Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

দেশের জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছে সরকার: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২১৫জন দেখেছেন

Image

আত্রাই(নওগাঁ) প্রতিনিধি: খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সন্ত্রাসীদের দমন করে অশান্ত দেশে শান্তি ফিরিয়ে এনেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ বাংলাদেশে জিয়াউর রহমান ও খালেদা তারেক মিলে গনতন্ত্রকে হত্যা করে মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার হণণ করেছিলেন। আমরা ভুলে যাবার জাতি উল্লেখ করে কাউকে ১০টা কাজের উপকার করার পর তার ১টা কাজ করতে না পারলে সে পূর্বের ১০টি কাজ ভুলে না পারা ১টি কাজকে মনে রাখে। কেননা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পরিবারের সকল সদস্যকে হারিয়ে দেশ ও দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয় ঘটাতে দিন-রাত নিরলশ ভাবে কাজ করে দেশকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে নিয়ে যাচ্ছেন যার সুফল আমরা ভোগ করতে শুরু করেছি। ঢাকা শহরকে সিঙ্গাপুরের সমপর্যায়ে গড়ে তোলা সত্তেও দেশ বিরোধী চক্ররা নানা রকম ষরযন্ত্র করে যাছেন। ষরযন্ত্রের বেড়াজাল ভাঙতে হলে আমাদের সতর্ক থেকে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। সেইসাথে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা চলমান রাখতে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। ২৯ সেপ্টেম্বর শুক্রবার আত্রাই সার্বজনীন কেন্দ্রীয় রাধা গোবিন্দ মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও বৃক্ষ রোপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন নওগাঁ জেলা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক ও খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি। অনুষ্ঠানে নওগাঁ-৬ আসনের সাংসদ আনোয়ার হোসেন হেলাল, জেলা আ’লীগ সহসভাপতি আব্দুল খালেক, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান প্রামানিক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সঞ্চিতা বিশ্বাস, সহকারী কমিশনার (ভূমি) অঞ্জন কুমার দাস, ওসি তারেকুর রহমান সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম ও হাফিজুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলাল, সম্পাদক আক্কাছ আলী প্রামানিক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মন্দিরের সভাপতি বীরেন্দ্রনাথ পালের সভাপতিত্বে মন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি ভিসানীতি নিয়ে দেশ বিরোধী চক্র ঘোলা পানিতে মাছ স্বীকার করার চেষ্টা করছে উল্লেখ করে ভিসা দেওয়া না দেওয়া সে দেশের একান্ত ব্যাপার তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার সাত দিন আগ পর্যন্ত মাঠ পর্যায়ের জরিপ করে মনোনয়ন দিবেন। দলীয় মনোনয়ন যিনি পাবেন আমরা তিনার পক্ষে কাজ করে সারা দেশের ন্যায় নওগাঁর ৬টি আসনে বিজয় শুনিশ্চিত করে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করবো। এর আগে উপজেলা আ’লীগ আয়োজিত দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন প্রধান অতিথি। তপন কুমার সরকার


আরও খবর



আগরবাতি তৈরি করে ১০ হাজার নারীর ভাগ্য বদল

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৫৩জন দেখেছেন

Image

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:আগরবাতি কারখানায় কাজ করে ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেছে সৈয়দপুরের প্রায় ১০ হাজার নারীর। প্রায় দুই যুগের ও বেশি সময় ধরে তৈরি হচ্ছে এই আগরবাতি।বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব মসজিদ, মন্দির, গির্জায় জ্বালানো হয় এই আগরবাতি। এ ছাড়া সুগন্ধি হিসেবেও এখন অনেকে প্রতিদিন ঘরে বা দোকানেও ব্যবহার করেন অনেকেই। 

