Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১১১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক" দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও ভাগ্য পরিবর্তনে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন,‘আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে উন্নয়ন, প্রযুক্তি জ্ঞান বৃদ্ধি এবং বিশ্ব দরবারে যেন তারা মাথা উঁচু করে চলতে পারে সেইভাবে আওয়ামী লীগ সরকার পদক্ষেপ নেয় এবং বাস্তবায়ন শুরু করে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বেসরকারি খাতগুলো উন্মুক্ত করে দেই। সরকার জনগণের সেবক; সেটা আমরা প্রমাণ করেছি।’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে রাজধানীর বিজয় সরণিতে অবস্থিত সামরিক জাদুঘর উদ্বোধনের পর তিনি এসব কথা বলেন।

জাদুঘরটি উদ্বোধন করে নিজেকে ধন্য মনে করেছেন উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘এটি সশস্ত্র বাহিনীর জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং আমাদের তিন বাহিনী সম্পর্কে আমাদের তরুণ প্রজন্ম উদ্বুদ্ধ হবে। সম্যক জ্ঞান পাবে। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীসহ সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্যদের মধ্যে একটি প্রেরণা আসবে। তারা তৃপ্ত হবেন।’

সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার পেছনে বঙ্গবন্ধুর অবদানের কথা স্মরণ করে সরকারপ্রধান বলেন,‘স্বাধীনতার পরে তিনি সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী গঠন করেন। তাদের প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট গড়ে তোলেন। সাড়ে তিন বছর সময়ের মধ্যে রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলা ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নের জন্য তিনি কাজ করেছেন। যুদ্ধ ক্ষতবিক্ষত দেশকে তিনি শূন্য থেকে দাঁড়িয়ে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গ্রাম পর্যায়ে উন্নয়ন ও তারা যাতে আত্মমর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারেন তার জন্য বঙ্গবন্ধু দ্বিতীয় বিপ্লবের কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য সেটা তিনি সম্পন্ন করে যেতে পারেননি। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। একই সঙ্গে আমার মা ও ভাইসহ পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আপনজন হারিয়েছিলাম এটা সত্য কিন্তু বাংলাদেশ কী হারিয়েছিল? একের পর এক ক্যু হয়েছে। শত শত সেনা অফিসারকে জীবন দিতে হয়েছে। অনেক পরিবার এখনো তাদের খোঁজও পায়নি। পাশাপাশি রাজনৈতিক নেতাদের ওপর চলে অত্যাচার নির্যাতন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ যে আদর্শ নিয়ে স্বাধীন হয়েছিল তার থেকে বিচ্যুত হয়। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা থেমে যায় যা কখনো হওয়ার কথা নয়।’

বারবার নির্বাচিত করার জন্য দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘আমরা দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকার কারণে কেবল দেশের উন্নয়ন নয় বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছি। ইশতিহারের ঘোষণা অনুযায়ী, সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে।’

জাদুঘরের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের যে ইতিহাস রয়েছে-স্বাধীনতার ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং সেই সঙ্গে আমাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষার প্রতীক সশস্ত্র বাহিনী-দেশের মানুষ যেন সে সম্পর্কে জানতে পারে, উপলব্ধি করতে পারে, আমাদের সামরিক বাহিনী অর্থাৎ সেনা, নৌ, বিমান বাহিনী কী কাজ করে, কিভাবে চলে বা অতীতে তারা কী করেছে সে বিষয়ে মানুষকে জানানো একান্তভাবে দরকার। বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানা, একই সঙ্গে আমাদের ভবিষ্যৎ কী হতে যাচ্ছে-সে সম্পর্কে জানা দরকার।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘আজকে যে সামরিক জাদুঘরটি আমরা দেখছি-এটি প্রথমে নির্মিত হয়েছিল খুব ক্ষুদ্র পরিসরে। বিজয় সরণির পাশের জায়গাটিতে এটি প্রস্তুত করা হয়। আমার খুব আকাঙ্খা ছিল-এটিকে খুব আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে গড়ে তোলার। তারই পাশে আরেকটি জায়গায় আমি প্রথমবার যখন সরকারে আসি, প্লানেটোরিয়াম করে ফেলি।’

