Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

বন্যার্তদের পর্যাপ্ত ত্রাণ দেয়নি সরকার: ফিরোজ

প্রকাশিত:Friday ২৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image

বন্যাকবলিত এলাকায় সরকার পর্যাপ্ত ত্রাণ দেয়নি উল্লেখ করে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সাবেক সমন্বয়ক বজলুর রশিদ ফিরোজ জানিয়েছেন, বানভাসি মানুষের জন্য সরকার যে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে, তা মাথাপিছু মাত্র সাড়ে ৬ টাকা।

শুক্রবার (২৪ জুন) বিকেলে রাজধানীর পুরোনো পল্টনে জোট আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ তথ্য জানান।

সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ গুরুতর বন্যাকবলিত জেলাসমূহকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করে ক্ষতিগ্রস্ত বানভাসিদের পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা ও পুনর্বাসনের দাবিতে এ দিন সমাবেশ করে জোটটি।

সমাবেশে বজলুর রশিদ ফিরোজ বলেন, বন্যা সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য একটা পরিকল্পনা ৫০ বছরেও আমাদের সরকারগুলো গ্রহণ করতে পারে নি। আমরা নাকি ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছি। কিন্তু এতো বড় একটা বন্যা আসবে, তার পূর্বাভাস সরকার দিতে পারে নি।

তিনি আরও বলেন, একটা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আছে, সেটাও নাকি পূর্বাভাস দিতে পারে না। এই হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ, উন্নয়নের বাংলাদেশ। ৪৫ লক্ষ বন্যাকবলিত মানুষের জন্য যে টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে তা মাথাপিছু সাড়ে ৬ টাকা। এটা নাকি পর্যাপ্ত ত্রাণ!

সমাবেশে বক্তারা বলেন, যখন সিলেট-সুনামগঞ্জে বন্যাকবলিত মানুষ ভয়াবহ সংকটের মধ্যে আছে, তখন সরকার লক্ষ লক্ষ মানুষকে জড়ো করে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করছে।

এই সরকার ২০১৮ সালে বিনা ভোটের নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। তাই তাদের জনগণের প্রতি কোনো দায়বদ্ধতা নেই। এজন্যই আজ বন্যাকবলিত বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে জনগণের সঙ্গে তামাশা করছে তারা।

বক্তারা আরও বলেন, বন্যাদুর্গত এলাকাগুলোতে খাবার নেই, বিশুদ্ধ পানি নেই। দুর্গম এলাকাগুলোতে যথেষ্ট খাদ্য ও ত্রাণসামগ্রী পৌঁছানো যাচ্ছে না। যা দেওয়া হচ্ছে, তাও যথেষ্ট নয়।

এ সময় লক্ষ লক্ষ লোক জমায়েত না করে, সেই জমায়েত করার টাকা দিয়ে বানভাসিদের সহায়তা দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তারা।

দেশে মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার রাজনীতি দরকার। অন্যথায় জনসাধারণের মুক্তি হবে না বলেও এ সময় মন্তব্য করেন বক্তারা।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক আবদুস সাত্তারের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মো. শাহ আলম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) বিধান দাস, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আবদুল আলী, বাসদের (মার্কসবাদী) সমন্বয়ক মাসুদ রানা ও গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু প্রমুখ।


আরও খবর



মিছিলে গুলি প্রমাণ করে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে সরকার: রব

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

হত্যা এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা রক্ষা করা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব। তিনি বলেছেন, চায়ের দাওয়াত দিয়ে মিছিলে গুলি করে প্রজাতন্ত্রের নাগরিক হত্যাই প্রমাণ করে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে সরকার। তাই, নৈতিকভাবে বিপর্যস্ত সরকারের পক্ষে বিদ্যমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকট উত্তরণ সম্ভব নয়।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন জেএসডি সভাপতি।

আ স ম আব্দুর রব বলেন, ২০১৪ এবং ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ষড়যন্ত্র করে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনকে বেআইনি কাজে সম্পৃক্ত করে নির্বাচনী নাটকের মাধ্যমে সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে। আর এখন অধিকার আদায়ের আন্দোলনকারীদের ‘ষড়যন্ত্রকারী’ হিসেবে আখ্যায়িত করছে। যা কোনোভাবেই জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।