ব্যবসায়িক শহর হিসেবে খ্যাত এলাকা সৈয়দপুর। এ শহরে বেশ কয়েকটি শিল্প-কল কারখানা থাকলেও ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কুটির শিল্প রয়েছে এই শহরে। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে রয়েছে ছোট ছোট অর্ধশত কারখানা। এর মধ্যে অন্যতম হলো আগরবাতি তৈরির কারখানা। একসময় শহর সহ উপজেলার বাড়ি বাড়ি আগরবাতি তৈরি করা হলেও এখন কারখানাতেই তৈরি হচ্ছে বেশি। 

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, আগরবাতির কারখানার মালিকরা নিজ কারখানা ছাড়া ও পাড়া মহল্লার নারীদের আগরবাতির উপকরণ দিয়ে যান। আর এসব উপকরণ দিয়ে নারীরা পিড়িতে বসে আগরবাতি বানাচ্ছেন। একেকটি নারী শ্রমিক প্রতিদিন তৈরি করছেন ৩/৪ হাজার আগরবাতি। এতে প্রতিদিন একেকজনের আয় হচ্ছে ১০০/১৫০ টাকা। শহরের ২২টি বিহারি ক্যাম্পের অধিকাংশ নারী সহ উপজেলার প্রায় নারী অবসর সময়ে আগরবাতি তৈরি করে সংসার চালাচ্ছেন। 

বাঁশবাড়ি এলাকার সাদরা লেন এর আগরবাতি কারখানার মালিক মাসুম বলেন, মেশিন ক্রয়ের আগে নারীরা হাত দিয়েই আগরবাতি তৈরি করতেন। কিন্তু যখন থেকে কারখানায় মেশিন বসিয়েছি তখন থেকে তাদের খাটনি কমে গেছে।  তিনি আরও বলেন বর্তমানে শহর সহ উপজেলার পাড়া মহল্লায় এমন একটা বাড়ি খুঁজে পাওয়া যাবে না, যে বাড়ির নারীরা আগরবাতি বানাচ্ছেন না। এখন তাদের খাটনি কমে গেছে এবং মজুরি ও পাচ্ছেন ভালো।

শহরের গোলাহাট বিহারি ক্যাম্পের ফরিদা পারভীন বলেন, ‘আমরা বাড়ির কাজ শেষ করে অবসর সময়ে আগরবাতি তৈরি করি। এক দিনে ২ থেকে ৩ হাজার পিস আগরবাতি তৈরি করতে পারি।। মজুরি যা পাই তা দিয়ে আমরা আমাদের শখ-আহ্লাদ পূরন করতে পারি।

ওই ক্যাম্পের বিলকিস নামের অপর একজন জানান, আগরবাতি তৈরির সঙ্গে আমি ২০ বছর ধরে জড়িত। শরুর দিকে আগরবাতির কাঁচামাল বিভিন্ন মহল্লার নারীদের দিয়ে আসতাম। ওইসময় হাত দিয়ে তৈরি করা আগরবাতির ফিনিশিং ভালো হতো না, তবে এখন মেশিন দিয়ে তৈরি করা আগরবাতির ফিনিশিং অনেক ভালো। এতে ব্যবহার কারির চাহিদা বেড়েছে।

সাহেবপাড়ায় আগরবাতি কারখানার স্বত্বাধিকারী শাহাজাদা বলেন, ‘সৈয়দপুরের ২২টি বিহারি ক্যাম্পের অনেক নারী আগরবাতি তৈরির সঙ্গে যুক্ত। অনেক নারী এ কাজ করে সাবলম্বি হয়ে ভালো ভাবে সংসার চালাচ্ছেন। নিজেদের উদ্যোগে অনেকের বাসায় ছোট ছোট কারখানা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এ শিল্পে স্বল্প ঋণ সুবিধা ও সরকারি অনুদান পাওয়া পেলে ব্যবসার পরিধি বাড়ানো সম্ভব।’ 

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের উপব্যবস্থাপক হুসনে আরা বলেন, ‘উদ্যোক্তাদের আমরা সব সময় প্রাধান্য দিয়ে আসছি। আগরবাতির ক্ষেত্রেও কারিগরি প্রশিক্ষণসহ সব ধরনের সহযোগিতার পাশাপাশি অর্থও দেয়া হবে বলে জানান তিনি। 


