Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৮৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক" দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও ভাগ্য পরিবর্তনে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন,‘আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে উন্নয়ন, প্রযুক্তি জ্ঞান বৃদ্ধি এবং বিশ্ব দরবারে যেন তারা মাথা উঁচু করে চলতে পারে সেইভাবে আওয়ামী লীগ সরকার পদক্ষেপ নেয় এবং বাস্তবায়ন শুরু করে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বেসরকারি খাতগুলো উন্মুক্ত করে দেই। সরকার জনগণের সেবক; সেটা আমরা প্রমাণ করেছি।’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে রাজধানীর বিজয় সরণিতে অবস্থিত সামরিক জাদুঘর উদ্বোধনের পর তিনি এসব কথা বলেন।

জাদুঘরটি উদ্বোধন করে নিজেকে ধন্য মনে করেছেন উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘এটি সশস্ত্র বাহিনীর জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং আমাদের তিন বাহিনী সম্পর্কে আমাদের তরুণ প্রজন্ম উদ্বুদ্ধ হবে। সম্যক জ্ঞান পাবে। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীসহ সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্যদের মধ্যে একটি প্রেরণা আসবে। তারা তৃপ্ত হবেন।’

সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার পেছনে বঙ্গবন্ধুর অবদানের কথা স্মরণ করে সরকারপ্রধান বলেন,‘স্বাধীনতার পরে তিনি সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী গঠন করেন। তাদের প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট গড়ে তোলেন। সাড়ে তিন বছর সময়ের মধ্যে রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলা ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নের জন্য তিনি কাজ করেছেন। যুদ্ধ ক্ষতবিক্ষত দেশকে তিনি শূন্য থেকে দাঁড়িয়ে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গ্রাম পর্যায়ে উন্নয়ন ও তারা যাতে আত্মমর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারেন তার জন্য বঙ্গবন্ধু দ্বিতীয় বিপ্লবের কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য সেটা তিনি সম্পন্ন করে যেতে পারেননি। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। একই সঙ্গে আমার মা ও ভাইসহ পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আপনজন হারিয়েছিলাম এটা সত্য কিন্তু বাংলাদেশ কী হারিয়েছিল? একের পর এক ক্যু হয়েছে। শত শত সেনা অফিসারকে জীবন দিতে হয়েছে। অনেক পরিবার এখনো তাদের খোঁজও পায়নি। পাশাপাশি রাজনৈতিক নেতাদের ওপর চলে অত্যাচার নির্যাতন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ যে আদর্শ নিয়ে স্বাধীন হয়েছিল তার থেকে বিচ্যুত হয়। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা থেমে যায় যা কখনো হওয়ার কথা নয়।’

বারবার নির্বাচিত করার জন্য দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘আমরা দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকার কারণে কেবল দেশের উন্নয়ন নয় বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছি। ইশতিহারের ঘোষণা অনুযায়ী, সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে।’

জাদুঘরের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের যে ইতিহাস রয়েছে-স্বাধীনতার ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং সেই সঙ্গে আমাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষার প্রতীক সশস্ত্র বাহিনী-দেশের মানুষ যেন সে সম্পর্কে জানতে পারে, উপলব্ধি করতে পারে, আমাদের সামরিক বাহিনী অর্থাৎ সেনা, নৌ, বিমান বাহিনী কী কাজ করে, কিভাবে চলে বা অতীতে তারা কী করেছে সে বিষয়ে মানুষকে জানানো একান্তভাবে দরকার। বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানা, একই সঙ্গে আমাদের ভবিষ্যৎ কী হতে যাচ্ছে-সে সম্পর্কে জানা দরকার।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘আজকে যে সামরিক জাদুঘরটি আমরা দেখছি-এটি প্রথমে নির্মিত হয়েছিল খুব ক্ষুদ্র পরিসরে। বিজয় সরণির পাশের জায়গাটিতে এটি প্রস্তুত করা হয়। আমার খুব আকাঙ্খা ছিল-এটিকে খুব আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে গড়ে তোলার। তারই পাশে আরেকটি জায়গায় আমি প্রথমবার যখন সরকারে আসি, প্লানেটোরিয়াম করে ফেলি।’

