Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম

আরও ৩ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুতে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৪৩৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে ২৪ ঘণ্টায় আরও তিনজন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এ নিয়ে চলতি বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে ২২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া এ সময়ে আরও ২৫০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ নিয়ে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭১২ জনে।

আজ শুক্রবার সারাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত এ হিসাব করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে নতুন ভর্তি হওয়াদের মধ্যে ১৭১ জন ঢাকার বাসিন্দা। ঢাকার বাইরে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৭৯ জন। বর্তমানে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১ হাজার ৫৩৮ জন। আর ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি আছেন ১ হাজার ১৭৪ জন

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫১ হাজার ৬০২ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪৮ হাজার ৬৭০ জন।


আরও খবর



বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৫৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:জাতীয় সংসদের বাজেট পেশ করার পর নানা মহল থেকে নানা প্রতিক্রিয়া আসছে,বলেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।আমরা সব প্রতিক্রিয়া আমলে নিচ্ছি। যেগুলো বাস্তবসম্মত এবং বাজেটে বাস্তবায়নযোগ্য সেগুলো অবশ্যই পুনর্বিবেচনা করা হবে। কারণ এখনো বাজেট পাস হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাজধানীর ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) মিলনায়তনে ‘বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের অর্থনীতি : প্রবৃদ্ধি, মুদ্রাস্ফীতি, খাদ্য ও পুষ্টি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেট পেশ করার পর নানা মহল নানা বক্তব্য দিচ্ছে। আবার অনেকেই সমালোচনা করছেন। তাদের উদ্দেশে বলব আমাদের অর্থনীতি নিয়ে, বাজেট নিয়ে বিশ্বব্যাংক কি বলছে সেদিকেও নজর দিয়েন।

তিনি বলেন, বাজেট নিয়ে আরও বক্তব্য আছে, বিশ্বব্যাংক বলেছে ভালো হয়েছে। আমার টাকা লাগবে, বিশ্বব্যাংকের কথা শুনতে হবে। না হলে আপনারা (সমালোচকরা) টাকা দেন।

আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, শেখ হাসিনা সরকার জনবান্ধব সরকার। অনেকেই বলে, সরকার শিগগিরই পড়ে যাবে, কই সরকার তো পড়ে না। সরকার দেউলিয়া হয়ে গেছে, দেউলিয়া মানে কি? দেউলিয়া তো হলো না। বিশ্বব্যাংক কিছু বোঝে না, আপনি সব কিছু বোঝেন? বাজেট দিলাম, এটা দেখেন ও বোঝার চেষ্টা করেন। এই বাজেট জনবান্ধব বাজেট। কোনো কিছুতে সমস্যা থাকলে পুনর্বিবেচনা করার সম্ভাবনা আছে।

সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসানের সভাপতিত্ব সেমিনারে আরও বক্তব্য দেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার প্রতিনিধি ড. জিয়াকুন শি, সাবেক পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম প্রমুখ।


আরও খবর



চাল বের হওয়া ধান বীজ বলে বিএডিসিতে দিচ্ছেন কৃষক রাব্বানী

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৬জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোর উপজেলার কৃষক গোলাম রাব্বানী চাল বের হওয়া ধান বীজ বলে বিএডিসিতে দিচ্ছে এমন অভিযোগ উঠেছে। সে উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন ইউপির দুবইল ও যোগিশো মৌজায় আলুর জমিতে ধান রোপন করে বীজ হওয়ার মত না হলেও বিএডিসির কতিপয় অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে চাল বের হওয়া ধান এবং বাহির থেকে কিনে এনে চাতালে শুকিয়ে বীজ বলে বিএডিসিতে দিবেন বলেও একাধিক কৃষকরা নিশ্চিত করেন। আর এসব বীজ ধান সাধারণ কৃষকরা কিনে প্রতারিত হচ্ছেন অহরহ।  

