Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন সম্রাট

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৩৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দুদকের করা মামলায় আত্মসমর্পণ করেছেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট।

আত্মসমর্পণ ঘিরে আদালতের মূল ফটকের পাশাপাশি এজলাসের বাইরে ভিড় করেছেন তার সমর্থক ও দলের শতাধিক নেতাকর্মী।


মঙ্গলবার (২৪ মে) দুপুর ১২ টা ৩৫ মিনিটে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামানের আদালতে আত্মসমর্পণ করতে ঢোকেন সম্রাট।



সম্রাটের আত্মসমর্পণ করার কথা শুনে আদালত প্রাঙ্গণে ভিড় করেন তার সমর্থকরা। এজলাসের দরজায়ও ভিড় করেন অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী।



এজলাসের দরজায় অবস্থান করা ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের নেতা মো. বিপ্লব জানান, সম্রাট ভাই যুবলীগের একজন প্রিয় নেতা। তার প্রতি ভালোবাসার টানে এখানে এসেছি।


রমনা থানার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের যুবলীগের নেতা মোহাম্মদ আল-আমিন বলেন, ভাইকে দেখতে আসলাম আদালতে। তিনি অসুস্থ বেশ কয়েক দিন দেখা হয় না তাই আজকে আবার আসলাম দেখতে।



এসময় এজলাসের দরজায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।



আরও খবর



টিভিতে দেখুন আজকের খেলা

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

ফুটবল

উয়েফা নেশনস লিগ
লাটভিয়া-লিচেনস্টেইন
সরাসরি, রাত ১০টা
টেন টু

ক্রোয়েশিয়া-ফ্রান্স
সরাসরি, রাত ১২-৪৫ মিনিট
টেন ওয়ান

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
লিভারপুল-আর্সেনাল
পুনঃপ্রচার, দুপুর ১-৩০ মিনিট
স্টার স্পোর্টস সিলেক্ট টু

ক্রিকেট

আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে
দ্বিতীয় ওয়ানডে
সরাসরি, দুপুর ১টা
টি স্পোর্টস

রনজি ট্রফি
সরাসরি, সকাল ১০টা
স্টার স্পোর্টস ওয়ান


আরও খবর



বন্যার্তদের সহায়তায় মাঠে নামছে আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ১০৬জন দেখেছেন
Image

বন্যার্তদের জন্য সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করবে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। শনিবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়।

সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে দলের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি এ জরুরি বৈঠক ডাকে।

বৈঠকে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক এবং উপকমিটির সদস্য সচিব সুজিত রায় নন্দী বলেন, বন্যাকবলিত মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বন্যার্তদের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে সরকার ও আওয়ামী লীগ। এছাড়া দলটির অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও মাঠে রয়েছেন।

ক্ষতিগ্রস্ত নারী, পুরুষ ও শিশুদের রক্ষায় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির পক্ষ থেকে জরুরি ভিত্তিতে বন্যাকবলিত এলাকাগুলোতে নৌকা, ওরস্যালাইন, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও শুকনো খাবারসহ অন্যান্য জীবনরক্ষাকারী সামগ্রী পাঠানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় বৈঠকে।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে সহযোগিতা প্রদানের লক্ষ্যে বেশকিছু কমিটি গঠন করা হয়। আক্রান্ত উপজেলাগুলোতে দ্রুত ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির টিম সাহায্য নিয়ে যাবে। পাশাপাশি এই প্রাকৃতিক ও মানবিক বিপর্যয়ে সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তি ও সংগঠন পর্যায়ে সব সামর্থ্যবানদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

সুজিত রায় নন্দী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে জাতি আজ দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বসেরা। আওয়ামী লীগের রাজনীতি হচ্ছে মানবতার রাজনীতি, কল্যাণ সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের রাজনীতি। বন্যাসহ দেশের প্রতিটি সমস্যা মোকাবিলায় সরকার ও দল এক ও অভিন্নভাবে কাজ করছে। সিলেট ও সুনামগঞ্জে বানভাসি মানুষকে রক্ষায় সরকার ও দলের সার্বক্ষণিক তৎপরতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় এই শীর্ষ নেতা।

বৈঠকে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে সরাসরি পর্যবেক্ষণ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বন্যার্তদের জন্যে ৬০০ আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে হাজার হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। বন্যার্তদের উদ্ধার করে এসব আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে। দুর্গতদের উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও স্থানীয় প্রশাসন, বিজিবি ও আওয়ামী লীগ পরিবার। এছাড়া বন্যাকবলিত এলাকায় সেনাবাহিনীর পাশাপাশি নৌবাহিনীকেও প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্তদের জন্যে সরকারিভাবে ৩০ লাখ করে মোট ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ২০০ মেট্রিক টন চাল, আট হাজার করে শুকনো খাবারের প্যাকেট দেওয়া হয়েছে। যেখানে চাল, ডাল, তেল, চিনি ও মসলা রয়েছে। এছাড়াও সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতা এবং বন্যা মোকাবিলায় সব তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে সরকার।