জেএসডি সভাপতি বলেন, অবৈধ নিষ্ঠুর সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে জনগণের প্রকৃতগত গণতান্ত্রিক অধিকার। জনগণ কোনোকালেই ষড়যন্ত্র করে না, জনগণ তার ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় লড়াই করে। জনগণ ষড়যন্ত্র করে না, জনগণ গণঅভ্যুত্থান সংঘটিত করে।

তিনি বলেন, ভোলায় মিছিলে পুলিশের গুলিতে দুইজন রাজনৈতিককর্মী নিহত এবং অসংখ্য নাগরিক আহত হওয়ার পরও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো তদন্ত কমিটি গঠন না করায় প্রমাণ হয় সরকার বিবেক শূন্য হয়ে পড়েছে। সরকার ক্ষমতার উন্মাদনায় প্রতিবাদী নাগরিকদের কণ্ঠ স্তব্ধ করার জন্য ক্রমাগত নৃশংস হয়ে ওঠছে। বর্তমান সরকার ইতিহাসের কোনো শিক্ষাকেই ধারণ করার উপযোগী নয়। সরকার আইনের শাসনসহ ‘সত্য’ ‘বিবেক’ এবং ‘লজ্জা’ বিসর্জন দিয়ে দিয়েছে। হত্যা এবং ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় রক্ষা করা যায় না।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধুর দুয়েকজন খুনিকে শিগগির দেশে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত অনেককেই এরই মধ্যে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। যারা এখনো পলাতক রয়েছে, তাদের মধ্যে দুয়েকজনকে শিগগির দেশে আনা হবে।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিকেলে নগরীর আন্দরকিল্লাস্থ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু পরিবারের সবাইকে হত্যা করা হয়। কারণ খুনিরা ভালো করেই জানতো, বঙ্গবন্ধুর রক্ত যাদের ধমনীতে প্রবাহিত তাদের কেউ বেঁচে থাকলে তাদের বিচার একদিন হবেই। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই উন্নয়নের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যেতো। কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীরা তা হতে দেয়নি। তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন।

মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের ভূমিকা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা অসীম সাহসিকতার সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা তাদের সেই ত্যাগের প্রতিদান দিয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সরকারি ভাতাসহ নানা সুযোগ-সুবিধা দিয়ে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী সবসময় প্রমাণ করেছেন, তিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা। নানা ধরনের ষড়যন্ত্র তিনি মোকাবিলা করছেন।

jagonews24

‘২১ আগস্টের বোমা হামলা, সেই দিনের হত্যাকান্ডের দৃশ্য আপনারা দেখেছেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যাকে মহান রাব্বুল আলামিন বাঁচিয়েছেন, বাঁচার কোনো উপায় ছিল না। বঙ্গবন্ধু যেটা করে যেতে পারেননি, সেটা মহান রাব্বুল আলামিন বঙ্গবন্ধু কন্যার মাধ্যমে করিয়েছেন। অল্প সময়ে বঙ্গবন্ধু জাতিকে সংবিধান উপহার দিয়েছেন।’

‘একজন একজন করে হারিয়ে যাচ্ছি। আগামী ১০ বছরে ৬০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা হারিয়ে যাবেন। আমরা সারা বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধারা বেঁচে আছি, সেটা প্রমাণ করতে একটি সমাবেশ করবো। বঙ্গবন্ধুর মুক্তিযোদ্ধারা এখনো বেঁচে আছেন, যেকোনো ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে তারা প্রস্তুত।’

আসাদুজ্জামান খান বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিরস্ত্র বাঙালি সশস্ত্র যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। আবার বঙ্গবন্ধু কন্যার ডাকে আজকে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সব ধরনের সহযোগিতা করছি। এই দেশ হলো হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টানের দেশ। এই দেশে সবাই স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ সবকিছুতে সমান অধিকার পাবে।

