Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বায়ু দূষণের শীর্ষে দুবাই, ঢাকা কত?

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২৩৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিশ্বের দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় ১৬০ স্কোর নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের শহর দুবাই। সেখানকার বায়ু অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে। তবে ৯৯ স্কোর নিয়ে ঢাকার অবস্থান একই সময়ে ছিল ১০তম স্থানে। বাতাসের মান সূচকে (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স—একিউআই) যা সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়।

আজ সোমবার সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে দূষণের মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ সময়ে ১৫৯ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মালয়েশিয়ার কুচিং। ১২৭ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আলজেরিয়ার আলজিয়ার্স। কুয়েতের কুয়েত সিটি রয়েছে চতুর্থ স্থানে, শহরটির স্কোর ছিল ১২৪। পঞ্চম স্থানে রয়েছে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা, স্কোর ১২৩।

প্রতিনিয়ত সুইজারল্যান্ডভিত্তিক বায়ুমান পর্যবেক্ষণকারী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকিউ এয়ার এ তালিকা প্রকাশ করে থাকে।

একিউআই স্কোর শূন্য থেকে ৫০ ভালো হিসেবে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ মাঝারি হিসেবে গণ্য করা হয়; আর সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে তাকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ বায়ু বলে মনে করা হয়।

২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। এদিকে ৩০১ থেকে ৪০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে বিবেচিত হয়, যা নগরের বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে। সাধারণত একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে; যেমন: বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।


আরও খবর



জলাবদ্ধতা নাগরিক ভোগান্তি নিরাসনে কাজ করছেন ৬৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃ 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৬৪ নং ওয়ার্ডের  জলাবদ্ধতা ও নাগরিক ভোগান্তি নিরসনে কাজ করে যাচ্ছেন বর্তমান কাউন্সিলর আলহাজ্ব মাসুদুর রহমান মোল্লা বাবুল। গত কয়েকদিনে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাতে এলাকার রাস্তাঘাট পানিতে ডুবে যাওয়ার পর নিজ ওয়ার্ডে এই কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেন তিনি। রাস্তাঘাট ও ড্রেনের জমে থাকা পানি নিষ্কাশনে দ্রুত উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তার দ্রুত হস্তক্ষেপের কারণে ভোগান্তির হাত থেকে রেহাই পেয়েছেন সাধারণ মানুষ। এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় ব্যক্তি আলহাজ্ব মাসুদুর রহমান মোল্লা বাবুল। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে তাদের পরিবারের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। তার আপন ভাই প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান মোল্লা এবং আরেক ভাই শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুর রহমান অলি।ঢাকা-৫ আসনের বর্তমান সাংসদ আলহাজ্ব মশিউর রহমান মোল্লা সজল তার বড় ভাইয়ের ছেলে। আলহাজ মাসুদুর রহমান মোল্লা বাবুল এই এলাকায় রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, জলাবদ্ধতা নিরসন, মশক নিবারণ, সামাজিক ন্যায়বিচার নিশ্চিত সহ নানা ধরনের সংস্কার মূলক কর্মকাণ্ড করে প্রশংসায় ভাসছেন।ডিএসসিসি ৬৪ নম্বর ওয়ার্ড যাত্রাবাড়ী ও ডেমরা থানায় অবস্থিত। সাবেক মাতুয়াইল ইউপির ৪নং ওয়ার্ডের কোনাপাড়া, পুরাতন পাড়াডগাইর, ৫নং ওয়ার্ডের আইআর টিউবস ফ্যাক্টরি, ধার্মিকপাড়া, সিটি মিলস, মল্লিকপাড়া, ৬নং ওয়ার্ডের পাড়াডগাইর নতুনপাড়া এলাকা নিয়ে গঠিত হয়েছে।ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ২৪ হাজার ৫৪১ জন হলেও প্রায় লক্ষাধিক লোকের বসবাস। এই বিশাল একটি জনগোষ্ঠীর জনপ্রতিনিধি হিসেবে আলহাজ্ব মাসুদুর রহমান মোল্লা বাবুল নিবেদিত প্রাণ একজন সমাজ সেবক ও জনপ্রতিনিধি।