তিনি বলেন, ‘যে কোনো কাজ আমি প্রথমবার যখন করতে গেছি, প্রতিটি ব্যাপারেই কিন্তু পরবর্তী সরকার এসে আমার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। প্লানেটোরিয়াম যখন আমি করলাম এর জন্য আমার বিরুদ্ধে দুটো মামলা দেওয়া হয়েছিল। কেন দেওয়া হয়-আমি ঠিক জানি না। আমরা যখন প্লানেটোরিয়াম করেছি, তখনই সমস্ত ইউটিলিটি যেন সামরিক জাদুঘর এবং প্লানেটোরিয়াম-উভয়েই শেয়ার করতে পারে সে ব্যবস্থাও নিয়েছিলাম। আর সেই সঙ্গে সরকার প্রধান হিসেবে বিভিন্ন সময় বিদেশে যখন আমরা যাই বা কোনো সরকার প্রধান যখন আমাদের দেশে বেড়াতে আসে তখন যে উপহার দেয়-সেগুলো সংরক্ষণ করা এবং দৃষ্টিনন্দনভাবে রাখা ও মানুষের সামনে তুলে ধরার ব্যবস্থাও করি। আমাদের যে তোষাখানা জাদুঘর আছে বঙ্গভবনে, সেখানে স্টোর রুমের মতো জিনিসপত্রগুলো রাখা। কিন্তু সেগুলো মানুষের সামনে প্রদর্শন করবার ব্যবস্থা আমি নিয়েছি। এজন্য এই জায়গায় আমরা তোষাখানা জাদুঘরও নির্মাণ করি। এবং এটা সামরিক বাহিনীর হাতেই দিয়েছিলাম, একটা কমিটিও আমরা করে দেই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেই সঙ্গে সামরিক জাদুঘরটাকেও অত্যন্ত আধুনিক করে গড়ে তোলা এবং এটা যেন দৃষ্টিনন্দন হয়-সারা বিশ্বের যত সামরিক জাদুঘর হয়েছে, তারমধ্যে যেন শ্রেষ্ঠ জাদুঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায় সেটাই আমার আকঙ্খা ছিল। আমি এই জাদুঘরটি এখনো সরেজমিনে দেখিনি, প্রাথমিক পর্যায়ে যখন কাজ শুরু হয় তখন কিছুটা দেখেছি, যখন যতটুকু ডেভেলপ হয়েছে আমি ছবিতে দেখেছি, এবং যখন যেটা নির্দেশনা দেওয়ার আমি দিয়েছি, কিন্তু যতটুকু এখন দেখলাম—আমি মনে করি, এটা হবে সর্বশ্রেষ্ঠ, সুন্দর, আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন একটি সামরিক জাদুঘর। কাজেই সেভাবে এটি তৈরি হোক সেটাই আমি চাই।’

তিনি বলেন, ‘জাদুঘর শুধু প্রদর্শনীর জন্য না, এটা দেখে আমাদের তরুণ প্রজন্ম দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে এবং দেশপ্রেমে জাগ্রত হয়ে তারা আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে, আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য যোগদান করতে আগ্রহী হবে, এগিয়ে আসবে।’


আরও খবর



তিন যুগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

জমকালো আয়োজনে তিন যুগ পূর্তি উদযাপন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব। রোববার (৩১ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টায় কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার।

প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে বর্ণাঢ্য আনন্দ র্যালি বের হয়। র্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্স ভবনের গ্যালারি কক্ষে ‘অনলাইন যুগে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রেস ক্লাবের সভাপতি বেলাল হোসাইন বিপ্লবের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ সজলের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার। প্রধান আলোচক ছিলেন আজকের পত্রিকার সম্পাদক ড. গোলার রহমান।

jagonews24

বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস, প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রেহান উদ্দিন রাজু, সাবেক সহ-সভাপতি ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের জেনারেল ম্যানেজার শাকিল মিরাজ।

অনুষ্ঠানে কি-নোট স্পিকার ছিলেন ফ্রান্সভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা এএফপির ঢাকার ব্যুরো চিফ শফিকুল ইসলাম। তিনি তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে সাংবাদিকদের তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহের কলাকৌশল সম্পর্কে সাংবাদিকদের দিকনির্দেশনা দেন।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে আজকের পত্রিকার সম্পাদক ড. গোলাম রহমান বলেন, সাংবাদিকতা সমাজের জন্য একটি আদর্শিক কাজ। যেটা সমাজের কল্যাণে কাজ করে। কিন্তু সাংবাদিকতা সবসময়ের জন্য একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয়। আইন এমন হবে যা থেকে একজন মানুষ সুবিধা পেতে পারে। কিন্তু এখন এমন আইন তৈরি করা হয়েছে যেগুলো জনগণের বিরুদ্ধে চলে যায়।