‘অনেকেই ইতিহাস বিকৃত করে অনেক কথা বলছেন। বঙ্গবন্ধুর নামটাও মুছে ফেলার প্রচেষ্টা চালিয়েছিলেন। আমরা অনেক দৃশ্য দেখেছি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার দৃশ্য কোনোদিন ভুলতে পারবো না। কী অপরাধ করেছিলো বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যরা। এসব কিছুর আজকে হিসাব-নিকাশের সময় এসেছে। কারা এর সুবিধাভোগী? বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনি, কুলাঙ্গাররা বাংলাদেশকে অন্ধকারের জগতে ডুবিয়ে দিতে চেয়েছিলো।’

‘১৯৭৫ সালের নারকীয় হত্যাকাণ্ডের পরও ষড়যন্ত্র থেমে নেই। বঙ্গবন্ধু হত্যার পেছনে কারা ছিলো তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে হবে। বঙ্গবন্ধু একমাত্র নেতা, যিনি সমগ্র বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছিলেন। তিনি ছিলেন অসাম্প্রদায়িক। আজ তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও উদ্দেশ্য হৃদয়ে ধারণ করতে হবে। সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে আপনারা দেশকে ভালোবাসুন, দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র রুখে দিন।’

jagonews24

সভায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। ১৯৭১ সালে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে তারা জীবনবাজি রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে আমাদের স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা আজ স্বাধীন দেশ পেতাম না। স্বাধীনতাবিরোধীরা বঙ্গবন্ধুর কণ্ঠরোধ করতে চেয়েছিলো। খুনি জিয়া-মোস্তাকসহ যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে সহ্য করেনি, তারাই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করেছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক কলঙ্কময় অধ্যায় যুক্ত হয়েছিল। যারা স্বাধীনতাবিরোধী ও বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারের হত্যার মদদ দিয়েছে তাদের খুঁজে বের করতে হবে। স্বাধীনতা পরবর্তী বিএনপি-জামাত-রাজাকারেরা ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের শুধু বিদেশে পাঠায়নি, দূতাবাসের মাধ্যমে তাদের উচ্চপদে চাকরিও দেওয়া হয়েছিল। তাই শোককে শক্তিতে রূপান্তরের মাধ্যমে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

এর আগে মোজাম্মেল হক জাতীয়, শোক ও সাংগঠনিক পতাকা উত্তোলন এবং মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে ছয়দিন ব্যাপী (৫-১০ আগস্ট) শোক দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এরপর এ উপলক্ষে সাহাবউদ্দিন মজুমদার রচিত ‘বাঙালা হতে বাংলাদেশ’ বিষয়ক মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আলোকচিত্র প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন মন্ত্রী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য (ভিসি) প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে জানার কোনো শেষ নেই। তিনি অত্যন্ত দূরদর্শী নেতা ছিলেন। দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় তিনি আজীবন যুদ্ধ করে গেছেন। যে ব্যক্তি আজীবন দেশের স্বাধীনতা ও এ দেশের মানুষের জন্য ত্যাগ করে গেছেন, তাকেই সপরিবারে নিষ্ঠুরতম হত্যাকান্ডের শিকার হতে হয়েছে। আমরা দুর্ভাগা জাতি।

‘বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছে, তারাই আজ ইতিহাস বিকৃত করছে। নতুন প্রজন্মের কাছে মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের সরকারের উন্নয়নের মহাসড়কে শামিল হতে হবে। জাতির পিতার হত্যাকারী ও ইতিহাস বিকৃতকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা জরুরি।’

jagonews24

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশের রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান ও জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম রশিদুল হক।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম সরওয়ার কামাল দুলু, মহানগর ইউনিটের সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, কমিউনিটি পুলিশিং চট্টগ্রাম মহানগরীর সদস্যসচিব অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, চবির উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ওমর ফারুক রাসেল ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড মহানগর কমিটির আহ্বায়ক সাহেদ মুরাদ সাকু।

সভায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা ইউনিটের অধীন সর্বস্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সন্তান কমান্ডের নেতারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



