Logo
আজঃ শনিবার ২৫ মে ২০২৪
শিরোনাম

ঢাকার যেসব মার্কেট-দোকানপাট সোমবার বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ জুন ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৯০২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানী ঢাকায় সপ্তাহের একেক দিন একেক এলাকার মার্কেট, দোকানপাট বন্ধ থাকে। আপনি হয়তো প্রস্তুতি নিচ্ছেন আপনার পছন্দের কোন মার্কেটে যাবেন আজ। কিন্তু সেই মার্কেট খোলা আছে কিনা তা হয়তো জানেন না। তাই আগে জেনে নিন ঢাকার কোন মার্কেট আজ বন্ধ এবং খোলা রয়েছে। না হলে কষ্ট করে গিয়ে ফিরে আসতে হতে পারে।

 আসুন জেনে নেওয়া যাক সোমবার রাজধানীর কোন কোন এলাকার দোকানপাট, মার্কেট সাধারণত বন্ধ থাকে।

 

বন্ধ থাকবে যেসব এলাকার মার্কেট:

আগারগাঁও, তালতলা, শেরে বাংলা নগর, শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়া, পল্লবী, মিরপুর-১০, মিরপুর-১১, মিরপুর-১২, মিরপুর-১৩, মিরপুর-১৪, ইব্রাহীমপুর, কচুক্ষেত, কাফরুল, মহাখালী, নিউ ডিওএসএইচ, ওল্ড ডিওএসএইচ, কাকলী, তেজগাঁও ওল্ড এয়ারপোর্ট এরিয়া, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ক্যান্টনমেন্ট, গুলশান-১, ২, বনানী, মহাখালী কমার্শিয়াল এরিয়া, নাখালপাড়া, মহাখালী ইন্টার সিটি বাস টার্মিনাল এরিয়া, রামপুরা, বনশ্রী, খিলগাঁও, গোড়ান, মালিবাগের একাংশ, বাসাবো, ধলপুর, সায়েদাবাদ, মাদারটেক, মুগদা, কমলাপুরের একাংশ, যাত্রাবাড়ীর একাংশ, শনির আখড়া, দনিয়া, রায়েরবাগ, সানারপাড়।

 

অর্ধদিবস বন্ধ থাকবে যেসব মার্কেট:

বিসিএস কম্পিউটার সিটি (আইডিবি), পল্লবী সুপার মার্কেট, মিরপুর বেনারসী পল্লী, ইব্রাহীমপুর বাজার, ইউএই মৈত্রী কমপ্লেক্স, বনানী সুপার মার্কেট, ডিসিসি মার্কেট গুলশান-১ এবং ২, গুলশান পিংক সিটি, মোল্লা টাওয়ার, আল-আমিন সুপার মার্কেট, রামপুরা সুপার মার্কেট, মালিবাগ সুপার মার্কেট, তালতলা সিটি করপোরেশন মার্কেট, কমলাপুর স্টেডিয়াম মার্কেট, গোরান বাজার, আবেদিন টাওয়ার, ঢাকা শপিং সেন্টার, আয়েশা মোশারফ শপিং কমপ্লেক্স, মিতালী অ্যান্ড ফ্রেন্ড সুপার মার্কেট।


আরও খবর

"নোবেলের ম্যাজিক শুধু প্রতারণা"

মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24




চাকরির বয়সসীমা নিয়ে সুপারিশের কার্যকারিতা এখন আর নেই: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১২৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ করার সুপারিশের আর কার্যকারিতা নেই , মাত্র এক শতাংশ শিক্ষার্থী ত্রিশ বছর বয়সে চাকরি পাচ্ছেন। যেখানে এক শতাংশ মাত্র, সেখানে ৩৫ করলে আর কতই-বা বাড়বে?

