Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

বন্যায় সারাদেশের এসএসসি পরীক্ষা স্থগিত

প্রকাশিত:Friday ১৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

আগামী ১৯ জুন শুরু হতে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। সিলেট, সুনামগঞ্জসহ দেশের কয়েকটি জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার (১৭ জুন) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিস্তারিত আসছে...


আরও খবর



বাসা থেকে গৃহকর্মীর মরদেহ উদ্ধার, পুলিশ বলছে আত্মহত্যা

প্রকাশিত:Thursday ০২ June 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর রমনা এলাকায় পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপির বাসা থেকে মৌসুমি আক্তার (১৪) নামে এক গৃহকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ওই গৃহকর্মী আত্মহত্যা করেছে। মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদনেও ‘আত্মহত্যা’ উল্লেখ করা হয়েছে।

রমনা থানা পুলিশের সুরতহাল প্রতিবেদনে বলা হয়, মরদেহের গলার মাঝখানে রশি পেছানোর দাগ পাওয়া গেছে। এছাড়া মরদেহের হাত ও শরীরের দুই পাশ স্বাভাবিক অবস্থায় ছিল। তবে দুই হাতের মুষ্টিবদ্ধ অবস্থায় ছিল। মরদেহে আর কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, মৌসুমি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হচ্ছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (২ জুন) মৌসুমির মরদেহের ময়নাতদন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মৌসুমির মরদেহ নিতে পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কেউ আসেননি।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৌসুমির বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলার বাইচাইল গ্রামে। তার বাবা মুক্তার মৃত। তার মা ফরিদা। ২০১৯ সাল থেকে মৌসুমি ওই বাসায় কাজ করে আসছিল। ঘটনার সময় বাসায় মৌসুমি ছাড়া আর কেউ ছিল না।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, মৌসুমির মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ সদরদপ্তরের এক পুলিশ সদস্য আমাদের থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন। মামলাটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হচ্ছে।

মৌসুমির মৃত্যু নিয়ে পুলিশ প্রাথমিকভাবে কী মনে করছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ও এক্সপার্ট অপেনিয়ন ছাড়া এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাবে না। তবে মরদেহের সুরতহাল আত্মহত্যার দিকে ইঙ্গিত দিচ্ছে। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, এটি আত্মহত্যার ঘটনা হয়ে থাকতে পারে। তবে সে যদি আত্মহত্যা করে থাকে, তাহলে কী কারণে করেছে আমরা তা জানার চেষ্টা করছি।

বুধবার (১ জুন) বিকেল ৫টার দিকে রমনায় অবস্থিত অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক আবু হাসান মোহাম্মাদ (অতিরিক্ত আইজিপি) তারিকের বাসায় যান নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য। এসময় বাসার দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। অনেকক্ষণ ডাকাডাকির পর দরজা না খোলায় ওই পুলিশ সদস্য রমনা থানায় বিষয়টি জানান।

পরে রমনা থানা পুলিশ খবর পেয়ে বাসার দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে বাসার বারান্দা থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় মৌসুমি আক্তারের মরদেহ উদ্ধার করে।

রমনা থানা পুলিশ জানায়, ঘটনার সময় অতিরিক্ত আইজিপির বাসায় মৌসুমি ছাড়া আর কেউ ছিল না। তার স্ত্রী-সন্তানরা তখন বাসার বাইরে ছিলেন। অতিরিক্ত আইজিপি আবু হাসান মোহাম্মাদ তারিক বর্তমানে রাজশাহীর সারদায় পুলিশ ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত।


আরও খবর



আম নিয়ে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন ছুটবে আগামীকাল

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

রহনপুর থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী হয়ে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন চলাচল সোমবার (১৩ জুন) থেকে শুরু হচ্ছে।

রোববার (১২ জুন) সন্ধ্যা ৬টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী মাস্টার মো. ওবায়দুল্লাহ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন থেকেই আর্ডার নিচ্ছি। আগামীকাল সকালে রহনপুর থেকে আম ভর্তি করে সন্ধ্যা ৬টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টশন থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছুটবে এ ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন।’

আমচাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কয়েক দফা আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আলোচনায় তারা জুনের প্রথম সপ্তাহে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনটি চালু করার জন্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছিলেন। মন্ত্রণালয়ে তা প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু কিছু কাজ বাকি থাকায় প্রথম সপ্তাহে ট্রেনটি চালু করা সম্ভব হয়নি। তবে আগামীকাল থেকে প্রতিদিনই আম নিয়ে যাবে এ ট্রেন।’

জানতে চাইলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার জাগো নিউজকে বলেন, ৩০ পয়সা কেজি দরে গত দুই বছর ধরে আম পরিবহন করছে ট্রেনটি। এবারও একই ভাড়া থাকছে।