‘মাদক গবেষক’ সাঈদ ৩ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image

মাদক নিয়ে গবেষণা করা ওনাইসী সাঈদ ওরফে রেয়ার সাঈদের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার (৩ আগস্ট) আসামি সাঈদকে আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তার সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শেখ সাদী আসামির তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত সোমবার (১ আগস্ট) দিনগত রাতে রাজধানীর গুলশান এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক নিয়ে গবেষণা করা সাঈদকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তার গুলশানের বাসা থেকে ১০১ গ্রাম কুশ, ৬ গ্রাম হেম্প, দশমিক ০৫ গ্রাম মলি, ১ গ্রাম ফেন্টানল, ১৮ গ্রাম কোকেন, ১২৩ পিচ এক্সট্যাসি, ২৮ পিচ এডারল ট্যাবলেট জব্দ করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)। এছাড়াও নগদ ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ও প্রায় ৫০ লাখ টাকা মূল্যের মার্কিন ডলার জব্দ করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সাঈদ দেশের একটি স্বনামধন্য ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়াশোনা শেষে ব্যাচেলর অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (বিবিএ) করতে যুক্তরাষ্ট্রে যান। পরবর্তীকালে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ) করেন মালয়েশিয়ায়। দেশে ফিরে প্রথমে বাবার টেক্সটাইল ব্যবসা দেখাশোনা করেন। বিদেশে পড়ালেখার সময় বিভিন্ন মাদকের সঙ্গে পরিচিত হন সাইদ। বাবার ব্যবসা দেখাশোনার পাশাপাশি দেশে নতুন ধরনের মাদকের প্রচলন ও বাজার সৃষ্টির পরিকল্পনা করেন তিনি।

র‌্যাব জানায়, পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১৯ সাল থেকে বিভিন্ন দেশ থেকে কুরিয়ারের মাধ্যমে নানা ধরনের মাদক নিয়ে আসতেন সাইদ। হুন্ডির মাধ্যমে মাদকের অর্থ পরিশোধ করতেন। পরে এসব মাদক সরবরাহ করতেন দেশের বিভিন্ন অভিজাত পার্টিতে। সাইদ নিজে শুধুমাত্র ধূমপান ও মদে আসক্ত। কিন্তু গবেষণা করতেন বিভিন্ন নতুন প্রজাতির মাদক নিয়ে। নিজের বাসায় মাদক উৎপাদনের প্ল্যান্ট তৈরি করেন তিনি। নতুন নতুন মাদক নিয়ে গবেষণার মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার ইচ্ছা ছিল তার। পরিকল্পনা ছিল মাদক বিজ্ঞানী হওয়ার। এ ঘটনায় রাজধানীর গুলশান থানায় সাইদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।


আরও খবর



টিভিতে আজকের খেলা

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

ক্রিকেট
শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান
দ্বিতীয় টেস্ট, দ্বিতীয় দিন
সকাল ১০.৩০ মিনিট
সরাসরি টেন ২

শেয়ার বাজার ক্রিকেট
সকাল ৮.৩০ মিনিট
সরাসরি টি স্পোর্টস

ফুটবল
বিপিএল
বসুন্ধরা কিংস-আবাহনী লিমিটেড
বিকেল ৪.০০টা
সরাসরি টি স্পোর্টস


আরও খবর



চাকরি দিচ্ছে ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

সৈয়দপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘পরিচ্ছন্নতা কর্মী’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১৬ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সৈয়দপুর

পদের নাম: পরিচ্ছন্নতা কর্মী
পদসংখ্যা: ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: অষ্টম শ্রেণি
অভিজ্ঞতা: অভিজ্ঞদের অগ্রাধিকার
বেতন: ৮,২৫০-২০,০১০ টাকা

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: ৩৫ বছর
কর্মস্থল: নীলফামারী (সৈয়দপুর)

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদন ফি: পে-অর্ডারের মাধ্যমে ৫০০ টাকা জমা দিতে হবে।

আবেদনের শেষ সময়: ১৬ আগস্ট ২০২২

লিখিত পরীক্ষা: ১৯ আগস্ট ২০২২
সময়: সকাল ১০টা

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর