Logo
আজঃ বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড ওয়ানডে সিরিজ আজ শুরু হচ্ছে

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ২২৫জন দেখেছেন

Image

স্পোর্টস ডেস্ক: মাত্র কদিন হল ইংল্যান্ডকে টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাওয়াশ করেছে টাইগাররা। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম দুটি ওয়ানডে ম্যাচে হারলেও শেষ ওয়ানডেসহ টানা তিন টি–টোয়েন্টিতে জিতেছে বাংলাদেশ দল। এবার টাইগারদের সামনে আয়ারল্যান্ড।

আজ থেকে শুরু হচ্ছে টাইগারদের আয়ারল্যান্ড পরীক্ষা। এই সিরিজে আইরিশরা বাংলাদেশের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে, তিনটি টি–টোয়েন্টি এবং একটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে।

আজ শনিবার ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ শুরু হচ্ছে দুপুর ২টায়। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি। ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করার পরও আয়ারল্যান্ড দলকে সমীহের চোখে দেখছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।

তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের মতো আয়ারল্যান্ডকেও সম্মান করি আমরা। কিন্তু আমরা কোনো দলকে ভয় করি না। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যেভাবে দলকে প্রস্তুত করেছিলাম আয়ারল্যান্ডের সাথেও তার চেয়ে কম করা হচ্ছে না। নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে পারলে যেকোন দলকে হারানো আমাদের জন্য কঠিন না। এটা আমাদের মূল বিষয়।

২০০৮ সালের পর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে প্রথমবারের মত বাংলাদেশে এসেছে আয়ারল্যান্ড। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত ওয়ানডে ক্রিকেটে ১০ ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ড। এরমধ্যে সাতটি জিতেছে বাংলাদেশ এবং মাত্র দুটিতে জয় পায় আয়ারল্যান্ড। বাকী ১টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। ২০০৭ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্রিজটাউনে প্রথমবারের দেখায় বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় পেয়েছিলো আয়ারল্যান্ড। ২০১০ সালে বেলফাস্টে শেষবার বাংলাদেশকে হারিয়ছিলো আইরিশরা। তবে গত এক দশকে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে কোনো লড়াই করতে পারেনি আয়ারল্যান্ড। ২০১৯ সালে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের ম্যাচে সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিলো দুই দল। ম্যাচটি ৬ উইকেটে জিতেছিলো বাংলাদেশ। ঐ ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের অন্য দল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ইতিহাসে একমাত্র বড় ট্রফি জিতেছিলো বাংলাদেশ। ২০১৬ সালে ও গত মাসে ইংল্যান্ডের কাছে দু’টি ম্যাচে হার ছাড়া ২০১৫ সাল থেকে ঘরের মাঠে ওয়ানডেতে কোন সিরিজ হারেনি বাংলাদেশ। তাই এই সিরিজেও আইরিশদের হারিয়ে সিরিজ নিশ্চিত করতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।


আরও খবর



রূপগঞ্জে বন্ধুদের সাথে পুকুরে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ১৪৯জন দেখেছেন

Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু রুপগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বন্ধুদের সাথে ঘুরতে এসে পুকুরে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে কলেজ ছাত্র শিথিল (২৪) মারা গেছেন। আজ বুধবার বিকেলে উপজেলার সরকারী মুড়াপাড়া কলেজের সামনে থাকা পুকুরে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, নিহত শিথিল রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন কুড়াতলী এলাকার জাহিদুল ইসলামের ছেলে। সে ঢাকা আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।


নিহত শিথিলের সাথে থাকা তার বন্ধুরা জানান, আজ বুধবার বেলা ১২ টার দিকে ঢাকা আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র শিথিলসহ তারা ৬ বন্ধু রূপগঞ্জের সরকারী মুড়াপাড়া কলেজে ঘুরতে আসে। পরে দুপুরে তারা সবাই কলেজের সামনে থাকা পুকুরে গোসল করতে নামে। এসময় সবাই সাতঁরে পুকুরের মাঝখানে গিয়ে আবার ঘাটে ফিরে আসলেও শিথিল পানিতে ডুবে যায়। পরে খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় রূপগঞ্জ থানার পুলিশ।


