Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

বালু উত্তোলন বন্ধে নদীপাড়ে কাস্তে হাতে ৫ শতাধিক কৃষক

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৪৬জন দেখেছেন
Image

পদ্মা নদীতে অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে কাস্তে হাতে মানববন্ধন করেছেন পাঁচ শতাধিক কৃষক।

শনিবার (৪ জুন) দুপুরে পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুরে নদীপাড়ে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন জালাল আলী বিশ্বাস, রতন খান, নিজাম উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, আব্দুর রব প্রমুখ।

বালু উত্তোলন বন্ধে নদীপাড়ে কাস্তে হাতে ৫ শতাধিক কৃষক

বক্তব্যে ভুক্তভোগী কৃষকরা অভিযোগ করে বলেন, আমাদের দুই বা তিন ফসলি জমিতে পাট, ধান, বাদাম, তিল ও ভুট্টাসহ নানা ফসল আবাদ হয়। কিন্তু প্রভাবশালী ব্যক্তিরা নদী থেকে অবাধে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের পর বিক্রি করছেন। এতে আমাদের কয়েকশ বিঘা আবাদি জমি ভাঙনের মুখে পড়েছে। অপরিকল্পিত বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে শত শত কৃষকের জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই অবিলম্বে বালু উত্তোলন বন্ধ করতে হবে।

এ বিষয়ে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, প্রায় সময় বালুখেকোদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে আসছি। ভুক্তভোগীরা অভিযোগ দিলেই পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।


আরও খবর



অ্যাপেক্স রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক কারাগারে

প্রকাশিত:Tuesday ০৯ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
Image

হজের আশ্বাস ও উচ্চ বেতনে বিভিন্ন চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে নারীপাচার ও নির্যাতনের অভিযোগে মানবপাচার আইনের মামলায় কনকর্ড অ্যাপেক্স রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক আবুল হোসেন (৫৪) ও তার সহযোগী আলেয়া বেগমকে (৫০) কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) তাদের আদালতে হাজির করে পুলিশ। এসময় পল্টন থানায় করা মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া আসামিদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

পরে সেই আবেদন মঞ্জুর করে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ইয়াসমিন আরার আদালত আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এসময় আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জামিন আবেদন করলে বিচারক শুনানির জন্য আগামীকাল বুধবার দিন ধার্য করেন।

সম্প্রতি কয়েকজন ভুক্তভোগীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত রোববার (৭ আগস্ট) রাতে রাজধানীর পল্টন থানার সিটি হার্ট শপিং কমপ্লেক্সের ষষ্ঠ তলার কনকর্ড অ্যাপেক্স রিক্রুটিং এজেন্সির অফিসে অভিযান চালিয়ে আবুল হোসেন ও আলেয়া বেগমকে গ্রেফতার করে র্যাব। অভিযানে বিদেশে পাঠানোর জন্য নিজেদের জিম্মায় রাখা তিন নারী ভুক্তভোগীসহ ৩১টি পাসপোর্ট, ডকুমেন্ট ২২ পাতা, ২টি মোবাইল, ৩টি সিমকার্ড উদ্ধার করা হয়।

সোমবার (৮ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন জানান, দেশে মানবপাচার চক্রের টার্গেটে পরিণত হয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকার দরিদ্র সহজ-সরল মানুষ। তাদের লোভনীয় বেতনে চাকরিসহ সৌদি আরবে বিনামূল্যে হজ পালন করার প্রলোভন দেখানো হতো। কিন্তু বিদেশে নিয়ে বিভিন্ন অবৈধ কাজে বাধ্য করাসহ নির্যাতন চালানো হতো তাদের ওপর।

গ্রেফতার আবুল হোসেনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বৈধ প্রতিষ্ঠান কনকর্ড রিক্রুটিংয়ের আড়ালে নারীপাচার ও নির্যাতনের মতো অপকর্ম করে আসছিল প্রতিষ্ঠানটি। আবুল হোসেন এ প্রতিষ্ঠানের প্রধান। এসব কর্মকাণ্ডে তার অন্যতম সহযোগী আলেয়া বেগম ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রয়েছে অসংখ্য দালাল।

