Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

বই উৎসব শুরু

প্রকাশিত:Thursday ৩০ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪৯৫জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণের উদ্বোধন করেন তিনি। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবারও নিজের হাতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিতে না পারার দুঃখটা রয়েই গেল।’

নতুন শিক্ষাবর্ষের প্রথম দিন বই উৎসব করার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় এ বছর তা হচ্ছে না। তবে বছরের প্রথমদিন থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বই বিতরণ কার্যক্রম চলবে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যের পাঠ্যবই তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী। এ ছাড়া দুই মন্ত্রণালয়ের সচিব, সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



‘আমারে দেশে ফিরাইয়া নেও’ সৌদি আরব থেকে তরুণীর আকুতি

প্রকাশিত:Tuesday ০৯ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

সৌদি আরবে মালিক ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন হবিগঞ্জের এক তরুণী। তাই দেশে ফিরতে ভিডিও কলে পরিবারের সদস্যদের প্রতি আকুতি জানিয়েছেন তিনি।

নির্যাতনের শিকার তরুণী শিল্পী আক্তার (২৫) জেলার চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের তৈইগাঁও গ্রামের আব্দুল মজিদের মেয়ে।

ওই তরুণীর পরিবার জানায়, পরিবারের অস্বচ্ছলতার কথা চিন্তা করে ২০১৯ সালের এপ্রিলে সৌদি আরবে যান শিল্পী আক্তার। সেখানে যাওয়ার পর একটি বাসায় গৃহকর্মীর চাকরি নেন তিনি। সেখানে যাওয়ার পরই তার ওপর চলে নির্যাতন। কাজে ছোটখাট ভুল হলেই মারধরের শিকার হন শিল্পী। প্রতিনিয়ত তাকে শারীর নির্যাত করেন বাসার মালিক ও ছেলে-মেয়েরা।

প্রথমে মা-বাবা ও অস্বচ্ছল পরিবারের কথা চিন্তা করে সব নির্যাতন নীরবে সয়ে যান শিল্পী। কথা ছিল দুই বছর সেখানে থাকার পর ২০২১ সালের এপ্রিলে তাকে দেশে পাঠিয়ে দেবে। কিন্তু দুই বছর অতিক্রম হলেও তাকে দেশে পাঠানো হয়নি। উল্টো ভিসার মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানো হয়েছে। দেশে আসার কথা বললে শিল্পীর ওপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনে বর্তমানে শিল্পী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। মা-বাবার সঙ্গে ফোনে কথা বলতে চাইলেও কথা বলতে দেওয়া হয় না।

শিল্পী আক্তারের মা নূরচাঁন বিবি বলেন, আমি আমার মেয়েকে ফিরে চাই। কিন্তু তারা আমার মেয়েকে দিচ্ছে না। ট্রাভেলসের লোকেরাও আমার মেয়েকে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করছে না। তাই বাংলাদেশ সরকারের কাছে আমাদের অনুরোধ আমার মেয়েকে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা যেন করা হয়।

তিনি জানান, তার মেয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেছে, ‘তোমরার কাছে আমি ভিক্ষা চাই। আমারে দেশে ফিরাইয়া নেও। তিন বছর ধইরা আমারে আটকাইয়া রাখছে। আমারে ধরে মারে। মালিকে মারে, মালিকের পুলা-পুইরে মারে। আমারে খানি দেয় না, একবার দিলে আরেকবার দেয় না। ঘরের ভেতরে তালা মাইরা রাখে। দেশে ফিরাইয়া না নিলে আমারে মাইরালাইব, লাশ কইরা বাংলাদেশে পাঠাইব।’

ঢাকার পুরানাপল্টন এলাকার ৪ সাইট ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের পরিচালক খালেদ হোসাইন জানান, মেয়েটিকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ে এক মাস আগে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করি দ্রুত তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।

চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিদ্ধার্থ ভৌমিক বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। দূতাবাসের মাধ্যমে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করবো।