রোববার এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিনে যোগিশো মোড়ের পশ্চিমে দিকে আক্কাসের চাতালে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক গোলাম রাব্বানী আম গাছের নিচে বসে আছেন। আর কয়েকজন শ্রমিক ধান শুকানোর কাজ করছেন। জিরা জাতের ধান আলুর জমিতে রোপন করেছিলেন গোলাম রাব্বানী। চাতালে শুকানো ধানে ব্যাপক হারে চাল বের হয়ে আছে। চাল বের হওয়া এসব ধান বীজ হিসেবে বিএডিসিতে দিবেন কৃষক গোলাম রাব্বানী। অথচ এসব ধান বীজ হওয়ার মত না। তারপরও কিভাবে দিচ্ছেন রাব্বানী এমন প্রশ্ন কৃষক দের । ছবি তুলতেই শ্রমিক রা বলেন, মেশিনে ধান কাটা মাড়ায় করার কারনে প্রায় ধান থেকে চাল বের হয়ে গেছে। আবার শুকানোর সময় আরো চাল বের হচ্ছে। আমাদের তো মনে হচ্ছে এসব ধান নিবেনা বিএডিসি।
কৃষক গোলাম রাব্বানী জানান, বিএডিসির চুক্তি বদ্ধ কৃষক আমি। যেভাবেই হোক ধান বীজ দিতে হবে। এসব চাল বের হওয়া ধান কিভাবে দিবেন ও কতটন এবং কত একরের চুক্তিবদ্ধ হয়েছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ধান নিবে কি নিবেনা সেটা বিএডিসি আর আমি বুঝব। আপনি তো ৫০ কেজির ১৮০০ বস্তা ধান দিবেন, কিন্তু আপনি তো এত পরিমান জিরা ধান চাষ করেননি পেলেন কোথায় জানতে চাইলে তিনি জানান যে পরিমান ধান দেয়া হবে তার চেয়ে বেশি জমিতে ধান চাষ করা হয়েছে। আমি এত প্রশ্নের উত্তর দিতে বাধ্য না। আরো কিছু জানতে হলে বিএডিসি অফিস থেকে জানতে হবে বলে দায় সারেন তিনি। 

জানা গেছে, গোলাম রাব্বানী পাচন্দর ইউপির দুবইল মাঠে প্রায় ১৫ বিঘা ও যোগিশো মাঠে ৫০ বিঘা মত জমিতে ধান চাষ করেছেন। যোগিশো মাঠে ছিয়াত্তর ও জিরা জাতের ধান চাষ করেছেন।কিন্তু আলুর জমির জিরা জাতের ধান কোনভাবেই বীজ হবেনা বলেও একাধিক কৃষকরা নিশ্চিত করেন। তাহলে কিভাবে এসব ধান বীজ হিসেবে উচ্চ মুল্যে সংগ্রহ করেন রাব্বানী। অবশ্যই বিএডিসির অসাধু কর্মকর্তারা আছে বলেই তিনি সংগ্রহ করতে পারছেন।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন কৃষকরা জানান, আলুর জমির ধান কখনো বীজ হয়না। আর রাব্বানী তো শুধু জিরা জাতের ধান চাষ করেনি। তাহলে কিসের বিনিময়ে এত পরিমান ধান বীজ দিবেন তিনি। আবার ধান শুকানো থেকে শুরু করে ট্রাকে উঠানো পর্যন্ত বিএডিসির লোক থাকতে হবে। কিন্তু কোন লোক থাকে না।

সুত্র জানায়, বিএডিসির সাথে চুক্তিবদ্ধ একজন কৃষক এক একর জমি চাষাবাদ করবে। কিন্তু রাব্বানী বিভিন্ন কৃষকের নামে ৩০ একর জমির চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। তার কারনে প্রান্তিক কৃষকেরা এসুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

এবিষয়ে বিএডিসির উপ পরিচালক (বীবি) কে এম গোলাম সরওয়ারের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি  এসব ব্যাপারে ড: নাইমার সাথে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন।
ড: নাইমার মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন নি। যার কারনে বিএডিসি থেকে এসংক্রান্ত কোন বক্তব্য পাওয়া যায় নি। 