jagonews24

উপাচার্য গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, সাংবাদিকতা একটি ঝুঁকিপূর্ণ পেশা। বর্তমানে সত্য কথা বলাটা একটি বিপ্লবের মতো। আমরা সবসময় আশা করি সংবাদপত্র সবসময় সাংবাদিকতার নীতি মেনে সত্য প্রকাশ করবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ক্লাবটির প্রতিষ্ঠাতা সাহিত্য সংস্কৃতি সম্পাদক চমন আফরোজ রোজী, সাবেক সভাপতি কাজল সিদ্দিকি, বোখারী আজাদ জনি, মাহফুজুর রহমান মুন্সি, আজিবুল হক পার্থ, ডালিম হোসেন শান্ত ও তাসলিমুল আলম তৌহিদ।

অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাবের তিন যুগ পূর্তি উৎসব উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার।

পরে বিকেল ৪টায় প্রেস ক্লাবের সাবেক সদস্যদের নিয়ে স্মৃতিচারণ এবং সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়।


আরও খবর



শরীরে সুচ ঢুকিয়ে নির্যাতন, ভুল চিকিৎসার অভিযোগে হাসপাতালে হামলা

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তারিকুল ইসলাম নামে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসার অভিযোগে হাসপাতালের স্টাফদের মারধর করেছেন রোগীর স্বজনরা। বুধবার (২০ জুলাই) সন্ধ্যার এ ঘটনায় পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

রোগীর বড় ভাই জেলা শহরের উত্তর মৌড়াইল এলাকার বাসিন্দা রউফ খন্দকার জাগো নিউজকে অভিযোগ করে বলেন, আমার ছোট ভাই এনামুল হক লিটনের সঙ্গে মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) রাতে আখাউড়ায় কয়েকজন যুবকের ঝগড়া হয়। এ সময় ওই যুবকরা তাকে মারধর করে শরীরে কয়েকটি সুচ ঢুকিয়ে দেয়। তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসক এক্স-রে করাতে বলেন। রাত প্রায় ১২টার দিকে শহরের জেলরোডে পেশেন্ট কেয়ার নামে একটি হাসপাতালে তাকে এক্স-রে করতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে এক্স-রে করে বুকের ভেতরে একটি সুচ পাওয়া যায়।

তখন হাসপাতালে উপস্থিত তারিকুল ইসলাম নামে এক চিকিৎসক জানান তিনি অপারেশন করে সুচটি বের করতে পারবেন। পরে ১০ হাজার টাকা চুক্তিতে লিটনের বুকের ভেতরে থাকা সুচ অপসারণে অপারেশন শুরু করেন। রাত প্রায় একটার দিকে অপারেশন থিয়েটারে লিটনের বুক কেটে কিছুক্ষণ পর সেই চিকিৎসক জানান, তার পক্ষে এই সুই অপসারণ করা সম্ভব নয়। পরে বুকের কাটা জায়গায় কাপড় ঢুকিয়ে ব্যান্ডেজ করে চিকিৎসক তারেক হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।

এ অবস্থায় লিটনকে আরেকটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বুধবার দুপুরে সেখান থেকে জানানো হয় সুচটি বুকের আরও গভীরে চলে গেছে, তারাও অপরাগতা প্রকাশ করেন। এরপর কুমারশীল মোড়ে আরও একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে বিকেলে সেই হাসপাতাল থেকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

রউফ খন্দকার বলেন, চিকিৎসক তারিকুলের অবহেলায় ও অপচিকিৎসার কারণে আমার ভাইয়ের শরীরের গভীরে সুচটি ডুকে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। লিটনের শারীরিক অবস্থার কথা জেনে বিকেলে আমাদের স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে পেশেন্ট কেয়ার হাসপাতালে গেলে কিছুটা বাগবিতণ্ডা হয়। চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আমরা লিখিত অভিযোগ দিব।

পেশেন্ট কেয়ার শিশু ও জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক (প্রশাসন) ইয়াছিন চৌধুরী বলেন, ওই চিকিৎসক আমাদের হাসপাতালে বসেন না। বাইরে থেকে রোগী নিয়ে আসেন তিনি। বিকেলে আমাদের হাসপাতালে কিছু যুবক এসে স্টাফদের মারধর করে এবং হাসপাতালের সামনে থাকা কিছু মোটরসাইকেল ভাঙচুরের চেষ্টা করে।

