Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

বিপণী বিতানে ক্ষতিগ্রস্তরা দোকান পাবেন: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৪০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখা হাসিনা বলেন বিপণী বিতানে ক্ষতিগ্রস্তরা দোকান পাবেন। নতুন করে ব্যবসা শুরু করতে কোনো আর্থিক সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তা সরকারে দেবে৷ এই মার্কেট নতুন করে বাঁচার শক্তি দেবে ব্যবসায়ীদের। এ সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক নতুন ক্যাম্পাস গড়ে তোলা হবে বলেও জানান তিনি।

শনিবার (২৫ মে) বঙ্গবাজারে নতুন মার্কেটসহ চার প্রকল্পের উদ্বোধন শেষে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় নগরবাসীকে যেখানে সেখানে ময়লা-আবর্জনা না ফেলার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলবেন। সিটি করপোরেশনকে দ্রুত ময়লাগুলো অপসারণের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যেন শহর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকে।

এছাড়া আসন্ন ঈদুল আজহায় যেখানে সেখানে পশু কোরবানি না করার নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যত্রতত্র পশু কোরবানি দেবেন না৷ নির্দিষ্টস্থানে কোরবানি দেবেন। আগামীতে পশু কোরবানির জন্য আরও আধুনিক ব্যবস্থা রাখতে বলা হয়েছে সিটি করপোরেশনগুলোতে। শুধু সিটি করপোরেশন নয়, দেশব্যাপী আধুনিক ব্যবস্থা রাখতে হবে সেই নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ-পানি ঠিকমত পেত না নগরবাসী৷ স্বাস্থ্যকর পানি পেতে চাইলে, নিজের পানির ট্যাঙ্ক নিজেদেরই পরীক্ষা করে দেখতে হবে। মশার প্রজনন ক্ষেত্র যেন তৈরি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন৷ আগের চেয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার বেড়েছে।

অতিরিক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঘর থেকে বের হওয়ার আগে লাইট-ফ্যান-চার্জারের সুইচ বন্ধ রাখবেন। চার্জারের লাল বাতি জ্বললেও বিল ওঠে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচ অবশ্যই আপনাকে দিকে দিতে হবে। না হলে বিদ্যুৎ আসবে কোথা থেকে।

সরকার প্রধান বলেন, পানি বিল কমাতে চাইলে পানি ব্যবহারেও সাশ্রয়ী হবেন। পানির কল ছেড়ে, শেভিং কিংবা কাপড় কাচা বা দাঁত মাজবেন না৷ পানি অপচয় করবেন না।

প্রকল্প-পরিকল্পনা নেওয়ার আগে জলাধারগুলো সংরক্ষণ রাখারা জন্য প্রকৌশলিদের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জলাশায় থাকলে বাতাস ঠাণ্ডা থাকে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এক সময় ঢাকায় অনেক খাল-পুকুর, জলাশয় ছিল। তখন ঢাকার পরিবেশও সুন্দর ছিল। বাতাস ঠাণ্ডা ছিল। কিন্তু এখন সেগুলো দালান-কালভার্ট নির্মাণে ভরাট হয়ে গেছে। যদিও কিছু খাল উদ্ধার করা হয়েছে।

পার্কগুলো যেন মাদকসেবীদের আখড়া না হয়। শোভাবর্ধন-পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায়ে রাখতে ভূমিকা রাখতে হব কাউন্সিলরদের-এ কথা জানিয়ে তিনি বলেন, মাদক থেকে দূরে থাকবেন সবাই।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাজাপ্রপ্ত তারেক জিয়া এখন বিদেশ থেকে দেশে অশান্তির হুকুম দেয়। অস্ত্র চোরাচালানের রুট ছিল বাংলাদেশ৷ সেটা বন্ধ করা হয়েছে। আত্মমর্যাদা-আত্মসম্মান নিয়ে চলার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে তরুণ প্রজন্মকে।


আরও খবর



সিরাজগঞ্জে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image
রাকিব সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:'বৈশ্বিক পুষ্টিতে দুধ অপরিহার্য' এই  প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সিরাজগঞ্জে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভার মাধ্যমে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস-২০২৪ পালিত হয়েছে।

শনিবার (১লা জুন)সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বর থেকে  সিরাজগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয় এবং প্রাণি সম্পদ ডেইরী উন্নয়ন প্রকল্প (এলডিডিপি) প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর মৎস্য প্রাণী সম্পদ এর আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গা প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয় এসে শেষ হয়।পরে শহিদ এ. কে.শামসুদ্দিন সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সম্মননা স্বারক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রশাসক মীর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান এর সভাপতিত্বে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,সিরাজগন্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং  সিরাজগঞ্জ সদর ও কামারখন্দ- ২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ড. জান্নাত আরা হেনরী । 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন,মুখ্য আলোচক জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা:মোঃওমর ফারুক,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)গণপতি রায় প্রমুখ। 

