Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বাংলাদেশে বেড়েই চলেছে মুরগির দাম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৮৩জন দেখেছেন

Image

অনলাইন ডেস্ক ;বাংলাদেশে বেড়েই চলেছে মুরগির দাম। বর্তমানে তা কেজিতে রেকর্ড ৩০০ টাকা ছুঁইছুঁই। তবে প্রতিবেশী দেশ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে কেজিতে ব্রয়লার মুরগির দাম প্রায় ১৫০ টাকা।

বাংলাদেশের বিভিন্ন বাজারে গত শুক্রবার প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ২৫০ থেকে ২৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর গতকাল সোমবার বেড়ে দাঁড়ায় ২৮০ থেকে ২৯০ টাকা পর্যন্ত।

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গত এক সপ্তাহ ধরে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বাজারজুড়ে দাম কমতে শুরু করেছে মুরগির। মার্চের মাঝামাঝি কলকাতার বেশ কিছু বাজারে মুরগির কাটা মাংসের দাম কেজিতে ২৬০-২৭০ টাকা (ভারতীয় মুদ্রায়) ছিল। তবে গত এক সপ্তাহ ধরে রাজ্যেটির উত্তর থেকে দক্ষিণের জেলাগুলোতে এই দাম নিম্নমুখী।

ওয়েস্ট বেঙ্গল পোল্ট্রি ফেডারেশন-এর তথ্যে বলা হয়েছে, গত ৭ দিনে কেজিতে ৪০-৪৫ টাকা কমেছে পোল্ট্রি মুরগির মাংস। বর্তমানে কলকাতায় গোটা মুরগির মাংসের দাম প্রতি কেজিতে ১৩০-১৩৮ টাকা, কাটা মাংস ২১০-২১৫ টাকা কেজি। হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় গোটা মুরগির মাংস প্রতি কেজিতে ১২২-১২৮ টাকা, কাটা মুরগি ২০৫-২১০ টাকা কেজি।

গতকাল সোমবার থেকে রাজ্যটির পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে গোটা মুরগির মাংস প্রতি কেজিতে ১১৬-১২৩ টাকা আর কাটা ১৯৫-২০০ টাকা কেজি। বাঁকুড়া আর পুরুলিয়ায় গোটা মুরগির দাম কেজিতে ১১২-১১৯ টাকা আর কাটা মাংসের দর ১৯০-১৯৫ টাকা কেজি।

অন্যদিকে দেশটির বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দেওয়া আজকের তথ্যানুযায়ী, আজ মঙ্গলবার কর্ণাটক রাজ্যে চামড়াসহ প্রতি কেজি মুরগির মাংস ভারতীয় মুদ্রায় ১৯০ টাকা। অন্যদিকে দিল্লিতে গোটা মুরগির দাম ১৩০ টাকা। আসামে দাম ১৬০ টাকা। বিহার রাজ্যেও গোটা মুরগির দাম কেজি প্রতি ১৩০ টাকা। গুজরাটেও একই দামে কেজি প্রতি গোটা মুরগি পাওয়া যাচ্ছে আজ।


আরও খবর



আজ সকাল থেকে বন্ধ থাকবে ঢাকার যেসব সড়ক

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৪৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ রাজধানীর বঙ্গবাজার বিপণিবিতানের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করবেন । এ উপলক্ষে শনিবার নির্দিষ্ট এলাকায় সর্বসাধারণ ও যান চলাচলে সুনির্দিষ্ট ট্রাফিক নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

এক বিজ্ঞপ্তিতে ডিএমপি জানায়, শনিবার (২৫ মে) সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বঙ্গবাজার সংলগ্ন বেশ কয়েকটি সড়ক বন্ধ থাকবে। সড়কগুলো হচ্ছে হাইকোর্ট ক্রসিং, গোলাপশাহ মাজার ক্রসিং, সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল (পুরাতন রেলওয়ে হাসপাতাল) ক্রসিং, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির (অমর একুশে হল) সামনে, ফুলবাড়িয়া ক্রসিং, চানখারপুল ক্রসিং, নিমতলী ক্রসিং।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের চারটি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর বঙ্গবাজারে ‘বঙ্গবাজার নগর পাইকারি বিপণিবিতান’, পোস্তগোলা ব্রিজ থেকে রায়েরবাজার স্লুইসগেট পর্যন্ত আট লেনের ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মণি সরণি (ইনার সার্কুলার রিং রোড)’, ধানমন্ডি হ্রদে ‘নজরুল সরোবর’ এবং শাহবাগে ‘হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী শিশু উদ্যান’ আধুনিকীকরণ শীর্ষক চারটি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন।