খবর পেয়ে হাসপাতালে আসা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১নং শহর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) হুমায়ূন কবির বলেন, খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে এসেছি। উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে। আমরা বলেছি, কারো কোনো অভিযোগ থাকলে লিখিতভাবে থানায় দিতে। লিখিত অভিযোগ অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডা. একরামউল্লাহ বলেন, চিকিৎসক বা হাসপাতালের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



শোক দিবসে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কোরআন খতম-দোয়া

প্রকাশিত:Saturday ১৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

স্বাধীনতার মহান স্থপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। দিবসটি উপলক্ষে আগামী ১৫ আগস্ট জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। একই সঙ্গে বনানী কবরস্থানে, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে, টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে এবং দেশের সব মসজিদে কোরআন খতম ও বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে।

শনিবার (১৩ আগস্ট) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, মাঠ পর্যায়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সব উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় কার্যালয়, ৫০টি ইসলামিক মিশন ও ৭টি ইমাম প্রশিক্ষণ অ্যাকাডেমিতে কোরআন খতম, আলোচনা সভা ও বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হবে। অন্যদিকে মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম (৭ম পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় ৭৩ হাজার ৭৬৮টি প্রাক-প্রাথমিক ও বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্রেও বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন করা হবে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আগারগাঁওয়ের প্রধান কার্যালয় ও বায়তুল মোকাররম কার্যালয়ে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও ইসলামিক মিশন ফাউন্ডেশনের আগারগাঁওয়ের প্রধান কার্যালয় ও বায়তুল মোকাররম কার্যালয়সহ ৫০টি ইসলামিক মিশন কেন্দ্র বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালন করবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন যাকাত বোর্ড থেকে দুঃস্থ ও অসহায়দের মধ্যে যাকাতের অর্থ বিতরণ করা হবে। এছাড়া, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নিয়মিত প্রকাশনা ‘মাসিক অগ্রপথিক’ ও ‘সবুজপাতা’র বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করা হবে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।


আরও খবর



সপ্তাহের সেরা চাকরি: ২৯ জুলাই ২০২২

প্রকাশিত:Friday ২৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

দিন দিন কঠিন হয়ে যাচ্ছে চাকরির বাজার। বেকারত্বের হার বাড়ছে জ্যামিতিক হারে। এমন হতাশার মধ্যেও কিছু সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আশার আলো দেখায়। তবে তার জন্য নিজেকে আপডেট রাখতে হবে।

তাই চাকরিপ্রার্থীদের জন্য তুলে ধরা হলো সপ্তাহের সেরা চাকরির বিজ্ঞাপনগুলো। জাগো নিউজের সঙ্গে থাকুন, খুঁজে নিন আপনার পছন্দের চাকরি—

এসিআই লিমিটেডে চাকরির সুযোগ 
উত্তরা মটরসে এক্সিকিউটিভ পদে চাকরি 
হা-মীম গ্রুপে এজিএম পদে চাকরি 
অফিসার নিচ্ছে আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক 
জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে ১২ জনের চাকরি 
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ৮ জনের চাকরি 
৫ জনকে নিয়োগ দেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় 
ঢাকায় চাকরির সুযোগ দিচ্ছে এস আলম গ্রুপ 
আরএফএল গ্রুপের সেলস বিভাগে চাকরি 
সিনিয়র এক্সিকিউটিভ নিচ্ছে আইপিডিসি ফাইন্যান্স 
সিটি গ্রুপে অফিসার পদে চাকরি 
৫ জনকে চাকরি দেবে ওয়ালটন 
ইনচার্জ পদে চাকরি দিচ্ছে শপআপ 
ম্যানেজার পদে নিয়োগ দিচ্ছে নাসা গ্রুপ 
সজীব গ্রুপে অফিসার পদে চাকরির সুযোগ 
এইচএসসি পাসে চাকরি দিচ্ছে সিটি গ্রুপ 
আইপিডিসি ফাইন্যান্সে চাকরির সুযোগ 
অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার নিয়োগ দিচ্ছে ডিবিএল গ্রুপ 
অফিসার পদে চাকরি দেবে দারাজ 
ওয়ান ব্যাংকে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ 
১৫০ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে ডিজিকন 
এইচএসসি পাসে চাকরি দেবে সোয়ান গ্রুপ 
চাকরির সুযোগ দিচ্ছে আবুল খায়ের গ্রুপ 
ওয়ান ব্যাংকে জুনিয়র অফিসার পদে চাকরি 
এইচএসসি পাসে সিটি গ্রুপে চাকরির সুযোগ 
নাসা গ্রুপে জিএম পদে চাকরি 
ডিবিএল গ্রুপে অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার পদে চাকরি 
অফিসার পদে ক্যারিয়ার গড়ুন অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজে 
চাকরির সুযোগ দিচ্ছে এসিআই 
ম্যানেজার নিচ্ছে আরএফএল গ্রুপ 
পানি উন্নয়ন বোর্ডে ১২ জনের চাকরি 
চাকরির সুযোগ দিচ্ছে র্যাংগস মটরস 
একাধিক চাকরি দেবে আইপিডিসি ফাইন্যান্স 
ব্র্যাক ব্যাংকে অ্যাসোসিয়েট ম্যানেজার পদে চাকরি 
এএসএম পদে চাকরি দিচ্ছে এসিআই 
আনোয়ার গ্রুপে অভিজ্ঞতা ছাড়াই চাকরি 
রূপায়ন গ্রুপে চাকরির সুযোগ 
২৯ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট 
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে ৪৬ জনের চাকরি 
১৮২ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে আকিজ গ্রুপ 
এসএসসি পাসে পূবালী ব্যাংকে চাকরির সুযোগ 
প্রাণ গ্রুপে অভিজ্ঞতা ছাড়াই চাকরি 
স্কয়ার গ্রুপে এক্সিকিউটিভ পদে চাকরির সুযোগ 
৫০ জন ম্যানেজার নেবে যমুনা গ্রুপ 
১০০ জনকে নিয়োগ দেবে যমুনা ইলেক্ট্রনিক্স 
আকিজ গ্রুপে চাকরির সুযোগ 
৩৯৭ জনকে চাকরি দেবে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর 
পূবালী ব্যাংকে একাধিক চাকরির সুযোগ 
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে হিসাবরক্ষক পদে চাকরি 