আরও খবর



ফলাফল প্রকাশের পরও বাতিলের ক্ষমতা পেতে ইসির খসড়া আইন

প্রকাশিত:Monday ০৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
Image

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) বেশকিছু পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর খসড়া তৈরির পর রোববার (৭ আগস্ট) এটি কমিশন বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়। বিদ্যমান আইনে ভোটের সময় কোনো অভিযোগ পেলে কমিশন খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে পারে। প্রস্তাবিত আইনে ভোটের সময়ের পর থেকে ফলাফল প্রকাশের পর, এমনকি গেজেট প্রকাশের আগে নির্বাচনের যে কোনো পর্যায়ের অভিযোগ কমিশন তদন্ত করে অনিয়মের প্রমাণ পেলে ভোট বাতিল করতে পারবে। এজন্য ৯১ অনুচ্ছেদে দুটি উপধারা সংযোজনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

সোমবার (৮ আগস্ট) এটির খসড়া আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ।

জানা যায়, এরই মধ্যে অনুষ্ঠিত হওয়া রাজনৈতিক দলসহ অংশীজনের সঙ্গে সংলাপে কিছু সুপারিশ এবং কমিশনের মাঠ পর্যায়ের অভিজ্ঞতার আলোকে কিছু প্রস্তাব এই খসড়ায় রাখা হয়েছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, আরপিওর ৭, ১২, ১৫, ২৫, ৩১, ৩৬, ৪৪, ৮৪, ৯০, ৯১ অনুচ্ছেদসহ বেশ কিছু ধারা-উপধারায় সংযোজন-বিয়োজন ও করণিক সংশোধনের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে অশোক কুমার দেবনাথ জাগো নিউজকে বলেন, খসড়া আইনটি আজ (সোমবার) আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। এরপর এটি মন্ত্রিসভায় তোলা হবে। এরপর সংসদে সংশোধনীটি পাস হবে।

প্রস্তাবিত খসড়ার বিষয়ে তিনি বলেন, এক ডজন ছোটেখাটো সংস্কারের সুপারিশ করা হয়েছে ইসির পক্ষ থেকে। নির্বাচন নিয়ে যে কোনো পর্যায়ে অনিয়মের অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে প্রমাণিত হলে ভোট বাতিল, নির্বাচনী কাজে অবৈধভাবে বাধা ও ভোটগ্রহণ কর্মকর্তার যোগসাজশ এবং পোলিং এজেন্টদের ভীতি প্রদর্শন বা বাধার ঘটনা ঘটলে দায়ীদের শাস্তির আওতায় আনা, দলের সব স্তরের কমিটিতে নারী প্রতিনিধিত্ব রাখতে ২০৩০ সাল পর্যন্ত সময় দেওয়াসহ বেশকিছু প্রস্তাবনা রয়েছে। সরকার চাইলে আইন সংশোধন হতে পারে।

ইসির অতিরিক্ত সচিব বলেন, নির্বাচনের যে কোনো মুহূর্তে পেশিশক্তি বা অন্যবিধ যে কোনো কারণে নির্বাচন বন্ধ বা বাতিলের জন্য এ প্রস্তাব করা হয়েছে। এ বিধির অধীনে কারও প্রার্থিতা বাতিল হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি যেন নতুন করে ওই নির্বাচনে অংশ নিতে না পারে সেজন্যও প্রস্তাব রয়েছে। এছাড়া কোনো ব্যক্তি অবৈধ প্রভাব বিস্তার করে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনকারী কোনো ব্যক্তিকে নির্বাচনী কাজে বাধা দিলে বা বাধার চেষ্টা করলে শাস্তির আওতায় আনতে ৪৪ অনুচ্ছেদে উপধারা সংযোজনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিদ্যমান আইনে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের সব স্তরের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী প্রতিনিধিত্ব রাখার বিধান রয়েছে। এটি ২০২০ সালের মধ্যে হওয়া কথা ছিল। কিন্তু কোনো দলই তা প্রতিপালন করতে পারেনি। তাই দলগুলো আরও সময় চেয়েছে। কোনো ইসলাম ভিত্তিক দল এই নিয়মটি তুলে দেওয়ারও দাবি জানিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০৩০ সাল পর্যন্ত সময় দিতে খসড়ায় প্রস্তাব করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দলের সংশোধিত গঠনতন্ত্র জমার সময় এক বছর থেকে কমিয়ে ৩০ দিনের মধ্যে জমার বিধান করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনার রাশেদা সুলতানা সাংবাদিকদের জানান, সংলাপে আসা বিভিন্ন সুপারিশও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। যতটুকু সংশোধনী আনা প্রয়োজন বলে ইসি মনে করেছে ততটুকু সংশোধনীর প্রস্তাব করা হয়েছে।

২০২৩ সালের নভেম্বর থেকে ২০২৪ সালের জানুয়ারির মধ্যে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। তবে এ নির্বাচনে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি অংশ নেবে না বলে জানিয়েছে দিয়েছে। এজন্য তারা ইসির সঙ্গে অনুষ্ঠিত কোনো সংলাপে অংশ নেয়নি।


আরও খবর



‘জ্বালানি তেলের দাম নিয়ে জনগণকে সুড়সুড়ি দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত’

প্রকাশিত:Wednesday ১৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেছেন, জ্বালানি তেলের দাম নিয়ে জনগণকে সুড়সুড়ি দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত । তাদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। দেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি-জামায়াত কী করছে? খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ করেছেন। মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন। তারেক জিয়াও একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। লন্ডনে বসে বসে রাজনীতি করেন।

বুধবার (১৭ আগস্ট) দুপুরে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

জাকির হোসেন বলেন, দেশে ডিজেল আমদানি হয় রাশিয়া ও ইউক্রেন থেকে। আপনারা জানেন রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ হচ্ছে। চিন-তাইওয়ান হাঙ্গামা বেঁধেছে। সারা পৃথিবীতে একদিকে করোনা, অন্যদিকে যুদ্ধ। এতে আন্তর্জাতিকভাবে তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা কিছুটা দাম বাড়িয়েছি। হাজার হাজার কোটি টাকা ডিজেলে ভর্তুকি দিচ্ছি। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ডিজেলে দাম নিশ্চিত করা হয়েছে।

সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম মিনু, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাবেক সভাপতি শেফালী আক্তার, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা জনি মণ্ডল ও ইমরান খাঁন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



এবার আশুগঞ্জে বাড়লো ধান-চালের দাম

প্রকাশিত:Sunday ১৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে বেড়েছে ধান-চালের দাম। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে ধানের মণপ্রতি ১০০ টাকা আর চালের বস্তা (৫০ কেজি) প্রতি ১৫০ টাকা বেড়েছে। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাবেই ধান-চালের দাম বাড়ার কথা বলছেন ব্যবসায়ীরা। বাজার আরও অস্থিতিশীল হওয়ারও আশঙ্কাও করছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আশুগঞ্জ মোকামে কিশোরগঞ্জ, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ ও সিলেটসহ অন্তত সাত জেলা থেকে অধিকাংশ ব্যাপারীরা ইঞ্জিন চালিত নৌকা ও ট্রলারযোগে ধান নিয়ে আসেন। এছাড়া মোকাম থেকে চালকল পর্যন্ত ধান পরিবহনে ব্যবহৃত হয় ট্রাক। সম্প্রতি দেশে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় এসব যানের ভাড়াও বাড়ানো হয়েছে। ফলে ধান থেকে চাল তৈরিতে উৎপাদন খরচ বেড়েছে। আর সেই খরচ সমন্বয় করতে গিয়ে বাড়ানো হয়েছে ধান-চালের দর।

বর্তমানে প্রতিদিন মোকামে ৫০-৬০ হাজার মণ ধান বেচাকেনা হচ্ছে। এসব ধান যায় জেলার চালকলগুলোতে। আর এসব চালকলগুলো থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে চাল সরবরাহ করা হয়। বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিআর-২৮ জাতের চাল আগে দাম ছিল প্রতি বস্তা (৫০ কেজি) পাইকারি ২৪৫০টাকা, তা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২৬০০ টাকা এবং বিআর-২৯ চাল ছিল ২৪০০ টাকা তা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২৫৫০ টাকায়।

rice14

এদিকে, গত ৬ আগস্ট জ্বালানি তেলের নতুন দর কার্যকর হওয়ার দিন থেকে ভাড়া বাড়ানোর দাবিতে ধর্মঘটের ডাক দেন আশুগঞ্জের ট্রাক মালিক-শ্রমিকরা। টানা তিন দিন মোকামে ধান বেচাকেনা বন্ধ থাকে। এতে ধান সংকটে পড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রায় আড়াইশ চালকল। তাদের ধর্মঘটে বেকায়দায় পড়ে বাধ্য হয়েই ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের দাবি মেনে মোকাম থেকে ধান পরিবহনে এলাকা ভেদে বস্তা প্রতি ভাড়া বাড়ানো হয় দেড় থেকে দুই টাকা পর্যন্ত।