দালালদের মাধ্যমে চক্রটি মূলত সমাজের বেকার, অল্পশিক্ষিত, অসচ্ছল ও দরিদ্র পরিবারগুলোর বিবাহিত, তালাকপ্রাপ্ত নারীদের মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে বেশি বেতনে চাকরি, বিমানে ওঠার অভিজ্ঞতা, রাজকীয় থাকা-খাওয়ার সুবিধা, স্মার্টফোন দেওয়া এবং সৌদিতে হজ করাসহ ধর্মভিত্তিক লোভনীয় চাকরি প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশে পাঠাতো। বিদেশে নিয়ে প্রথমে ভুক্তভোগীদের জানালাবিহীন কক্ষে আটকে রাখতো এবং দু-তিনদিন পর বিভিন্ন জনের বাসায় পাঠানো হতো।

বাসায় নিয়ে যাওয়ার পর তাদের দিয়ে সব ধরনের কাজ করানো হতো। কিন্তু ঠিকমতো খাবার খেতে দেওয়া হতো না। অকারণে মারধর ও অমানবিক নির্যাতন করা হতো। এমনকি বৈদ্যুতিক শকও দেওয়া হতো।

চক্রের অন্যতম দালাল হিসেবে কাজ করা আলেয়া বেগম আগে পল্টন এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে শ্রমিক সংগ্রহের কাজ করেছেন। ২০২১ সাল থেকে আবুল হোসেনের কনকর্ড রিক্রুটিং এজেন্সিতে শ্রমিক সংগ্রহের কাজ শুরু করেন। বিদেশে পাঠানোর আগে এই শ্রমিকদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ও বিভিন্ন সাদা কাগজে সই নেওয়া হতো বলেও জানান র্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন।


আরও খবর



স্কুল-কলেজের ফি বিকাশে দিলে ১৮০ টাকা পর্যন্ত ক্যাশব্যাক

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি বিকাশে পেমেন্ট করে মাসে ৬০ টাকা করে অফার চলাকালীন সর্বোচ্চ ১৮০ টাকা ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাকের সুযোগ দিয়েছে বিকাশ।

দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে যেকোনো সময় সহজেই ফি পরিশোধের পাশাপাশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য বাড়তি সাশ্রয়ের সুযোগ দিতেই বিকাশের এ ক্যাশব্যাক অফার।

১ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে ৩১ অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত বিকাশ অ্যাপ ও ইউএসএসডি কোড *২৪৭# ডায়াল করে অফারটি গ্রহণ করতে পারবে গ্রাহকরা। ন্যূনতম ৫০০ টাকা বা তার অধিক ফি পরিশোধ করে প্রতিবার ৩০ টাকা করে মাসে দুবারে মোট ৬০ টাকা ক্যাশব্যাক পাওয়া যাবে। ক্যাম্পেইন চলাকালে সর্বমোট ১৮০ টাকা ক্যাশব্যাকের সুযোগ থাকছে। এই লিংকে অফারের বিস্তারিত ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা পাওয়া যাবে।

এ ক্যাম্পেইনের আওতায় সিদ্ধেশ্বরী গার্লস স্কুল, মনিপুর উচ্চবিদ্যালয়, বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রংপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজশাহী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ, আইডিয়াল কলেজ ধানমন্ডি, যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজসহ ২৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এডমিশন, একাডেমিক, টিউশন ফিসহ বিভিন্ন ধরনের ফি পরিশোধ করে ক্যাশব্যাক পেতে পারে শিক্ষার্থীরা।

বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ফি দিতে প্রথমে অ্যাপের হোমস্ক্রিন থেকে ‘এডুকেশন ফি’ আইকনে ট্যাপ করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্বাচন করতে হবে। এরপর প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন স্টুডেন্ট আইডি, বিল সময়সীমা, পেমেন্টের ধরন ইত্যাদি টাইপ করে সবশেষে বিকাশ পিন দিলেই পেমেন্ট সম্পন্ন হয়ে যাবে। প্রথম পেমেন্টের সময়ই নিজের অ্যাকাউন্ট সেভ করে রাখলে পরে তা থেকে সহজেই অল্প কয়েক ধাপে পেমেন্ট করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