এ ছাড়া সপ্তাহের অন্যান্য চাকরির খবর পেতে অনলাইন জব পোর্টাল জাগোজবস ডটকম  ভিজিট করতে পারেন।


আরও খবর



দিনাজপুরে নারীর মরদেহ উদ্ধার, পরিকল্পিত হত্যা বলছে পুলিশ

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

দিনাজপুরের খানসামায় আম বাগান থেকে সাদেকা বেগম (৩২) নামের এক নারীর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে দাবি পুলিশের।

শুক্রবার (২৮ জুলাই) দুপুরে উপজেলার ভেড়ভেড়ী গ্রামের সায়েদ চেয়ারম্যান পাড়ায় সাবেক স্বামী জাহাঙ্গীর ইসলামের বাড়ির পাশে আম বাগান থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা। সাদেকা উপজেলার তেবাড়িয়ার ডাঙ্গাপাড়া এলাকার আব্দুস সামাদের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাদেকা প্রায় ৯ মাস আগে তার প্রথম স্বামী জাহাঙ্গীর ইসলামকে তালাক দিয়ে নীলফামারীর সদর উপজেলার দারোয়ানী এলাকায় সলেমান মিস্ত্রিকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে সাদেকা তার স্বামী ও শ্বশুরকে চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর আর বাড়িতে ফেরেননি। শুক্রবার সকালে সাবেক স্বামী জাহাঙ্গীরের বাড়ির পাশে বাগানে তার মরদেহ দেখতে পান স্থানীয়রা। তবে স্ত্রীর মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পরও দ্বিতীয় স্বামীর বাড়ির লোকজন আসেনি।

সাদেকার ভগ্নিপতি মাহাবুর ইসলাম বলেন, ‘প্রথম স্বামীর সঙ্গে ১৫ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল সাদেকার। ওই সংসারে তাদের তিনটি ছেলে সন্তান রয়েছে। সংসারে খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া ও নির্যাতন করায় তাদের তালাক হয়। পরে পরিবারকে না জানিয়ে সলেমান মিস্ত্রির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। নতুন স্বামীর বাড়ি থেকে বাচ্চাদের খোঁজ খবর নিতে গত রাতে জাহাঙ্গীরের বাড়িতে যায়। এরপর সকালে জানতে পারি সাদেকাকে কে বা কারা হত্যা করে মরদেহ আম বাগানে ফেলে রেখেছে। এটি একটি হত্যাকাণ্ড এবং এ হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।’

এ বিষয়ে জানতে সাদেকার দ্বিতীয় স্বামী সলেমান মিস্ত্রির মোবাইল নম্বরে কল দিলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

খানসামা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তাওহীদুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। নিহতের মরদেহের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এলেই সঠিক তথ্য জানা যাবে। এরপর দোষীদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে একটি মামলার প্রক্রিয়াও চলছে।


আরও খবর