আরও খবর



বিপণী বিতানে ক্ষতিগ্রস্তরা দোকান পাবেন: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখা হাসিনা বলেন বিপণী বিতানে ক্ষতিগ্রস্তরা দোকান পাবেন। নতুন করে ব্যবসা শুরু করতে কোনো আর্থিক সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তা সরকারে দেবে৷ এই মার্কেট নতুন করে বাঁচার শক্তি দেবে ব্যবসায়ীদের। এ সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক নতুন ক্যাম্পাস গড়ে তোলা হবে বলেও জানান তিনি।

শনিবার (২৫ মে) বঙ্গবাজারে নতুন মার্কেটসহ চার প্রকল্পের উদ্বোধন শেষে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় নগরবাসীকে যেখানে সেখানে ময়লা-আবর্জনা না ফেলার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলবেন। সিটি করপোরেশনকে দ্রুত ময়লাগুলো অপসারণের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যেন শহর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকে।

এছাড়া আসন্ন ঈদুল আজহায় যেখানে সেখানে পশু কোরবানি না করার নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যত্রতত্র পশু কোরবানি দেবেন না৷ নির্দিষ্টস্থানে কোরবানি দেবেন। আগামীতে পশু কোরবানির জন্য আরও আধুনিক ব্যবস্থা রাখতে বলা হয়েছে সিটি করপোরেশনগুলোতে। শুধু সিটি করপোরেশন নয়, দেশব্যাপী আধুনিক ব্যবস্থা রাখতে হবে সেই নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ-পানি ঠিকমত পেত না নগরবাসী৷ স্বাস্থ্যকর পানি পেতে চাইলে, নিজের পানির ট্যাঙ্ক নিজেদেরই পরীক্ষা করে দেখতে হবে। মশার প্রজনন ক্ষেত্র যেন তৈরি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন৷ আগের চেয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার বেড়েছে।

অতিরিক্ত বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঘর থেকে বের হওয়ার আগে লাইট-ফ্যান-চার্জারের সুইচ বন্ধ রাখবেন। চার্জারের লাল বাতি জ্বললেও বিল ওঠে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচ অবশ্যই আপনাকে দিকে দিতে হবে। না হলে বিদ্যুৎ আসবে কোথা থেকে।

সরকার প্রধান বলেন, পানি বিল কমাতে চাইলে পানি ব্যবহারেও সাশ্রয়ী হবেন। পানির কল ছেড়ে, শেভিং কিংবা কাপড় কাচা বা দাঁত মাজবেন না৷ পানি অপচয় করবেন না।

প্রকল্প-পরিকল্পনা নেওয়ার আগে জলাধারগুলো সংরক্ষণ রাখারা জন্য প্রকৌশলিদের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জলাশায় থাকলে বাতাস ঠাণ্ডা থাকে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এক সময় ঢাকায় অনেক খাল-পুকুর, জলাশয় ছিল। তখন ঢাকার পরিবেশও সুন্দর ছিল। বাতাস ঠাণ্ডা ছিল। কিন্তু এখন সেগুলো দালান-কালভার্ট নির্মাণে ভরাট হয়ে গেছে। যদিও কিছু খাল উদ্ধার করা হয়েছে।

পার্কগুলো যেন মাদকসেবীদের আখড়া না হয়। শোভাবর্ধন-পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায়ে রাখতে ভূমিকা রাখতে হব কাউন্সিলরদের-এ কথা জানিয়ে তিনি বলেন, মাদক থেকে দূরে থাকবেন সবাই।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাজাপ্রপ্ত তারেক জিয়া এখন বিদেশ থেকে দেশে অশান্তির হুকুম দেয়। অস্ত্র চোরাচালানের রুট ছিল বাংলাদেশ৷ সেটা বন্ধ করা হয়েছে। আত্মমর্যাদা-আত্মসম্মান নিয়ে চলার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে তরুণ প্রজন্মকে।


আরও খবর



আমাদের শিশুরাও পিছিয়ে থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিশ্ব প্রযুক্তির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের শিশুরাও পিছিয়ে থাকবে না। আধুনিক প্রযুক্তির জ্ঞান দিয়ে আমরা তাদের গড়ে তুলব,বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 