তিনি বলেন, ‘যে কোনো কাজ আমি প্রথমবার যখন করতে গেছি, প্রতিটি ব্যাপারেই কিন্তু পরবর্তী সরকার এসে আমার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। প্লানেটোরিয়াম যখন আমি করলাম এর জন্য আমার বিরুদ্ধে দুটো মামলা দেওয়া হয়েছিল। কেন দেওয়া হয়-আমি ঠিক জানি না। আমরা যখন প্লানেটোরিয়াম করেছি, তখনই সমস্ত ইউটিলিটি যেন সামরিক জাদুঘর এবং প্লানেটোরিয়াম-উভয়েই শেয়ার করতে পারে সে ব্যবস্থাও নিয়েছিলাম। আর সেই সঙ্গে সরকার প্রধান হিসেবে বিভিন্ন সময় বিদেশে যখন আমরা যাই বা কোনো সরকার প্রধান যখন আমাদের দেশে বেড়াতে আসে তখন যে উপহার দেয়-সেগুলো সংরক্ষণ করা এবং দৃষ্টিনন্দনভাবে রাখা ও মানুষের সামনে তুলে ধরার ব্যবস্থাও করি। আমাদের যে তোষাখানা জাদুঘর আছে বঙ্গভবনে, সেখানে স্টোর রুমের মতো জিনিসপত্রগুলো রাখা। কিন্তু সেগুলো মানুষের সামনে প্রদর্শন করবার ব্যবস্থা আমি নিয়েছি। এজন্য এই জায়গায় আমরা তোষাখানা জাদুঘরও নির্মাণ করি। এবং এটা সামরিক বাহিনীর হাতেই দিয়েছিলাম, একটা কমিটিও আমরা করে দেই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেই সঙ্গে সামরিক জাদুঘরটাকেও অত্যন্ত আধুনিক করে গড়ে তোলা এবং এটা যেন দৃষ্টিনন্দন হয়-সারা বিশ্বের যত সামরিক জাদুঘর হয়েছে, তারমধ্যে যেন শ্রেষ্ঠ জাদুঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায় সেটাই আমার আকঙ্খা ছিল। আমি এই জাদুঘরটি এখনো সরেজমিনে দেখিনি, প্রাথমিক পর্যায়ে যখন কাজ শুরু হয় তখন কিছুটা দেখেছি, যখন যতটুকু ডেভেলপ হয়েছে আমি ছবিতে দেখেছি, এবং যখন যেটা নির্দেশনা দেওয়ার আমি দিয়েছি, কিন্তু যতটুকু এখন দেখলাম—আমি মনে করি, এটা হবে সর্বশ্রেষ্ঠ, সুন্দর, আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন একটি সামরিক জাদুঘর। কাজেই সেভাবে এটি তৈরি হোক সেটাই আমি চাই।’

তিনি বলেন, ‘জাদুঘর শুধু প্রদর্শনীর জন্য না, এটা দেখে আমাদের তরুণ প্রজন্ম দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে এবং দেশপ্রেমে জাগ্রত হয়ে তারা আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে, আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য যোগদান করতে আগ্রহী হবে, এগিয়ে আসবে।’


আরও খবর



ড. ইউনূসের ব্যাংক হিসাব তলব

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: শান্তিতে নোবেলজয়ী অধ্যাপক ড. মুহম্মদ ইউনূসের ব্যাংক হিসাবের তথ্য তলব করা হয়েছে। ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়ে তার সব ধরনের ব্যাংক হিসাবের তথ্য চেয়েছে আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।