তিনি বলেন, ‘আগামীকাল সকালে রহনপুর স্টেশনে ট্রেনটি উদ্বোধন করা হবে। পরে বিকেল ৪টায় চাঁপাইনবাবগঞ্ছে পৌঁছাবে। সন্ধ্যা ৬টায় রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। ঢাকায় পৌঁছাবে রাত ২টায়।’

এ ট্রেনে আম ছাড়াও শাকসবজি, দেশীয় ফলমূলসহ পার্সেল হিসেবে অন্যান্য মালামাল পরিবহন করা যাবে বলেও জানান মহাব্যবস্থাপক।

স্পেশাল এ ম্যাংগো ট্রেনটিতে আটটি বগি আছে।


আরও খবর



মুক্ত বাণিজ্য নীতিতে খাদ্য সংকটের সমাধান হবে না

প্রকাশিত:Friday ১০ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
Image

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) চলতি মাসের ১৩ থেকে ১৫ তারিখ ১২তম মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছে। এতে বিশ্ব খাদ্য সংকট বিশেষ গুরুত্ব পাবে। এদিকে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে জি-৭ নেতারা ও বিশ্বের ধনী দেশগুলো আরও মুক্ত বাণিজ্যের দিকে ঝুঁকছে। তবে অনেকে শঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে তাদের এ সিদ্ধান্ত যথাযথ নয়।

কয়েক দশকের বাধাহীন বিশ্বায়ন ও মুক্ত বাণিজ্য সম্প্রসারণের কারণে স্থানীয় অর্থনীতি ধ্বংস হয়েছে, গ্রাম অঞ্চলে বেড়েছে দরিদ্রতা, তীব্র হয়েছে কৃষি সম্পর্কিত দ্বন্দ্ব-সংঘাত, প্রকট হয়েছে অভিবাসী সংকট, ত্বরান্বিত হয়েছে ক্ষুধা। তাই সব দেশে খাদ্য সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করার জন্য একটি আমূল পরিবর্তনের সময় এখনই।

জলবায়ুর ব্যাপক পরিবর্তন, করোনা মহামারি ও সবশেষ রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ আন্তর্জাতিক কৃষি বাজার ও খাদ্য ব্যবস্থায় ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। কৃষি উৎপাদনে ব্যয় বেড়ে গেছে। এতে কৃষি পণ্যের দাম বেড়ে আকাশচুম্বী হয়েছে। বিশ্বব্যাপী উচ্চ মূল্যস্ফীতিতে ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। কিছু আমদানি নির্ভর দেশ অভ্যন্তরীণ খাদ্য চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে।

ট্রান্সন্যাশনাল এগ্রিবিজনেস করপোরেশনগুলো অভ্যন্তরীণ চাহিদা পূরণের চেয়ে মজুত করে রপ্তানি করতে পছন্দ করছে। কখনে কখনো ক্রমবর্ধমান অভ্যন্তরীণ মূল্য নিয়ন্ত্রণে জাতীয় সরকারগুলোকে রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে বাধ্য করে।

বৈশ্বিক খাদ্য ব্যবস্থা মুক্ত বাণিজ্য ও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তির ফলে টিকে রয়েছে। কিন্তু সরবরাহ সংকটে এটি এখন গভীর সংকটে পড়েছে। তারপরও বিশ্বের ধনী দেশগুলো অধিকতর মুক্ত বাণিজ্যে জোর দিচ্ছে।কিন্তু বাস্তব সমাধান সবসময় উপেক্ষা করা হয়েছে।

খাদ্য সার্বভৌমত্ব নীতিরভিত্তিতে জাতীয় পাবলিক নীতিতে সমর্থন করে আসছে বিশ্বব্যাপী কৃষক আন্দোলন। স্থানীয় উদ্যোগের মাধ্যমেই সংকট মোকাবিলা করা যায়, যেটা এখন দেখা যাচ্ছে। মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির মাধ্যমে খাদ্য বাণিজ্যের বিশ্বায়নের পরিবর্তে দেশগুলোর স্থানীয় খাদ্য উৎপাদন রক্ষা, প্রচার, কৃষি বাজার নিয়ন্ত্রণ ও মজুতে অধিকার থাকা উচিত।

২০১৩ সালে বালিতে মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন হয়। তখন থেকেই বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থাটি একটি স্থায়ী সমাধানের চেষ্টা করে আসছে। এ সম্পর্কিত একটি প্রস্তাব এখনো ঝুলে আছে। অধিকাংশ উন্নয়নশীল দেশ স্থায়ী সমাধানের পক্ষে।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য নিয়ম অনুযায়ী, খাদ্য আমদানির ক্ষেত্রে মধ্যম ও নিম্ম আয়ের দেশগুলোকে মুক্ত-বাজার বাণিজ্য ব্যবস্থায় বাধ্য থাকতে বাধ্য করে। এমনকি অনেক সময় তাদের জাতীয় আইন পরিবর্তনেও বাধ্য করে।