মঙ্গলবার (৪ জুন) প্রধানমন্ত্রী বিকেলে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে জাতির পিতার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জাতির পিতার ৯৯তম, শততম, ১০১তম, ১০২তম, ১০৩তম এবং ১০৪তম জন্মবার্ষিকীর প্রতিযোগিতার বিজয়ী ৩০৪ প্রতিযোগীর মাঝে পুরস্কার প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। ২০০৮ সালে আমরা ঘোষণা দিয়েছিলাম ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ব। ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছি। এখন আমাদের ঘোষণা হলো, ২০৪১ সালের বাংলাদেশ হবে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’। সেজন্য আমরা স্কুলে স্কুলে কম্পিউটার ল্যাব করে দিয়েছি, কম্পিউটার ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার করে দেওয়া হয়েছে। যেখানে বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি তথা ডিজিটাল সিস্টেমের প্রসার আমরা ঘটাচ্ছি। প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে। সেখানে আমাদের ছেলে-মেয়েরা পিছিয়ে থাকবে কেন? তাদেরও সেভাবে একটি আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞান সম্পন্ন জাতি হিসেবে গড়ে তুলব। আর ২০৪১-এর যে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’, আজকের শিশু ও তরুণরাই হবে সেই স্মার্ট বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কর্ণধার।

তিনি বলেন, তোমরাই বাংলাদেশকে স্মার্ট বাংলাদেশ হিসেবে এগিয়ে নিয়ে যাবে। সেভাবেই আমরা দেশকে গড়তে চাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার শিশুদের সুরক্ষায় অনেক আইন ও নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করে প্রাক-প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত বিনামূল্য পাঠ্যপুস্তক প্রদান করছে। বৃত্তি-উপবৃত্তি দিচ্ছে, উচ্চ শিক্ষায় বৃত্তি দিচ্ছে। বিভিন্ন জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় এবং ফ্যাশন ডিজাইন, অ্যারোস্পেস, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে বিভিন্ন বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছে। পাশাপাশি বিভাগীয় পর্যায়ে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠারও উদ্যোগ নিয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারের গৃহীত এসব পদক্ষেপের ফলে আজ স্বাক্ষরতার হার, যা ২০০৬ সালে মাত্র ৪৫ ভাগ ছিল, বর্তমানে ৭৬ দশমিক ৮ ভাগে উন্নীত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান এবং দুঃস্থদের সহায়তার জন্য তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট গঠন করেছি।

তিনি এবং তার ছোট বোন শেখ রেহানা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত সেই ধানমন্ডির বাড়ি, যেখান থেকে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছিল, সেটিকে জাদুঘরে পরিণত করেছেন উল্লেখ করে বলেন, শেখ মুজিব তো জনগণের ছিলেন। কাজেই ওই বাড়ির ওপর এখন আমাদের অধিকার নেই। সেখানে মানুষের অধিকার। সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ প্রদানের একটি হলোগ্রামও করা হয়েছে। বাড়িটিতে সেই স্মৃতি ধরে রাখার চেষ্টা হয়েছে যেখান থেকে তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন, বসবাস করেছেন এবং শেষে সপরিবারে তাকে নির্মমভাবে হত্যাও করা হয়েছিল। কাজেই সেই বাড়ি আমরা দু’বোন ব্যবহার করব না, এটাই আমাদের সিদ্ধান্ত।

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের সভাপতি ও বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী হাশেম খান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। জাদুঘরের কিউরেটর মো. নজরুল ইসলাম খান অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন।