পেমেন্ট সফল হলে সঙ্গে সঙ্গেই কনফারমেশন এসএমএস পাবে শিক্ষার্থীরা। চাইলে টাকা জমাদানের রশিদ ডাউনলোড করা যাবে। যা ভবিষ্যৎ প্রমাণের জন্য সহজেই সংরক্ষণ করা যাবে। পাশাপাশি, ‘রিসিট দেখুন’ অপশন থেকে বিগত এক বছরে পরিশোধকরা সব ফির রশিদও পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি পরিশোধকে ঝামেলামুক্ত, সহজ, সময় ও খরচ সাশ্রয়ী করতে বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে ‘এডুকেশন ফি’ আইকন। এ এক আইকনেই শিক্ষা সংক্রান্ত সব ধরনের ফি পরিশোধের সেবা শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবক এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি ব্যবস্থাপনাকেও সহজ করেছে। নতুন আঙ্গিকে সাজানো এ আইকনে সার্চ অপশন থেকে নিজের প্রতিষ্ঠান এখন আরও সহজে খুঁজে নেওয়া যাচ্ছে। এ মুহূর্তে শীর্ষস্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দেশের প্রায় এক হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি পরিশোধ করা যাচ্ছে বিকাশে। প্রতিনিয়ত আরও নতুন প্রতিষ্ঠান যুক্ত হচ্ছে এ তালিকায়।


আরও খবর



করোনায় শিখন ঘাটতিতে ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী, পূরণে তিন সুপারিশ

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

করোনার অতিমারিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীর মধ্যে তৈরি হয়েছে শিখন ঘাটতি। তাদের বেশির ভাগই গ্রাম, চর ও পাহাড়সহ দুর্গম অঞ্চলের। মূলত টেলিভিশন ও অনলাইনে পাঠদানে যুক্ত হতে না পারায় তারা ঠিক মতো শ্রেণি কার্যক্রমে অংশ নিতে পারেনি। এ কারণে এই শিখন ঘাটতি তৈরি হয়েছে। আর যে ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী ঘাটতিমুক্ত রয়েছে তারা শহর অঞ্চলের।

তবে বাড়তি যত্নে তাদের মধ্যে ৮০ শতাংশের ঘাটতি কাটানো সম্ভব। এ জন্য জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) অতিরিক্ত ক্লাস, অ্যাসাইনমেন্ট, টেলিভিশনে পাঠদান এবং ইউটিউব ও অনলাইনে বিষয়ভিত্তিক ক্লাস আপলোড করার সুপারিশ করেছে।

বুধবার (২৭ জুলাই) এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরহাদুল ইসলাম জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ পরীক্ষা উন্নয়ন ইউনিট (বেডু) এই শিখন ঘাটতি নিরূপণ করে আমাদের কাছে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে। তারা কেবল অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ওপর গবেষণাটি করেছে। তবে আমরা অষ্টম শ্রেণির পাশাপাশি অন্য শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি পূরণে পরিকল্পনা ও সুপারিশ করেছি।

জানা গেছে, গত শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার দফায় দাফায় বিশেষজ্ঞরা বৈঠক করে উল্লেখিত পরিকল্পনাটি তৈরি করেন। এরপর গত ২৪ জুলাই এটি প্রথমে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করা হয়।

পরদিন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, করোনার কারণে আমাদের শিখন ঘাটতি হয়েছে। তবে কোথায় ঘাটতি হয়েছে, কী করতে হবে, তা নিয়ে এরই মধ্যে গবেষণা করেছে আমাদের বেডু। গবেষক ও শিক্ষাক্রমের সঙ্গে যারা যুক্ত তারা কর্মশালা করেছেন, পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, এই ঘাটতি পূরণে আমরা দ্রুত কাজ শুরু করবো। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে বৈঠক হবে। সেখান থেকে তারিখ চূড়ান্ত হবে। তবে সেটা আগামী মাস থেকেই শুরু হবে।

বেডুর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২১ সালে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে গণিত বিষয়ে ৬৯ শতাংশের বিভিন্ন মাত্রায় শিখন ঘাটতি তৈরি হয়েছে। এছাড়া বাংলায় ৮০ শতাংশ আর ইংরেজিতে ৭৬ শতাংশের ঘাটতি তৈরি হয়। এবার নবম শ্রেণিতে ও আগামী বছর দশম শ্রেণিতে অতিরিক্ত ক্লাস আর বিশেষ অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে তাদের এই ঘাটতি পূরণ করা হবে।

