের মজুরি এখনো পরিশোধ করা হয়নি।

বক্তারা দাবি করেন, কম্বোডিয়ান কারখানা হুলু গার্মেন্টসে মহামারির শুরুতে ক্রয়াদেশ স্থগিত করে এডিডাস। এরপর জোরপূর্বক ও প্রতারণা করে শ্রমিকদের রিজাইনে বাধ্য করা হয়। এছাড়া মজুরি পরিশোধ করা হয়নি।

মানববন্ধনে উপস্থিত জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন বলেন, সাপ্লাই চেইনে শ্রমিকদের মজুরি বকেয়া রেখে এডিডাস ১৮ আগস্ট নিজেদের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছে। আমরা মনে করি শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের ব্যবস্থা না করে জাঁকজমকপূর্ণ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন সাপ্লাই চেইনে এবং শ্রমিকদের সঙ্গে চরম তামাশা।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শ্রমিক সংগঠনগুলো হলো বাংলাদেশ গার্মেন্টস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ মুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন ও বাংলাদেশ সেন্টার ফর ওয়ার্কাস সলিডারিটি।


আরও খবর



চেহারা-জাত-জন্মপরিচয়েও বুলিংয়ের শিকার হতে হয়: ড. জোবাইদা

প্রকাশিত:Friday ১২ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৭৭জন দেখেছেন
Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জোবাইদা নাসরীন বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শিক্ষক, সহপাঠী ও হলের শিক্ষার্থীদের দ্বারা বুলিংয়ের শিকার হয়। কেউ নিজের চেহারা, জাত-জন্মপরিচয় বা পারিবারিক অবস্থার কারণে বুলিংয়ের শিকার হয়। বুলিং ব্যক্তির মানসিক অবস্থাকে বিপর্যস্ত করে, যা মানবাধিকারের লঙ্ঘন।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের মুনীর চৌধুরী অডিটোরিয়ামে হিউম্যান রাইটস ভয়েস অ্যান্ড হিউম্যানিটি (এইচআরভিএইচ) আয়োজিত ‘মানবাধিকার সচেতনতা ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বুলিংয়ের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে ড. জোবাইদা বলেন, আমাদের নিজের ঘর থেকে বুলিং ও মানবাধিকার শিখতে হবে। আমরা নিজের অজান্তেই কাছের মানুষকে হয়রানি করছি। আমরা একে অপরের ঘাড়ে দায়িত্ব দিই। কিন্তু আমরা নিজেরাও অনেক দায়িত্ব পালন করতে পারি না, পালন করতেও চাই না।

তিনি বলেন, গণমাধ্যম মানবাধিকার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে চিন্তা বিনিময় করতে পারে। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের কাজের জায়গাটা তড়িৎ হয়। মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা ব্যক্তিদের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কাজের সমন্বয় হলে সেটি বেশ কাজে দেবে।

সেমিনারে আলোচক হিসেবে অংশ নিয়ে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব বলেন, আমরা যখন মানবাধিকারের কথা বলি তখন আমাদের মাথায় কোনো জাত-ধর্ম-বর্ণ থাকে না। মাথায় থাকে শুধু মানুষ। শিক্ষার্থী হিসেবে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা করে ফেলবে সেটা আমি চাই না। তবে মানবাধিকার বিষয়টি ভালোভাবে জেনে, বুঝে ও তা ধারণ করে যদি এখান থেকে যেতে পারা যায় সেটা আমাদের সমাজ বা রাষ্ট্রে ব্যাপক প্রভাব পড়বে। কারণ, আপনাদের এখান থেকেই রাজনীতিবিদ, আমলা, কবি, সাংবাদিক, সাহিত্যিক বের হবে। তারা তাদের কর্মক্ষেত্রে গিয়ে যদি মানবাধিকারচর্চা করে তাহলেই কিন্তু মানবাধিকার নিয়ে আর কোনো ঝামেলা হয় না।

jagonews24

তিনি বলেন, দেশে মানবাধিকার বিষয়ে জানাশোনা লোকের অভাব রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে এই সংগঠনটিতে যারা কাজ করছেন তারা মানবাধিকার বিষয়ে জানা ও তথ্যভিত্তিক জ্ঞানার্জনের মাধ্যমে সচেতনতা তৈরি করবে বলে আশা রাখি। আবেগ বা কোনো মতের প্রতি অনুগত থেকে তথ্যনির্ভর ও মানবাধিক সচেতনতার কাজ করতে হবে।

মানবাধিকার উন্নয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক মাহবুল হক বলেন, মানবাধিকার রক্ষার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। মানবাধিকার নিয়ে কাজ করলেই যে সরকারবিরোধী হয়ে যাবে তা নয়। মানবাধিকার বিষয়ে আলোচনা বা মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়গুলো ধরিয়ে দেওয়া বরং সরকারের জন্য সহায়ক। কিন্তু আমাদের দেশে এটা অনেক সময় উল্টোভাবে দেখা হয়।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা রাসেল মাহমুদ বলেন, মানবাধিকারচর্চা বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মানবাধিকার বিষয়ে সচেতনতা তৈরির পাশাপাশি সমাজে মানবাধিকার বিষয়ে মানবিক মানুষের বিস্তার ঘটাবে। মানবাধিকার সচেতন শিক্ষার্থীরা কর্মক্ষেত্রে গিয়ে যদি মানবাধিকারচর্চা করে তাহলেই মানবাধিকার লঙ্ঘন অনেকটা কমে আসবে।

এইচআরভিএইচের সভাপতি আবদুল আওয়াল খান নয়নের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন- সংগঠনটির সাবেক সভাপতি ওমর কাইয়্যুম, বোরহান উদ্দিন ফয়সাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিদওয়ান ইসলাম দুর্জয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সিনিয়র সদস্য ও বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা। সেমিনারে অংশ নেওয়া সদস্যদের জন্য কুইজের আয়োজন করা হয়। এতে পুরস্কার জিতে নেন রবিউল ইসলাম, মাহমুদা আক্তার রিমু ও কাওসার জাহান ইরিন।


আরও খবর