আরও খবর



সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে আদমজী ইপিজেডের আগুন

প্রকাশিত:Friday ১৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জের আদমজী ইপিজেডে লাগা আগুন সাড়ে আট ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ইপিজেডের একটি নির্মাণাধীন ফ্যাক্টরির পাইলিংয়ের কাজ চলার সময় ওই আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শুক্রবার (১৭ জুন) সকাল সাড়ে ৭টায় আগুনের প্রাথমিক সূত্রপাত হলেও সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গ্যাসলাইন ফেটে বিস্ফোরণ হয়ে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এরপর সাড়ে আট ঘণ্টার চেষ্টায় বিকেল ৫টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন বলেন, আমাদের ইপিজেড, হাজীগঞ্জ ও মণ্ডলপাড়া স্টেশনসহ বিভিন্ন স্টেশনের ৯টি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছি। আগুনের সূত্রপাত পরে বলা যাবে। কোনো হতাহত নেই।

তিনি আরও বলেন, শুরুতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ না হওয়ায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। পরে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হওয়াতে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এখন ডাম্পিং চলছে।


আরও খবর



কোন বয়সে বিয়ে করলে আয়ু বাড়ে পুরুষের? জানালো গবেষণা

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৯৪জন দেখেছেন
Image

বিয়ে সবার জীবনেরই একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। তবে কোন বয়সে বিয়ে করা উচিত, তা জানা নেই অনেকেরই। যদিও প্রাপ্তবয়স্ক নারী-পুরুষ যে কোনো বয়সেই বিয়ে করতে পারেন।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, দাম্পত্য জীবন দীর্ঘস্থায়ী করতে নারীদের ২৫ ও পুরুষের ৩০ বছরের মধ্যেই বিয়ে করে নেওয়া জরুরি। তবে বিয়ের আগে অবশ্যই আর্থিক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত হতে হবে।

সাম্প্রতিক এক সমীক্ষা বলছে, একটি নির্দিষ্ট বয়সে বিয়ে করলে নাকি ছেলেদের আয়ু বাড়ে! হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষায় এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

১ লাখ ২৭ হাজার ৫৪৫ জন মার্কিন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের উপর চালানো হয় এই সমীক্ষা। এতে দেখা যায়, সুখী বিবাহিত পুরুষের আয়ু অনেকটাই বেশি।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, অনেক পুরুষের বিয়ের পর ডিভোর্স হয়ে গিয়েছে বা যার স্ত্রী মারা গিয়েছেন। আবার অনেক পুরুষ বিবাহিত জীবনে খুবই সুখী।

সুখী বিবাহিত পুরুষরা এই ডিভোর্সি ও একাকি পুরুষের চেয়ে অনেকটাই বেশি সুস্থ। এমনকি যাদের স্ত্রী নেই, তাদের থেকেও বেশি বছর বাঁচেন বিবাহিত পুরুষরা।

কোন বয়সে বিয়ে করলে পুরুষের আয়ু বাড়ে?

যেসব পুরুষ ২৫ বছর বয়সে বিয়ে করেন তারাই নাকি বেশি সুরক্ষিত। অন্যদিকে যারা এর চেয়েও কম বয়সে বিয়ে করেন, তাদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবতে হয়। আর অবিবাহিত পুরুষের থেকে বেশি সুখী বিবাহিত পুরুষরা। বেশিদিন বাঁচেন ও সুস্থ থাকেন তারা।

বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, বয়স যত কম থাকবে, মনের মতো সঙ্গী পাওয়ার সুযোগ ততই বাড়বে। তাই নারীদের মতোই পুরুষদের ক্ষেত্রেও ২৫ এর মধ্যে বিয়ে করলে মানানসই সঙ্গী পাওয়ার সুযোগ মিলবে বেশি।

সমীক্ষার তথ্য আরও জানাচ্ছে, যেসব পুরুষের শারীরিক সমস্যা আছে তারাও আগে বিয়ে করেন। তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের ঝুঁকিও কম থাকে। বিবাহবিচ্ছেদ হলেও আবার বিয়ে করার ইচ্ছে তাদের থাকে। অন্যদিকে সুস্থ বা যার কোনো শারীরিক সমস্যা নেই, তার ক্ষেত্রে এসব বিষয় তুলনামূলক কম।

বিয়ে করলেই কি সুস্থ থাকা যায়?