এই বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার তদন্ত (ওসি) জুবায়ের হোসেন জানান, এই ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। আমরা জানতে পারি নিহত শিথিলসহ তার সাথে থাকা ৬জন বন্ধু সরকারী মুড়াপাড়া কলেজে ঘুরতে আসে এবং কলেজের সামনে থাকা পুকুরে গোসল করতে নেমে পুকুরের মাঝখানে গিয়ে পানির নিচে তলিয়ে যায় শিথিল।


পরে বহু খোজাখুজির করে আশেপাশের লোকজনের সহযোগিতায় আমাদের রুপগঞ্জ থানার পুলিশ বিকাল ৪ টারদিকে পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে রুপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা দেন। পরে আবেদনের প্রেক্ষিতে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ নিহতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

     -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




কম দামে ধান কিনতে জোটবদ্ধ ব্যবসায়ীরা,বিক্রি করতে এসেই ধরা চাষীরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৪৭জন দেখেছেন

Image
এস এম শফিকুল ইসলাম জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটে ব্যবসায়ীরা বেশী লাভের আশায় জোটবদ্ধ হয়ে ধান কিনছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। কম মূল্যে ধান ক্রয় করে মিল-চাতাল মালিকরা সেই ধান থেকে চাল তৈরী করে সরকার নিদ্ধারিত রেটে খাদ্যগুদামে সরবরাহ করে মোটা অংকের লাভ করবেন বলে শংঙ্খা কৃষকদের। আবার স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বাহির থেকে আশা মহাজনদের হাটে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ রয়েছে। তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন ভিন্ন কথা। ভেজা ধান বলে কম দামে ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে। রোদ ওঠলেই দাম বেড়ে যাবে। আর বাজার সবার জন্য উম্মোক্ত। যে কেউ বাজার থেকে ধান ক্রয় করতে পারেন। 

মিল-চাতাল মালিক, ফরিয়া ও মহাজনরা বাজারে বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে কৃষকদের উৎপাদিত ধান অনেক কম মূল্যে ক্রয় করছেন। মাড়াইয়ের পর চাষীরা বাজারে ধান নিয়ে এসে ব্যবসায়ীদের ফাঁদে পা দিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করে অনেকেই বিক্রি করতে না পেড়ে ফেরত নিয়ে যাচ্ছেন। ধান বিক্রি করে চাষীরা লোকসান গুণলেও কৌশলে লাভোবান হচ্ছেন এলাকার মিল-চাতাল মালিক, ফরিয়া ও মহাজনরা। কম দামে ধান কিনে অল্প দিনেই বেশী লাভ করছেন তারা। 

গতকাল জেলার বৃহত ধানের বাজার পাঁচশিরা, পুনট ও ইটাখোলা হাটে কৃষকদের জিম্মি করে ব্যবসায়ীরা মোটা জাতের মামুন ও স্বর্ণা-৫ ধান ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা এবং চিকন কাটারি জাতের ১০৫০ থেকে ১১০০ টাকা (৪০ কেজির) মণ দরে ক্রয় করেছেন। এতে প্রতি কেজি মোটা ধান ১৭-১৮ টাকা এবং চিকন ধান ২৬-২৭ টাকা দরে বিক্রি করছেন কৃষকরা। অথচ প্রতি কেজি ধানের সরকার নিদ্ধারিত মূল্য ৩২ টাকা আর চালের মূল্য ৪৫ টাকা ঘোষনা করা হয়েছে। ৪০ কেজি ধান থেকে চাল হয় ৩০ কেজি। সে অনুপাতে ৩০ কেজি চালের সরকারি মূল্য আসে ১৩৫০ টাকা। চাতাল ব্যবসায়ীরা কৃষকদের নিকট থেকে ধান ক্রয়ের পর চাল বিক্রয় করে লাভ করবেন ৬৫০ টাকা। কৃষকদের অভিযোগ, মিল-চাতাল মালিকরা জোটবদ্ধ হয়ে বেশী লাভের আশায় কম দামে ধান কেনার জন্য বাজারে মাঝে-মধ্যে ধান কেনা বন্ধ রাখেন। যখন বাজারে ধানের আমদানী বেশী হয়, তখন ব্যবসায়ীরা ক্রয় করার চাহিদা কমে দেয়। কম দামে বেশী পরিমান ধান ক্রয়ের জন্য ব্যবসায়ীরা এসব নাটক করেন। শ্রমিক বিদায়সহ সেচের টাকা পরিশোধ করতে বাধ্য হয়ে কম দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে ধান। ভ‚ক্তভোগী কৃষকরা উৎপাদিত ধানের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে দিনের পর দিন লোকশান গুণলেও অল্প সময়ে মোটা অংকের লাভ গুণছেন মধ্যে সত্ত¡ভোগী ব্যবসায়ীরা।