এরপর পরই আশুগঞ্জ মোকামে বিভিন্ন জায়গা থাকে আসা ধানবোঝাই নৌকার ভাড়াও বস্তা প্রতি ১০-২০ টাকা পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে প্রভাব পড়েছে ধানের বাজারে।

উপজেলার সরকার অটোরাইস মিলের ধান ব্যবসায়ী মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘দাম যেভাবে বাড়ছে, তাতে বাজার আরও অস্থিতিশীল হয়ে উঠবে। খরচ বেড়ে যাওয়ায় অনেকটা নিরুপায় হয়েই চালের দাম বাড়িয়েছেন মিল মালিকরা।’

rice14

মো. ওবায়দুল্লাহ নামের এক চাল ব্যবসায়ী বলেন, ‘পরিবহন খরচ বাড়ায় স্বাভাবিকভাবেই চালের বাজারে প্রভাব পড়েছে। সব ধরনের ধান-চালের দাম বেড়েছে ১০০-১৫০ টাকা পর্যন্ত।’

আশুগঞ্জ উপজেলা অটোরাইস মিল মালিক সমিতির সদস্য হাসান ইমরান বলেন, ‘ট্রাক ধর্মঘটের কারণে ভাড়া বাড়ানোর সময়ই আমরা বলেছিলাম এর প্রভাব চালের বাজারে পড়বে। উৎপাদন খরচ বেড়েছে, তাই চালের দাম বাড়ানো ছাড়া বিকল্প পথ নেই। যদি জ্বালানি তেলের দাম কমে, তাহলে বাজার দর কমতে পারে। সামনে ধান-চালের বাজার আরও অস্থিতিশীল হয়ে উঠতে পারে।’


আরও খবর



পতিত জমিতে ফেলন চাষের সহজ উপায়

প্রকাশিত:Saturday ৩০ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

ফেলন একটি ডাল জাতীয় ফসল। পর্যাপ্ত সূর্যের আলোযুক্ত পতিত জমিতে এ ডাল জাতীয় ফসল চাষ করতে পারেন। এটি খুব সহজে সেচ ছাড়াই চাষ করা যায়। বাজারে এটির বেশ চাহিদা রয়েছে।

বেলে দো-আঁশ থেকে এঁটেল দো-আঁশ মাটিতে ফেলন চাষ করা যায়। জমি উঁচু ও মাঝারি উঁচু নিকাশযুক্ত হওয়া আবশ্যক। জমিতে পানি জমলে ফেলন গাছ মারা যায়। এটি জলাবদ্ধতা সহ্য করতে পারে না।

প্রথমে ৩ থেকে ৪টি চাষ ও মই দিয়ে জমি ঝুরঝুরা করতে হবে। তেমন ঝুরঝুরা না হলেও সমস্যা নেই। বীজ মাটির মধ্যে প্রবেশ করালেই গাছ গজিয়ে যায়। বীজ প্রধানত ছিটিয়ে বপন করা হয়। সারিতে বপন করলে সারি থেকে সারির দূরত্ব ৩০ থেকে ৪০ সেন্টিমিটার এবং গাছ থেকে গাছ ১০ সেন্টিমিটার রাখতে হবে। সাধারণত সারিতে না করলেও সমস্যা নেই। সময় স্বল্পতা থাকলে ছিটিয়ে বীজ রোপণ করা যায়।

অগ্রহায়ণ মাস অর্থাৎ মধ্য-নভেম্বর থেকে মধ্য-ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত এটি বপনের উপযুক্ত সময়। প্রতি হেক্টরে ৪০ থেকে ৫০ কেজি বীজ বপন করতে হবে। ভালো ফলনের জন্য জমিতে সার দিতে হবে। ইউরিয়া সার প্রতি হেক্টরে ২০ থেকে ৩০ কেজি, টিএসপি ৪০ থেকে ৪৫ কেজি প্রতি হেক্টরে, এমপি সার ২০ থেকে ৩০ কেজি প্রতি হেক্টরে, অণুজীব সার ৪ থেকে ৫ কেজি সার প্রয়োগ করতে হবে।

শেষ চাষের সময় সব সার এক সঙ্গে জমিতে প্রয়োগ করতে হবে। বপনের ২৫ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে একবার


আরও খবর