Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিল কোকাকোলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০০জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:কোমলপানীয় ব্র্যান্ড কোকাকোলা তুমুল সমালোচনার মুখে জীবন-শিমুল শর্মাদের করা বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুন) সকাল থেকে বিজ্ঞাপনটি আর দেখা যাচ্ছে না।

বিজ্ঞাপনটি প্রচারে আসার পরপরই সমালোচনা শুরু হয় নেটদুনিয়ায়। তোপের মুখে পড়েন অভিনেতা শরাফ আহমেদ জীবন, শিমুল শর্মা, আব্দুল্লাহ আল সেন্টু প্রমুখ।

পরবর্তীতে অবশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছেন অভিনয়শিল্পীরা। তবে এ প্রসঙ্গে এখনও কোনো বিবৃতি দেয়নি কোকাকোলা।

কোকাকোলার ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল, ১৯৩টি দেশে কোকাকোলা তৈরি হয় এবং ফিলিস্তিনেও এর ফ্যাক্টরি রয়েছে। ইসরায়েলি কোম্পানি নামে যে কথা প্রচলিত রয়েছে তা একেবার অসত্য।

এই বিজ্ঞাপন নিয়ে সমালোচনা শুরু হলে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে নিজেদের মতামত জানান শরাফ আহমেদ জীবন ও শিমুল শর্মা। সেসব পোস্টের মন্তব্যঘরেও নেটিজেনদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। বিষয়টি উপলব্ধি করতে পারার জন্য অভিনয়শিল্পীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন অনেকে। আবার সেখানে অনেকে বিরূপ মন্তব্যও করেছেন।


আরও খবর



ঈদুল আজহার জামাত শেষে দেশ ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় বিশেষ মোনাজাত

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঈদুল আজহার কয়েকটি জামাত জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম ও জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নামাজ শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে পরম করুণাময় আল্লাহর দরবারে বিশেষ দোয়া করা হয়। পাশাপাশি মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ ও শান্তি কামনায় বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার (১৭ জুন) বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক। মুকাব্বির ছিলেন বায়তুল মোকাররমের অবসরপ্রাপ্ত মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারী মো. আতাউর রহমান। নামাজ শেষে একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি করেন মুসল্লিরা।

আজ দেশের কোটি কোটি মুসলমান দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায়ের মাধ্যমে ঈদ উদযাপন শুরু করছেন। ধনী-গরিব ভেদাভেদ ভুলে সবাই এক কাতারে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজ আদায় করে।

বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত শেষে মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা, আত্মশুদ্ধি, নিজেদের পাপমোচন এবং পরিবার-পরিজন, দেশ ও মানুষের সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া চেয়ে আল্লাহর দরবারে মোনাজাত করেন মুসল্লিরা।

জাতীয় ঈদগাহেও ঈদের প্রধান জামাত শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনার পাশাপাশি বিশ্ববাসীর শান্তি প্রার্থনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। একই সঙ্গে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ শাহাদাতবরণকারী পরিবারের সদস্যদের ও তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও পরিশ্রমকে কবুল করার জন্য দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

ঈদের প্রধান জামাতে সর্বস্তরের মুসল্লিদের সঙ্গে নামাজ আদায় করেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদের প্রধান জামাতে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন, প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, সংসদ সদস্য, সুপ্রিম কোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি, রাজনৈতিক নেতা, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন মুসলিম দেশের কূটনীতিকসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশা ও বয়সের মুসল্লিরা অংশ নেন।

ঈদের প্রধান জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ রুহুল আমিন। জাতীয় ঈদগাহেও ঈদের প্রধান জামাত শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনার পাশাপাশি বিশ্ববাসীর শান্তি প্রার্থনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।


আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | ১২৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. নূর কুতুবুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আগামী ৩০ মে প্রধানমন্ত্রী পটুয়াখালী সফরে আসবেন। প্রধানমন্ত্রীর সফর নিয়ে আমরা কাজ করছি।

জেলা প্রশাসক বলেন, জেলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তিন লাখ ২৭ হাজার মানুষ। এছাড়া ২৩৫ ঘরবাড়ি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে। পাশাপাশি ১৮৬৫ বাড়িঘর আংশিক বিধ্বস্ত এবং কৃষির ২৬ কোটি ২১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

মো. নূর কুতুবুল আলম বলেন, মৎস্য খাতের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ২৮ কোটি ৬৯ লাখ টাকার। আশ্রয়কেন্দ্র থেকে সব মানুষ বাড়িঘরে ফিরে গেছে।