রোববার (১২ মে) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল সংক্রান্ত’ সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমার দেওয়া সুপারিশপত্রের কার্যকারিতা এখন আর নেই। এটা নিয়ে জলঘোলা করে নানা জায়গায় দাঁড়িয়ে আন্দোলনের নামে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করা কখনোই কাম্য না।

তিনি আরও বলেন, আমি আলোচনা করে জানতে পেড়েছি, মাত্র এক শতাংশ শিক্ষার্থী ত্রিশ বছর বয়সে চাকরি পাচ্ছেন। যেখানে এক শতাংশ মাত্র, সেখানে ৩৫ করলে আর কতই-বা বাড়বে? সেটা পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে। সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ করার সুপারিশ প্রসঙ্গে মহিবুল হাসান বলেন, কিছু চাকরিপ্রার্থী বিষয়টি নিয়ে অনুরোধ করেছিলেন, তাদের সঙ্গে আলোচনাকালে মনে হয়েছিল, এ বিষয়ে একটা সুপারিশ করা যেতে পারে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে সেই সুপারিশপত্র পুঁজি করে অনেকেই জলঘোলা করার চেষ্টা করছেন।

তিনি বলেন, এরই মধ্যে এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জাতীয় সংসদে পরিষ্কার করে বলেছেন, যে সরকারের বা রাষ্ট্রের নীতিগত সিদ্ধান্ত কী। এই বয়সসীমা বৃদ্ধির বিষয়ে এই মুহূর্তে কোনো সিদ্ধান্ত নেই, সেটা তিনি (জনপ্রশাসন মন্ত্রী) বলে দিয়েছেন।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, কিন্তু একটি পক্ষ দেখা যাচ্ছে, সেই সুপারিশপত্র পুঁজি করে সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। সেখানে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। আমি তাদের বলব, তারা একটি খারাপ কাজ করার চেষ্টা করছেন। এখানেই বিষয়টির সমাপ্তি ঘটেছে।


আরও খবর



পেরুতে যাত্রীবাহী বাস খাদে, নিহত ২৫

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | ১৬৩জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:পাহাড়ি রাস্তা থেকে ছিটকে পড়ে যাত্রীবাহী একটি বাস ৬৫০ ফুট গভীর খাদে পড়ে কমপক্ষে ২৫ জন নিহত হয়েছেন দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০ জন।

বার্তাসংস্থা এএফপি মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেরুর উত্তরাঞ্চলে পাহাড়ি রাস্তা থেকে একটি বাস খাদে পড়ে যাওয়ার পর কমপক্ষে ২৫ জন মারা গেছেন এবং আরও ২০ জনের মতো মানুষ আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সোমবার জানিয়েছে।

দুর্ঘটনার পর তাৎক্ষণিকভাবে ২৩ জনের নিহত হওয়ার কথা জানানো হলেও পরে এই তথ্য হালনাগাদ করে ২৫ জন বলে জানানো হয়।

পৌরসভার কর্মকর্তা জেইম হেরেরা বলেন, ৫০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে বাসটি একটি নদীর ধারে পড়ে যায় এবং আরোহীদের কয়েকজন পানিতে ভেসে গেছে।

উদ্ধারকর্মীরা দুর্ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এছাড়া এই দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির পর সেলেনডিন পৌরসভা ৪৮ ঘণ্টার শোক ঘোষণা করেছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, বাসটি রাস্তায় চলাচলের উপযোগী ছিল কিনা তা তারা খতিয়ে দেখবে।

এএফপি বলছে, পেরুতে বাস দুর্ঘটনা খুবই সাধারণ বিষয়। বিশেষ করে রাতে এবং পাহাড়ের হাইওয়েতে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। এছাড়া দ্রুত গতি, রাস্তার খারাপ অবস্থা, রোড সাইনের অভাব এবং ট্রাফিক নিয়ম-কানুনের দুর্বল প্রয়োগের কারণে পেরুর রাস্তায় প্রায়ই এই ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। গত বছর, দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশটিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩১০০ জনেরও বেশি প্রাণহানির তথ্য নিবন্ধিত করা হয়েছে।