আরও খবর



গাংনীতে আটটি আফ্রিকান পাখি উদ্ধার পাখি বহনকারীর ১০ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃমেহেরপুর গাংনীতে আফ্রিকান ওপেন বিন জাতের  ৮টি বিদেশি  পাখি উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে মেহেরপুরের গাংনীস্থ র‌্যাব-১২ এর একটি টীম উপজেলার চোখতোলা নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে পাখিগুলোকে উদ্ধার করে। সেই সাথে পাখি বহনকারী আশরাফ আলীকে ভ্রাম্যমান আদালত ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ও রাত ১২টার সময়  মেহেরপুর জেলা বন বিভাগের কাছে পাখিগুলি হস্তান্তর করে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা জানান, এএসপি মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি টীম ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি প্রাইভেট কারে (ঢাকা মেট্রো গ ২৭-৩৭৩৮) তল্লাশি চালিয়ে  আটটি বিদেশি আফ্রিকান ওপেন বিন জাতের পাখি উদ্ধার করে। পাখি বহনকারীর কাছে  কোন লাইসেন্স বা এই পাখির পারমিট  বা বৈধ কাগজপত্র না থাকায় রাষ্ট্রীয় কোষাগরে বাজেয়াপ্ত করে জেলা বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সেই সাথে   বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ  ও নিরাপত্তা  আইন ২০২২ এর ১২ ধারা লংঘন করায় ৩৯ ধারা মোতাবেক তার কাছ থেকে দশ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। 

পাখিগুলোর দাম কমপক্ষে সাত লাখ থেকে আট  লাখ টাকা হবে বলে জানিয়েছেন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা।


আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




ঈদুল আজহার আনন্দ উপভোগ করুন অপোর মেগা গিফটের সাথে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:২০২৪ আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশজুড়ে বইছে আনন্দের সুবাতাস। উৎসবের এই আনন্দ আরও বাড়িয়ে দিতে শীর্ষস্থানীয় বৈশ্বিক প্রযুক্তি ব্র্যান্ড অপো নিয়ে এসেছে দারুণ সব উপহার। নতুন অপো ফোনের মোড়ক খুললেই গ্রাহকদের জন্য থাকছে নানা চমক।

ঈদুল আজহা পর্যন্ত থাকবে আনন্দের এক ভিন্ন আবহ, কারণ এই সময়ের মধ্যে নির্ধারিত অপো ডিভাইস কিনে গ্রাহকরা অনলাইন লটারির মাধ্যমে মেগা গিফট জেতার দারুণ সুযোগ পাবেন।আকর্ষণীয় এই সুযোগ সদ্য বাজারে আসা এ১৮ ও এ৬০ এবং সেইসাথে জনপ্রিয় এ৩৮ ও এ৫৮ কিনলে পাওয়া যাবে।

এই গ্র্যান্ড প্রাইজ প্যাকেজের মধ্যে রয়েছে উন্নত মানের হোম অ্যাপ্লায়েন্স যেমন রেফ্রিজারেটর, ৪কে টিভি, এয়ার কন্ডিশনার, ওয়াশিং মেশিন ইত্যাদি। সবকিছুই পাওয়া যাবে অনলাইন লটারির মাধ্যমে। এছাড়া অন্যান্য সব আকর্ষণীয় উপহার যেমন অপো ছাতা, ফ্যান জার্সি ও ইন্টারনেট ডেটা উৎসবের আনন্দ বাড়িয়ে ঈদুল আজহাকে আরও স্মরণীয় করে তুলবে।

অনলাইন লটারিতে অংশগ্রহণের জন্য গ্রাহকদের এই পোর্টালে (https://oppobangladesh.com/Eid-Al-Adha-lottery-camp/) ভিজিট করে সাধারণ কিছু তথ্য প্রদান করতে হবে। এই বিষয়ে অনুমোদিত অপো রিটেইল শপের কর্মীদের কাছ থেকে সহযোগিতা পাওয়া যাবে। এছাড়া অনলাইনেও লটারিতে অংশগ্রহণের সহজ নির্দেশাবলী রয়েছে।

অভিনব এসব অপো ডিভাইস গ্রাহকদের হাতে পৌঁছানোর সাথে সাথেই তাদের জন্য থাকছে অনলাইন লটারির মাধ্যমে সৌভাগ্যবান বিজয়ী হওয়ার চমকপ্রদ সুযোগ। দারুণ ফিচারের সব ফোন ও পরিবারের জন্য চমৎকার পুরস্কার জেতার সম্ভাবনা ঈদে বাড়ি ফেরাকে করে তুলবে আনন্দময়।

সীমিত সময়ের এই ঈদুল আজহা ক্যাম্পেইন সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে ও সরাসরি অপো ডিভাইসের অভিজ্ঞতা নিতে গ্রাহকরা তাদের নিকটতম অনুমোদিত অপো রিটেইল শপে যেতে পারেন বা অফিসিয়াল অপো বাংলাদেশ ফেসবুক পেজটি ভিজিট করতে পারেন (https://www.facebook.com/OPPOBangladesh)।


আরও খবর