আরও খবর



বাজেট অধিবেশন শুরু ৫ জুন

প্রকাশিত:সোমবার ২০ মে ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৫৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দ্বাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় ও বাজেট অধিবেশন শুরু হবে আগামী ৫ জুন থেকে। ওই দিন বিকেল ৫টা থেকে এ অধিবেশন আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন।

সোমবার (২০ মে) জাতীয় সংসদ সচিবালয় থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। সংসদ সচিবালয় জানায়, সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি অধিবেশনে ভাষণ দেন। পরে ওই ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নেবেন সংসদ সদস্যরা।

অধিবেশন শুরুর আগে সংসদ ভবনে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক হবে। বৈঠকে আসন্ন অধিবেশনের মেয়াদ নির্ধারণ ছাড়াও আলোচ্যসূচি ও কার্যবিবরণী নিয়ে আলোচনা হবে। অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন দেবেন। এরপর শোকপ্রস্তাব উত্থাপিত হবে।

জানা গেছে, অধিবেশন শুরুর পর দিন ৬ জুন জাতীয় সংসদে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। বাজেট অধিবেশনে হওয়া এইবারের অধিবেশন দীর্ঘ হবে বলে জানা গেছে।


আরও খবর



ভুরুঙ্গামারীতে পানিতে ডুবে ২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৭০জন দেখেছেন

Image
বাবুল, কুড়িগ্রাম ব্যুরো:কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে পৃথক স্থানে পানিতে ডুবে শিশুসহ ও এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে l সোমবার দুপুর বেলা পরিবারের সবার অজান্তেই ফারিয়া নামের দেড় বছরের এক শিশুর মাছ চাষের জমিতে পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে lফারিয়ার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুরে ফারিয়ার মা রান্নার কাজে ব্যস্ত ছিল l দেড় বছরের ফারিয়া তখন বাড়ির উঠোনে খেলা করছিল l ওই সময়ে মায়ের অজান্তেই ফারিয়া বাড়ির বাইরে গিয়ে বাড়ি সংলগ্ন মাছ চাষের জমিতে পরে ডুবে যায় l সেখানেই তার মৃত্যু ঘটে lপরক্ষনেই তার মা খোঁজাখুঁজি করে ওই মাছ চাষের জমি থেকে ফারিয়াকে তুলে নিয়ে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত: ঘোষণা করে l মৃত: ফারিয়া উপজেলার তিলাই ইউনিয়নের দক্ষিণ গোপালপুর গ্রামের ফরিদুল ইসলাম এর কন্যা lঅপর ঘটনাটি ঘটে, সকাল বেলা দুধ কুমোর নদীতে l  

উপজেলার পাইকের ছড়া  ইউনিয়নের শিলবাড়ি গ্রামের শামসুল হকের পুত্র যুবক ঝন্টু মিয়া ভোরবেলাতেই দুধকুমার নদীর সোনাহাট ব্রিজের উত্তর দিকে মাছ ধরতে যায় l নদীতে মাছ ধরার একপর্যায়ে কোন এক সময় তার পানিতে ডুবেই মৃত্যু ঘটে l সকাল আটটার দিকে আব্দুল মান্নান নামের এক ব্যক্তি ওই স্থানেই জাল ফেলে পানিতে নামতেই ঝন্টুর ডুবন্ত লাশ তার পায়ে স্পর্শ হয় l এ সময় আব্দুল মান্নান বিষয়টি এলাকাবাসীকে জানালে এলাকার লোকজন ভুরুঙ্গামারী থানা পুলিশে খবর দেয় l পুলিশ এসে ঝন্টুর লাশ উদ্ধার করে l 

ভুরুঙ্গামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রুহুল আমিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন l
তিনি জানান, কোন প্রকার অভিযোগ না থাকায় ঝন্টুর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে l