জেলা প্রশাসক মীর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বলেন,প্রতিটি মানুষের সুস্থ থাকতে হলে দুধ খাওয়ার কনো বিকল্প নেই। সুস্থ থাকতে প্রতিটি 
নাগরিকের মানবদেহের জন্য  দুধ,ডিম,মাংস,শাক-সবজি,মাছ খাওয়ার  প্রয়োজন। একজন মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী হতে গেলে পুষ্টিকর খাবার বেশি বেশি করে খেতে হবে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মান করতে তরুণ প্রজন্মেরায় আগামী দিনের মেধা শক্তি।  

অনুষ্ঠানে আরো অংশ গ্রহন করেন জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও ডেইরী এবং পোল্ট্রি ফার্মাস এ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ,ডেইরী খামারীবৃন্দ সহ বিভিন্ন ভেটেরিনারি ঔষুদ কোম্পানি এবং ফিড কোম্পানির প্রতিনিধি গণ।


অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন,এলএসপি কামারখন্দ এর  রহমত আলী। পরে দুগ্ধগুনাবলী নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র ও পাওয়ার পয়েন্টের উপর আলোচনা করেন রায়গঞ্জের ভেটেরিনারি অফিসার ডাঃমোঃ আমিনুল ইসলাম।

আরও খবর



মাগুরায় অটিস্টিক শিশুদের নিয়ে ক্রীড়া আনন্দ উৎসব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরায় অটিজম ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিষয়ক সচেতনতা এবং ক্রীড়া আনন্দ উৎসব করেছে জেলা ক্রীড়া অফিস। ক্রীড়া পরিদপ্তরের বার্ষিক ক্রীড়া কর্মসূচি ২০২৩-২৪ এর অংশ হিসেবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ১১ জুন মঙ্গলবার সকালে শহরের দোয়ারপাড় বাঁশতলা এলাকায় মাগুরা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাগুরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ। জেলা ক্রীড়া অফিসার অনামিকা দাস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান,  জেলা সমাজসেবা বিভাগের সহকারি পরিচালক জাহিদুল আলম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ডালিফা ইয়াসমিন,  প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সাংবাদিক রূপক আইচ, ক্রীড়া সংগঠক বারিক আনজাম বর্কিসহ অন্যরা। অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী শিশুরা নৃত্য,  সংগীত ও বিভিন্ন প্রকার খেলাধুলায় মেতে ওঠে। পরে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

আরও খবর



রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, নিহত-১, আহত-১৪

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৮জন দেখেছেন

Image

আবু কাওছার মিঠু রূপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃনারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে দ্বীন ইসলাম (২০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। এঘটনায় গুলিবিদ্ধসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ আহত হয়। নিহত দ্বীন ইসলাম নাওড়া গ্রামের বেলায়েত হোসেনের ছেলে। গত ৬ জুন বৃহস্পতিবার উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নে নাওড়া এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। উপয়পক্ষের বাড়ি ঘরে হামলা ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, নাওড়া এলাকায় জমি দখল, বালু ভরাট ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কায়েতপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিক ও সাবেক ইউপি সদস্য মোশারফ মেম্বারের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। কিছুদিন পর-পর এ দুই গ্রুপ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ, গোলাগুলি, হামলা, ভাঙচুর, লুটপাটের ঘটনা ঘটিয়ে আসছে। উভয় পক্ষের লোকজন পিস্তল, সর্টগান, টেঁটা, বল্লম, জুঁইতা, রামদা, চাপাতি, চাইনিজ কুঁড়ালসহ অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে উভয় পক্ষ  একে অপরকে লক্ষ্য করে এলোপাথারিভাবে গুলি ছোঁড়ে এবং এক পক্ষ আরেক পক্ষের বাড়ি ঘরে হামলা ভাংচুর, ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও লুটপাট চালায়। এ সময় নাওড়া গ্রামের সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ উভয় পক্ষের আরিফ হোসেন, রুবেল, আব্দুল্লাহ, আল-মামুন, সোহেল মিয়া, কামাল হোসেন, লিখন আহমেদ, জেসমিন, ওয়াসিম, সাখায়েতউল্লা, আনু, নুরআলমসহ অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছে।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, সংঘর্ষের ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। যে কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



গোদাগাড়ীর চরে সৌর বিদ্যুতের কেন্দ্রটি বন্ধ হওয়ায় অন্ধকারে ৩০ হাজার মানুষ

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ২৪জন দেখেছেন

Image

মুক্তার হোসেন গোদাগাড়ী(রাজশাহী)প্রতিনিধিঃরাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার পদ্মা নদীর ওপারে চর আষাঢ়িয়াদহ ইউনিয়নে থাকা একমাত্র সৌর বিদ্যুতের প্লান্টটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বৃহস্পতিবার(২০ জুন) হঠাৎ এটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে ভারতীয় সীমান্ত লাগোয়া এই চরের ১ হাজার ৩০০ গ্রাহক রয়েছে। এতে করে ৩০ হাজার মানুষ অন্ধকার ও দুর্ভোগে পড়েছেন।প্রায় ৯ বছর আগে সরকারের ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের (ইডকল) কারিগরি সহযোগিতায় চর আষাঢ়িয়াদহে সৌর বিদ্যুতের প্লান্ট স্থাপন করেছিল বেসরকারি সংস্থা আভা। প্লান্টটির নাম দেওয়া হয়েছিল আভা মিনি-গ্রিড প্রজেক্ট। কোনো ঘোষণা ছাড়াই বৃহস্পতিবার এই গ্রিডটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