আরও খবর



সেচ হার ২ হাজার টাকা তারপরও কার্ডে নিতে হয় পানি ঘটে মারপিট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৯৭জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:এক বিঘা জমিতে ২ হাজার টাকা সেচ হার নির্ধারণ করা হয়েছে। ধান কাটার আগেই ২ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হয়। হারের টাকা দেওয়ার পর জমিতে সেচ নিতে হলে কার্ড কিনে নিতে হয়। রাজশাহীর তানোরে গভীর নলকূপ অপারেটরেরা চালিয়ে যাচ্ছেন এমন কাল্পনিক নিয়ম। অথচ গভীর নলকূপে সেচ কার্ড আসার পর হার নেয়ার কোন নিয়মই নেই বলে বিএমডিএ নিশ্চিত করেন। কিন্তু বিএমডিএর এমন নিয়ম মানতে নারাজ গভীর  নলকূপের অপারেটরেরা। বিশেষ করে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের কারনে গভীর নলকূপের সেচ সুবিধা  থেকে কৃষকরা চরমভাবে বঞ্চিত। ফলে সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক কার্ডের মাধ্যমে সেচের ব্যবস্থার জোর দাবি কৃষকদের। নচেৎ মানববন্ধন থেকে শুরু করে আন্দোলনে যাওয়ার কথা ভাবছেন কৃষকরা।

কৃষকরা জানান, উপজেলার তালন্দ ইউনিয়ন ইউপির আড়াদিঘি মৌজায় দুটি গভীর নলকূপের অপারেটর ক্ষমতাসীন দলের যুবলীগ নেতা শাফিউল ও হাবিবুর। তারা চলতি বোরো মৌসুমে বিঘায় ২ হাজার টাকা করে সেচ হার নির্ধারণ করেন। কিন্তু হারের পুরো টাকা আদায়ের পর কার্ডে পানি নিতে বাধ্য করছেন। যার কারনে কৃষকদের বাড়তি খরচ গুনতে হচ্ছে। আবার কোন কৃষক এসবের প্রতিবাদ করলে ওই গভীর নলকূপে আর চাষাবাদ করতে পারবে না। একারনে অপারেটরদের হাজারো সিন্ডিকেট মেনে চাষাবাদ করেই যাচ্ছেন। 

তানোর পৌর এলাকার চাপড়া গ্রামের কয়েকজন কৃষক জানান, গভীর নলকূপ স্থাপন হয়েছে কৃষকদের সুবিধার জন্য। কিন্তু গভীর নলকূপ সুবিধার বিপরীতে কৃষকদের কাছে এক প্রকার গলার কাটা হয়ে পড়েছে। আড়াদিঘি গ্রামের অপারেটর শাফিউল ও হাবিবুরের গভীর নলকূপে এক বিঘা  জমির হার ২ হাজার টাকা নির্ধারণ করে পুরো টাকা আদায় হওয়ার পর এখন কার্ড কিনে সেচ নিতে হচ্ছে। চাষাবাদের জন্য সার কীটনাশক সহ শ্রমিকের বাড়তি মূল্য গুনতে হচ্ছে। আবার সেচ হার, কার্ডের মাধ্যমে পানি নেওয়া কৃষকের মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে পড়েছে। চলতি বোরো মৌসুমে টানা  প্রচন্ড খরতাপ আছে। একদিন জমিতে সেচ না দিলে পানি থাকেনা। আবার সেচের জন্য অপারেটর ও ড্রেন ম্যানের কাছে দিনের পর দিন ধরনা দিয়ে মিলে না সেচ।
এদিকে উপজেলায় বোরো চাষ হয় দুভাগে। বিলের জমিতে আগাম ও মাঠের জমিতে আলু উত্তোলনের পর হয় বোরো চাষ। বিলের জমির ধান কাটা মাড়ায় ইতিপূর্বেই শেষ হয়ে গেছে। আলুর জমির ধান  কাটা শুরু হয়েছে। প্রচন্ড টানা তাপমাত্রা থাকা ও সময়মত সেচের পানি না পাওয়ার কারনে বিঘায় ৭ থেকে ৮ মন ধানের ফলন হয়েছে কম। 