আরও খবর



ভোলায় "রাসেল ভাইপার" আতঙ্ক

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৮৫জন দেখেছেন

Image

শরীফ হোসাইন, ভোলা বিশেষ প্রতিনিধি:ভোলায় গত ৪ দিনে ৩টি রাসেল ভাইপার সাপ ধরা পড়ায় ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতের পর প্রকাশ্যে দেখা মিলছে এই রাসেল ভাইপারের। বিষধর এই সাপ সম্পর্কে গ্রামগঞ্জের মানুষের মধ্যে ধরনা বা পরিচিতি একেবারেই নেই বললেই চলে। ইতোপূর্বে ভোলায় দু-একটি ধরা পড়লেও তা অবমুক্ত করা হয়েছিল। সম্প্রতি ভোলা জেলার বিভিন্ন এলাকায় ধরা পড়ছে রাসেল ভাইপার।

গত রোববার (১৬ জুন) ভোলার লালমোহন উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সৈয়দাবাদ এলাকার হেমায়েত মাওলানা বাড়ির সাখাওয়াত হোসেন নামে এক ব্যক্তির বাথরুমে সাপটির দেখা মেলে। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যদিও আতঙ্কিত হয়ে সাপটিকে তাৎক্ষণিক পিটিয়ে মেরে ফেলেন লোকজন। 

এর দুইদিন পর মঙ্গলবার (১৮ জুন) ভোলা সদরের পূর্ব ইলিশায় এক বসত বাড়ির পাশের রাস্তায় দেখা মেলে বিষধর এ সাপটিকে। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয় সাপটি।

এদিকে একই দিনে দৌলতখান উপজেলায় বিষধর সাপ রাসেল ভাইপারের কামড়ে ৩টি বিড়ালের মৃত্যু হয়েছে। পরে স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে সাপটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছেন। বিড়াল তিনটিকেও নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের জালু মাঝির বসত ঘরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে জালু মাঝির বসতঘরে খাটের নিচে তিনটি বিড়াল মৃত অবস্থায় দেখেন ঘরের লোকজন। পরে ঘরের লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজির পর হঠাৎ করে বিষধর সাপ রাসেল ভাইপারকে বের হতে দেখেন। এই দৃশ্য দেখে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে বাড়ির লোকজন এসে সাপটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলেন। পরে জানতে পারেন সাপটি বিষধর রাসেল ভাইপার।

অন্যদিকে ২০২১ সালের ১৮ ডিসেম্বর দৌলতখান উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়ন থেকে বিষধর রাসেল ভাইপার সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। পরে বন বিভাগকে খবর দিলে তারা সাপটি উদ্ধার করে তজুমদ্দি উপজেলার শশিগঞ্জ বিটের গহীন অরণ্যে অবমুক্ত করেন। এ নিয়ে দৌলতখান উপজেলায় দুটি রাসেল ভাইপার সাপের সন্ধান পাওয়া গেছে। 

এ বিষয়ে ভোলার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক বলেন, রাসেল ভাইপার সাপ লোকালয়ে সাধারণত খুব কমই আসে। বাচ্চা দেয়ার কারণে হয়তো ওই সাপটি লোকালয়ে চলে আসতে পারে। তবে সবাইকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এছাড়া কেউ এসব সাপ দেখলে মেরে না ফেলে স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তাদের জানানোর অনুরোধ করেন।

তথ্য অনুযায়ী উত্তর এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতেই এ সাপের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল। এ প্রজাতির সাপের সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি ছিল রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়। তবে বর্তমানে দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় এ প্রজাতির সাপের উপস্থিতি বেড়ে গেছে। উত্তরবঙ্গে রাসেল ভাইপার সাপ চন্দ্রবোড়া বা উলুবোড়া নামে পরিচিত।

সাপটির গাঁয়ের রং এবং চিত্রাকৃতির হওয়ায় ভোলার বেশিরভাগ মানুষ এটিকে নদীতে বাস করা অথবা অজগরের ছদ্মনাম বলেই জানে। বাংলাদেশে যে সব সাপ দেখা যায় সেগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে বিষাক্ত সাপ।

আফ্রিকা উপমহাদেশ থেকে আসা এ বিষধর সাপের উপদ্রব এখনই কমানো না গেলে পরে আরও মারাত্মক আকার ধারণ করবে বলে আশঙ্কা করছেন সচেতনমহল।


