Logo
আজঃ সোমবার ২৪ জুন 20২৪
শিরোনাম
মতিউর ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিদেশ যেতে নিষেধাজ্ঞা তরুণরাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবে: প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধানের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন ভূয়া সৈনিক পরিচয়ে বিয়ে করে শশুড় বাড়ী শিকলবন্দী জামাই! খাগড়াছড়িতে পুনাক কমপ্লেক্স এর উদ্বোধন করলেন: পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল এিপুরা হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে ইসরায়েলকে সমর্থন দেবে যুক্তরাষ্ট্র হজ চলাকালীন ১৩০১ জন হজযাত্রীর মৃত্যু: সৌদি আরব সেতু ভেঙ্গে নয়জন নিহতের ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন, মাইক্রোবাস উদ্ধার বর ও কনের বাড়ীতে শোকের মাতম রাশিয়ায় বন্দুকধারীদের ভয়াবহ হামলায় ১৫ পুলিশ সদস্য নিহত

আমরা কখনোই বলিনি এমপি আনার চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিল তা আমরা কখনোই বলিনি,বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে হাইওয়ে পুলিশের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এমপি আনারের হত্যাকাণ্ডের পর বিভিন্ন সময় বলা হয়েছিল তিনি চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত ছিল এমপি আনার, তা আমরা কখনোই বলিনি। আমরা সব সময় বলে আসছি এমপির ওই এলাকা সন্ত্রাসপূর্ণ একটি এলাকা। ওখানে সত্যিকারে কী হয়েছে সেটা আমাদের জানতে হবে। আমরা তদন্ত করছি, তদন্তের পরে আপনাদের সব কিছু জানাব।

সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে ডরিন সন্দেহভাজনদের নাম বলেছে। কাদের নাম বলেছেন তিনি? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যখন তদন্ত চলে তখন আমাদের মন্ত্রী, আইজিপি কিংবা তদন্তকারী কর্মকর্তার পক্ষ থেকে তদন্ত না করে কোনো কিছু বলা সম্ভব না। আমরা মনে করি তদন্ত শেষ হলে এগুলো নিয়ে কথা বলব।

পুলিশের গুলিতে পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনায় পুলিশ সদস্যদের কাউন্সেলিংয়ের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশের ট্রেনিংয়ের সময় মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে বিস্তারিতভাবে কয়েকদিন ট্রেনিং দেওয়া হয়। যাতে মেন্টাল স্ট্রেসটা তাদের কম থাকে। গুলিতে পুলিশ সদস্য নিহতের ঘটনার কারণ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী হবে, সেটি নিয়ে আইজিপি রিসার্চ করছেন।


আরও খবর



সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবলার পঞ্চগড়ের মেয়ে ইয়ারজানের স্বপ্ন পূরণ, ঈদ হবে নতুন ঘরে

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭০জন দেখেছেন

Image

কুয়েল ইসলাম সিহাত, বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:দক্ষিণ এশিয়ার সেরা গোলরক্ষক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করা পঞ্চগড়ের মেয়ে ইয়ারজান বেগমের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। ভাঙা কুঁড়ে ঘর থেকে ঈদ উপহার হিসেবে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পেয়েছেন দুই রুম বিশিষ্ট একটি ঘর। মঙ্গলবার (১২ জুন) ইয়ারজানের বাবা-মায়ের হাতে ‘ইয়ারজান নীড়’ এর চাবি হস্তান্তর করেছেন জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম। এ সময় স্থানীয়দের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয় ঈদের আগেই নতুন ঘর পেয়ে মহাখুশি ইয়ারজান।সেরা গোলরক্ষক ইয়ারজান বলেন, ঈদের আগেই উপহার হিসেবে নতুন ঘর পেয়ে আজ আমি খুবই খুশি। এটি দারুণ উপহার। খুব আনন্দ লাগছে। ডিসি স্যার আমার আশা পূরণ করেছেন। আমার মা-বাবা একদিন পাকা ঘরে ঘুমাবেই, আমি এমনটাই স্বপ্ন দেখেছিলাম। সবাই দোয়া করবেন। আমি জেলা প্রশাসক স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ।চাবি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মিনহাজুর রহমান, হাড়িভাসা ইউ'পি চেয়ারম্যান সাইয়েদ নুর-ই-আলম, ইউ'পি সদস্য জুলহাস উদ্দীন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ওসমান গণিসহ স্থানীয় ব্যক্তিরা।জানা যায়, গোলরক্ষক ইয়ারজানের জন্য সাড়ে ৯ লাখ টাকা ব্যয়ে সেমি পাকা ঘর তৈরী করা হয়েছে। এতে ওয়াশরুম কাম টয়লেট ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে মানসম্মতভাবে তার থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঈদের আগেই এমন উপহার পেয়ে উচ্ছ্বসিত ইয়ারজান ও তার পরিবার।