কৃষি অফিসের এক কর্মকর্তা জানান, টানা খরতাপ ও সময়মত সেচের পানি না পাওয়ার কারনে বিঘায় ৪ থেকে ৫ মন ফলন কম হয়েছে। এই মর্মে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জেলায় এরিপোর্ট দেয়া হয়েছে। কিন্তু জেলা অফিস সেই রিপোর্ট গ্রহণ না করে গত মৌসুমে যে ফলন হয়েছে সেই রিপোর্ট দেয়ার নির্দেশ দেন। সে মোতাবেক রিপোর্ট পুনরায় দেয়া হয়।বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত)  জামিলুর রহমান বলেন, সেচের জন্য হার নির্ধারণ করার কোন নিয়ম নেই। কার্ডের মাধ্যমে সেচের পানি নিতে হবে। অতিরিক্ত হার নিলে কৃষকরা লিখিত অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে জমিতে সেচের পানি চাওয়ায় মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। তানোর পৌর এলাকার হরিদেবপুর গ্রামে ঘটে ঘটনাটি। এঘটনায় ভুক্তভোগী কৃষক হরিদেবপুর গ্রামের শরিফুল ইসলাম বাদি হয়ে গত রবিবার অপারেটর একই গ্রামের মোজাহারকে বিবাদী করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ভুক্তভোগী কৃষক জানান গত সোমবার সকালের দিকে হরিদেবপুর গ্রামের আইয়ুব আলীর বাড়ির পার্শ্ববর্তী জমিতে সেচের পানি চাওয়ায় অপারেটর মোজাহার আমাকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে। সে বিঘায় ১৬০০ টাকা হার নির্ধারণ করে ১ হাজার টাকা করে নিয়েছেন। টাকা নিলেও সঠিক ভাবে সেচ দেয়না। তবে অপারেটর মোজাহার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাকে অকাথ্য ভাষায় গালমন্দ করার কারনে তাকে উত্তম মাধ্যমে দেয়া হয়েছে । মারপিটের সাথে  সেচের কোন বিষয় নাই। আপনি নাকি ১৬০০ টাকা করে এক বিঘায় হার নির্ধারণ করে ১ হাজার টাকা করে নিয়েছেন জানতে চাইলে তিনি জানান, এখনো হার নির্ধারণ করা হয়নি। ধান কাটার পর নির্ধারন করা হবে।

থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

আরও খবর



ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ কর্তৃক বিকন লাইট এবং হুটার এর বিরুদ্ধে অভিযান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ৩৪১জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ কর্তৃক যানবাহনে ব্যবহৃত অবৈধ বিকন (beacon/flicker) লাইট, হুটার(hooter), হাইড্রোলিক হর্ন এবং স্টিকার এর বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

বুধবার ৮ মে সন্ধ্যা ০৭ ঘটিকা হতে রাত ৯:৩০ ঘটিকা পর্যন্ত  ডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী বিভাগ) মোহাম্মদ আশরাফ ইমামের নেতৃত্বে, এডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী) সুলতানা ইশরাত জাহানের তত্ত্বাবধানে এসি (ট্রাফিক-ডেমরা) জোন মোস্তাইন বিল্লাহ ফেরদৌসের টিম  চট্টগ্রাম রোডের মাতুয়াইল ইউলুপে এই অভিযানটি পরিচালনা করেন। অভিযানে ছয়টি গাড়ির বিরুদ্ধে সড়ক পরিবহন আইনের ব্যবস্থা নেয়া হয়। দুটি গাড়ির বিরুদ্ধে অবৈধ স্টিকার, তিনটি গাড়ির বিরুদ্ধে অবৈধ বিকন বা ফ্লিকার লাইট এবং একটি গাড়ির বিরুদ্ধে অবৈধ হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহারের কারণে ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

