Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

বক্সিং কিংবদন্তি টাইসনের বিরুদ্ধে ৩৩ বছর পর ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ২১৯জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের কিংবদন্তি বক্সার মাইক টাইসনের বিরদ্ধে গুরুতর অভিযোগ। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে ধর্ষণ করেছিলেন তিনি, এমনই দাবি এক নারীর। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইল এমন খবর জানায়।

টাইসন নাকি নাইটক্লাবে ধর্ষণ করেছিলেন। যেখানে ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫১ কোটি টাকার বেশি ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন সেই নারী। তিনি জানান, সেই ঘটনার পর শারীরিক ও মনসিক ভাবে ক্ষতি হয়েছে তার। দীর্ঘ দিন ধরে এই কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে তাকে।

যদিও অভিযোগে এই ঘটনার কোনো নির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ করা নেই। তিনি শুধু জানিয়েছেন নব্বইয়ের দশকের শুরুর দিকে ঘটনাটি ঘটে।

অবশ্য ঠিক সে সময়ই ডিজাইরি ওয়াশিংটন নামে এক মডেল অভিযোগ করেছিলেন যে, টাইসন তাকে ধর্ষণ করেছিলেন। ১৯৯২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সেই ঘটনা ঘটে। ইন্ডিয়ানাপোলিসের সেই ঘটনায় অভিযুক্ত হয়ে টাইসনকে ৩ বছর জেলে যেতে হয়।

এবারের অভিযোগকারী নারী জানিয়েছেন যে, টাইসনের গাড়িতে উঠেছিলেন তিনি। তারপরেই তাকে জোর করে তার শরীরে আপত্তিকর ভাবে হাত দেন ও তাকে চুম্বন করার চেষ্টা করেন।

তিনি বলেন, ‘আমি বার বার তাকে নিষেধ করি। কিন্তু ও আমাকে আক্রমণ করেই যাচ্ছিল। তার পর আমার পোশাক খুলে ধর্ষণ করে।’

এদিকে সেই নারীর আইনজীবী ড্যারেন সিলবার্গ বলেন, ‘আমি শুধু নারীর কথায় বিশ্বাস করিনি। অনুসন্ধান করে দেখেছি যে, তার অভিযোগের সত্যতা রয়েছে।’

অভিযোগকারী নারীকে আবার মানসিক ভাবে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যেতে হবে মনে করায় তিনি নিজের পরিচয় প্রকাশ করতে চাননি। যদিও টাইসনের তরফ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো মন্তব্য আসেনি।

৫৬ বছর বয়সী টাইসন ১৯৮৭ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত টানা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি। তার সাবেক স্ত্রী অভিনেত্রী রবিন গিভেন্স আশির দশকের শেষের দিকে বিবাহবিচ্ছেদ করার সময় জানিয়েছিলেন যে, টাইসন তার ওপর শারীরিক অত্যাচার করতেন।


আরও খবর

আইপিএল শুরুর তারিখ প্রকাশ হলো

বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দাম বেড়েছে এলপি গ্যাসের, কার্যকর সন্ধ্যা থেকেই

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:এলপি গ্যাসের নতুন দাম ভোক্তা পর্যায়ে ঘোষণা করেছে সরকার। ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ১ হাজার ৪৩৩ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৪৭৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় নতুন দর ঘোষণা করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। যা সন্ধ্যা থেকেই কার্যকর হবে।

এর আগে জানুয়ারি মাসে এলপি গ্যাসের দাম ১ হাজার ৪০৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৪৩৩ টাকা নির্ধারণ করেছিল বিইআরসি।

বিইআরসির ঘোষণায় বলা হয়, বেসরকারি এলপিজির রিটেইলার পয়েন্টে মূসকসহ প্রতি কেজির মূল্য ১২২ টাকা ৮৬ পয়সায় সমন্বয় করা হয়েছে। এছাড়া রেটিকুলেটেড পদ্ধতিতে তরল অবস্থায় সরবরাহ করা বেসরকারি এলপিজির মূসকসহ প্রতি কেজির মূল্য ১১৯ টাকা ৪ পয়সায় সমন্বয় করা হয়েছে।

এদিকে মূসকসহ অটোগ্যাসের প্রতি লিটারের মূল্য টাকা ৬৭ টাকা ৬৮ পয়সায় সমন্বয় করা হয়েছে।


আরও খবর



জয়পুরহাটে হত্যা ও মাদক মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল  ইসলাম,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটে হত্যা মামলায় ৪ জনের যাবজ্জীবন ও মাদক মামলায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-২ আদালতের বিচারক আব্বাস উদ্দীন এ রায় দেন।