জেলা খাদ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাটের পাঁচটি উপজেলার খাদ্যগুদামগুলোতে এবার সরকার নিদ্ধারিত ৩২ টাকা কেজি দরে ৬ হাজার ৬৫৭ মে.টন ধান এবং সরকারের সাথে চুক্তিবদ্ধ মিল-চাতাল মালিকদের নিকট থেকে ২১ হাজার ৫৯৭ মে.টন চাল ক্রয় করবেন। স্থানীয় মিলারদের নামে ইতমধ্যে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এবং ক্রয় শুরু হয়েছে। বরাদ্দ পেয়ে জেলার বিভিন্ন হাট-বাজার থেকে ব্যবসায়ীরা সুযোগ বুঝে যে যার মত করে কৌশলে ধান ক্রয় করছেন। আবওহাওয়ার কারনে তারা এমন কৌশল চাষীদের উপর প্রয়োগ করছেন।  

ক্ষেতলালের মুন্দাইল গ্রামের কৃষক শাহিন বলেন,‘ধান বিক্রি করতে এসে যে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে, লাভতো দুরের কথা, মোটা অংকের লোকশান গুণতে হচ্ছে আমাদের। যাও একটু দাম বাড়তো, আবওহাওয়ার সাথে ব্যবসায়ীদের কারণেই সেটা সম্ভব হচ্ছেনা। এবার বিগা প্রতি উৎপাদন খরচ হয়েছে ১৬ হাজার টাকা। ৮ বিঘা জমিতে ধান পেয়েছি গড়ে ২০ মণ করে ১৬০ মণ, হিসাব করে বিগা প্রতি ৪ হাজার করে মোট ৩২ হাজার টাকা লোকশান হয়েছে।’

জোটবদ্ধ হয়ে ধান ক্রয়ের বিষয় অস্বীকার করেছেন পাঁচশিরা বাজারের মা চাউল-কলের স্বত্তাধীকার মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন,‘আবওহাওয়াজনিত কারনে ধান ভেজা হওয়ায় গত সপ্তাহের চেয়ে বর্তমানে মণে এক থেকে দেড়শ টাকা কমে গেছে। রোদ ওঠলেই ধানের দাম বেড়ে যাবে। ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা মিথ্যা, বাজার সবার জন্য উম্মোক্ত। যে কেউ এসে ধান ক্রয় করতে পারবে। কৃষকরা অনবরত ব্যবসায়ীদের দোষ দিয়ে থাকেন। এটা নতুন কিছু নয়।’  

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কামাল হোসেন বলেন,‘এ জেলার কৃষকরা চিকন জাতের ধান চাষ করে। সরকারের নিদ্ধারিত মূল্যের চেয়ে বাজারে দাম বেশি হওয়ায় তারা গুদামে ধান দিতে চায় না। ফলে ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব হচ্ছে না। তবে আশা করছি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এবার শতভাগ চাল সংগ্রহ হবে।’

জেলা কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের কর্মকর্তা রতন কুমার রায় বলেন,‘ধানের দাম নিয়ে বিভিন্ন কথাই শুনতে পাচ্ছি। সরকার ধান-চালের যে দর বেঁধে দিয়েছেন, সে অনুপাতে বিক্রি করতে পারলে কৃষকরা লাভবান হবেন। ধানের বাজার এতো কম হওয়ার কথা নয়। ধানের বাজারমূল্য কম হওয়ার পেছনে কোন রহস্য আছে কিনা তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও খবর

ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪




সৌদি পৌঁছেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন হজযাত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৬৯জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ২৪ডেস্ক :পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশে চলতি বছর সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী। মোট ২০৯টি ফ্লাইটে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে পাড়ি জমিয়েছেন তারা।

বুধবার (১২ জুন) হজ পোর্টালে আইটি হেল্প ডেস্কের প্রতিদিনের বুলেটিন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

হেল্প ডেস্কের তথ্যমতে, মোট ২০৯টি ফ্লাইটে মঙ্গলবার পর্যন্ত সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন বাংলাদেশি। এরমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস ১০৫টি, সৌদি এয়ারলাইনস ৭২টি এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইনস ৩২টি ফ্লাইট পরিচালনা করেছে।

এদিকে, পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে গোলাম কুদ্দুস (৫৪) নামে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর হজ পালনে গিয়ে এখন পর্যন্ত ১৫ জনের মৃত্যু হলো। তাদের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ ও ১ জন নারী। এর মধ্যে মক্কায় ১১ জন এবং মদিনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ থেকে গত ৯ মে হজযাত্রীদের বহনকারী প্রথম ফ্লাইট সৌদি আরবের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আজ বুধবার শেষদিনের মতো হজযাত্রীদের ফ্লাইট সৌদি আরবের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। এ বছর হজযাত্রীদের প্রথম ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে আগামী ২০ জুন। এ ছাড়া আগামী ২২ জুলাই হজযাত্রীদের শেষ ফিরতি ফ্লাইট দেশের উদ্দেশে রওনা হবে।

প্রসঙ্গ, গত ৬ জুন সৌদি আরবে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। দেশটিতে পরদিন ৭ জুন থেকে আরবি বর্ষপঞ্জিকার ১২তম এ মাস শুরু হয়েছে। এই হিসেবে আগামী ১৫ জুন মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া পরদিন ১৬ জুন দেশটিতে পবিত্র ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



মোংলায় ৬০ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাডুবি

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

বাগেরহাট প্রতিনিধি:যাত্রীবাহী একটি ট্রলার ডুবে গেছে বাগেরহাটের মোংলায়। ডুবে যাওয়া ট্রলারটিতে ৫০ থেকে ৬০ জন যাত্রী ছিলেন।

রোববার (২৬ মে) সকালে মোংলা নদীর ঘাটে অতিরিক্ত যাত্রী তোলার কারণে ট্রলারটি ডুবে যায়।তাদের মধ্যে কিছু যাত্রী উঠে গেলেও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে।

নৌপুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও কোস্টগার্ডের ডুবুরি দল নদীতে তল্লাশি চালাচ্ছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মোংলা উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নিশাত তামান্না বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী তোলার কারণে একটি নৌকা ডুবে গেছে। এটিতে প্রায় ৫০ থেকে ৬০ জন যাত্রী ছিল বলে শুনেছি। ট্রলার দুর্ঘটনার পর থেকেই খোঁজখবর রাখছি। যাত্রী নিখোঁজ আছে কিনা, সে বিষয়ে পৌরসভার সিসি ক্যামেরায় দেখা হচ্ছে এবং নৌপুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও কোস্টগার্ডের ডুবুরি দল নদীতে তল্লাশি চালাচ্ছে।


আরও খবর



পুলিশকে গুলি করে হত্যা: কনস্টেবল কাওসার ৭ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য কাউসার আলী সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (৯ জুন) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাকিল আহাম্মদ রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

এদিন কাউসারকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (৮ জুন) রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর বারিধারায় ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে আরেক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। নিহত পুলিশ সদস্য ডিপ্লোম্যাটিক সিকিউরিটি ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন।

গুলির ঘটনায় সাজ্জাদ হোসেন নামে জাপান দূতাবাসের এক গাড়িচালক আহত হন। তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রোববার (৯ জুন) গুলশান থানায় মামলা করেছেন নিহত মনিরুল হকের ভাই মো. মাহাবুবুল হক।


আরও খবর