চর কানাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী চান বলেন, ‘প্রথম দিকে প্লান্ট থেকে ২৪ ঘণ্টাই বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হতো। বছরদুয়েক থেকে শুধু দুপুরে জোহরের নামাজের সময় ১ ঘণ্টা, আসরের নামাজের সময় ৩০ মিনিট, মাগরিবের নামাজের সময় থেকে রাত ১০টা, রাত ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ দেওয়া হতো। এতে কোনোরকমে ফ্রিজটা চলত। বৃহস্পতিবার থেকে একেবারেই বন্ধ। ফ্রিজের ভেতর প্রায় ৫০ কেজি মাংস ছিল। এগুলো বের করে রান্না করা হচ্ছে। খাওয়া যাবে কি না জানি না।’

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সরকারের টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (স্রেডা) এই প্লান্ট স্থাপনে প্রণোদনাও দেয়। আর কারিগারি সহায়তা করে সরকারের আরেক সংস্থা ইডকল। এই সংস্থাটি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে সমীক্ষাও করেছিল। প্রতিষ্ঠানটি বলেছিল, প্লান্টটি চালালে প্রতিমাসে ১৫ লাখ টাকা করে লাভ করতে পারবে আভা। কিন্তু এখন পর্যন্ত লাভের মুখ দেখা যায়নি। ২৪ ঘণ্টার ভেতর ছয়-সাত ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ করেও প্রতিমাসে প্রায় লাখ টাকা লোকসান হচ্ছিল। সব মিলিয়ে লোকসান হয়েছে কয়েক কোটি টাকা।

জানা গেছে, আভা মিনি-গ্রিড প্রজেক্টের প্লান্ট ব্যবস্থাপক হিসাবে শুরু থেকেই কর্মরত ছিলেন মিল্লাত হোসেন। এছাড়া আরও দুজন কর্মচারী সেখানে থাকতেন। বৃহস্পতিবার মিল্লাত হোসেন ৪৮ হাজার টাকা বেতনের এই চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়ে প্লান্ট বন্ধ করে চলে আসেন। যোগাযোগ করা হলে মিল্লাত হোসেন বলেন, ‘চাহিদা ১২০ কিলোওয়াটের। আর আমরা সরবরাহ করতে পারছিলাম মাত্র ৬০ কিলোওয়াট। সেই কারণে প্লান্ট বন্ধ করে চলে এসেছি।’

এ ব্যাপারে নেসকোর নির্বাহী পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) মোহাম্মদ শহিদ হোসেন বলেন, ‘সৌর বিদ্যুৎ স্থায়ী সমাধান নয়। এটি যুগ যুগ চলবেও না। দুর্গম অঞ্চলে বিদ্যুৎ দিতে সরকারের অগ্রাধিকার ছিল বলে নেসকো বিনামূল্যেই আভাকে নানা সহযোগিতা করেছে। কিন্তু নদী পার করে সাব-মেরিন কেবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ নিয়ে যাওয়া সহজ কাজ নয়। আভার সৌর বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধের বিষয়টি নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তারপর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।’


আরও খবর



১৫ আগস্টের পর থেকে ইতিহাস বিকৃতি শুরু হয়: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ১১৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর থেকে আমাদের ইতিহাস বিকৃতি শুরু হয় বলেছেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলা হয়। সকলের নামে নানা ধরনের কুৎসা রটনা করে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা হয়।

রোববার (২ জুন) সকাল ১০টায় গণভবনে ‘আমার চোখে বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক এক মিনিটব্যাপী ভিডিওচিত্র তৈরি প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ে নির্বাচিতদের সম্মাননাপত্র, ক্রেস্ট ও আর্থিক পুরস্কার প্রদান শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ নিষিদ্ধ হয়ে যায়। যে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের সময় এদেশের মানুষ বুকের রক্ত ঢেলে দিয়েছে, সেই জয় বাংলা স্লোগানটাও বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি জানি না পৃথিবীর আর কোন দেশে এভাবে একটা যুদ্ধ করে যারা এত আত্মহুতি দেয় তাদের এত অবমাননা করে। বাংলাদেশে এমন একটা সময় এসেছিল যখন, আমি মুক্তিযুদ্ধ করেছি এ কথাটা বলার সাহস ছিল না।


আরও খবর