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




ডোমারে সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধে অটো চালকদের নিয়ে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:“চালাবো গাড়ী সাবধানে, বাঁচবে সবাই প্রাণে, আইন মেনে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী” এই প্রতিপদ্যকে সামনে রেখে  নীলফামারী ডোমারে সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধে অটো চালকদের নিয়ে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। 

ডোমার ট্রাফিক শাখা আয়োজিত রোববার সকাল ১০ থেকে শুরু করে বিকাল পর্যন্ত ডোমার বাসষ্ট্যান্ডসহ পৌর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে  ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান মন্ডল এবং এটিএসআই পারভেজ মিয়ার নিজস্ব উদ্যোগে অটো রিক্সার ডানদিকে যাত্রী উঠোনামা করা বন্ধ করে দেয়। এ ছাড়াও গাড়ীর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, ড্রাইভিং, রেজিষ্ট্রেশন বিহীন মটরসাইকেল এবং হেলমেট পরিধান বিষয়ে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।  ডোমার ট্রাফিক শাখার ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান মন্ডল বলেন, অটো রিক্সার ডান দিকের দরজা দিয়ে যাত্রী উঠানমা করায় অনেক সময় দূর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়। হেলমেট ছাড়া মটরসাইকেল চালালে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা সহ জীবনহানি হতে পারে। সে সাথে গুরুত্বরভাবে অঙ্গহানিও হতে পারে। তাই পুলিশের ভয়ে নয়, নিজের সুরক্ষা এবং পরিবারের নিকট সুস্থভাবে ফেরার জন্য মটরসাইকেল চালক এবং আরোহীদের হেলমেট পরিধান সহ ভারী যানবাহনের চালকদের সিটবেল ব্যবহার ট্রাফিক ও সড়ক আইনের নিয়মকানুন মেনে চলার পরামর্শ প্রদান করেন তিনি।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক এর জীবন যুদ্ধ চলে ভ্যানের প্যাডেলে স্বীকৃতি সনদ আজ ও মেলেনি

