Logo
আজঃ শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪
শিরোনাম

আদম তমিজীকে রিহ্যাবে পাঠানো হয়েছে

প্রকাশিত:সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১৪৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আলোচিত ব্যবসায়ী আদম তমিজীকে মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রিহ্যাব সেন্টারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

রোববার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে মিন্টুরোডে নিজ কার্যালয়ে তিনি এ কথা জানান।

হারুন অর রশীদ বলেন, আদম তমিজী হক যে দেশে মানুষ হয়েছেন, যে দেশে তার ইন্ডাস্ট্রি রয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এসে সে দেশের পাসপোর্ট পুড়িয়েছেন। তিনি একবার ইসরায়েলকে আহ্বান করেছেন তাকে উদ্ধারের জন্য, একবার মার্কিন মেরিন সেনাকে আহ্বান জানিয়েছেন। তার কথা শুনে মনে হয়েছে তিনি মানসিকভাবে ইমব্যালেন্স।

তাকে আমরা ভালো একজন সাইকোলোজিস্টের কাছে পাঠিয়েছি। সেখানে সাইকোলোজিস্ট ও মাদকাসক্তের চিকিৎসকরা রয়েছেন, তারা পরীক্ষা করছেন। যদি তিনি মানসিকভাবে ফিট হয়ে থাকেন, তাহলে আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করব।

তিনি বলেন, আদম তমিজীর বিরুদ্ধে দক্ষিণখান থানায় একটি মামলা হয়েছে। এ ছাড়া রমনা থানায় তার নামে ওয়ারেন্ট ইস্যু রয়েছে। এর প্রেক্ষিতে তাকে আমরা গ্রেপ্তার করেছি।

ডিবিপ্রধান বলেন, আদম তমিজী বিভিন্ন সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেছেন, বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম করেছেন। ডাক্তাররা যদি বলেন তিনি পুরোপুরি ভারসাম্যহীন কিংবা মানসিক ভারসাম্যহীন, তাহলে এক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার নেই। কিন্তু যদি তিনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এসব করে থাকেন, তাহলে এসবের পেছনে কেউ আছেন কি না, সেটা তদন্ত করে বের করব।

এর আগে, শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আদম তমিজী হকের গুলশানের বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।


আরও খবর



চাল-চিনিসহ ৪ পণ্যের শুল্ক কমাল সরকার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম স্বাভাবিক রাখতে আসছে রমজানে চাল, চিনি, তেল আর খেজুরে ভ্যাট ও শুল্ক কমিয়েছে সরকার। এর মধ্যে খেজুরে আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ, চালে রেগুলেটরি ডিউটি ২০ শতাংশ, তেলে মূসক ৫ শতাংশ এবং চিনিতে শুল্ক প্রত্যাহার করেছে রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সই করা পৃথক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, কাস্টমস কর্তৃপক্ষ শুল্ক কমানোর ক্ষেত্রে যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেছে। এরই মধ্যে সারমর্মে অনুমোদনও দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় রাখতে চাল, চিনি, ভোজ্যতেল ও খেজুরের শুল্ক কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এ নিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এনবিআরকে পদক্ষেপ নিতে চিঠি দেয়। শুল্ক বিভাগ চিঠির পর এসব পণ্যে কতটুকু শুল্ক কমালে কত রাজস্ব ক্ষতি হবে ইত্যাদির হিসাব-নিকাশ করেছে। শেষ পর্যন্ত বিষয়টি চূড়ান্ত করে তা অর্থমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠায় সংস্থাটি।

জানা যায়, এই কয়দিন তা অর্থমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য অপেক্ষায় ছিল। সেটি সম্পন্ন হয়েছে। এখন এর প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে।

দেশে নিত্যপণ্যের দাম যখনই লাগামহীন বাড়ে, তখন শীর্ষ মহলের পরামর্শে শুল্ক কমানো হয় এনবিআর কর্মকর্তারা জানান। এতে সরকারের রাজস্ব ক্ষতি হলেও দেশের স্বার্থে তা বরাবরই এনবিআরকে করতে হয়। তবে শুল্ক কমানোর সুফল ভোক্তারা পান কিনা এই নিয়ে বিতর্ক থাকলেও এনবিআর সব সময় সরকারের রাজনৈতিক ইচ্ছাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারও কয়েকটি পণ্যের শুল্ক কমানো হয়েছে।


আরও খবর



শ্রমিকদের মজুরী নিয়ে গাংনী‌তে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-১৩

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮০জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুর প্রতিনিধিঃকলমি শাকের বীজ মাড়ায় করার শ্রমিক খরচ নিয়ে মালিক ও শ্রমিক পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনায় নারীসহ উভয় পক্ষের অন্ততঃ ১৩ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ঢেপা গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে।

আহতরা হলো, মালিক পক্ষের জেলেহার মন্ডলের ছেলে মজিবর (৫০), দেলোয়ার মন্ডলের ছেলে জিবার মন্ডল (৫৫), নুর ইসলামের ছেলে আশাদুল (৪৮), আশাদুলের ছেলে নয়ন (২০), জেলেহার মন্ডলের ছেলে নুর ইসলাম (৬৪), মজিবরের ছেলে আলামিন (২৬) ও বায়জিদ আলীর ছেলে ফরজ আলী (৩৫)।

আর শ্রমিক পক্ষের আহতরা হলো, রেজাউল ইসলামের ছেলে হযরত আলী (৬০), উসমানের ছেলে স্বপন (২৩), রেজাউলের ছেলে উসমান (৫০) ও হুমায়ন (৪০), মৃত খুকাই শেখের ছেলে রেজাউল (৮৮), রেজাউল হকের স্ধসঢ়;ত্রী হালিমা খাতুন (৮৪)। সকলেই ঢেপা গ্রামের পাঙাসী পাড়ার বাসিন্দা।

আহতদের সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার মজিবরের ১৩ কাঠা জমির কলমি শাকের বীজ মাড়ানোর জন্য চুক্তি নেয় রেজাউল হক। প্রতি বিঘা জমির জন্য আড়াই হাজার টাকার চুক্তি হয়। শ্রমিকের টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে মজিবর অভিযোগ করেন মাড়াই খরচ বেশি নেয়া হচ্ছে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। আজ বুধবার সকালে গ্রামের একটি চায়ের দোকানে উভয় পক্ষের মধ্যে আবারও বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে লাঠিশোঠা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষ। এতে দু’পক্ষের ১৩ জন আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কেউ থানায় লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সাঙ্গ হল ২৮ তম উলিপুর বইমেলা

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৫১জন দেখেছেন

Image
বাবুল, কুড়িগ্রাম ব্যুরো চিফ :উলিপুর ফ্রেন্ডস ফেয়ারের আয়োজনে ৭ দিন ব্যাপী উলিপুর বইমেলার সমাপ্তি ঘটেছে গতকাল ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার মধ্যরাতে।সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণীর সান্ধ্যকালীন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক তপন সেনগুপ্ত, রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক সাজাদুর রহমান তালুকদার সাজু। 

ফ্রেন্ডস ফেয়ারের সদস্য মোঃ জুলফিকার আলির সভাপতিত্বে সাত দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত উলিপুর বইমেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বিভিন্ন ইভেন্টের বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।সমাপনী অনুষ্ঠানে মঞ্চস্থ হয়, ফ্রেন্ডস ফেয়ার নাট্য বিভাগের পরিবেশনায়, মাসুম করিম নির্দেশিত নাটক "মূর্খ লোকের মূর্খ কথা"
মান্নান হীরার রচয়িত নাটকটি উপস্থিত দর্শকদের মুগ্ধ করে।

উল্লেখ্য যে, "উলিপুর বইমেলা হোক উত্তরাঞ্চলের সাহিত্য সংস্কৃতির মিলন মেলা।" দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে এ স্লোগানকে লালন করে ফি বছরের মতোই গত ১০ ফেব্রুয়ারি উলিপুর শহীদ মিনার চত্বরে শুভ উদ্বোধন হয়েছিল ২৮তম উলিপুর বই মেলা।উলিপুরের ঐতিহ্যবাহী স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান 'উলিপুর ফ্রেন্ডস ফেয়ার'র আয়োজনে কুড়িগ্রাম-৩ উলিপুর আসনের নব-নির্বাচিত এমপি সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা ৭ দিনব্যাপি ২৮তম উলিপুর বই মেলার ফিতা কেটে শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেছিলেন।

আরও খবর



মেহেরপুরে জীব বৈচিত্র হুমকীতে

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৮জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ,মেহেরপুরঃঅপার সৌন্ধর্যের লীলা ভূমি মেহেরপুরে জীব বৈচিত্র এখন হুমকীর মুখে। প্রকৃতি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে দোয়েল কোয়েল ঘুঘু চড়াইসহ নাম না জানা সব পাখি। প্রাকৃতিক পরিবেশ বিপর্যয়, বন বাদাড় ধ্বংস আর খাদ্য সংকটের কারণে জীব বৈচিত্রের উপর প্রভাব বিস্তার করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা। জীব বৈচিত্র রক্ষায় আধুনিক বনায়নের পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

সবুজ বনায়ন আর সৌন্ধর্যের মাঝে বসবাসে অভ্যস্ত দোয়েল কোয়েল ঘুঘু ময়না আর বুলবুলি। বছর বিশেক আগেও ঘন বনে বাস করা এসব পাখিদের দেখা মিলতো। কোকিলের কুহু তান আর কাটঠোকরার খটখট শব্দ সেই সাথে নাম জানা পাখিদের কিচির মিচির শব্দে মুখর ছিল গ্রাম বাংলার পরিবেশ। শালিক ফিঙে আর ইস্টিকুটুমের ঝগড়া ছিল নিত্য সঙ্গী। বনে বেড়ে ওঠা গাছের ফলমুল খেয়ে এবং নিরাপদ বংশ বিস্তার করতো। এখন আর নেই সেই চিত্র। অবাধে বিচরণ করতে না পেরে এলাকা থেকে হারিয়ে গেছে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি। বন বাদাড় উজাড় হওয়া ও নতুন নতুন বনায়ন সৃষ্টি না হওয়া ও কীটনাশকের অবাধ প্রয়োগের কারণে এসব জীব বৈচিত্র ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে।

গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক রমজান আলী জানান, এদিকে পর্যাপ্ত খাদ্যের অভাব ও নিরাপদ বনাঞ্চল না থাকায় বিলুপ্ত হচ্ছে বানর, হনুমান কাঠ বেড়ালী। ক্ষেত খামারে কীটনাশক ব্যবহারের কারণে খাবারের সন্ধ্যানে আসা পশু পাখির অকাল মৃত্যু হচ্ছে। তাছাড়া প্রজনন ক্ষমতাও হারাচ্ছে। তাছাড়া পশু পাখি শিকারীরাও অবাধে শিকার করছে এসব পশু পাখি। পাখি শিকার বন্ধের দাবী জানান প্রকৃতি প্রেমীরা।

ভাটপাড়া ইকো পার্কে বেড়াতে আসা গাংনী ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী আজমেরী ও রাফসান জানান, পাঠ্য পুস্তকে বিভিন্ন পাখির নাম শোনা যায়। অথচ সেগুলো আর চোখে দেখা যায় না। এসব পাখির অভয়ারণ্য সৃষ্টি করাসহ পাখি শিকার বন্ধের দাবী জানান শিক্ষার্থীরা।

পাখি প্রেমি কাথুলী গ্রামের ফিরোজ আলী জানান, জেলায় যে সকল দর্শনীয় স্থান রয়েছে সেখানে কৃত্রিমতায় ভরপুর। জীব বৈচিত্র রক্ষায় আধুনিক বনায়নের পরামর্শও দিয়েছেন পাখি প্রেমিরা। সেই সাথে ক্ষেত খামারে কীটনাশকের অপপ্রয়োগ বন্ধেরও দাবী জানান তারা।

পাখি বিষারদ মাজেদুল হক মানিক জানান, আগে সব জায়গায় ঘন জঙ্গল ছাড়াও বিভিন্ন প্রকার ফল গাছ ছিল। সেই সব গাছের ফল খেয়ে তারই শাখায় বাসা বেধে থাকতো বিভিন্ন প্রজাতির পাখি। অবাধে বনাঞ্চল ধ্বংস হওয়ায় এবং দেশী প্রজাতির গাছ না লাগানোর কারণে পাখিরা খাবার সংকট ও বংশ বিস্তার করতে পারছে না। ফলে জীব বৈচিত্র বিলুপ্ত হচ্ছে। পাখি রক্ষায় দেশীয় প্রজাতির গাছ রোপণের পরামর্শ দিলেন এই পাখি বিশারদ।

গাংনী উপজেলা ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা হামিম হায়দার জানান, জীব বৈচিত্র রক্ষায় নতুন নতুন বনভূমি সৃষ্টি ছাড়াও বাড়ি বাড়ি ফলজ গাছ রোপনের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়াও কোন বণ্য প্রাণি যাতে কেউ হত্যা বা শিকার না করতে পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রয়েছে বলে জানালেন উপজেলা বণ কর্মকর্তা।

বণ্যপ্রাণি তথা জীব বৈচিত্র রক্ষায় সব ধরণের ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা।


আরও খবর



রাণীশংকৈলে জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৫জন দেখেছেন

Image
মাহাবুব আলম রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় বুধবার (২১শে ফেব্রুয়ারি) জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষে রাত ১২-০১ মিনিটে রাণীশংকৈল ডিগ্রি কলেজ মাঠে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে উপজেলা প্রশাসন,পরিষদ,থানা,পৌরসভা,আ'লীগ,যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ,ছাত্রলীগ,প্রেসক্লাব (পুরাতন) প্রেসক্লাব বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন, জাতীয় পার্টি, ডিগ্রি কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষা ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। 

এ সময় সাবেক সংসদ সদস্য ইয়াসিন আলী , উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না, ইউএনও রকিবুল হাসান, আ'লীগ সভাপতি অধ্যাপক সইদুল হক,সম্পাদক তাজউদ্দিন আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল রানা ও শেফালী বেগম সহ বিভিন্ন নেতা-কর্মী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। 

সকালে একই মাঠে শহীদ মিনার চত্বরে ইউএনও'র সভাপতিত্বে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এসময় ইউএনও ছাড়াও আ'লীগ সভাপতি বক্তব্য দেন। 

বক্তব্য ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ইয়াসিন আলী, আ'লীগ সম্পাদক তাজউদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শেফালী বেগম, প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলাম, জাপা নেতা আবু তাহেরসহ বিভিন্ন নেতা-কর্মিরা উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনা করেন
উপসহকারি কৃষি অফিসার সাদেকুল ইসলাম। 

আলোচানা সভা শেষে অধ্যাপক সুকুমার চন্দ্র মোদকের পরিচালনায় রাণীশংকৈল সংগীত বিদ্যালয় ও ষড়জ শিল্পি গোষ্ঠীর শিল্পিরা আবৃত্তি ও সংগীত পরিবেশন করেন। পরে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদেরকে পুরষ্কার দেয়া হয়। 

আরও খবর