আরও খবর



সিরাজগঞ্জে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৫৯জন দেখেছেন

Image
রাকিব সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জ শহরের সুনামখ্যাত ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি- ২০২৪ খ্রীঃ পরীক্ষায় জিপিএ ৫- প্রাপ্ত মেধাবী ৪৬ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়  এবং  অভিভাবক সমাবেশ, বার্ষিক পুরস্কার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  অনুষ্ঠিত হয়। 

শনিবার (২৫মে) সকালে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে, ফজলুল হক রোডস্থ  নর্দান ফ্লাওয়ার মিলস্ লিমিটেড মাঠ প্রাঙ্গনে জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে এই সংবর্ধনা প্রদানকালে ফুলেল শুভেচ্ছা, ক্রেস্ট ও উপহার প্রদান করা হয়। 

জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি মুনির আহমেদ এর সভাপতিত্বে শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সরকার ছানোয়ার হোসেন।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জিপিএ- ৫ প্রাপ্ত মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও উপহার তুলে দেন, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি  সিরাজগঞ্জ-২ (সদর - কামারখন্দ) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ড. জান্নাত আরা তালুকদার হেনরী এসময়ে তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য বলেন, দেশরত্ন, বঙ্গবন্ধকন্যা, জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন। প্রতিটি শিক্ষার্থীর মধ্যে দেশপ্রেম ও সততা থাকতে হবে। সুশিক্ষিত ও দক্ষ হয়ে  আজকের এই শিক্ষার্থীরা আগামী দিনে সুনাগরিক হবে এরাই দেশের নেতৃত্ব দিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়বে দেশ এগিয়ে যাবে। এজন্য নতুন প্রজন্ম বা শিক্ষার্থীদের আরও পড়া লেখায় বেশি মনোযোগী  হয়ে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভরশীল হতে হবে এবং  সাহিত্য- সংস্কৃতির ও ক্রীড়া চর্চায়  বেশি মনোনিবেশ করবে। সৃজনশীল হয়ে প্রকৃতি ও পরিবেশের প্রতি সংবেদনশীল হতে হবে। নিজেকে পরিবর্তনের জন্য নিজের ইচ্ছাশক্তিই যথেষ্ট। ভালো মানুষ হতে হবে। এজন্য মূল্যবোধ ও মানবিকতা থাকতে হবে। থাকতে হবে স্বপ্নজয়ের প্রতিজ্ঞা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা, জেলা শিক্ষা অফিসার (অতি: দা:) আফছার আলী, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, মোঃ ছাকমান আলী, নর্দান ফ্লাওয়ার মিলস্ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইকবাল হোসেন, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর এবং জাহান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অন্যতম সদস্য মোঃ আব্দুল আলীম মন্ডল, মামুনুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। 

এসময় অনুষ্ঠানে অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক সঞ্জয় গৌর, টি এম আসলাম উদ্দীন, সিমা রাণী, আফরোজা সুলতানা, শাপলা খাতুন, রাশেদুল ইসলাম ও শিক্ষক কেয়ামত আলী সহ অন্যান্য কর্মকর্তা, কর্মচারী, সকল শিক্ষার্থীরা  অভিভাবকগণ, সুধীজন,গুণীজন এবং সাংবাদিকেরা  উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭০জন দেখেছেন

Image

কক্সবাজার প্রতিনিধি:পাহাড় ধসে কক্সবাজারে সদর উপজেলায় এক দম্পতির মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২১ জুন) রাত সাড়ে ৩টার দিকে সদর উপজেলা পুলিশ লাইনের বাদশা ঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ওই এলাকার নজির হোসেনের ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন (২৬) ও তার স্ত্রী মাইমুনা আক্তার (২০)। মাইমুনা ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

ঝিলংঝা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান বলেন, টানা কয়েকদিন ধরে ভারি বৃষ্টি হচ্ছিলো। আজ রাত সাড়ে ৩টার দিকেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। এসময় পাহাড় ধসে ঘুমন্ত অবস্থায় মাটি চাপা পড়ে ওই দম্পতি মারা যান।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় লোকজন মাটি সরিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে। পাহাড় ধসের সময় বসতঘরটিতে ওই স্বামী-স্ত্রী ছাড়া আর কেউ ছিলেন না।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুজ্জামান বলেন, কক্সবাজার শহরে বাদশা ঘোনা এলাকায় পাহাড় ধসে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। তাদের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়েছে।