অন্যদিকে, ষষ্ঠ, সপ্তম ও নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদেরও শিখন ঘাটতি তৈরি হয়েছে। কিন্তু বেডু এ নিয়ে গবেষণা করেনি। এ কারণে এনসিটিবি চায় ‘ডায়াগনস্টিক টেস্ট’ এর মাধ্যমে বর্তমানে অধ্যয়নরত সপ্তম, অষ্টম ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ঘাটতি নির্ণয় করতে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমে এটি বের করার সুপারিশ আছে সংস্থাটির প্রতিবেদনে।


আরও খবর



সিডনি প্রবাসীদের পিঠা সন্ধ্যা

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image

বাঙালির ঐতিহ্যপূর্ণ সুস্বাদু পিঠা উৎসবে বেশ আগ্রহ নিয়েই প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করে। কিছু সময়ের জন্য দেশীয় কৃষ্টিকালচারের স্বাদ আর ব্যতিক্রর্মী সাংস্কৃতিক আয়োজন নির্মল আনন্দের খোরাক যোগায় প্রবাসীদের।

সিডনির প্রেস্টনের প্যাভিলিয়ন হলে বার্ষিক পিঠা সন্ধ্যা ও হিম আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্প্রতি পিঠা উৎসবের আয়োজক হিসেবে ছিলো অস্ট্রেলিয়ার কোয়ান্টাসের প্রকৌশলীরা।

এ সময় অতিথিদের টেবিলে পিঠা সারি সারি সাজিয়ে রাখা হয়। বিভিন্ন প্রকারের পিঠার মধ্যে ছিল চিতই, মুখ পাকন, ভাপা, ভাজা কুলি, ভাপা কুলি, পাটি সাঁপটা, ফুলঝুরি, কেক, নারকেলের নাড়ু ও আরও কিছু বাহারি পিঠা।

সিডনি প্রবাসীদের পিঠা সন্ধ্যা

পিঠা উৎসবের আয়োজকদের একজন ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল কাইউম জানান, বাঙালি বাঙালির সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে আমাদের এই আয়োজন। আশা করি আগামী বছরগুলোতেও এই ধারাবাহিকতা রাখতে পারবো।

সিডনি প্রবাসীদের পিঠা সন্ধ্যা

যান্ত্রিক ও ব্যস্ত জীবনের মাঝে দেশি আমেজে একটু সময় কাটানো এবং বাংলাদেশি ঐতিহ্য প্রবাসীদের মাঝে তুলে ধরার উদ্দেশ্যেই এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।


আরও খবর



গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা শুরু শনিবার

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

আগামী শনিবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে গুচ্ছভুক্ত ২২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা। ওই দিন দুপুর ১২টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত দেশের ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস কেন্দ্রে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। এরপর ১৩ অগাস্ট ‘খ’ ইউনিট ও ২০ আগস্ট ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হবে।

পরীক্ষা শুরুর ন্যূনতম এক ঘণ্টা আগে কেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর পর কাউকে পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

নির্দেশনায় শিক্ষার্থীদের প্রতি বলা হয়েছে, অনলাইনে প্রদত্ত প্রবেশপত্র রঙিন প্রিন্ট করতে হবে। প্রবেশপত্রে প্রার্থীর রঙিন ছবি এবং তথ্য স্পষ্টভাবে মুদ্রিত থাকতে হবে। পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই প্রবেশপত্রে উল্লেখিত নির্দিষ্ট কক্ষের নির্ধারিত আসনে পরীক্ষা দিতে হবে। প্রবেশপত্র, উপস্থিতি তালিকা, উত্তরপত্রে অভিন্ন সই থাকতে হবে। উত্তরপত্রে কালো কালির বল পয়েন্ট কলম ব্যবহার করতে হবে। পেনসিলের ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ভর্তি পরীক্ষার সময় প্রার্থীকে প্রবেশপত্র এবং উচ্চমাধ্যমিকের মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড অবশ্যই সঙ্গে আনতে হবে। পরীক্ষার হলে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক উত্তরপত্র ও প্রবেশপত্রে সই করবেন। প্রবেশপত্রটি পরবর্তী সময় ব্যবহারের জন্য সংরক্ষণ করতে হবে। ক্যালকুলেটরসহ অন্য যেকোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে পরীক্ষার হলে প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।


আরও খবর