Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকায় ফিরছেন কর্মজীবী মানুষ

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৫৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটি উদযাপন শেষে ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছেন কর্মজীবী মানুষ।

বুধবার (১৯ জুন) ঈদের তৃতীয় দিন সকাল থেকেই রাজধানীর কমলাপুরের ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মানুষজনকে ফিরতে দেখা যায়। আবার ঢাকা ছেড়ে বিভিন্ন এলাকায় যাওয়ার জন্যও মানুষজনকে প্ল্যাটফর্মে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

মূলত, ঈদ উপলক্ষে ১৬, ১৭ ও ১৮ জুন (রোব, সোম ও মঙ্গলবার) তিনদিন ছিল সরকারি ছুটি। এর আগে ১৪ ও ১৫ জুন (শুক্র ও শনিবার) সাপ্তাহিক ছুটি ছিল। এ কার‌ণে এবারের ঈদের ছুটি পড়েছে পাঁচদিন। ফ‌লে টানা পাঁচদিন ঈদের ছুটি শেষে আজ অফিসপাড়ায় যোগ দিচ্ছেন কর্মজীবীরা। তবে, এখনো ট্রেনে তেমন ভিড় দেখা যায়নি। বিশেষত চাকরিজীবী অনেকেই পরিবার পরিজনদের গ্রামের বাড়িতে রেখে একাই ঢাকা ফিরে এসেছেন।


আরও খবর



রাষ্ট্রপতি তিনদিনের সফরে রাঙ্গামাটি যাচ্ছেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image
রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন (ফাইল ছবি)

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন প্রকৃতির সজীবতা উপভোগ করতে পাহাড়ের শহর পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে আসছেন ।

আগামী ৮ জুলাই থেকে ১০ জুলাই সকাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি রাঙামাটিতে অবস্থান করবেন বলে খবর পাওয়া গেছে। রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন।

সোমবার (১ জুলাই) সকালে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন খান, পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ, সিভিল সার্জন ডা. নূয়েন খীসা, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী আহম্মদ শফি, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ চাকমাসহ জেলার সকল দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভা সূত্র থেকে জানা যায়, ৮ জুলাই সকলে হেলিকপ্টার যোগে তিনি রাঙামাটি আসবেন। আরণ্যক হলিডে রিসোর্টে রাত্রী যাপন করবেন। ১০ জুলাই সকালে কক্সবাজের উদ্দেশ্যে রাঙামাটি ত্যাগ করবেন।

রাঙামাটি অবস্থানকালে রাষ্ট্রপতি পাহাড়িদের কোমর তাঁতে বোনা ঐতিহ্যবাহী পোশাকের মার্কেট পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে।

৯ জুন হাউজবোটে কাপ্তাই হ্রদ ভ্রমণ করে কাপ্তাই উপজেলায় যাবেন। সেখানে বাংলাদেশের একমাত্র পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শ করবেন। পরে রাষ্ট্রপতি নয়নাভিরার আসামবস্তি সড়ক হয়ে রাঙামাটিতে ফিরবেন বলে জানা গেছে। পরে ১০ তারিখ সকালে রাঙামাটি ত্যাগ করবেন।


আরও খবর



আজ শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক:আজ বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারাবন্দী দিবস। ১/১১-এর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় বিভিন্ন মিথ্যা-বানোয়াট, হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই বঙ্গবন্ধু কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

ওই সময় শেখ হাসিনার মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ ২৫ লাখ গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে জমা দেয়া হয়। এসব দাবির প্রেক্ষিতে তৎকালীন সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। শেখ হাসিনার মুক্তির মধ্য দিয়ে এদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার পুনরায় ফিরে আসে। যুগপৎভাবে বিকাশ ঘটে গণতন্ত্র ও উন্নয়নের।

সেদিন ভোরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় দুই সহস্রাধিক সদস্য সম্পূর্ণ বে-আইনীভাবে শেখ হাসিনার ধানমন্ডিস্থ বাসভবন সুধা সদন ঘেরাও করে। সেই সময় শেখ হাসিনা ফজরের নামাজ আদায় করছিলেন। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে যৌথ বাহিনীর সদস্যরা শেখ হাসিনাকে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করে সুধা সদন থেকে বের করে নিয়ে আসে এবং যৌথ বাহিনীর সদস্যরা বন্দি অবস্থায় তাকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে। তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নীলনকশা অনুযায়ী আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই ঘণ্টা আগেই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার জামিন আবেদন আইন বহির্ভূতভাবে না মঞ্জুর করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট।

শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে বাংলার জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকারকে অবরুদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালায় তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। শেখ হাসিনা আদালতের গেটে দাঁড়িয়ে প্রায় ৩৬ মিনিটের অগ্নিঝরা বক্তৃতার মাধ্যমে তৎকালীন সরকারের হীন-রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন।