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




ছাতকে ২১০ বস্তা চিনিস ও আটক এক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি,ছাতক সুনামগঞ্জপ্রতি‌নি‌ধি:ছাত‌কে উপ‌জেলার নোয়ারাই ইউপির লক্ষীবাউর সুরমা নদীর ঘাট এলাকা এক‌টি ট্রাকবোঝাই ২শ ১০ বস্তা ভারতীয় চিনি জব্দ করেছে নৌ পুলিশ। এসময় এক চোরকারবারীকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

মঙ্গলবার ভোর রা‌তে উপ‌জেলার নোয়ারাই ইউপির লক্ষীবাউর বাজা‌রে  দোয়ারাবাজার ও ছাতক পাকা সড়‌ক রাস্তা উপর সুরমা নদীর ঘাট এলাকা অভিযান চালিয়ে  একটি ট্রাক আটক ও এক চোরাকারীকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় একটি ট্রাক থেকে ২শ ১০ বস্তা ভারতীয় চিনি জব্দ করা হয়। যার বাজার মূল্য ১০লাখ ৫০ হাজার টাকা।

গ্রেফতারকৃত হলেন দোয়ারাবাজার উপ‌জেলার বাংলাবাজার ইউপির উলুরগাঁও গ্রা‌মে চান মিয়ার ছে‌লে খায়ের উদ্দিন (৩০) তার প্রধান সহ‌যো‌গি একই ইউপির কিরন পাড়া গ্রা‌মে  রোস্তম আলীর ছে‌লে শফিক মিয়া(২৮ পু‌লিশ দে‌খে ভা‌রতীয় চি‌নি রে‌খে ঘটনাস্থল থে‌কে পা‌লি‌য়ে যায়।

এ ঘটনায় গত ১১ জুন নৌ পু‌লিশের এস আই বাদল ফ‌কির বাদী ৩ জন ব‌্যক্তি নামে নিয়মিত চোরাচালান অপরা‌ধে বি‌শেষ আইনে মামলা দা‌য়ের ক‌রেন থানায়। এ মামলায় আসামী‌কে গ্রেপ্তার দে‌খি‌য়ে গত বুধবার দুপু‌রে সুনামগঞ্জ আদালত পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে।

এব‌্যাপা‌রে নৌ পু‌লিশ ইনচাজ আনোয়ার হো‌সেন এঘটনার সত‌্যতা নি‌শ্চিত ক‌রে ব‌লেন,সুরমা নদীর   নৌকা থে‌কে ভারতীয় চি‌নি বস্তা দি‌য়ে ট্রাক বোঝাই কা‌লে গ্রেপ্তার ক‌রা হয়। আসামী‌কে দুপু‌রে সুনামগঞ্জ আদাল‌তে পাঠা‌নে্া হয়।


আরও খবর



পোরশায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে গণসংবর্ধনা

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১৫৪জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ,পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:নওগাঁর পোরশায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অধ্যক্ষ শাহ্ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় তাকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় উপজেলার পোরশা সদরের হাই মাদ্রাসা কাম হাই স্কুলে উক্ত গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের পাশাপাশি পোরশা মডেল প্রেসক্লাব ফুলের তোড়া দিয়ে তাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ওবাইদুল্লাহ শেখ, তেঁতুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান শাহ্, মর্শিদপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, পোরশা মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি আমির উদ্দীন বাবু, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক নাঈম উদ্দিন, সিনিয়র সদস্য ডিএম রাশেদ, ইউসুফ আলী, আকাশ ও জলাশ প্রমুখ।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