গত বৃহস্পতিবার ড. ইউনূসের সব ধরনের ব্যাংক ও ক্রেডিট কার্ডের লেনদেনের তথ্য চেয়ে ব্যাংকগুলোকে চিঠি পাঠিয়েছে বিএফআইইউ। চি‌ঠিতে গ্রামীণ ব্যাংকের সাবেক এই ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) কোনো লেনদেনের রেকর্ড থাকলে তা আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে বিএফআইইউকে পাঠাতে বলা হয়েছে।

তবে কী কারণে ড. ইউনূসের ব্যাংক লেনদেনের তথ্য চাওয়া হয়েছে, তা জানানো হয়নি।

বিএফআইইউ সূত্রে জানা যায়, তদন্তের প্রয়োজনে বিভিন্ন সংস্থা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংক লেনদেনের তথ্য চাওয়া হয়। ড. ইউনূসের ক্ষেত্রে তেমন কোনো সংস্থা এ ধরনের কোনো তথ্য চায়নি। বাংলাদেশ ব্যাংক তাদের নিজস্ব প্রয়োজনে এই তথ্য চেয়েছে।

এর আগে, ২০১৬ সালে একবার ড. ইউনূস ও তার পরিবারের সদস্যদের ব্যাংক হিসাবের তথ্য নেয় বাংলাদেশ ব্যাংক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

১৯৮৩ সালে গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠার সময় থেকেই ব্যাংকটিতে এমডির দায়িত্ব পালন করে আসছেন ড. ইউনূস। ২০০৬ সালে গ্রামীণ ব্যাংকের সঙ্গে যৌথভাবে শান্তিতে নোবেল পান তিনি। তবে অবসরের বয়সসীমা পেরিয়ে যাওয়ার কারণে ২০১১ সালে সরকার তাকে এমডি পদ থেকে সরিয়ে দেয়। সরকারের ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে গেলে হেরে যান ড. ইউনূস।


আরও খবর



নাসিক নির্বাচনে করোনা হিরো খোরশেদ আবারও কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন

নাসিক নির্বাচনে করোনা হিরো খোরশেদ আবারও কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন

প্রকাশিত:Monday ১৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৯৯জন দেখেছেন
Image


নাজমুল হাসানঃ

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আবারও কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন সেই করোনাযোদ্ধা মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। ঠেলাগাড়ী প্রতীকে তিনি ভোট পেয়েছেন ১৩ হাজার ৭৯২টি। অন্যদিকে প্রতিদ্বন্দ্বী রেডিও প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ১ হাজার ২২টি। আজ রবিবার এই ফলাফল জানা যায়। 


সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হয় বিকাল ৪টায়।নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর থেকে ১২৭৭০ ভোট বেশি পেয়ে চতুর্থ বারের মত নাসিকের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচিত হন খোরশেদ। মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন, আল্লাহ রাব্বুল আল-আমীনের দরবারে শোকরিয়া ও ১৩নং ওয়ার্ডবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।


করোনা পরিস্থিতিতে সেবামূলক কাজ করে আলোচনায় আসেন কাউন্সিলর খোরশেদ। করোনায় মরদেহ দাফন করতে টিম গঠন করেন তিনি। তার এ উদ্যোগ দেশ ব্যাপি প্রশংসিত হয়।মাকছুদুল আলম ‘করোনা হিরো’ নামে পরিচিত। এর আগে ২০০৩ সালেও কমিশনার নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।


সি.বা নিজস্ব প্রতিবেদক                   


আরও খবর



ডেমরায় ব্যবসায়ীর বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাঙচুর ও নগদ টাকা চুরি:

ডেমরায় ব্যবসায়ীর বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাঙচুর ও নগদ টাকা চুরি:

প্রকাশিত:Saturday ২২ January 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image


ডেমরা প্রতিনিধি

রাজধানীর ডেমরায় ব্যবসায়ী মো. ওমর ফারুক (৩৫) বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাঙচুর ও নগদ টাকা চুরির ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ সময় সন্ত্রাসীরা বাড়ির গেইট ভেংগে ভিতরে প্রবেশ করে আসবাবপত্র ও সি সি ক্যামেরা ভাঙচুর করে। ওই ব্যবসায়ীকে বেধরক মারধর করেন। এ ঘটনায় বৃদ্ধ বাবা ও মা ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে ওই দুর্বৃত্তরা। পাশাপাশি ঘরে থাকা নগদ ৩ লক্ষ টাকা চুরি করে সন্ত্রাসীরা ও ১ ভরি সোনার চেইন নিয়ে যায় আনুমানিক মূল্য ৭০ হাজার টাকা।