গ্রেপ্তার পূর্ব মুহূর্তে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দেশবাসীর উদ্দেশ্যে একটি চিঠির মাধ্যমে দেশের জনগণ এবং আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদেরকে গণতন্ত্র রক্ষায় মনোবল না হারিয়ে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠন ও গণতন্ত্র প্রত্যাশী দেশবাসীর ক্রমাগত প্রতিরোধ আন্দোলন। বঙ্গবন্ধু কন্যার আপসহীন ও দৃঢ় মনোভাব এবং দেশবাসীর অনড় দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৮ সালের ১১ জুন দীর্ঘ ১১ মাস কারাভোগ ও নানামুখী ষড়যন্ত্রের পর তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।

এদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় পিতার ন্যায় আপসহীন মনোভাব নিয়েই জাতীয় ও আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার যাত্রা শুরু হয়।

জনগণের মুক্তি আন্দোলনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে সহ্য করতে হয়েছে অনেক জেল-জুলুম ও অত্যাচার-নির্যাতন। অসংখ্যবার মৃত্যুর সম্মুখীন হতে হয়েছে। জনগণের ভালোবাসায় সকল ষড়যন্ত্রকে উপেক্ষা করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে অকুতোভয় নির্ভীক সেনানীর মতো নিরবচ্ছিন্নভাবে পথ চলেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। সকল বাধা-বিপত্তি জয় করে আজ শুধু বাংলাদেশেই নয় বিশ^ দরবারেও স্বমহিমায় উজ্জ্বল জনগণের প্রাণ প্রিয় নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। সূত্র : বাসস

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



২০০ বছরের পুরোনো রোপনকৃত গাছ ভেংগে পরার ঝুঁকি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ২০২জন দেখেছেন

Image

 জহুরুল ইসলাম খোকন (নীলফামারী) প্রতিনিধি:রেলওয়ের শহর নীলফামারীর সৈয়দপুরে। প্রায় ২০০ বছরের পুরোনো গাছগুলো উপড়ে বা ভেংগে পরার ঝুঁকিতে থাকায় আতংকিত শহরবাসী। পর্যাপ্ত বৃষ্টি বা  ঝড় হলে যে কোন সময় বাড়তে পারে প্রানহানীর ঘটনা।গাছগুলো কেটে ফেলার জন্য রেলবিভাগও  বনবিভাগকে স্হানীয়রা অনুরোধ জানালেও কাটা হচ্ছে না। এর ফলে লোকজন আতংক ও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই গাছগুলোর নিচে বসবাস ও চলাচল করছেন।

সৈয়দপুর রেলবিভাগ জানায়, ১৮৭০ সালে আসাম বেঙ্গল রেলওয়ের বিশাল কারখানা গড়ে উঠে সৈয়দপুরে। ওই সময় এ শহরে ৮০০ একর রেলওয়ের এ্যাকোয়ারকৃত জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দুই হাজারেরও বেশি বিশাল বিশাল বৃক্ষ রোপন করা হয়। এছাড়া দেশের বৃহত্তম রেলওয়ে কারখানা সহ রেলওয়ে পুলিশ লাইন, রেলের প্রশাসনিক দপ্তর, রেলওয়ে হাসপাতাল, খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের দুটি গির্জা, রেলওয়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বসবাসের জন্য একাধিক বাংলো ও কোয়ার্টার নির্মাণ করা হয় এই জমিতে।

রেলবিভাগ আরো জানায় বৃটিশ আমলে সৈয়দপুর শহরের শোভা বৃদ্ধি ও শীতল ছায়া দিতে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ওই সময় প্রায় দুই হাজার গাছ রোপণ করেন এ্যাকোয়ারকৃত জমিতে ।গাছ গুলোর মধ্যে রয়েছে রেইনট্রি, কড়াই, সিরিস, কৃষ্ণচূড়া, ইউক্যালিপটাস, শাল, অর্জুন, দেবদারু ইত্যাদি। ১৮৭০ সালে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা স্থাপনের সময় সৈয়দপুর শহরের রেলওয়ে অফিসার্স কলোনি, সাহেবপাড়া, মিস্ত্রিপাড়া, নতুন ও পুরাতন বাবুপাড়া, মুন্সিপাড়া, খালাসি মহল্লা, গার্ড পাড়া, হাওয়ালদার পাড়া, রোমান ক্যাথলিক ও প্রোটেস্ট্যান্ট গির্জা, পুলিশ লাইন, রেলওয়ে হাসপাতাল এমনকি রেলওয়ে কারখানায় রোপণ করা হয় ওই গাছগুলো।

১৮ জুন বেলা সারে ১১ টায় শহরের হাওয়ালদার পাড়া গিয়ে দেখা যায়, ১৭ জুন রাতে বৃষ্টি ও সামান্য বাতাসে বিশাল মাপের একটি সিরিস গাছের ডাল আলতো ভাবে ভেঙে টিনের চালে পড়ে আছে। শুকিয়ে যাওয়া ওই সিরিস গাছের বাকি ডাল গুলোও সামান্য বাতাসে ভেঙে ভেঙে পরছে। ঘুর্ণিঝড়ের মতো বাতাস বইলে ওই গাছের ডাল ভেঙে পরা সহ উপড়ে পরারও আশংকা রয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী। অতিসত্বর গাছটি কেটে না ফেললে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে অর্ধশতাধিক মানুষের প্রানহানী ঘটতে পারে বলে জানান আতংকিত এলাকাবাসী। 

সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেট বিভাগের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম জানান, গাছগুলো বাংলাদেশ রেলওয়ের সম্পদ। ইচ্ছে করলেই এসব কেটে ফেলা সম্ভব নয়। আমরা ১৬টি ঝুঁকিপূর্ণ গাছ চিহ্নিত করেছি। সৈয়দপুর রেলওয়ের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। তিনি তদন্ত শেষে ওইসব গাছ কেটে ফেলার অনুমতি দিবেন বলে জানান। 

সৈয়দপুর সামাজিক বনায়ন ও নার্সারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাহিকুন ইসলাম মুশকরি জানান, সৈয়দপুর শহরের অনেক গাছই ঝুঁকিপূর্ণ। এর মধ্যে রেলওয়ের অর্ধশতাধিক গাছ কেটে ফেলা দরকার।কারন এ গাছ গুলো অতি পুরাতন। যেকোনো সময় উপড়ে বা ভেংগে পরে প্রান হানি ঘটতে পারে। 

এ ব্যাপারে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক (ডিএস) সাদেকুর রহমান জানান, শিগগিরই রেলের ঝুঁকিপূর্ণ গাছগুলো কেটে ফেলার প্রক্রিয়া চলছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি মিললে অল্প দিনের মধ্যেই ঝুকিপুর্ন সব ধরনের গাছ কাটা হবে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



দুর্নীতি রোধে সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের তথ্য নেওয়ার পরামর্শ আইএমএফের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) সরকারকে পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশে বড় ধরনের দুর্নীতি ঠেকাতে দেশের সরকারি চাকরিজীবীদের কাছ থেকে প্রতি বছর সম্পদের হিসাব নেওয়া এবং তা নিয়মিত হালনাগাদ করতে।

বাংলাদেশ বিষয়ে ওয়াশিংটন ভিত্তিক ঋণদাতা সংস্থাটির কান্ট্রি রিপোর্টে এই পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।গত সোমবার (১৪ জুন) বাংলাদেশকে ঋণের তৃতীয় কিস্তি ছাড়ের অনুমোদনের পরই এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

আইএমএফ  সরকারকে এমন এক সময়ে এই পরামর্শ দিলো যখন সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ ও এনবিআরের মতিউর রহমানের বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের সন্ধান পাওয়ার পর সারাদেশে সরকারি চাকরিজীবীদের দুর্নীতির ব্যাপকতা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

শুধু আইএমএফ নয়, সরকারি চাকরিজীবীদের দুর্নীতি ঠেকানোর কথা জাতীয় সংসদে সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরাও বলেছেন।

আইএমএফও বলেছে, উচ্চ স্তরে দুর্নীতি কার্যকরভাবে সামাল দেওয়ার বিষয়ে অসম্মতি (নন-কমপ্লায়েন্স) দেখা দিলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হবে। সম্পদের পরিমাণ নিয়মিত হালনাগাদের জন্য একটি মানসম্মত পন্থা অবলম্বন করে সরকারি কর্মকর্তাদের সম্পদ ঘোষণার প্রক্রিয়াকে শক্তিশালী করতে হবে।

দেশে ব্যবসায়িক পরিবেশের উন্নতির ক্ষেত্রে সুশাসন এবং দুর্নীতি রোধ ব্যাপক অবদান রাখবে বলেও মনে করে বহুপাক্ষিক ঋণদানকারী সংস্থাটি।

রাজস্ব ও আর্থিক সুশাসনের উন্নতি, স্বচ্ছতা বৃদ্ধি এবং নীতি কাঠামো শক্তিশালীকরণও উন্নত ব্যবসায়িক পরিবেশ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে জানিয়েছে আইএমএফ।


আরও খবর



লাদাখে ট্যাংক দুর্ঘটনায় ভারতীয় ৫ সেনা নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:একটি নদী পারাপারের মহড়ার সময় ভারতের লাদাখের লেহের দৌলত বেগ ওল্ডি এলাকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (এলএসি) কাছে একটি টি-৭২ ট্যাঙ্ক দুর্ঘটনায় পাঁচ সেনা নিহত হয়েছেন।

এক সেনা কর্মকর্তার বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, দিবাগত রাতে ১টার দিকে ঘটে যাওয়া এ দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে একজন জুনিয়র কমিশনড অফিসার বা জেসিও রয়েছেন।

সরকারী সূত্র জানিয়েছে, সৈন্যরা এদিন প্রশিক্ষণ মিশনে ছিল এবং তাদের টি-৭২ ট্যাঙ্কে লেহ থেকে ১৪৮ কিলোমিটার দূরে মন্দির মোড়ের কাছে বোধি নদী অতিক্রম করছিল। এ সময় পানির স্তর হঠাৎ বাড়তে শুরু করে। পানির তোড়ে সৈন্যসহ ট্যাঙ্ক নদীতে তলিয়ে যায়।

ঘটনার পর উদ্ধার অভিযান শুরু হয় এবং দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচ সেনার সবার মরদহে উদ্ধার করা হয়েছে।


আরও খবর