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:লুঙ্গি পেঁচিয়ে পরে শক্ত হাতে অস্ত্র ধরে স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম সেদিন তো ফুলপ্যান্ট  পরনে ছিল না এখন কেন জাতীয় মুক্তি যোদ্ধা কাউন্সিলে প্রবেশ করতে এসে ফুলপ্যান্ট ছাড়া ঢুকতে দেওয়া হবে না?  মুক্তিযোদ্ধা সাময়িক সনদ পত্র প্রাপ্তীর জন্য জামুকায় গিয়ে এমন বিড়ম্বনার শিকার মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল মালেক । দিনাজপুর জেলার  পার্বতীপুর উপজেলার খাগড়াবন্দ গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক এর জীবিকা নির্বাহ হয় ভ্যানের চাকায়। ২০১৩ সালের ২২ নভেম্বর অনলাইনে মুক্তি যোদ্ধা হিসাবে গেজেট ভুক্তির জন্য আবেদন করেছিলেন তিনি যার ডিজিআই নং১০২৮৭৩( উএষ১০২৮৭৩) এবং পার্বতীপুর উপজেলার ক্রমিক নম্বর ০৩।  মুক্তি যুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সাময়িক মুক্তি যোদ্ধা সনদ প্রাপ্তীর আবেদন করেছেন যার আবেদন ডকেট নং ৪৮৯২ তারিখ ০৮/১১/১৪ইং।  মুক্তি যোদ্ধা অন্তর্ভুক্ত তালিকা পার্বতীপুর ক্রমিক নম্বর ৫৫ । এতো দালিলিক প্রমাণাদী আগলে রেখে ও মুক্তি যোদ্ধার তালিকায় তার নাম গেজেট ভুক্ত হয় নাই । তথাপি অপ্রতিরোধ্য প্রত্যাশায় ভ্যানের চাকায় জীবিকা নির্বাহ হচ্ছে মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল মালেকের। জানা গেছে পার্বতীপুর উপজেলার ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়নের খাগড়াবন্দ গ্রামের মৃত্যু নাজিম উদ্দীনের পুত্র আব্দুল মালেক ১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে মাতৃভূমি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান কে পশ্চিম পাকিস্তানী হানাদার দের কবল থেকে দেশকে স্বাধীন করার জন্য ভারতের ৭ নং সেক্টরের উত্তর অঞ্চল হামজাপুর ( পথিরাম)ইয়থ ক্যাম্পে ১ লা জুন ১৯৭১ যোগদান করেন এবং উক্ত ক্যাম্পে  একমাস প্রশিক্ষন গ্রহন শেষে হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে আমবাড়ী ফুলবাড়ি ভবানীপুর আনন্দ বাজার বদরগনজ যুদ্ধে অংশ নেন। তার এফ এফ নং ১১৭১। তার প্রকৃত সহযোদ্ধা মোঃ কায়ছার আলী গেজেট নং ৬৩৯ লালমুক্তি বার্তা নং ০৩১৩০৩০০৭২ (০১৭২১২১৫৮৪০) মোঃ আজিজুল হক গেজেট নং ৫৮৭ লাল মুক্তি বার্তা নং ০৩১৩০৩০০৪৪ (০১৭৮৫৩৭৬১৪৭) মোঃ আঃ লতিফ গেজেট নং ৬২৮ লাল মুক্তি বার্তা নং ০৩১৩০৩০০৩৯ (০১৭৮৩৩৭৬৪৪৬) মুক্তি যোদ্ধা হিসাবে গেজেট ভুক্ত হয়ে রাষ্ট্রীয় সুযোগ সুবিধা ভোগ করছেন।  মুক্তি যুদ্ধ কালীন সময়ে তিনি ৭ নং সেক্টরে থ্রি নাট. থ্রিজি ৩০৩ রাইফেল পরিচালনা করেন। যুদ্ধ কালীন সময়ে তার অধিনায়ক ছিলেন এম এ জি ওসমানী এবং কমান্ডার কাজী নুরুজ্জামান। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পে অস্ত্র সমর্পন করেছিলেন তিনি। এলাকার মুক্তি যোদ্ধা মরহুম মোতালেব মন্ডল এবং সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দীন ও তার সহযোগী ছিলেন বলে তিনি দাবি করেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পে অস্ত্র জমা দেওয়ার পরের দিন দিনাজপুর মিলিশিয়া ক্যাম্পে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ভর্তি হয় এবং ২৫ শে জানুয়ারী ১৯৭২ তিনি ন্যাশনাল মিলিটারি ট্রেনিং একাডেমি রাজশাহী সদর রাজশাহী এর কমান্ডেন্ট ডিএস ডিললোন (ক্যাপ্টঃ)তাকে ছাড়পত্র প্রদান করেন। মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল মালেক মাসিক ৫০ টাক সহায়তা অনুদানে তথ্য দাতা হিসাবে বামনহাট ইয়ুথ রিসিভসন ক্যাম্প কুচবিহারে ০৩ /০৫/৭১ ইং হতে ২৬/৫/১৯৭১ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন মর্মে কাস্টমস অফিসার ইনচার্জ ইয়ুথ রিসিপশন ক্যাম্প বামনহাট কোচবিহার দিনহাটা কর্তৃক স্বাক্ষরিত অর্ডার শিটে উল্লেখ আছে। মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল মালেক জানান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পে অস্ত্র জমা দেওয়ার পর তিনি গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রাজশাহী সদর মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন থাকায় হাসপাতাল থেকে ফিরে দেখেন তার নাম বাদ গেছে। পরবর্তী সময়ে অনলাইনে আবেদন করেছেন তিনি দৃঢ় আশাবাদী মুক্তি যোদ্ধা তালিকায় তার নাম অবশ্যই গেজেট ভুক্ত হবে। স্ত্রী সন্তান নিয়ে ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।


আরও খবর