জাপানের বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, বিবাহিত পুরুষদের চেয়ে অবিবাহিত পুরুষের হৃদরোগের ঝুঁকি ৩ গুণ বেশি থাকে। অন্যদিকে বিবাহিত পুরুষের ডিপ্রেশনের ঝুঁকি কম থাকে সিঙ্গেলদের তুলনায়।

এমনকি বিবাহিত জীবনে সুখী হলে রক্তে শর্করার পরিমাণ ঠিক থাকে ও রক্তচাপজনিত সমস্যাও নিয়ন্ত্রণে থাকে। আসলে বিবাহিত জীবন সুখী হলে জীবনে দুশ্চিন্তাও কম থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে, জীবন নিয়ে যে যতটা সন্তুষ্ট থাকবেন, ততটাই তার বাড়বে আয়ু।

সূত্র: হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়


আরও খবর



‘নারীর প্রতি সহিংসতা রোধের আন্দোলনে সবাই শামিল হোন’

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধের আন্দোলনে সবাইকে শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক নারীকে নিপীড়নের প্রতিবাদে ও নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এই আহ্বান জানানো হয়।

রোববার (১২ জুন) বিকেলে সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ‘আসুন নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলি’ স্লোগানে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

গত বুধবার (৮ জুন) দিবাগত রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নীলক্ষেত এলাকায় এক নারী নিপীড়নের শিকার হয়েছেন বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। ওই ঘটনায় শাহবাগ থানায় একটি মামলাও করা হয়। সেই ঘটনার প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করে সংগঠনটি।

এসময় বক্তারা নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সবাইকে নির্বিকার মনোভাব পরিহার করে সোচ্চার হতে বলেন। সহিংসতার ঘটনায় প্রকৃত অপরাধীকে চিহ্নিত করে তাকে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাসহ সব জায়গায় নিরাপদে ও স্বাধীনভাবে নারীর চলাচল নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা। পাশাপাশি যৌন হয়রানি, নিপীড়নসহ নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশনা অনুসারে পৃথক আইন প্রণয়নের দাবি জানান বক্তারা।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম বলেন, করোনাকালীন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও নারীর প্রতি সহিংসতা থেকে আমরা কোনোভাবেই মুক্ত হতে পারছি না। নারীদের প্রতি যারা ক্রমাগত অশোভন আচরণ করছে, তাদের সমাজের কাছে লজ্জিত হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, সব পুরুষ নারীকে অসম্মানের চোখে দেখে বিষয়টি এমন নয়। গুটিকয়েক পুরুষ যারা নারীকে অধঃস্তন ভেবে সহিংসতা, যৌন হয়রানি ও হেনস্তা করছে তাদের আইনের আওতায় এনে দ্রুত বিচার নিশ্চিত করতে হবে। নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধের আন্দোলনে সবাইকে শামিল হওয়ার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর নারীর জন্য নিরাপদ হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বানও জানান তিনি।

ডা. ফওজিয়া মোসলমের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড লবি পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) অ্যাড. দীপ্তি সিকদার সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদা রেহানা বেগম, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড সম্পাদক রেখা সাহা, আন্দোলন সম্পাদক রাবেয়া খাতুন শান্তি, ঢাকা মহানগর কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক মঞ্জু ধর, কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপ-পরিষদের সদস্য ডা. নাহিদ নবী লেনা, সিনিয়র আইনজীবি অ্যাডভোকেট রাম লাল রাহা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী রিদিয়া রাকা, ইডেন কলেজের শিক্ষার্থী নির্জনা ভূঁইয়া।

এসময় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ, জাতীয় পরিষদ সদস্য, ঢাকা মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং সংগঠনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে ১১টি দাবি তুলে ধরেন অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড লবি পরিচালক জনা গোস্বামী। দাবিগুলো হলো-

১. এই সমাবেশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানায় এবং অবিলম্বে নির্যাতকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায়।

২. নারী ও কন্যার প্রতি যৌন নিপীড়নসহ সব ধরনের সহিংসতা ও নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

৩. নারীদের উত্ত্যক্তকররণ, যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন, ধর্ষণ, গণধর্ষণ, হত্যা, অ্যাসিড নিক্ষেপের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

৪. নারীর স্বাধীন চলাচলে নিরাপত্তা দিতে হবে।

৫. নারী-পুরুষ নির্বিশেষে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধভাবে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে অপরাধ ও সন্ত্রাসমুক্ত নিরাপদ সমাজ গঠনে এগিয়ে আসতে হবে।

৬. নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে পারিবারিক মূল্যবোধ গড়ে তোলা এবং ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার নারীকে দায়ী করার মানসিকতা পরিহার করতে হবে।

৭. উত্ত্যক্তকরণ, যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন রোধে মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের আলোকে পৃথক আইন প্রণয়ন করতে হবে।

৮. ধর্ষণসহ নারীর প্রতি যৌন সহিংসতা বন্ধে সরকারের ঘোষিত নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের বাস্তবায়ন দৃশ্যমান করতে হবে।

৯. কর্মক্ষেত্র ও রাস্তাঘাট, গণপরিবহনসহ ঘরে-বাইরে সবখানে নারী ও কন্যার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

১০. নারীর প্রতি প্রচলিত নৈতিবাচক প্রথা ও রীতিনীতি অভ্যাস পরিবর্তনের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিরবিচ্ছিন্ন প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে।

১১. সমাবেশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব বিশ্ববিদ্যালয় সিসি ক্যামেরার আওতায় এনে নিয়মিত মনিটরিং করতে হবে।


আরও খবর