গত ২০ জানুয়ারি দিবাগত রাত ১২ টা ৩৫মিনিট দিকে ডেমরার ঠুলঠুলিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ভুক্তভোগী প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে এ বিষয়ে  রাত সাড়ে ১০ টার দিকে অভিযুক্ত ১০ জনসহ অজ্ঞাত ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে ডেমরা থানায় মামলা দায়ের করেন, মামলা নং-২৮।


অভিযুক্তরা হলেন- ডেমরার ঠুলঠুলিয়া এলাকার মৃত আঃ বাতেনের ছেলে মোঃ জাহিদুল হক (৪০), একই এলাকার এরশাদ আলম ইশুর  ছেলে মোঃ শাহিল (২৪), ছোট ছেলে মোঃ সাগর (২২), মেয়ে মোসা: ঈশিতা (২৬), ছোট ভাই আল মামুন (৩২),বড় ভাই মোঃ সেলিম মিয়া (৪৩),মেজো ভাই জসিম (৩৪), আরেক ভাই মোঃ জামান(৩৮), একই এলাকার মোক্তার হোসেনর ছেলে মোঃ নওশাদ, একই এলাকার আব্দুল বাশারের ছেলে সুলতান ভূঁইয়া (২৮) তবে এ ঘটনায় পুলিশ এখনো আসামিদের গ্রেফতার করতে পারেনি বলে জানা গেছে। 


বিষয়টি নিশ্চিত করে ডেমরা থানার ওসি খন্দকার নাসির উদ্দিন বলেন, মামলা হয়েছে। দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।


আরও খবর



নাসিরনগর সরকারি কলেজ শাখার ছাত্রদলের কমিটি গঠন।

প্রকাশিত:Friday ০৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৪৩জন দেখেছেন
Image


মোঃ আব্দুল হান্নানঃ

ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর সরকারী কলেজ শাখার বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্র দলের ১৯ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।


গত ৫ জানুয়ারী ২০২২ তারিখে ব্রাহ্মণবাড়িয়া  জেলা ছাত্র দল সভাপতি শেখ মোঃ হাফিজ উল্লাহ হাফিজ ও সাধারন সম্পাদক রুবেল চৌধুরী ফুজায়েল স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ কমিটি অনুমোদন লাভ করে।


উক্ত কমিটিতে ইয়াছিন মাহমুদ কে  আহবায়ক ও খায়রুল বাশার রনি কে সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে।


আরও খবর



নাসিক নির্বাচনে এনআইডি ছাড়া চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:Saturday ১৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৪ January ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাত পোহালেই নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচন। আগামীকাল রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। এ উপলক্ষে সতর্ক অবস্থানে প্রসাশন। ভোটের দিন নারায়ণগঞ্জে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ছাড়া কেউ চলাচল করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. জায়েদুল আলম।

আজ শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের তরফ থেকে নির্বাচনী কোনো সহিংসতার আশঙ্কা নেই। নির্বাচনের দিন কোনো বহিরাগতকে নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ করতে দেবো না। ভোটের দিন সবাইকে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে চলাচল করতে দেওয়া হবে।’

এসপি জায়েদুল আলম বলেন, ‘এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থী লিখিতভাবে অভিযোগ করেননি। মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা সেসব অভিযোগ পেয়েছি সেগুলো নিয়ে স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে তদন্ত করে দেখছি। কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি কাউকে হয়রানি করা হচ্ছে বা কোনো বাধা দেওয়া হচ্ছে। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশেই প্রার্থীরা প্রচারণা চালিয়েছেন।’


আরও খবর