Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বিশ্বজিৎ হত্যার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ১০ বছর পর গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৩২৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক; বহুল আলোচিত বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মীর মো. নূরে আলম ওরফে লিমনকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। গতকাল রোববার রাজধানীর মোহাম্মদপুরের হুমায়ুন রোড থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার লিমন রংপুরের পীরগাছা উপজেলার মীর মো. নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি দীর্ঘ ১০ বছর ধরে পলাতক ছিলেন।

আজ সোমবার সকালে র‍্যাব-২ এর জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) ও সিনিয়র এএসপি মো. ফজলুল হক এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল মোহাম্মদপুরের হুমায়ুন রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে নূরে আলম ওরফে লিমনকে গ্রেপ্তার করেছে।

২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিএনপির অবরোধ কর্মসূচি চলাকালে রাজধানীর বাহাদুর শাহ পার্কের পাশে বিশ্বজিৎ দাসকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করে একদল উশৃঙ্খল লোক। বিশ্বজিৎ একটি দর্জি দোকানের কর্মচারী ছিলেন।

ওই ঘটনায় সূত্রাপুর থানায় করা হত্যা মামলায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ২১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। বিচারিক কার্যক্রম শেষে ২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর মীর মো. নূরে আলম ওরফে লিমনসহ আটজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন ঢাকার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল-৪।

পরে হাইকোর্ট মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আটজনের মধ্যে দুজনকে বেকসুর খালাস দেন এবং লিমনসহ চারজনের মৃত্যুদণ্ডের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন দেন। হাইকোর্টের রায় ঘোষণার সময়ও মীর মো. নূরে আলম ওরফে লিমন পলাতক ছিলেন।


আরও খবর



আত্রাইয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত-৪ আটক-৮

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১২৯জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: ৩য় ধাপে আগামী ২৯মে অনুষ্ঠিত হবে নওগাঁর আত্রাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতিমধ্যেই জমে উঠেছে প্রার্থীদের নির্বাচনী কার্যক্রম। এমন জমজমাট নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার মধ্যেই আত্রাইয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে কৈ মাছ ও কাপ পিরিচ প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ৪জন আহত হয়েছে। এঘটনায় মামলা রজু করে আত্রাই থানা পুলিশ ৮জনকে আটক করে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠিয়েছে। 

আহতরা হলো উপজেলার দীঘা গ্রামের শহিদুল ইসলাম (৬২), মনিরুজ্জামান রনি (৩৮), জগদিসপুর গ্রামের জিহাদ (২২) এবং সাহেবগঞ্জ গ্রামের কামনা আক্তার (২৮)। পরে উন্নত চিকিসার জন্য শহীদুল ইসলাম শহীদ ও মুনিরুজ্জামান রনিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এমন নেক্কার জনক ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে জড়িতদের বিচারের দাবি জানান। আটককৃত রাব্বি হোসেন, শহীদ হোসেন, আশিক হোসেন, আশরাফুল ইসলাম, রফিক হোসেন, মোজাফ্ফর হোসেন, হাফিজ ও শহীদকে ২৫মে শনিবার নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে শনিবার দুপুরে উপজেলার নিজ কার্যালয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী এবাদুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে এবাদুর রহমানের মুখপাত্র বলেন শুক্রবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার জয়সারা আব্বাসের মোড়ে তার ভাই ও কর্মী সমর্থকরা নির্বাচনের প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। এসময় প্রতিদ্বন্দ্বী কাপ পিরিচের প্রার্থী মমতাজ বেগমের ছেলের নেতৃত্বে ১০থেকে ১৫জন সন্ত্রাসীর একটি দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এসময় প্রার্থীর ভাই শহীদুল ইসলাম শহীদ ও মুনিরুজ্জামান রনি ৪জনকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করলে তারা গুরুত্বর আহত হয়।

মামলা ও প্রত্যক্ষদশী সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (২৪মে) দিবাগত রাতে উপজেলার জয়সাড়া গ্রামে কৈ মাছ ও কাপ পিরিচ প্রতীকের কর্মী-সমর্থকের মধ্যে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। এতে কৈ মাছ প্রতীকের ছোট ভাই শহিদুল ইসলাম ও ভাতিজা মনিরুজ্জামান রনি এবং সমর্থক জিহাদ আহত হন। একই ঘটনায় কাপ পিরিচ প্রতীকের বৌমা কামনা আক্তারও আহত হন। আহতরা আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন। 

আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার লুৎফা খাতুন জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত ১টায় ৪জন সামান্য জখম হয়ে হাসপাতালে আসলে তাদের চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এদিকে দিঘা গ্রামের সাজেদুর রহমান বাদী হয়ে রাত সাড়ে ১২টায় থানায় মামলা দায়ের করেন। এদিকে রাত ১১টার সময় ঘটনার স্থানে কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থীর ভাই ও ভাকিজা উপস্থিত থাকায় নির্বাচনী আইন লঙ্ঘন করেছেন মর্মে সচেতন ভোটারেরা অভিযোগ করেন।

কাপ পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী মমতাজ বেগম জানান, কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থীর ভাই ও ভাতিজা আমার ভোটারকে টাকা দিয়ে কেনার চেষ্টা করছে এমন খবর পেয়ে আমরা সেখানে গেলে তারা আমাদের উপর চড়াও হয়।

আত্রাই থানার তদন্ত ওসি লুৎফর রহমান বলেন, সাদা রংয়ের কার গাড়ীতে করে মানুষ অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার সামনে চেকপোষ্ট বসিয়ে কার গাড়ীসহ ৮ জনকে থানায় নিয়ে আসা হয়। তবে গাড়ীতে কোন অপহরণকারী পাওয়া যায়নি। পরে সাজেদুর রহমান বাদি হয়ে নির্বাচনী কাজে বাধা ও মারধরের অভিযোগ করলে তাদের আটক দেখানো হয়।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




ছাতকে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি,ছাতক প্রতি‌নি‌ধি:সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের মরহুম মাস্টার হাবিবুর রহমান ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে এবং আলো রক্তদান সমাজ কল্যান সংস্থার সহযোগিতায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলার ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নের নোয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ৩টা পর্যন্ত টানা পাঁচঘন্টা ব্যাপী চলে এ রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন।

প্রধান অতিথি হিসেবে ক্যাম্পেইন এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুর রউফ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পরিচালনা কমিটির সাবেক সদস্য জাকির হোসেন, ব্যবসায়ী মুহিবুর রহমান, রশিদ আহমদ, শাহাব উদ্দিন।

উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল আলী, সহকারী শিক্ষক রেজ্জাদ আহমদ শিক্ষিকা হোসনেয়ারা বেগম ও লাভলী বেগম, পরিচালনা কমিটির সদস্য শাহনুর আলী, তরুন সমাজকর্মী তাহমিদ আহমদ, আলো রক্তদান সমাজ কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক লিয়ন আহমেদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল হাসান, অর্থ সম্পাদক জামিল আহমেদ ইসমাঈল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রেদওয়ান আহমেদ চৌধুরী, সহ প্রচার সম্পাদক সাকির হোসেন প্রমুখ।ক্যাম্পেইনে বিদ্যালয়ের আড়াইশ শিক্ষার্থীসহ এলাকার অর্ধশতাধিক লোকজনের বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করেন আলো রক্তদান সমাজ কল্যাণ সংস্থার নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর



অপরাধীদের বাঁচাতে তদবির হচ্ছে: আনারকন্যা ডরিন

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অপরাধীদের বাঁচাতে তদবির হচ্ছে দাবি করেছেন,এমপি আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন ।কোনো তদবিরের চাপে বাবা হত্যার বিচার যাতে বন্ধ না হয়। হত্যার যাতে সঠিক বিচার হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালের সঙ্গে দেখা করে এসব দাবি জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার (১২ জুন) বিকেলে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন এমপিকন্যা ডরিন। পরে সংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

ডরিন বলেন, কোনো তদবিরের চাপে বাবা হত্যার বিচার যাতে বন্ধ না হয়, সেই দাবি জানিয়েছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছি যে, আমার বাবা হত্যাকাণ্ডের শিকার, সেটার যাতে সঠিক বিচার হয়, সঠিক বিচারটা যাতে আমাকে নিশ্চিত করা হয়, সেই দাবি জানিয়েছি।

আনারের মেয়ে আরও বলেন, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এরইমধ্যে অনেককে আটক করা হয়েছে। অপরাধীদের বাঁচাতে অনেক জায়গা থেকে তদবির করা হচ্ছে। তাদের যেন ছেড়ে দেওয়া হয়।