ডব্লিউটিওর মতো যে আন্তর্জাতিক সংস্থা শুধু উন্নত ও ক্ষমতাধর দেশের পাশে থাকে তার প্রয়োজনীয়তা কি? এখনই বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থাটির সংস্কার করা দরকার। গত ১০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি খাদ্য সংকটে পড়েছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলো। ক্ষুধায় ভুগছে দুই কোটি ৭০ লাখ মানুষ। ল্যাটিন আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ানেও ক্ষুধার প্রকোপ বেড়ে নয় দশমিক এক শতাংশে দাঁড়িয়েছে, যা গত ১৫ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। সামাজিক অস্থিরতা দেখা দিয়েছে শ্রীলঙ্কা, লেবানন, মিশরসহ বিভিন্ন দেশে।

খাদ্য সার্বভৌমত্বের পথ তৈরি করতে পারে এমন দৃঢ় পদক্ষেপ রয়েছে। ডব্লিউটিওর যেসব নিয়ম দেশগুলোকে পাবলিক ফুড স্টকহোল্ডিং সিস্টেমের বিকাশ করতে ও তাদের স্থানীয় কৃষকদের সমর্থন করতে বাধা দেয় তা অবিলম্বে স্থগিত করা উচিত। ন্যায্য মূল্য নিশ্চিতে আমদানি ও রপ্তানিকারকদের মধ্যে স্বচ্ছ আলোচনা হতে হবে।

দীর্ঘমেয়াদে বিশ্ব খাদ্য নিরাপত্তায় স্থিতিশীলতা আনতে চাইলে খাদ্য শাসন ও রাজনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। ক্ষুদ্র আকারের খাদ্য উৎপাদকদের বিশ্বব্যাপী খাদ্য শাসনের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা উচিত। কৃষকদের অধিকার সংক্রান্ত জাতিসংঘের ঘোষণাপত্রে বর্ণিত অধিকারগুলোকে আইনত বাধ্যতামূলক উপকরণ হিসাবে প্রয়োগ করা উচিত। পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কৃষিবিদ্যা ও কৃষি সংস্কার অবশ্যই টেকসই খাদ্য উৎপাদনের অপরিহার্য মাধ্যম হয়ে উঠতে হবে।

বিশ্ব খাদ্য সংস্থা মানুষের আস্থা হারিয়েছে। সব দেশের সরকারের উচিত কৃষি বিষয়কে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির বাইরে রাখা। খাদ্য সার্বভৌমত্বকে সামনে রেখে বিকল্প বাণিজ্য ব্যবস্থা ও কৃষি নীতি গড়ে তোলা উচিত।

আল-জাজিরার মতামত প্রতিবেদন থেকে অনুবাদ করেছেন শাহিন মিয়া


আরও খবর



নাটোরে ২ মাদক কারবারির যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

নাটোরে দুই মাদক কারবারিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দুপুরে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শরীফ উদ্দিন এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মহিষালবাড়ী গ্রামের বেলাল হোসেন ও পবা উপজেলার দাদপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নান।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ৩ মার্চ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাটোরের বড়হরিশপুর এলাকায় একটি মাইক্রোবাস থামিয়ে তল্লাশি তালায় পুলিশ। এসময় মাইক্রোবাসের ড্যাসবোডে পলিথিন দিয়ে মোড়ানো এক কেজি ৪৭৪ গ্রাম হেরোইনসহ তাদের আটক করা হয়। আটকদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। দুই বছর তিন মাস পর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আরিফুর রহমান বলেন, সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।


আরও খবর



হাঁস তাড়িয়ে বাড়ি ফেরার পথে ধর্ষণের শিকার কিশোরী

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

যশোরে হাঁস তাড়িয়ে বাড়ি ফেরার পথে ধর্ষণের শিকার হয়েছে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী। রোববার (১২ জুন) যশোর সদর উপজেলার লেবুতলা ইউনিয়নের ভবানিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী কিশোরীকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত যুবকের নাম মো. মাহিম (২৭)। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক।

ধর্ষণের শিকার কিশোরী জানায়, রোববার বিকেলে সে বাড়ির পেছনে পুলের কাছ থেকে হাঁস তাড়িয়ে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় একই গ্রামের পান্নার ছেলে মাহিম মুখ চেপে ধরে তাকে পাশের পাটক্ষেতে নিয়ে যান। এরপর কোমল পানীয়র বোতলে থাকা কিছু একটা খাইয়ে দেন। মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে তাকে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যান মাহিম। পরে জ্ঞান ফিরলে বাড়িতে ফিরে সে তার মাকে ঘটনাটি জানায়।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আব্দুস সামাদ বলেন, ‘মেয়েটিকে সেক্সুয়াল অ্যাসাল্ট হিসেবে ভর্তি করে গাইনি ওয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। আলামত (নমুনা) সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রতিবেদন এলে বিস্তারিত জানা যাবে।’

এ বিষয়ে যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগীকে মামলা করতে বলা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর