Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
নিলয় কোটা আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে কী বললেন স্থগিত ১৮ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা তিতাসের অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ২ শিল্প কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হিলি দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি বাড়ায় বন্দরের পাইকারী বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ৩০ টাকা জয়পুরহাটে ডাকাতির পর প্রতুল হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন রিয়েলমি সার্ভিস ডে: ফোন রিপেয়ারে খরচ বাঁচান ৬০% পর্যন্ত, উপভোগ করুন ফ্রি সার্ভিস সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ ২জন গ্রেফতার: কোটিপতি সোর্স ও গডফাদার অধরা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩ দিনে ৩ খুন, আইনশৃংখলার অবনতি জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আজ থেকে নতুন সূচিতে চলছে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৭৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:নতুন সূচিতে আজ থেকে চলছে মেট্রোরেল। অফিসের সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বুধবার (১৯ জুন) থেকে মেট্রোরেল চলাচলের জন্য নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ডিএমটিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, মূলত সরকার নির্ধারিত নতুন অফিসের সময়সূচির কারণেই আগের সময় পরিবর্তন হয়েছে। ফলে মেট্রোরেলের পিক ও অফ পিক আওয়ারের সময় পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। গত ৬ জুন সরকার থেকে অফিসের সময়সূচি সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত করা হয়েছে। এই সময়সূচি ঈদের পর ১৯ জুন থেকে কার্যকর হচ্ছে। সেজন্য মেট্রোরেলের পিক ও অফ পিক আওয়ারের সময়েও পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সূচি অনুযায়ী, উত্তরা উত্তর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত সকাল ৭টা ১০ মিনিট থেকে সকাল ৭টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত আগের মতো স্পেশাল অফ পিক থাকবে। এই সময় হেডওয়ে হবে ১০ মিনিট। আর সকাল ৭টা ৩১ মিনিট থেকে সকাল ১১টা ৩৬ মিনিট পর্যন্ত পিক আওয়ার। এই সময় হেডওয়ে হবে আট মিনিট। সকাল ১১টা ৩৭ মিনিট থেকে দুপুর ২টা ২৪ মিনিট পর্যন্ত অফ পিক আওয়ার। এ সময় হেডওয়ে হবে ১২ মিনিট। আবার দুপুর ২টা ২৫ মিনিট থেকে রাত ৮টা ৩২ মিনিট পর্যন্ত পিক আওয়ার। এ সময় হেডওয়ে হবে ৮ মিনিট। রাত ৮টা ৩৩ মিনিট থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত স্পেশাল অফ পিক। এ সময় মেট্রোরেলের হেডওয়ে হবে ১০ মিনিট।

ডিএমটিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরও জানান, মতিঝিল থেকে উত্তরা উত্তর পর্যন্ত সকাল ৭টা ৩০ মিনিট থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত স্পেশাল অফ পিক। এ সময় হেডওয়ে ১০ মিনিট। সকাল ৮ টা ১ মিনিট থেকে বেলা ১২টা ৮ মিনিট পর্যন্ত পিক আওয়ার। এ সময় হেডওয়ে হবে আট মিনিট। বেলা ১২টা ৯ মিনিট থেকে বিকেল ৩টা ৪ মিনিট পর্যন্ত স্পেশাল অফ পিক। এ সময় হেডওয়ে হবে ১২ মিনিট। আবার দুপুর ৩টা ৫ মিনিট থেকে রাত ৯টা ১২ মিনিট পর্যন্ত পিক আওয়ার। এ সময় হেডওয়ে হবে আট মিনিট। রাত ৯টা ১৩ মিনিট থেকে রাত ৯টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত স্পেশাল অফ পিক। এ সময় হেডওয়ে হবে ১০ মিনিট।

নতুন সময়সূচি কার্যকর হলেও আগের মতোই সাপ্তাহিক বন্ধ শুক্রবার থাকবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