কোনো তদবিরের চাপে পড়ে এ হত্যাকাণ্ডের বিচার যাতে বন্ধ করার চেষ্টা না করা হয়, চাপের মুখে যাতে সঠিক তদন্ত বন্ধ করা না হয়, সঠিক বিচার পান সেই দাবি জানিয়েছেন বলে জানান।

ডরিন বলেন, গিয়াস বাবু নামে যাকে আটক করা হয়েছে, তিনি বাবার প্রতিপক্ষ না। আমাদের সঙ্গে তার কোনো শত্রুতাও নেই। আমার মনে অনেক প্রশ্ন জাগছে। গত মাসের ১৭ তারিখে তার সঙ্গে ভাঙায় দেখা হয়েছে। সেখানে একটা টাকা দেওয়ার লেনদেনের কথা উঠেছে, যা আমি খবরে শুনেছি। আমার কথা হলো, এ টাকার যোগানদাতা কে? কেন তারা এটা করিয়েছে? আপনারা দেখেছেন, তাকে আটকের আগে থানায় তিনি জিডি করেছেন যে, তার তিনটি ফোন হারিয়ে গেছে। একই দিনে একজন মানুষের তিনটি ফোন কীভাবে হারিয়ে যায়, সেটাও আমার প্রশ্ন। এগুলো কী পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে, সে তো আমার বাবার শত্রু না। এই কাজগুলো কে করাচ্ছে, সেটা আমি বারবার বলেছি।

তিনি বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি নিয়ে গেছে। অবশ্যই তাদের কাছে সত্যিকারের কোনো তথ্যপ্রমাণ আছে, সেটা আমি নিজেও জানি। সেই প্রমাণের সাপেক্ষেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আসলে এ হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আইনে যেভাবে বলা হয়েছে, সেভাবে যাতে আমার বাবার হত্যার বিচার করা হয়, আমি সেই দাবি জানিয়েছি। আমি শুনেছি, অনেক তদবির করা হচ্ছে। অনেক বড় বড় জায়গা থেকে ফোন আসছে, তাদের ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সঠিক বিচাররের আশ্বাস দিয়েছেন জানিয়ে ডরিন বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, এক্ষেত্রে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। যেটা আইনে আসবে, যেটা সত্য ও সেটার বিচার হবে। আমি বিশ্বাস করি, অপরাধীদের তিল পরিমাণ ছাড় দেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গার দর্শনার গেদে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান সংসদ সদস্য আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গে বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন তিনি। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন আনোয়ারুল আজিম।

২২ মে জানা যায়, কলকাতার পাশের নিউটাউন এলাকায় সাঞ্জিভা গার্ডেনস নামে একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে সংসদ সদস্য আনার খুন হয়েছেন। ঘরের ভেতর পাওয়া যায় রক্তের ছাপ। তবে ঘরে মেলেনি মরদেহ।


আরও খবর



খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ ও অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জেলার সকল ইউনিটের ইনচার্জদের নিয়ে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের এপ্রিল মাসের মাসিক কল্যাণ সভা ও  অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে)  জেলা পুলিশ লাইন্স ড্রিল শেডে এপ্রিল মাসের মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে এপ্রিল মাসের আইনশৃঙ্খলা ও অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর (পিপিএম বার)।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম বার বিভিন্ন পদমর্যাদার পুলিশ সদস্যদের নিকট থেকে পুলিশ লাইন্সের আবাসন, রেশন, পরিবহন, ডিউটি সংক্রান্ত ও পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যাসহ তাদের নিকট হতে সমস্যা সমূহের সমাধানের বিষয়ে সকলের ব্যক্তিগত মতামত সমূহ শুনেন এবং সমস্যাগুলো সমাধানের সুনির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি সকল অফিসার ও ফোর্সকে পুলিশের অভ্যন্তরীন শৃঙ্খলা, সদাচরণ, পেশাদারিত্ব এবং আইন ও বিধি মেনে কাজ করার জন্য নির্দেশ দেন। জেলার অভ্যন্তরীণ আভিযানিক ও দাপ্তরিক  বিভিন্ন বিষয়ে কৃতিত্বপূর্ণ অবদান রাখায় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের ০৪ জন পুলিশ অফিসারকে সার্বিক মূল্যায়নের প্রেক্ষিতে এপ্রিল মাসের জেলার শ্রেষ্ঠ হিসেবে অত্র মাসের কল্যাণ সভায় সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান এর মাধ্যমে পুরষ্কৃত করা হয়।অপরাধ পর্যালোচনা সভা পুলিশ সুপার  অপরাধ সভায় জেলার সকল অফিসার ইনচার্জদের উদ্দেশ্য আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন, মাদক ও চোরাচালান এর বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতিতে তৎপরতার সহিত পুলিশিং কার্যক্রম করার নির্দেশ দেন।


খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ কর্তৃক কৃতিত্বর্পূণ কাজে অবদান রাখায় ০২ জন পুলিশ সদস্যকে বিশেষ পুরষ্কার প্রদান করেন  পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার)

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন- শ্রেষ্ঠ সার্কেল-  রামগড় সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নাজিম উদ্দিন,  শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ দেব প্রিয় দাশ,   শ্রেষ্ঠ এসআই মাটিরাঙ্গা থানার উপ-পরির্দশক মোঃ আব্দুল করিম,  শ্রেষ্ঠ এএসআই মাটিরাঙ্গা থানার সহকারী পরির্দশক শাহ নেওয়াজ (পিপিএম)।

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টে রিয়েলমি গ্রাহকরা পাচ্ছেন ৬০% ছাড়

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:গ্রাহক ও ভক্তদের জন্য ‘মাদারবোর্ড ডিসকাউন্ট’ অফার নিয়ে হাজির হলো তরুণদের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ‘রিয়েলমি’। রিয়েলমি’র অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টারগুলো থেকে ব্র্যান্ডের গ্রাহকরা এ পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবেন। স্মার্টফোনের নির্দিষ্ট কিছু মডেলের মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টের আকর্ষণীয় ছাড়ের সুবিধা রয়েছে এ অফারের মধ্যে।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ডিভাইসের মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টের ক্ষেত্রে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্টের সুযোগ পাচ্ছেন। দেশে অবস্থিত রিয়েলমি’র যে কোনো অনুমোদিত সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে গ্রাহকরা এ অফার উপভোগ করতে পারেন। তবে কোনো আউটলেটে গিয়ে সেবা গ্রহণের আগে, নির্দিষ্ট মডেলের ফোনটি ওই সার্ভিস সেন্টারে সহজলভ্য কী না তা যাচাই করে দেখার অনুরোধ করা হচ্ছে। আপনার নিকটস্থ রিয়েলমি’র সার্ভিস সেন্টারের অবস্থান সম্পর্কে জানতে https://www.realme.com/bd/support/services -এ ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

অফারটি রিয়েলমি’র নির্দিষ্ট কয়েকটি ফোনের মডেলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। মডেলগুলো হলো: রিয়েলমি সি১৫, রিয়েলমি সি১৭, রিয়েলমি ৮, রিয়েলমি সি৩১, রিয়েলমি নারজো ৫০আই, রিয়েলমি সি১১ ২০২১, রিয়েলমি সি২৫ওয়াই, রিয়েলমি সি২১ওয়াই এবং রিয়েলমি ৯আই। আগ্রহী গ্রাহকদের জানানো যাচ্ছে যে, শুধু রিয়েলমি’র অফিসিয়াল স্মার্টফোনের জন্য এ অফারটি তারা উপভোগ করতে পারবেন।

এসব ডিভাইসের মধ্যে রিয়েলমি সি১৫, রিয়েলমি সি১৭, রিয়েলমি ৮, রিয়েলমি সি৩১, রিয়েলমি নারজো ৫০আই, রিয়েলমি সি১১ ২০২১, রিয়েলমি সি২৫ওয়াই ও রিয়েলমি সি২১ওয়াই এর মাদারবোর্ড রিপ্লেসমেন্টে ব্যবহারকারীরা পাচ্ছেন ৬০ শতাংশ ছাড়। অন্যদিকে, রিয়েলমি ৯আই এর দুটি ভার্সনে গ্রাহকদের ৪০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

চলতি মাসজুড়ে এ অফার দিচ্ছে জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি। অফারটি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে, রিয়েলমি ইউজাররা ফেসবুকে ব্র্যান্ডের অফিসিয়াল আফটার-সেল সার্ভিস পেজ “রিয়েলমি সার্ভিস বিডি” ফলো করতে পারেন।

তবে আর অপেক্ষা কেন? ফুরিয়ে যাওয়ার আগেই আপনার নিকটস্থ রিয়েলমি সার্ভিস সেন্টার যান এবং উপভোগ করুন এ দারুণ অফারটি।


আরও খবর