উল্লেখ্য, চলতি সালের ৮ মার্চ নেপালের মাঠে সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে টাইব্রেকারে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। এই অর্জন সম্ভব হয় কেবল গোলরক্ষক ইয়ারজানের বীরত্বেই। টুর্ণামেন্টের সেরা গোলকিপারের ট্রফিটাও নিজের করে নেন ইয়ারজান।

এরপর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে উঠে আসে ইয়ারজানের পারিবারিক অবস্থা। গোলরক্ষক ইয়ারজানের মা রেনু বেগম একজন কৃষি শ্রমিক। অন্যের খেতে মজুরী খেটে চালাতেন সংসার। বাবা আব্দুর রাজ্জাকও অসুস্থ থাকায় কোনো কাজ করতে পারেন না। এমন পরিস্থিতিতে মা রেনু বেগমের দিনমজুরীর টাকায় কোনোভাবে কষ্টে চলতো চারজনের সংসার। ঘরের অবস্থাও ছিলো জরাজীর্ণ। জীর্ণ কুটির থেকেই ইয়ারজানের সেরা গোলরক্ষক হয়ে ওঠার গল্পটি হৃদয় কাড়ে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের। তখনই ইয়ারজানের বাড়িতে ছুটে যান পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক। পারিবারিক অবস্থা দেখে ইয়ারজানের পরিবারের জন্য পাকা ল্যাট্রিনসহ দুই কক্ষের পাকা রুম করে দেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি।এরপর প্রশাসনের উদ্যোগে প্রায় ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে দুই কক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমি পাকা ঘর ও প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ওয়াশরুম, টয়লেট ও সুপেয় পানির ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। অবশেষে ইয়ারজানকে নতুন ঘরের চাবি হস্তান্তর করে দেন জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, আমরা চেয়েছি পঞ্চগড়ের কৃতি সন্তান ইয়ারজান ও তার পরিবার যেন সম্মানের সঙ্গে বসবাস করতে পারে। এজন্য দুই কক্ষের সেমি পাকা ঘর, ওয়াশরুম, টয়লেটসহ সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন থেকে ইয়ারজান ও তার পরিবার সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারবে। ইয়ারজান আরও এগিয়ে যাক, দেশের সুনাম অর্জন করুক এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।


আরও খবর



আইএসডি’র ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১২২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সম্প্রতি (বৃহস্পতিবার) র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেল ঢাকায় ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান উদযাপন করেছে আইএসডি।এ বছর ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এ আইএসডি থেকে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন ২০ জন শিক্ষার্থী। অনুষ্ঠানে ভ্যালিডিক্টোরিয়ানের বক্তব্য রাখেন ডোমিনিকান রিপাবলিকের মার্সেল কারিনা লামারচে ভ্যালেনজুয়েলা। হংকং ব্যাপ্টিস্ট ইউনিভার্সিটিতে (এইচকেবিইউ) সোশ্যাল ওয়ার্কে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করবেন মার্সেল। এছাড়াও, গ্র্যাজুয়েট হওয়া শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, হংকং এসএআর ও স্পেনের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে অফার লেটার পেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে আইএসডি’র ডিরেক্টর স্টিভ ক্যালান্ড-স্কোবল বলেন, “আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধা, পরিশ্রম ও নিবেদনের মাধ্যমে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ অর্জন করে নিয়েছেন। আইএসডি -তে তাদের শিক্ষা অভিজ্ঞতা আমাদের শিক্ষার্থীদের অ্যাকাডেমিক সাফল্য অর্জনের ক্ষেত্রে এবং তাদের বৈশ্বিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে স্কুল হিসেবে আমাদের সফলতা ও সক্ষমতাকে সমৃদ্ধ করেছে। আমরা অত্যন্ত আনন্দের সাথে ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর সাফল্য উদযাপন করছি; পাশাপাশি, আমাদের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বছরে তাদের আমরা আইএসডি’র এক হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থীদের বৈশ্বিক অ্যালামনাই নেটওয়ার্কে স্বাগত জানাচ্ছি।”

গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানের মাইলফলক উদযাপনে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক এবং সম্মানিত অতিথিবৃন্দ। আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীরা তাদের স্কুলজীবনকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানান এবং শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ভ্যালেডিক্টোরিয়ান হিসেবে মার্সেল বলেন, “আগামী কয়েক বছর এইচকেবিইউ -তে আমার শিক্ষাজীবন নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত। আমি সোশ্যাল ওয়ার্কে আমার মেজর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি; কারণ, আমি সবসময় আমার আশেপাশের মানুষদের পাশে থেকে সহায়তা করতে চেয়েছি– সেটা হোক মানসিক সঙ্কটে কিংবা সামাজিক বৈষম্যের ক্ষেত্রে। সমাজের কল্যাণে যারা কাজ করেন তারা সকলের উপকারে নিজেকে মনোনিনেবশ করেন। আমি মনে করি এটাই পরম সুন্দর। ভালো গ্রেড অর্জনে এবং আর্থিক সহায়তাসহ ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ অর্জনে আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। আর এ কারণেই আমি আইএসডি’র ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর ভ্যালেডিক্টোরিয়ান হতে পেরেছি।”


আরও খবর



ইবিতে প্রজ্বলিত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১০৭জন দেখেছেন

Image
সাব্বির খান,ইবি প্রতিনিধি:ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রজ্বলিত ৩৫ ব্যাচের উদ্যোগে 'প্রজ্বলিত সন্ধ্যা' শীর্ষক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতি বছরের মতো ব্যাচ-ডে এর চলমান আয়োজন হিসেবে ব্যাচকে নতুনভাবে উপস্থাপন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অনন্য নজির স্থাপন করতে এ আয়োজন করে শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানটিতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য সকল ব্যাচের শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ লক্ষ্য করা যায়। 

অনুষ্ঠানটি সফল করতে গত ১৩ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়েনা চত্বরে প্রথম আলোচনায় বসে শিক্ষার্থীরা। সেখানে কার্যবিবরণী উপস্থাপন ও দায়িত্ব বণ্টন করা হয়। পরবর্তীতে ব্যাচকে ব্যতিক্রমভাবে উপস্থাপন করতে একের পর এক নিদারুণ প্রমো ভিডিও শুটিংয়ের আয়োজন করা হয়। সর্বশেষ সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গত বুধবার (২৯ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা মঞ্চে দুপুর ৩টা থেকে শুরু করে করে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা পর্যন্ত সফলভাবে চলে এই অনন্য আয়োজন। 

অনুষ্ঠানটি সফল করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন নাঈমুল ফারাবি, জান্নাতুল তামান্না, সাফিনুর তন্ময়, ফুয়াদ হাসান, রানা আহম্মেদ অভি, ফারিহা আঁখি, মোবারক হোসেন আশিক, জুবায়ের রনি, সিয়াম আহম্মেদ সিফাত, জো সিং, শাম্মী আক্তার, রাইসা আমীন লস্কর,  সাদিয়া আফরিন অমিন্তা, মাহবুবা নুপুর, সুদীপ রয়, মুজাহিদুর ইসলাম, মুবাশ্বির আমিন, ত্বাকি খাঁন, শাওয়ানা শামীম নিশু, শরীফ সৌরভ, আবু খায়ের, নয়ন পারভেজ, নাফিস তাহমিদ, আর্য পাল, সালমান শাওন, মাহমুদ খাঁন, আবু খায়ের, আবিদ ইমতিয়াজ, জুনাইদ মোস্তফাসহ আরও অনেকে। পুরো অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন মিজানুর রহমান মিজান, রেজওয়ানা মিতীল, শাওয়ানা শামীম নিশু ও আব্দুল মাজেদ সাগর।

সাংস্কৃতিক সন্ধ্যাকে রাঙ্গিয়ে তুলতে গান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনপ্রিয় ব্যান্ড দ্য সোবার। এছাড়া পারফর্ম করে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনপ্রিয় শিল্পী সাফিউর রহমান, নুরুন্নবী সরকার নিরব, প্রতীক দা, বর্ষণ, আব্দুল্লাহ পারভেজ, ইশতিয়াক ইমন, গোলাম হক্কানিসহ আরও অনেকে অনেক শিল্পিরা৷ তাছাড়া অনুষ্ঠানটি আরও সুন্দর করে তুলবার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সংবর্ত-৩৬ থেকে অংশগ্রহণ করেন- বর্ণালী বর্ণা, মিম জাহান খুশি, নুসরাত ঐশি, ইফতিয়াক, আহনাফ ফুয়াদ, বাশুদেব প্রমুখ। 

অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে প্রজ্বলিত ৩৫ ব্যাচ এর শিক্ষার্থী সাফিনুর তন্ময় বলেন,  'আমারা সবাই মিলে প্রজ্বলিত সন্ধ্যা আয়োজনটি সফল করেছি। ইবিতে প্রথমবারের মতো সকল ব্যাচের অংশ গ্রহণের মাধ্যমে একটি ব্যাচের প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমরা প্রজ্বলিত ৩৫ ব্যাচ আগামীতে আপনাদের সামনে নতুন কিছু নিয়ে আসবো এটা প্রত্যাশা রাখছি। তাছাড়া অনুষ্ঠানটি সফল করার জন্য যারা বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছে তাদের সবার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।'

জান্নাতুল তামান্না বলেন, 'ক্যাম্পাসে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করতে অনেক বেগ পোহাতে হয়। আমাদের আর্থিক সমস্যা ছিলো আমাদের শিক্ষকরা পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং প্রশাসন সাহায্য করেছে। ক্লাস,পরিক্ষা থাকার পরও আমাদের ও আর্থিক সহযোগিতা করার কারণে আমরা প্রোগ্রামটি সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছি। দিনশেষে আমার সফল হয়েছি এমনকি অনেক মানুষের প্রচুর প্রশংসা কুড়িয়েছি এবং আমাদের শিক্ষকসহ, সিনিয়র-জুনিয়রদের অনেক ভালোবাসা পেয়েছি।ভবিষ্যতে এর থেকে ভালো কিছু করার আশা রাখছি। প্রত্যাশা রাখছি প্রজ্বলিত -৩৫ এই ক্যাম্পাসকে সামনে আরো বড় কিছু উপহার দিবে ইনশাআল্লাহ।'

সার্বিক বিষয়ে নাঈমুল ফারাবি বলেন, 'আয়োজনে অনেক প্রতিবন্ধকতা ছিল। পরিশেষে আয়োজন সফলতা পেয়েছে। প্রশাসন আমাদের সুন্দর আয়োজনের জন্য অভিবাদন জানিয়েছে, এটা আমাদের জন্য প্রাপ্তি। আমাদের আয়োজকদের কিছু ভুল ছিলো, তাছাড়া আয়োজনের আর কোনো সমস্যাই ছিলোনা। আমাদের প্রচারণা থেকে পারফরম্যান্স, স্টেজ ডেকোরেশন সবক্ষেত্রে নতুনত্বের ছোঁয়া ছিলো, এজন্য সবাই গ্রহণ করে নিয়েছে আমাদের। আমরা আশাবাদী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি চর্চা এভাবেই এগিয়ে যাবে, আমরা আরো প্রসিদ্ধ হবো। পরিশেষে বলতে চাই প্রোগ্রামের সফলতা প্রাণবন্ত দর্শকদের সর্বোচ্চ সংখ্যাক অংশগ্রহণেই ছিল। আমরা শিল্পকে ভালোবাসি, শিল্পীকে সম্মান করি।'