ডোমারে এলাকাবাসী নিজ উদ্যোগে নির্মাণ করছে ছালে-আল জামে মসজিদ

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৯৩জন দেখেছেন

Image

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমারে পূর্ব চিকনমাটি নয়া পল্টনপাড়া ছালে-আল জামে মসজিদের দ্বিতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করেছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার সকাল থেকে শুরু করে বিকাল পর্যন্ত এলাকার জামাত বাসী নিজ উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মাণ কাজের সহায়তা করেন।

জানাযায়, ডোমার সদর ইউনিয়নের সোনারায় সড়কে অবস্থিত পূর্ব চিকনমাটি নয়া পল্টনপাড়া ছালে-আল জামে মসজিদটি ২০১২ সালে টিন সেট দিয়ে নির্মাণ করা হয়। সেখানে পৌরসভা, হরিণচড়া এবং সদর ইউনিয়নের মধ্যস্থল হওয়ায় অবহেলিত অবস্থায় পড়ে থাকে। জরার্জিন্ন ওজুখানা এবং টিনদিয়ে ঘেরা মসজিদে মুসুল্লিদের নামাজ আাদায় করতে অনেক কষ্ট করতে হয়। বিশেষ করে শুক্রবার জুম্মার দিনে পর্যপ্ত জায়গা না হওয়ায় গাদগাদি করে বারান্দায় নামাজ আদায় করেন মুসুল্লিরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তির সহযোগিতায় পাশের্^ জমি ক্রয় করে মসজিদের নামে ওয়াক্ফ করে দেয়। চলতি বছরে এলাকাবাসী নিজ উদ্যোগে টাকা পয়সা দান করে দ্বিতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করে। এর জন্য জামাত বাসী নিজেরাই স্বেচ্ছাশ্রমে সামর্থ্য মতে ধিরে ধিরে কাজ করে যাচ্ছে। উক্ত মসজিদের সভাপতি আবু তালেব জানান, পৌরসভা, হরিণচড়া এবং সদর ইউনিয়নের মধ্যস্থল হওয়ায় সরকারী বে-সরকারী অনুদান থেকে তারা বঞ্চিত। আল্লাহর ঘড় মসজিদটি নির্মাণে দেশে বিদেশের স্ব-হৃদয়বান ও দানবীর ব্যক্তিদের কাছে- ০১৭৬৫-৯০৯-৪৬৩ বিকাশ অথবা নগদ নম্বরে সহযোগিতা বা যোগাযোগের অনুরোধ করেন তিনি।


আরও খবর



জয়পুরহাটে পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১০৬জন দেখেছেন

Image

এস এম শফিকুল ইসলাম জয়পুরহাট প্রতিনিধি:পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের পপুলার ডিপিএস প্রকল্পের  প্রকল্পের জয়পুরহাট অঞ্চলের মেয়াদ উত্তীর্ণ গ্রাহকদের বীমাদাবীর ১০ লক্ষ ১২ হাজার ১৫৬ টাকার চেক হস্তান্তর ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা  অনুষ্ঠিত  হয়েছে। 

শুক্রবার সকালে পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের জয়পুরহাটে সার্ভিস সেল কার্যালয়ে এ  বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা  অনুষ্ঠিত হয়।

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের পপুলার ডিপিএস  প্রকল্পের জয়পুরহাট সার্ভিস মহা ব্যবস্থাপক, একুশে টেলিভিশন দৈনিক আজকালের খবরের  জেলা প্রতিনিধি এস এম শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর ও গ্রাহক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের পপুলার ডিপিএস প্রকল্পের  প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মঈদ শাহীন। 