আমতলীতে সেতু ধসে ৪ গ্রামের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:আমতলী উপজেলা চাওড়া ইউনিয়নের মধ্য চন্দ্রা খালের সেতুটি ১৫ মে বুধবার সন্ধ্যায় আকস্মিক ধসে পরে। সেতু ধসের ফলে ওই এলাকার ৪টি গ্রামের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে প্রায় ১০ হাজার মাসুষসহ ২টি বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের মধ্যচন্দ্রা খালের উপর ২০০১ সালে ৩০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ১টি লোহার সেতু নির্মান করা হয়। সেতুটি দীর্ঘদিন ধরে কোন সংস্কার না করায় বুধবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা পারাপারের সময় আকস্মিক খালের মধ্যে ধসে পড়ে। সেতুটি ধসে কামাল (২৩), জামাল হাওলাদার (২৫) ও রাসেল ব্যাপরী (২৭) নামে ৩ পথচারী আহত হয়। তাদেরকে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা  দেওয়া হয়েছে।

সেতুটি ধসের ফলে মধ্য চন্দ্রা, পূর্বচন্দ্রা, উত্তর চন্দ্রা ও পশ্চিম চন্দ্রা গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পরেছে। ওই সেতু পার হয়ে প্রতিদিন শতাধিক লোক আমতলী উপজেলা শহরসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলাচল করে। এছাড়া ওই সেতু পার হয়ে শতাধিক শিক্ষার্থী মধ্য চন্দ্রা সরকারী প্রাথমিক ও মধ্য চন্দ্রা নি¤œ মাধ্যমিক  বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করে। সেতু ধসের ফলে  বৃহস্পতিবার থেকে তাদের স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

নাঈম নামে এক শিক্ষার্থী বলেন সেতু ধসে পরায় এখন আমাদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

মধ্যচন্দ্রা নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী জোবায়দা নাহার বলেন, সেতু ধসে পড়ায় আমাদের স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। স্কুলে যেতে না পারলে আমাদের লেখা পড়ায় অনেক ক্ষতি হবে।

স্থানীয় বাসিন্দা আমিন আকন বলেন, সেতু ধসের ফলে এলাকার প্রায় শতাধিক শিক্ষঅর্থীর স্কুলে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া গ্রামবাসী এই সেতু পারাপার করে আমতলীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলাচল করত। এখন তা বন্ধ হয়ে গোলো। এখন চলাচলে আমাদের অনেক ভোগান্তি হবে। 

আমতলী উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রোকৌশল বিভাগের প্রকৌশলৗ আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, এখানে গর্ডার সেতু নির্মানের জন্য প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ আসলে কাজ শুরু করা হবে।


আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমালে আক্রান্ত অসহায় মানুষের পাশে দাড়ালেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার ,স্টাফ রিপোর্টার: ঘূর্ণিঝড় রেমালে আক্রান্ত দুস্থ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। অসহায় পীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আজ ২৯ মে বুধবার বিকেলে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলা বাই এবং রাঙ্গাবালী উপজেলার বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে ১ হাজারের বেশি পরিবারের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দেয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। চাল, ডাল, তেল, পেয়াজ, আলু এবং খাবার স্যালাইন সরবরাহ করা হয় দুস্থ অসহায় পরিবারসমূহের মাঝে। ত্রাণ বিতরণকালে  উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। একইসাথে দেশের যেসকল উপকূলীয় অঞ্চলসমূহে ঘূর্ণিঝড় রেমাল আঘাত হেনেছে, সেসকল স্থানে একযোগে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের এই ত্রাণ বিতরণ এবং পুনর্বাসন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান বলেন, দেশের যেকোনো দুর্যোগ মুহূর্তে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সবার আগে সেখানে ছুটে যায়। আমরা এবার সাধারন মানুষের জন্য কাজ করেছি। 

তিনি আরো বলেন,ঘূর্ণিঝড় রেমালের ক্ষতিগ্রস্ত   মানুষের পাশে আপনারা যারা বিত্তবান রয়েছেন তারা অবশ্যই তাদের পাশে দাঁড়ান। এই দুর্যোগের মুহূর্তে সরকারের একার দায়িত্ব নয় আমাদেরও দায়িত্ব রয়েছে সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করার। তাই আমি বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানাবো আপনারাও ঘূর্ণিঝড়ে রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান।

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