আরও খবর



ছাতকে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ৭৮জন দেখেছেন

Image

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি,ছাতক প্রতি‌নি‌ধি:সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের মরহুম মাস্টার হাবিবুর রহমান ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে এবং আলো রক্তদান সমাজ কল্যান সংস্থার সহযোগিতায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলার ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নের নোয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ৩টা পর্যন্ত টানা পাঁচঘন্টা ব্যাপী চলে এ রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন।

প্রধান অতিথি হিসেবে ক্যাম্পেইন এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুর রউফ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পরিচালনা কমিটির সাবেক সদস্য জাকির হোসেন, ব্যবসায়ী মুহিবুর রহমান, রশিদ আহমদ, শাহাব উদ্দিন।

উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল আলী, সহকারী শিক্ষক রেজ্জাদ আহমদ শিক্ষিকা হোসনেয়ারা বেগম ও লাভলী বেগম, পরিচালনা কমিটির সদস্য শাহনুর আলী, তরুন সমাজকর্মী তাহমিদ আহমদ, আলো রক্তদান সমাজ কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক লিয়ন আহমেদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল হাসান, অর্থ সম্পাদক জামিল আহমেদ ইসমাঈল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রেদওয়ান আহমেদ চৌধুরী, সহ প্রচার সম্পাদক সাকির হোসেন প্রমুখ।ক্যাম্পেইনে বিদ্যালয়ের আড়াইশ শিক্ষার্থীসহ এলাকার অর্ধশতাধিক লোকজনের বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করেন আলো রক্তদান সমাজ কল্যাণ সংস্থার নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর



সোনারগাঁও প্রেস ক্লাব থেকে মাজহারুল স্থায়ী বহিষ্কার

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | ১৫জন দেখেছেন

Image
সোনারগাঁও সংবাদদাতা: নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় আদালতে দণ্ডিত হওয়ায় এবং সাংবাদিকতার নাম ভাঙিয়ে অনৈতিক ও শৃংখলা বহির্ভূত কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে  আনন্দ টিভির সোনারগাঁও উপজেলা প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলামকে সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জনৈক মাসুদুর রহমান নামে এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন আনন্দ টিভির সোনারগাঁও উপজেলা‌ প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলাম তার স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত হয়ে প্রলোভন দেখিয়ে ভাগিয়ে নিয়ে যায় এবং অর্থ আত্মসাত করে। পরবর্তীতে এর বিচার চাইতে গেলেও তাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে ভয়ভীতি দেখায়। ঘটনায় মাসুদ প্রেস ক্লাবে অভিযোগ করার পাশাপাশি ২০২২ সালে আদালতে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট চলতি বছরের মার্চ মাসে মাজহারুলকে এক বছরের কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।পাশাপাশি ২০২৩ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি তার দ্বিতীয় স্ত্রী রওশন আরা শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এবং প্রতারণার আরেকটি অভিযোগ করেন মাজহারুলের বিরুদ্ধে।‌ ঐ ঘটনায় প্রেস ক্লাবের তদন্ত কমিটি করা হয়। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পায় তদন্ত কমিটি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় সাংবাদিকতার প্রভাব খাঁটিয়ে এবং সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের নাম ভাঙিয়ে বিভিন্নস্থান থেকে টাকা নেওয়াসহ শৃংখলা বহির্ভূত কর্মকাণ্ডের অভিযোগে প্রেস ক্লাবের ৩০ মে কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় তার সদস্য পদ বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়।  

সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের ফেসবুক পেইজে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রেস ক্লাবের গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ৩, ধারা ৪ এর ঙ অনুযায়ী সদস্য পদ বাতিল করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম এম সালাহ উদ্দিন বলেন, তার বিরুদ্ধে প্রেস ক্লাবের শৃঙ্খলা বহির্ভূত অভিযোগ পাওয়ায় এবং আদালতের দণ্ড থাকায় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে‌। সোনারগাঁও প্রেসক্লাব একটি ঐতিহ্যবাহী আদর্শ সাংবাদিক সংগঠন।  গঠনতন্ত্র অনুযায়ী এটি পরিচালিত হয়ে থাকে।  সাংবাদিকতা তথা সোনারগাঁও প্রেস ক্লাবের সুনাম ক্ষুন্ন হয় এমন কাউকেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।

আরও খবর