আরও খবর



সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবলার পঞ্চগড়ের মেয়ে ইয়ারজানের স্বপ্ন পূরণ, ঈদ হবে নতুন ঘরে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭০জন দেখেছেন

Image

কুয়েল ইসলাম সিহাত, বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:দক্ষিণ এশিয়ার সেরা গোলরক্ষক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করা পঞ্চগড়ের মেয়ে ইয়ারজান বেগমের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। ভাঙা কুঁড়ে ঘর থেকে ঈদ উপহার হিসেবে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পেয়েছেন দুই রুম বিশিষ্ট একটি ঘর। মঙ্গলবার (১২ জুন) ইয়ারজানের বাবা-মায়ের হাতে ‘ইয়ারজান নীড়’ এর চাবি হস্তান্তর করেছেন জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম। এ সময় স্থানীয়দের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয় ঈদের আগেই নতুন ঘর পেয়ে মহাখুশি ইয়ারজান।সেরা গোলরক্ষক ইয়ারজান বলেন, ঈদের আগেই উপহার হিসেবে নতুন ঘর পেয়ে আজ আমি খুবই খুশি। এটি দারুণ উপহার। খুব আনন্দ লাগছে। ডিসি স্যার আমার আশা পূরণ করেছেন। আমার মা-বাবা একদিন পাকা ঘরে ঘুমাবেই, আমি এমনটাই স্বপ্ন দেখেছিলাম। সবাই দোয়া করবেন। আমি জেলা প্রশাসক স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ।চাবি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মিনহাজুর রহমান, হাড়িভাসা ইউ'পি চেয়ারম্যান সাইয়েদ নুর-ই-আলম, ইউ'পি সদস্য জুলহাস উদ্দীন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ওসমান গণিসহ স্থানীয় ব্যক্তিরা।জানা যায়, গোলরক্ষক ইয়ারজানের জন্য সাড়ে ৯ লাখ টাকা ব্যয়ে সেমি পাকা ঘর তৈরী করা হয়েছে। এতে ওয়াশরুম কাম টয়লেট ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে মানসম্মতভাবে তার থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঈদের আগেই এমন উপহার পেয়ে উচ্ছ্বসিত ইয়ারজান ও তার পরিবার।

উল্লেখ্য, চলতি সালের ৮ মার্চ নেপালের মাঠে সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে টাইব্রেকারে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। এই অর্জন সম্ভব হয় কেবল গোলরক্ষক ইয়ারজানের বীরত্বেই। টুর্ণামেন্টের সেরা গোলকিপারের ট্রফিটাও নিজের করে নেন ইয়ারজান।

এরপর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে উঠে আসে ইয়ারজানের পারিবারিক অবস্থা। গোলরক্ষক ইয়ারজানের মা রেনু বেগম একজন কৃষি শ্রমিক। অন্যের খেতে মজুরী খেটে চালাতেন সংসার। বাবা আব্দুর রাজ্জাকও অসুস্থ থাকায় কোনো কাজ করতে পারেন না। এমন পরিস্থিতিতে মা রেনু বেগমের দিনমজুরীর টাকায় কোনোভাবে কষ্টে চলতো চারজনের সংসার। ঘরের অবস্থাও ছিলো জরাজীর্ণ। জীর্ণ কুটির থেকেই ইয়ারজানের সেরা গোলরক্ষক হয়ে ওঠার গল্পটি হৃদয় কাড়ে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের। তখনই ইয়ারজানের বাড়িতে ছুটে যান পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক। পারিবারিক অবস্থা দেখে ইয়ারজানের পরিবারের জন্য পাকা ল্যাট্রিনসহ দুই কক্ষের পাকা রুম করে দেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি।এরপর প্রশাসনের উদ্যোগে প্রায় ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে দুই কক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমি পাকা ঘর ও প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ওয়াশরুম, টয়লেট ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। অবশেষে ইয়ারজানকে নতুন ঘরের চাবি হস্তান্তর করে দেন জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, আমরা চেয়েছি পঞ্চগড়ের কৃতি সন্তান ইয়ারজান ও তার পরিবার যেন সম্মানের সঙ্গে বসবাস করতে পারে। এজন্য দুই কক্ষের সেমি পাকা ঘর, ওয়াশরুম, টয়লেটসহ সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন থেকে ইয়ারজান ও তার পরিবার সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারবে। ইয়ারজান আরও এগিয়ে যাক, দেশের সুনাম অর্জন করুক এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।


আরও খবর