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  বক্তব্য রাখেন, পপুলার ডিপিএস প্রকল্পের আক্কেলপুর  শাখা ব্যবস্থাপক জাকির হোসেন, জয়পুরহাট শাখা ব্যবস্থাপক রাজু সরদার, বটতলী শাখা ব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন, কালাই ইউনিট ম্যানেজার মহসিন আলী, দৌলতপুর ইউনিট ম্যানেজার রুমি, হাতিয়র ইউনিট ম্যানেজার সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেন, জিয়ানগর ইউনিট ম্যানেজার নাজমুল হোসেন, বড়াইল ইউনিট ম্যানেজার নুরুল ইসলাম, সান্তাহার ইউনিট ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম, ফিনান্সিয়াল অ্যাসোসিয়েট ফরহাদ হোসেন । 

প্রশিক্ষণ কর্মশালা  শেষে ১০ লক্ষ ১২ হাজার ১৫৬ টাকার বীমা দাবীর চেক গ্রাহকদের হাতে হস্তান্তর করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের পপুলার ডিপিএস  প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মঈদ শাহীন ।


আরও খবর



পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্সের অর্ধ বার্ষিক ব্যবসা ক্লোজিং প্রস্তুতি সভা ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

এস এম শফিকুল ইসলাম, জয়পুরহাট:পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের  উন্নয়ন কর্মকর্তাদের নিয়ে অর্ধ বার্ষিক ব্যবসা ক্লোজিং প্রস্তুতি সভা  ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠান  অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২১ জুন) সকালে ঢাকায়  কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে এ অর্ধ বার্ষিক ব্যবসা ক্লোজিং প্রস্তুতি সভা   ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বি এম শওকত আলীর  সভাপতিত্বে অর্ধ বার্ষিক ব্যবসা ক্লোজিং প্রস্তুতি সভা ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য  রাখেন পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইনস্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী সদস্য  বি এম ইউসুফ আলী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের  একক বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ব্রাঞ্চ কন্ট্রোল) সৈয়দ মোতাহার হোসেন, উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ( উন্নয়ন প্রশাসন) নওশের আলী নাঈম,  উর্দ্ধতন  উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমাদ উদ্দিন আহমেদ প্রিন্স (অবলিখন),  ইসলামী বীমা তাকাফুল প্রকল্পের উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, আল আমিন বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু তাহের, জনপ্রিয় বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন মহসিন,  ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক খলিলুর রহমান দুলাল, একক বীমা প্রকল্পের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ সুলতান মাহমুদ। 

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আল বারাকাহ ইসলামী ডিপিএস প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক সেলিম মিয়া, জনপ্রিয় একক বীমা প্রকল্পের  উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন, পপুলার ডিপিএস  প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক আবু মঈদ শাহীন, আল বারাকাহ ইসলামী একক বীমা প্রকল্পের উর্দ্ধতন নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প  পরিচালক  মোহাম্মদ এনামুল হক, আল আমিন বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মোখলেছুর রহমান, আল বারাকা ইসলামী একক বীমা প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক মাহাবুবুর রহমান।

অর্ধ বার্ষিক ব্যবসা ক্লোজিং প্রস্তুতি সভা   ও বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর  শেষে মেয়াদ উত্তীর্ণ বীমা গ্রাহকের হাতে বীমাদাবীর চেক হস্তান্তর করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও বি এম ইউসুফ আলী।