হত্যা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, পাঁচবিবি উপজেলার রতনপুর এলাকার জাইবর আলীর ছেলে সোহাগ, মৃত তৈমুদ্দিনের ছেলে রায়হান, নিজাম উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম ও লোকমানের ছেলে হারুনুর রশীদ। এছাড়া মাদক মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত সুজন সরদার একই উপজেলার গোপালপুর গ্রামের সোলাইমান সরদারের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, জয়পুরহাটের খনজনপুর এলাকার বাদল প্রামাণিকের ছেলে সাহাদুল ইসলাম শহরের স্টেশনরোড এলাকায় কম্পিউটারের দোকান করতেন। সে দোকানে ব্যবসায়ীক লেনদেনের কারণে আসামীদের কাছে তার ৬০ হাজার টাকা পাওনা হয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়। এরই জেরে ২০১০ সালের ৬ জানুয়ারি সাহাদুল রতনপুর এলাকার এক বন্ধুর বাড়ি থেকে বেড়িয়ে জয়পুরহাটে আসার পথে বাগুয়ান এলাকায় আসামীরা লাঠি ও গাছের ডাল দিয়ে সাহাদুলের মাথায় আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। পরে একই দিন বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।
অন্যদিকে ২০২০ সালের ১৪ নভেম্বর পাঁচবিবির উত্তর গোপালপুর গ্রাম থেকে ১১৯ বোতল ফেনসিডিল সহ সুজন সরদারকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

আরও খবর



বিশ্বের সবচেয়ে পছন্দনীয় প্রতিষ্ঠানের তালিকায় মেটলাইফ

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:[ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৪] ফরচুন ম্যাগাজিনের ২০২৪ সালের বিশ্বের সবচেয়ে পছন্দনীয় প্রতিষ্ঠানের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে মেটলাইফ।যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক স্বনামধন্য ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট প্রতিষ্ঠান কর্ন ফেরির সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন শিল্পখাতের পছন্দনীয় প্রতিষ্ঠানের তালিকা তৈরি করে ফরচুন ম্যাগাজিন। শিল্পখাতে বিনিয়োগ মূল্য, ব্যবস্থাপনার মান, আর্থিক সক্ষমতা, সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং গ্রাহক আকৃষ্ট করার সক্ষমতাসহ নয়টি বিভাগে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানকে রেটিং করেন ঐ শিল্পের পেশাজীবীরা এবং বিশ্লেষকবৃন্দ এবং তার ভিত্তিতেই এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়।

 এ স্বীকৃতি সম্পর্কে মেটলাইফের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিশেল খালাফ বলেন, “আমাদের ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য যেন সবার জন্য ভালো ফলাফল বয়ে আনে সেই লক্ষেই আমরা কাজ করি। এই স্বীকৃতি পাওয়া সম্ভব হয়েছে আমাদের সব কর্মীদের জন্যে, যারা গ্রাহক ও সমাজের জন্যে একটি নিরাপদ ভবিষ্যৎ গড়ার লক্ষ্যে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন।” 

 এ তালিকা সম্পর্কে আরও তথ্য জানতে ভিজিট করুন: Fortune.com


আরও খবর

আজ রংপুরের স্থপতি আফিফার সাথে ফারাজের বিয়ে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রৌমারীতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি পাঠ্যবই বিক্রির অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫২জন দেখেছেন

Image

মাজহারুল ইসলাম,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:রৌমারী উপজেলার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সরকারি বিনামূল্যের ৩৬০ কেজি পাঠ্যবই বিক্রির অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বন্দবেড় ইউনিয়নের বাইটকামারী উচ্চ বিদ্যালয়ে।

জানাগেছে, বাইটকামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীর পুরাতন পাঠ্যবইগুলো ফেরত নেন প্রধান শিক্ষক। পরে ২০২৪ সালের নতুন বইসহ শিক্ষার্থীদের ফেরত নেয়া পুরাতন পাঠ্যবইগুলো পাখিউড়া বাজারের এক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করেন প্রধান শিক্ষক। তবে বিনামূল্যের পাঠ্যবইগুলো কত দরে বিক্রি করেছেন তা জানেন না কেউ।