অভিযানের রেকর্ড পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, সাবেক এক উপজেলা চেয়ারম্যানের নামের উপর এক ব্যক্তি গাড়িতে বিকন লাইট ব্যবহার করছেন, একটি কাভার্ড ভ্যান বিকন লাইট ব্যবহার করছে এবং কোম্পানির গাড়িতে জেলা পরিষদের একজন সদস্য বিকন লাইট ব্যবহার করছেন। তাছাড়া কোম্পানির নামে একটি গাড়ি সংসদ সদস্যের নাম ভাঙিয়ে একজন  হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার করছেন। অভিযানে পুলিশের একটি স্টিকারের বিরুদ্ধে এবং একটি গার্মেন্টসের বিজিএমইএর স্টিকার ব্যবহারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। সড়কে যানবাহনের শৃঙ্খলা নিশ্চিত করার জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার এর পক্ষ থেকে এই অভিযান অব্যাহত থাকবেন মর্মে ডিসি ট্রাফিক ওয়ারী জানান।


আরও খবর



পাহাড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারে আমলে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে-পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চেয়েছিলেন পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের মধ্যে সমপ্রীতির বন্ধন গড়ে তুলতে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সকল সংস্কৃতির মাঝে ঐক্যের বন্ধন সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করে চলেছেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, পাহাড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারে আমলে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) রাঙ্গামাটি কাপ্তাই উপজেলার সাপছড়ি এলাকার ওয়াগ্গা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যা কল্যাণ সংস্থা কর্তৃক আয়োজিত ৭ম মহাসম্মেলন ও ৬ষ্ঠ কেন্দ্রীয় কাউন্সিল-২০২৪ অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে  প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এসব কথা বলেন। 

তঞ্চঙ্গা সম্প্রদায় আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রশংসা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পাহাড়ের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে তঞ্চঙ্গ্যা সম্প্রদায় সবদিকেই অনেক দূর এগিয়েছে। আধুনিক সমাজেও তঞ্চঙ্গ্যা সম্প্রদায় তাদের কৃষ্টি, কালচার এবং ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। এটি প্রশংসার দাবীদার।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পার্বত্য চট্টগ্রামের সংরক্ষিত আসন হতে রাঙ্গামাটির তঞ্চঙ্গা সম্প্রদায়ের জ্বরতী তঞ্চঙ্গাকে  সংসদ সদস্য হিসেবে পার্বত্যবাসীকে  উপহার দিয়েছেন। প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই উপহার পার্বত্য অঞ্চলে  বিভিন্ন সম্প্রদায়ের সহাবস্থানকে আরো গতিশীল করবে। প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর  স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নব নিযুক্ত সংসদ সদস্যের নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
 
এর আগে জাতীয় পতাকা উড্ডয়ন ও রঙীন বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যা কল্যাণ সংস্থার আহ্বায়ক ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য দীপ্তিময় তালুকদার। সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যা কল্যাণ সংস্থার আহ্বায়ক কমিটির সদস্য নাজিব কুমার তঞ্চঙ্গ্যা। 

সম্মেলনের ১ম পর্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের সদস্য খোকনেশ্বর ত্রিপুরা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য অংসুই ছাইন চৌধুরী, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মফিজুল হক প্রমুখ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যা কল্যাণ সংস্থার সদস্য সচিব উজ্জ্বল তঞ্চঙ্গ্যা।

সম্মেলন এর দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশ তঞ্চঙ্গ্যা কল্যান সংস্থার শিল্পিদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া কেন্দ্রীয় কাউনসিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

আরও খবর