আরও খবর



মোবাইল চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image
মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোবাইল চোর চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে মিরপুর মডেল থানা পুলিশ।অভিযানে গ্রেফতারকৃত আসামিদের কাছ থেকে ট্যাব, ল্যাপটপ সহ বিপুল পরিমাণ চোরাই মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।বুধবার(৩রা জুলাই ) দুপুরে মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুন্সী ছাব্বীর  বিষয়টি নিশ্চিত করেন।গ্রেফতারকৃত ৩ আসামী হলেন- ১। রাব্বি হাওলাদার (১৮), ২। ইয়াসিন আনসারী (৩০), ৩। মোঃ মনির হোসেন (৩৭) ।অফিসার ইনচার্জ মুন্সী ছাব্বীর আহাম্মেদ বলেন, মোবাইল চোর সিন্ডিকেট চক্র রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় দীর্ঘদিন ধরেই অবৈধ মোবাইল কেনা-বেচার বানিজ্য নিয়ে তৎপর। তারা এসব চোরাই মোবাইল ফোন বিভিন্ন মার্কেটের সামনে ভাসমান দোকানে গোপনে বিক্রি করে আসছে। এছাড়াও রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে চুরি এবং ছিনতাইকৃত মোবাইল ফোনের ছিনতাইকারী চক্র সুকৌশলে নানা সিন্ডিকেট হোতার সঙ্গে যোগসাজশে এসব চোরাই মুঠোফোন কেনা-বেচায় জড়িত রয়েছে।
তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (২রা জুলাই ) সকাল থেকে মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে চোরচক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।তিনি আরো বলেন, অভিযানে গ্রেফতারকৃত আসামিদের কাছ থেকে ৩৫টি চোরাই মোবাইল, ২টি ট্যাব, ১ টি ল্যাপটপ ও ১৭টি IMEI নাম্বার বিহীন মোবাইল এর খালি বক্স উদ্ধার করা হয়।মিরপুর মডেল থানা এসআই আব্দুর রকিব খান বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা মূলত কম দামে চোরাই মোবাইল ফোন ক্রয় করে IMEI নাম্বার পরিবর্তন করে তাদের নিজেদের দোকানে অথবা বাইরে স্বল্প আয়ের গ্রাহকদের কাছে বিক্রি করে থাকে।আর এই অপারেশনে দুইজন এসআই ও একজন এএসআই সংযুক্ত থাকেন এস আই সালাউদ্দিন, এস আই রকিব ও এএসআই ওবায়দুল

আরও খবর



বেনজীরের ৭টি পাসপোর্টের সন্ধান পেয়েছে দুদক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের ৭টি পাসপোর্টের সন্ধান পেয়েছে। তার পাসপোর্ট জালিয়াতির অভিযোগে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের আট কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সকাল থেকে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

সাবেক এ আইজিপির বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তিনি পাসপোর্টে আড়াল করেছেন তার পুলিশ পরিচয়। শুরু থেকে এখন পর্যন্ত তিনি সরকারি চাকরিজীবী পরিচয়ে নীল রঙের অফিশিয়াল পাসপোর্ট ব্যবহার করেননি। আবার সুযোগ থাকার পরও নেননি লাল পাসপোর্ট। এমনকী বেসরকারি চাকরিজীবী পরিচয়ে সাধারণ পাসপোর্ট তৈরির ক্ষেত্রেও আশ্রয় নিয়েছেন নজিরবিহীন জালিয়াতির।

তবে নবায়নের সময় ধরা পড়লে নবায়ন কার্যক্রম আটকে দেয় পাসপোর্ট অধিদফতর। ওই সময় তিনি র‌্যাবের মহাপরিচালক থাকায় চিঠি দেওয়া হয় র‌্যাব সদর দপ্তরে। তবে অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে ম্যানেজ করেন সবকিছু। পাসপোর্ট অফিসে না গিয়েই নেন বিশেষ সুবিধাও এমন তথ্য উঠে এসেছে।

সম্প্রতি দেশের বেশ কিছু গণমাধ্যমে পুলিশের সাবেক এ মহাপরিদর্শকের অবৈধ সম্পদ অর্জনের বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। এ সময় তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ তদন্তে একটি কমিটিও গঠন করে দুদক।

দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে এখন পর্যন্ত তিন দফায় বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ক্রোক ও ফ্রিজের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আদালতের আদেশে তার জব্দ করা সম্পত্তি নেওয়া হয়েছে রাষ্ট্রের হেফাজতে।

এদিকে বেনজীর আহমেদ ও তার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে দুদক থেকে দুই দফা তলব করা হলেও তাঁরা সংস্থাটির ডাকে হাজির হননি। তবে তাঁরা হাজির না হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে লিখিত বক্তব্য পাঠিয়েছেন।


আরও খবর