এছাড়াও সরকারি নির্দেশনা তোয়াক্কা না করে প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতির যোগসাজসে ইচ্ছা মতো ফি নির্ধারণ করে ভর্তি ফি, পুন:ভর্তি ফি, পরীক্ষার ফি, রেজিট্রেশন ফি, ফরমপূরণ ফি’র নামে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি ম্যানেজিং কমিটিতে আত্মীয়করণের অর্ন্তভুক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। এ জন্য প্রধান শিক্ষক তার নিজ ইচ্ছামতো এসব কর্মকান্ড করে যাচ্ছেন। প্রধান শিক্ষকের ক্ষমতার প্রভাবে বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক বা শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না।

বিদ্যালয়ের বর্তমান অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী রাসেল ইসলাম, জান্নাতি খাতুন, ফাতেমা আক্তার, কণিকা আক্তার, রাসেদা আক্তার, শেখ ফরিদ, সোমা আক্তারসহ অনেকই বলেন, নতুন বই দেওয়ার সময় পুরাতন বইগুলো ফেরত নিয়েছেন স্যারে’রা। আর সপ্তম শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেনিতে উঠতে নতুন করে ভর্তি বাবদ স্যারেরা ৬শ করে টাকা নিয়েছেন।

তারা আরও বলেন, কেউ ৬’শ টাকা দিতে না পারলে ভর্তি খাতায় নাম তুলেননি এবং নতুন বইও দেয়নি স্যারেরা। একই ভাবে বলেন সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরাও। বিদ্যালয়ের অফিস সহকারি মোছা. হাজরা বেগম বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পুরাতন বইগুলো ফেরত নিয়েছে। তা সত্য। কিন্তু অফিস কক্ষে পুরাতন বইগুলো নেই, কিছু নতুন বই রয়েছে। বইগুলো কি করেছে তা আমার জানার বিষয় নয়।

নাম প্রকাশে অনচ্ছিুক বিদ্যালয়ের কয়েকজন সহকারি শিক্ষক অভিযোগ করে বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পুরাতন বইগুলো নিয়ে ব্যবসায়ীর কাছে কেজি দরে বিক্রি করেছেন। আমরাতো প্রধান শিক্ষককে জবাবদিহি করতে পারিনা। পাশাপাশি প্রধান শিক্ষক ও তার ভাই সভাপতি হওয়ায় এসব করতে সাহস পান তিনি।বিদ্যালয়ের কোন বিষয় নিয়ে কথা বললে এমপিও বন্ধসহ চাকুরি খাওয়ার হুমকিও দেন প্রধান শিক্ষক। এ জন্য আমরা কারও কাছে বলতে চাই না।

বিনামূল্যের সরকারি পাঠ্যবই বিক্রিরসহ কয়েকটি অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে প্রধান শিক্ষক মো. মোস্তাফিজুর রহমান মুঠোফোনে অস্বীকার করে জানান, আমি বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় আছি বলে ফোন কেটে দেন। পরে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. বদরুল হাসান মুঠোফোনে জানান, বিনামূল্যের নতুন কিংবা পুরাতন পাঠ্যবই কোনক্রমই বিক্রি করা যাবে না। তবে কোন প্রতিষ্ঠান প্রধান বিক্রি করেন এবং এ ধরণের বিষয় অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, যেহেতু ইউএনও সভাপতি তাঁর কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ হাসান খান বলেন, এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তাকে বিষয়টি দেখার জন্য বলা হবে। সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থানেওয়া হবে বলে জানান।


আরও খবর



ড. ইউনূসের বিচার নিয়ে যা বললেন মিলার

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অধ্যাপক ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে শ্রম আইনের মামলায় অস্বাভাবিক গতিতে বিচার করা হয়েছে, বলেছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার ।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মিলার বলেন, অধ্যাপক ড. ইউনূসকে হয়রানি ও ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এ নিয়ে সারা বিশ্ব থেকে যে ব্যাপক নিন্দা জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রও তার সঙ্গে আছে। বাংলাদেশের শ্রম আইন ব্যবহার করে তাকে হয়রানি ও ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে বলে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরা উদ্বেগ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রও এ বিষয়ে উদ্বিগ্ন।

তিনি বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন যে, শ্রম আইন এবং দুর্নীতি বিরোধী আইনের অপব্যবহারের ফলে আইনের শাসন নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে এবং ভবিষ্যতে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ রোধ করতে পারে। যেহেতু আপিল প্রক্রিয়া চলমান তাই বাংলাদেশ সরকারকে এ বিষয়ে সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ আইনি প্রক্রিয়া নিশ্চিত করতে উৎসাহিত করি।


আরও খবর