আরও খবর



পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে শিল্পী সমিতির নেতাদের সাক্ষাৎ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৩৫জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার:পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নব-নির্বাচিত কমিটির নেতারা। বুধবার (৫ জুন) দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে শিল্পী সমিতির নেতারা সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাতকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংগঠনটির নব-নির্বাচিত কমিটির নেতাদের সঙ্গে কুশলাদি ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এসময় দেশীয় চলচ্চিত্রকে এগিয়ে নিতে কমিটির প্রতি আহ্বান জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘চলচ্চিত্রের জন্য অনুদানের অংক ও পরিমাণ দুটিই বৃদ্ধি করা হয়েছে। অনেক বন্ধ হয়ে যাওয়া হল পুনরায় চালু হয়েছে। সামনে সিনেমার সুদিন আসছে।’

এসময় চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সবাইকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের নেতৃত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আলেকজান্ডার বো, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক জ্যাকি আলমগীর, কোষাধ্যক্ষ কমল, কার্যনির্বাহী সদস্য রোজিনা, সুব্রত, দিলারা ইয়াসমিন, শাহনূর, রত্না কবির, চুন্নু ও সনি রহমান।

আরও খবর



রৌমারী উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:রৌমারী উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার ৩ জুন বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ হল রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এ্যাড বিপ্লব হাসান পলাশ এমপি, জাকির হোসেন সাবেক (এমপি) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, রুহুল আমিন সাবেক (এমপি)র উপস্থিতিতে সভায় সভাপতিত্ব করেন নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শালূ। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ হাসান খানের সঞ্চালনায় আবু হোরায়রা সাধারণ সম্পাদক উপজেলা আওয়ামী লীগ রৌমারী, উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান সামসুল দোহা, মহিলা ভাইচ চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতার স্মৃতি, সহকারি কমিশনার ভুমি আসিফ উদ্দিন জিয়া, বীব মুক্তিযোদ্ধা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড আলহাজ্ব আব্দুল কাদের সরকার চেয়ারম্যান বন্দবেড় ইউপিসহ সকল ইউপি চেয়ারম্যানদ্বয়, সাবেক ডিপুটি কমান্ড বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহার আলী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কইয়ুম চৌধুরী, উপজেলা পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাক্তার আসাদুজ্জামান, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান হাবিব, অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লা হেল জামান, উপজেলা প্রকৌশলী মঞ্ছুরুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নুর হোহাম্মদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সামছুদ্দিন, রৌমারী সদর ক্যাম্প কমান্ড সুবেদার সাইফুল ইসলামসহ উপজেলার সকল দাপ্তরিক কর্মকর্তা, সাংবাদিকবৃন্দ ও গণমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

মাসিক সভায় সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন (এমপি) বলেন, আমি প্রতিমন্ত্রী থাকাকালিন তিন উপজেলার রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট করেছি এবং আরো প্রায় ৭০ টি রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের অগ্রসর করে রাখা রয়েছে। এরপরেও আরও একটা বর্ডার হাট স্থাপন, ব্রম্মপুত্র নদের উপর ব্রীজ, রৌমারী পৌরসভা নির্মানের কাজ অনেকটা এগিয়ে রেখেছি। তবে আমি এমপিকে বলবো এ কাজ গুলি আমার সাথে যোগাযোগ এবং সহযোগীতা চাইলে দ্রুত আনতে পারবে। 

সমন্বয় সভায় এমপি বিপ্লব হাসান পালাশ বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নানা সমস্যা, যোগাযোগ, চিকিৎসা সেবা, হাট-বাজার পরিস্কার পরিছন্নতা রাখা, মাদকরোধ, চোরাচালান ও জুয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনায় উঠে আসে। এজন্য স্বস্ব দপ্তর থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য এগিয়ে আসার আহ্বাান জানান।

 সভার সভাপতি নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শালু বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর আজ প্রথম চেয়ারে বসেছি এবং এ উপজেলা পরিষদ মাসিক সভার সভাপতি হিসাবে যোগদান করেছি। আমার জন্য সকলে দোয়া করবেন। আমি যেন উপজেলার সকল দপ্তরের সাথে একযোগে উন্নয়নের কাজ করে যেতে পারি। আপনারা আমাকে সহযোগীতা করবেন। 


আরও খবর